alt

খেলা

আরও একবার কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা

সংবাদ :
  • স্পোর্টস ডেস্ক
image
রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১

বার্সেলোনা ১৩ মিনিটের এক ঝড়ে অ্যাটলেটিক ক্লাব বিলবাওয়ের বিপক্ষে চার গোল করে কোপা দেল রে’র ২০২০-২১ মৌসুমের শিরোপা জয় করেছে। বার্সেলোনার এটা ৩১তম কোপা দেল রে শিরোপা। তারা ২০১৭-১৮ মৌসুমের পর এই প্রথম কোপা দেল রে জিতলো। কোচ রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে এটা বার্সেলোনার প্রথম ট্রফি জয়। এ জয়ে মূখ্য ভুমিকা পালন করেছেন লিওনেল মেসি। চার গোলের মধ্যে দুটিই করেছেন তিনি। এছাড়া তৃতীয় গোলেও রয়েছে তার অবদান। একটি করে গোল করেন অ্যান্টনি গ্রিজম্যান এবং ডি ইয়ং।

অ্যাটলেটিক ক্লাব প্রথমার্ধে দারুনভাবে খেলে বার্সেলোনার সব আক্রমন রুখে দেয়। তখন মনে হয়েছিল বার্সেলোনার সামনে আরেকটি হতাশার দিন অপেক্ষা করছে হয়তো। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে পরিস্থিতি বদলে যায়। খেলার বয়স ঠিক এক ঘন্টা হওয়ার এক মিনিট আগে বিলবাওয়ের প্রতিরোধ ভাঙ্গেন গ্রিজম্যান। এর অল্প পরেই ব্যবধান দ্বিগুন করেন ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ং। বার্সেলোনার হয়ে শেষ দুটি গোল করেন মেসি।

ফাইনালের জন্য বার্সেলোনার কোচ কোম্যান শক্তিশালী একাদশই মাঠে নামান। তিন জন ডিফেন্ডার হিসেবে তিনি খেলান অস্কার মিনগেজা, জেরার্ড পিকে এবং ক্লেমেন্ত লেংলেকে। এর ফলে সার্জিনো ডেস্ট এবং জর্দি অ্যালবা খেলেন উইং ব্যাক হিসেবে। তারা বার্সেলোনার আক্রমনের সময়ে ওভারল্যাপ করে উপরে উঠে আক্রমণে সহায়তা করেন। আক্রমণভাগে দুই জন খেলোয়াড় খেলানোয় একাদশ থেকে বাদ পড়েন ওসমানে ডেম্বেলে। ফাইনালে যেহেতু জেতার কোন বিকল্প নেই সেহেতু একেবারে শুরু থেকেই আক্রমণে ঝাপিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। ৫ মিনিটের মধ্যেই তারা গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে। কিন্তু ডি ইয়ংয়ের শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। অপর দিকে সুযোগ সৃষ্টি করেছিল বিলবাও। ফ্রি কিকে ইনিগো মার্টিনেজ ঠিক মতো সংযোগ ঘটাতে না পারায় সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেননি। এ সময় তার সামনে ছিলেন কেবল বার্সেলোনার গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টার স্টেগেনে। বিলবাওয়ের কৌশল ছিল মেসিকে অকার্যকর করে রাখা। যে কারণে তাকে তিন জন খেলোয়াড় পাহারা দিয়েছেন। এর ফলে ফ্রি হিসেবে আক্রমণে সহায়তা করার সুযোগ পান ডেস্ট এবং মিনগেজা। যদিও এ ক্ষেত্রে তারা খুব একটা কার্যকর ছিলেন না। তবে দ্বিতীয়ার্ধে পরিস্থিতি বদলে যায়। এ অর্ধের শুরুর দিকেই গ্রিজম্যানকে গোল বঞ্চিত করেন গোলরক্ষক উনাই সিমন। ডি ইয়ংয়ের ক্রস থেকে ৫৯ মিনিটে গোল করেন গ্রিজম্যান। এ গোল যেন বিলবাওয়ের সব প্রতিরোধ ভেঙ্গে দেয়। তিন মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুন করেন ডি ইয়ং। অ্যালবার নিচু বাকানো ক্রস থেকে তিনি গোলটি করেন হেডে। তৃতীয় গোলটি করেন মেসি। এটি আসে মেসি ও ডি ইয়ংয়ের মধ্যে দেয়া নেয়া করে তৈরী করা আক্রমণ থেকে। অ্যালবার কাট ব্যাক থেকে ম্যাচের শেষ গোলটি করেন মেসি। চার গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর আর বার্সেলোনার জয় নিয়ে কোন সংশয় ছিল না। শিরোপা জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর কোচ সার্জি রবার্তো, ইলাইক্স, রোনাল্ড আরাওহো, ডেম্বেলে এবং মার্টিন ব্রেথওয়েটকে মাঠে নামান বদলি খেলোয়াড় হিসেবে। শেষ ১৫ মিনিট বার্সেলোনা আর কোন গোল করতে না পারলেও দাপটের সাথে খেলেই শেষ করে এবং শিরোপা জয়ের উল্লাসে মেতে ওঠে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে লা লিগার শিরোপার পর এটাই বার্সেলোনার উল্লেখযোগ্য কোন ট্রফি জয়।

ছবি

বার্সেলোনা-অ্যাটলেটিকো ড্র করে দারুন সুযোগ দিয়েছে রিয়ালকে

ছবি

পিএসজির সাথে চুক্তি নবায়ন করছেন নেইমার

ছবি

ইউভেন্টাসের কোচ হতে পারেন জিদান!

