alt

অর্থ-বাণিজ্য

করোনাকালে অনলাইনে পণ্য বিক্রি ৯০ হাজার কোটি ডলারের

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
শুক্রবার, ০৯ এপ্রিল ২০২১

করোনা মহামারির সময় নিত্যপ্রয়োজনীয় মুদি পণ্য থেকে শুরু করে বাগান করার জিনিসপত্র সবকিছুই অনলাইন থেকে কেনাকাটা করেছেন ভোক্তারা। ঘরে বসে অনলাইনে কেনাকাটায় বিশ্বজুড়ে ভোক্তাদের ব্যয় হয়েছে ৯০ হাজার কোটি ডলার। আন্তর্জাতিক পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানি মাস্টারকার্ডের ‘রিকভারি ইনসাইটস’ প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০২০ সালে বিশ্বব্যাপী অনলাইনে কেনাকাটায় ভোক্তারা বাড়তি ৯০ হাজার কোটি ডলার ব্যয় করেছেন। ২০২০ সালে ভোক্তার কেনাকাটায় প্রতি ৫ ডলারের ১ ডলার ব্যয় হয়েছে ই-কমার্সে। ২০১৯ সালে যেটি ছিল প্রতি ৭ ডলারে ১ ডলার। মহামারীর কারণে ‘ইন-পারসন’ বা সশরীরে উপস্থিতি বিঘ্নিত হওয়ায় রিটেইল বা খুচরা বিক্রেতা, রেস্তোরাঁ ও অন্যান্য বড়-ছোট ব্যবসার ক্ষেত্রেও সেবাদাতারা অনলাইনে ভোক্তাদের কাছে পণ্য বা সেবা পৌঁছে দিয়েছেন।

রিকভারি ইনসাইটের মতে, করোনা মহামারীর কারণে ডিজিটাল খাতে নতুন করে সম্পৃক্ত হওয়া ২০ থেকে ৩০ শতাংশ নতুন ব্যবস্থা বা উদ্যোগ স্থায়ী হতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাস্টারকার্ডের নেটওয়ার্কে বেনামে ও অতিরিক্ত বিক্রির তৎপরতা চিহ্নিত করা গেছে এবং ‘মাস্টারকার্ড ইকোনমিক্স ইনস্টিটিউট’ সংশ্লিষ্ট মালিকানা বিশ্লেষণে কাজ করেছে। পরিবর্তনীয় এ বিষয়টি বিভিন্ন দেশ, খাত, পণ্য বা সেবার ক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরে বা বাইরে কী ধরনের প্রভাব ফেলছে তা এ বিশ্লেষণে উঠে এসেছে।

এ বিষয়ে মাস্টারকার্ডের চিফ ইকোনমিস্ট ও হেড অব দ্য মাস্টারকার্ড ইকোনমিক্স ইনস্টিটিউট ব্রিকলিন ডাওয়ের বলেন, ‘যখন ভোক্তারা ঘরে আবদ্ধ থাকছেন ই-কমার্স ব্যবস্থার কারণে তখনও তাদের অর্থ বহুদূর পরিভ্রমণ করছে। এটির তাৎপর্যপূর্ণ কার্যকরণ রয়েছে। যেসব দেশ বা কোম্পানি ডিজিটাল খাতকে গুরুত্ব দিয়েছে তারা দ্রুত সুবিধা নিতে পেরেছে। আমাদের বিশ্লেষণে দেখা যায় এমনকি খুব ছোট ব্যবসাও ডিজিটাল সেবায় গিয়ে প্রসার ঘটাতে পারে। যদিও ভৌগোলিক, অর্থনৈতিক ও পারিবারিক পার্থক্যকরণের কারণে ডিজিটাল রূপান্তর সর্বজনীন বা ধ্রুব নয়। তবে এ রিপোর্টে কিছু বহুল প্রচলিত ট্রেন্ড বা প্রবণতা উঠে এসেছে।