ছবি

হ্যাজার্ডকে বিক্রি করে দেবে রিয়াল

ছবি

করোনায় প্রাণ হারালেন ভারতীয় ক্রিকেটার

ছবি

ওয়ানডে সিরিজকে সামনে রেখে দলগত অনুশীলন শুরু

ছবি

দেশে ফিরলেন সাকিব-মুস্তাফিজ, থাকবেন ১৪ দিনের কোয়ারেন্টিনে

ছবি

নিষ্প্রভ রিয়ালকে হারিয়ে ফাইনালে চেলসি

ছবি

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হতে পারে আরব আমিরাতে

ছবি

পিএসজিকে বিদায় করে প্রথমবার ফাইনালে ম্যানসিটি

ছবি

ম্যানইউ বিক্রি করবে না গ্যাজলার পরিবার

ছবি

অর্নিদিষ্টকালের জন্য আইপিএল স্থগিত

ছবি

মেসির বাড়ির বারবিকিউ পার্টিতে বার্সেলোনার খেলোয়াড়রা

ছবি

শেষ টেস্টে বড় হার বাংলাদেশের

ছবি

বড় ব্যবধানে পরাজয়ের শঙ্কায় বাংলাদেশ

ছবি

ভ্যালেন্সিয়াকে হারিয়ে আশা বাচিয়ে রাখলো বার্সেলোনা

পরাজয়ের দ্বারপ্রান্তে টাইগাররা

ছবি

লঙ্কানদের ৯ উইকেট নিয়ে ৪৩৭ রানের লক্ষ্য পেল বাংলাদেশ

ছবি

ওসাসুনাকে হারিয়ে শিরোপার লড়াইয়ে টিকে রইলো রিয়াল

ছবি

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ওয়ানডে দল ঘোষণা, চমক ইমরুল

ছবি

তৃতীয় দিন শেষে ২৫৯ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ

ছবি

আবারও নড়বড়ে নব্বইয়ে আউট তামিম

ছবি

রামোস-ভারানে এক দশকের জুটি ভেঙ্গে যাচ্ছে!

ছবি

তামিমের ফিফটি, শুভসূচনা বাংলাদেশের

দ্বিতীয় দিনে শ্রীলঙ্কার পাঁচ উইকেটের পতন

ছবি

তাসকিনের আগুন, তাইজুলের ঘূর্ণিতে সেশন জিতল বাংলাদেশ

ছবি

গ্রানাডার কাছে নাটকীয়ভাবে হেরে গেছে বার্সেলোনা

ছবি

টাইগারদের ক্যাচ মিসে করুনারত্নে-থিরিমানের রেকর্ড

করুণারত্নে -থিরিমানের সেঞ্চুরিতে শ্রীলঙ্কার দিন

ছবি

পিএসজির শৈথিল্য কাজে লাগিয়ে ম্যানসিটির দারুন জয়

ছবি

বেনজামার গোলে আশা বাচিয়ে রেখেছে রিয়াল

ছবি

বায়ার্নের কোচ হচ্ছেন নাগেলসম্যান

ছবি

আইপিএল বন্ধ করুন, অক্সিজেন কিনে মানুষের জীবন বাঁচান

ছবি

বিলবাওয়ের কাছে হেরে বড় ধাক্কা খেলো অ্যাটলেটিকো

ছবি

ড্র হওয়া ক্যান্ডি টেস্টেও আছে অনেক স্বস্তি

ড্র হলো পাল্লেকেলে টেস্ট

tab

খেলা

আরও একবার কোপা দেল রে চ্যাম্পিয়ন বার্সেলোনা

সংবাদ :
  • স্পোর্টস ডেস্ক
image
রোববার, ১৮ এপ্রিল ২০২১

বার্সেলোনা ১৩ মিনিটের এক ঝড়ে অ্যাটলেটিক ক্লাব বিলবাওয়ের বিপক্ষে চার গোল করে কোপা দেল রে’র ২০২০-২১ মৌসুমের শিরোপা জয় করেছে। বার্সেলোনার এটা ৩১তম কোপা দেল রে শিরোপা। তারা ২০১৭-১৮ মৌসুমের পর এই প্রথম কোপা দেল রে জিতলো। কোচ রোনাল্ড কোম্যানের অধীনে এটা বার্সেলোনার প্রথম ট্রফি জয়। এ জয়ে মূখ্য ভুমিকা পালন করেছেন লিওনেল মেসি। চার গোলের মধ্যে দুটিই করেছেন তিনি। এছাড়া তৃতীয় গোলেও রয়েছে তার অবদান। একটি করে গোল করেন অ্যান্টনি গ্রিজম্যান এবং ডি ইয়ং।