ছবি

উৎপাদনশীলতা বাড়াতে আধুনিক শিল্প পার্ক স্থাপনের বিকল্প নেই : শিল্পমন্ত্রী

সব ব্যবসায়ীকে ১৩ সংখ্যার বিআইএন নিতে হবে

ছবি

ঈদের বাজারে মসলার আমদানি বেড়েছে

বৈষম্য-অসমতা দূর করতে বিশ্বায়ন নয় দেশজায়নে গুরুত্বারোপ অর্থনীতিবিদদের

জেনেক্স ইনফোসিসের আয় হবে ২২ কোটি

৭শ’ এর বেশি তৈরিপোশাক প্রতিষ্ঠান নিয়ে কাজ করছে সেরাই

সাত হাজার পরিবারকে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করলো স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড ব্যাংক

৭ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন বেড়েছে শেয়ারবাজারে

গ্রাহকের টাকা ব্যবহার করতে পারবে না মোবাইল ব্যাংক প্রতিষ্ঠানগুলো

ভারত থেকে প্রথমবার ট্রেনে চাল আমদানি

এবার জুরিখ ও মস্কোতে ‘রোড শো’ করবে বিএসইসি

নতুন শেয়ারের শুরুতেই স্বাভাবিক সার্কিট ব্রেকার আরোপ

তামাক-কর বৃদ্ধির জন্য ১২১ জন চিকিৎসকের বিবৃতি

বিসিক স্কিটিতে চলছে সপ্তাহব্যাপী উদ্যোক্তা মেলা

ছবি

শখের অনলাইন ব্যবসায় সাবলম্বী কারিশমা

ছবি

সবজির বাজার স্থিতিশীল, বেড়েছে মুরগির দাম

বিদেশ থেকে প্রচুর বিনিয়োগ আসার সম্ভাবনা রয়েছে : বিএসইসি চেয়ারম্যান

‘নগদ’-এর মাধ্যমে মুহূর্তেই দেয়া যাবে জাকাত-ফিতরা

ঈদের ছুটিতে কর্মস্থল ছাড়তে পারবে না ব্যাংক কর্মীরা

দুই মাস পর ডিএসইএক্স ৫৬০০ পয়েন্টের ঘরে

ছবি

শ্রমজীবী মানুষের সামাজিক নিরাপত্তা ও অধিকার সুরক্ষার আহ্বান

টিসিবির পণ্য বিক্রির সময় বাড়ল ৩ দিন

বিআরটিএ-তে বিশেষ ব্যবস্থায় গাড়ির রেজিস্ট্রেশন চায় বারভিডা

বীমা খাত উন্নয়নে ছয় দাবি বিআইএ’র

ছবি

করোনার প্রভাব : এক বছরে ৬২ শতাংশ মানুষ কর্মহীন

ছবি

জুন পর্যন্ত গণপূর্তের নতুন কোন প্রকল্প অনুমোদন নয় : অর্থমন্ত্রী

৯৪ শতাংশ মানুষ প্রযুক্তিভিত্তিক লেনদেনের কথা ভাবছেন

কালো টাকা সাদা করার সুযোগ না দেয়ার পরামর্শ অর্থনীতিবিদদের

জেলায় সর্বোচ্চ একটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান খোলা রাখা যাবে

উদ্যোক্তাদের সহযোগিতা করতে এসএমই ফাউন্ডেশনের হেল্প ডেস্ক চালু

‘ঈদ মেগা সেল’-এ বিশেষ ছাড় ওয়ালটনের স্মার্ট, এলইডি টিভি

ছবি

ভ্যাকসিন না দিলে টাকা ফেরত দেবে সেরাম

ছবি

করোনা ভ্যাকসিন উৎপাদন করতে চায় ওরিয়ন ফার্মা

ছবি

ব্যবসায়ীদের আশঙ্কা, ঈদে বেচাকেনা অর্ধেকের নিচে নেমে আসবে

ছবি

বেআইনিভাবে শ্রমিক ছাঁটাইয়ের প্রতিবাদে বিক্ষোভ

বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ৪৫ দশমিক ১০ বিলিয়ন ডলার

tab

অর্থ-বাণিজ্য

করোনাকালে অনলাইনে পণ্য বিক্রি ৯০ হাজার কোটি ডলারের

সংবাদ :
  • অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক
শুক্রবার, ০৯ এপ্রিল ২০২১