অ্যাটলেটিক ক্লাব প্রথমার্ধে দারুনভাবে খেলে বার্সেলোনার সব আক্রমন রুখে দেয়। তখন মনে হয়েছিল বার্সেলোনার সামনে আরেকটি হতাশার দিন অপেক্ষা করছে হয়তো। কিন্তু দ্বিতীয়ার্ধে পরিস্থিতি বদলে যায়। খেলার বয়স ঠিক এক ঘন্টা হওয়ার এক মিনিট আগে বিলবাওয়ের প্রতিরোধ ভাঙ্গেন গ্রিজম্যান। এর অল্প পরেই ব্যবধান দ্বিগুন করেন ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ং। বার্সেলোনার হয়ে শেষ দুটি গোল করেন মেসি।

ফাইনালের জন্য বার্সেলোনার কোচ কোম্যান শক্তিশালী একাদশই মাঠে নামান। তিন জন ডিফেন্ডার হিসেবে তিনি খেলান অস্কার মিনগেজা, জেরার্ড পিকে এবং ক্লেমেন্ত লেংলেকে। এর ফলে সার্জিনো ডেস্ট এবং জর্দি অ্যালবা খেলেন উইং ব্যাক হিসেবে। তারা বার্সেলোনার আক্রমনের সময়ে ওভারল্যাপ করে উপরে উঠে আক্রমণে সহায়তা করেন। আক্রমণভাগে দুই জন খেলোয়াড় খেলানোয় একাদশ থেকে বাদ পড়েন ওসমানে ডেম্বেলে। ফাইনালে যেহেতু জেতার কোন বিকল্প নেই সেহেতু একেবারে শুরু থেকেই আক্রমণে ঝাপিয়ে পড়ে বার্সেলোনা। ৫ মিনিটের মধ্যেই তারা গোলের সুযোগ সৃষ্টি করে। কিন্তু ডি ইয়ংয়ের শট পোস্টে লেগে প্রতিহত হয়। অপর দিকে সুযোগ সৃষ্টি করেছিল বিলবাও। ফ্রি কিকে ইনিগো মার্টিনেজ ঠিক মতো সংযোগ ঘটাতে না পারায় সুযোগটি কাজে লাগাতে পারেননি। এ সময় তার সামনে ছিলেন কেবল বার্সেলোনার গোলরক্ষক মার্ক আন্দ্রে টার স্টেগেনে। বিলবাওয়ের কৌশল ছিল মেসিকে অকার্যকর করে রাখা। যে কারণে তাকে তিন জন খেলোয়াড় পাহারা দিয়েছেন। এর ফলে ফ্রি হিসেবে আক্রমণে সহায়তা করার সুযোগ পান ডেস্ট এবং মিনগেজা। যদিও এ ক্ষেত্রে তারা খুব একটা কার্যকর ছিলেন না। তবে দ্বিতীয়ার্ধে পরিস্থিতি বদলে যায়। এ অর্ধের শুরুর দিকেই গ্রিজম্যানকে গোল বঞ্চিত করেন গোলরক্ষক উনাই সিমন। ডি ইয়ংয়ের ক্রস থেকে ৫৯ মিনিটে গোল করেন গ্রিজম্যান। এ গোল যেন বিলবাওয়ের সব প্রতিরোধ ভেঙ্গে দেয়। তিন মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুন করেন ডি ইয়ং। অ্যালবার নিচু বাকানো ক্রস থেকে তিনি গোলটি করেন হেডে। তৃতীয় গোলটি করেন মেসি। এটি আসে মেসি ও ডি ইয়ংয়ের মধ্যে দেয়া নেয়া করে তৈরী করা আক্রমণ থেকে। অ্যালবার কাট ব্যাক থেকে ম্যাচের শেষ গোলটি করেন মেসি। চার গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর আর বার্সেলোনার জয় নিয়ে কোন সংশয় ছিল না। শিরোপা জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ার পর কোচ সার্জি রবার্তো, ইলাইক্স, রোনাল্ড আরাওহো, ডেম্বেলে এবং মার্টিন ব্রেথওয়েটকে মাঠে নামান বদলি খেলোয়াড় হিসেবে। শেষ ১৫ মিনিট বার্সেলোনা আর কোন গোল করতে না পারলেও দাপটের সাথে খেলেই শেষ করে এবং শিরোপা জয়ের উল্লাসে মেতে ওঠে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে লা লিগার শিরোপার পর এটাই বার্সেলোনার উল্লেখযোগ্য কোন ট্রফি জয়।

back to top