করোনা মহামারির সময় নিত্যপ্রয়োজনীয় মুদি পণ্য থেকে শুরু করে বাগান করার জিনিসপত্র সবকিছুই অনলাইন থেকে কেনাকাটা করেছেন ভোক্তারা। ঘরে বসে অনলাইনে কেনাকাটায় বিশ্বজুড়ে ভোক্তাদের ব্যয় হয়েছে ৯০ হাজার কোটি ডলার। আন্তর্জাতিক পেমেন্ট গেটওয়ে কোম্পানি মাস্টারকার্ডের ‘রিকভারি ইনসাইটস’ প্রতিবেদনে এসব কথা বলা হয়েছে।

প্রতিবেদনে দেখা গেছে, ২০২০ সালে বিশ্বব্যাপী অনলাইনে কেনাকাটায় ভোক্তারা বাড়তি ৯০ হাজার কোটি ডলার ব্যয় করেছেন। ২০২০ সালে ভোক্তার কেনাকাটায় প্রতি ৫ ডলারের ১ ডলার ব্যয় হয়েছে ই-কমার্সে। ২০১৯ সালে যেটি ছিল প্রতি ৭ ডলারে ১ ডলার। মহামারীর কারণে ‘ইন-পারসন’ বা সশরীরে উপস্থিতি বিঘ্নিত হওয়ায় রিটেইল বা খুচরা বিক্রেতা, রেস্তোরাঁ ও অন্যান্য বড়-ছোট ব্যবসার ক্ষেত্রেও সেবাদাতারা অনলাইনে ভোক্তাদের কাছে পণ্য বা সেবা পৌঁছে দিয়েছেন।

রিকভারি ইনসাইটের মতে, করোনা মহামারীর কারণে ডিজিটাল খাতে নতুন করে সম্পৃক্ত হওয়া ২০ থেকে ৩০ শতাংশ নতুন ব্যবস্থা বা উদ্যোগ স্থায়ী হতে পারে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, মাস্টারকার্ডের নেটওয়ার্কে বেনামে ও অতিরিক্ত বিক্রির তৎপরতা চিহ্নিত করা গেছে এবং ‘মাস্টারকার্ড ইকোনমিক্স ইনস্টিটিউট’ সংশ্লিষ্ট মালিকানা বিশ্লেষণে কাজ করেছে। পরিবর্তনীয় এ বিষয়টি বিভিন্ন দেশ, খাত, পণ্য বা সেবার ক্ষেত্রে দেশের অভ্যন্তরে বা বাইরে কী ধরনের প্রভাব ফেলছে তা এ বিশ্লেষণে উঠে এসেছে।

এ বিষয়ে মাস্টারকার্ডের চিফ ইকোনমিস্ট ও হেড অব দ্য মাস্টারকার্ড ইকোনমিক্স ইনস্টিটিউট ব্রিকলিন ডাওয়ের বলেন, ‘যখন ভোক্তারা ঘরে আবদ্ধ থাকছেন ই-কমার্স ব্যবস্থার কারণে তখনও তাদের অর্থ বহুদূর পরিভ্রমণ করছে। এটির তাৎপর্যপূর্ণ কার্যকরণ রয়েছে। যেসব দেশ বা কোম্পানি ডিজিটাল খাতকে গুরুত্ব দিয়েছে তারা দ্রুত সুবিধা নিতে পেরেছে। আমাদের বিশ্লেষণে দেখা যায় এমনকি খুব ছোট ব্যবসাও ডিজিটাল সেবায় গিয়ে প্রসার ঘটাতে পারে। যদিও ভৌগোলিক, অর্থনৈতিক ও পারিবারিক পার্থক্যকরণের কারণে ডিজিটাল রূপান্তর সর্বজনীন বা ধ্রুব নয়। তবে এ রিপোর্টে কিছু বহুল প্রচলিত ট্রেন্ড বা প্রবণতা উঠে এসেছে।

back to top