alt

ক্যাম্পাস

ঢাবির ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে পরীক্ষার ফলে অসংগতি

দুই অধ্যাপককে অব্যাহতির সুপারিশ

খালেদ মাহমুদ ঢাবি প্রতিনিধি : মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে ইচ্ছাকৃতভাবে পরীক্ষার খাতায় নম্বর কম দেওয়ার অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় দুই অধ্যাপককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে তিন বছরের জন্য অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত দুই অধ্যাপক হচ্ছেন ওই বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন এবং বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুস সবুর খান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত দুই অধ্যাপকের তৈরি করা ফলাফলে অসঙ্গতির অভিযোগ উঠেছিল ২০১৮ সালে। ওই সময় ফলাফলে অনাস্থা এনে ফল পুন:নীরিক্ষণের দাবি জানায় বিভাগের ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। পরে অভিযোগ আমলে নিয়ে পুন:নীরিক্ষিত ফলাফলে ১১ শিক্ষার্থীর চারটি কোর্সের ৩২ স্থানে প্রাপ্ত নম্বরের কমবেশি করার প্রমাণ মেলে। পূর্ব থেকে জমে থাকা কোনো ক্ষোভ ও মনোমালিণ্য থেকে ইচ্ছাকৃতভাবে ফলাফলে অসঙ্গতি হয়েছে বলে তখন অভিযোগ উঠেছিলো।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ডিন(ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় তিন বছরের জন্য দুই অধ্যাপককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করে।

পরবর্তীতে অধিকতর তদন্তের স্বার্থে কলা অনুষদের বর্তমান ডিন অধ্যাপক আবু মোঃ দেলোয়ার হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিও তদন্তের মাধ্যমে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় পুনরায় উপাচার্যের নিকট তিন বছরের জন্য দুই শিক্ষককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আসলে তার বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হয়। এর আগে এমন অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষকের চাকরিচ্যুতির দৃষ্টান্তও রয়েছে।

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন এ বিষয়ে সংবাদকে বলেন, "এ বিষয়ে আমার জানা নেই। আমি এ পরীক্ষা কমিটির সভাপতিও ছিলাম না"।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, "ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সবকিছু নিয়ম-নীতির মধ্য দিয়ে হয়। যখন যে ফোরামে দরকার তখন সেখানে সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।"

ছবি

কর্মসূচিতে বাধা : ঢাবিতে ফের সংঘর্ষে ছাত্রলীগ-ছাত্রদল

ছবি

ঢাবিতে ফের ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষে আতঙ্কে সাধারণ শিক্ষার্থীরা

ছবি

সাংবাদিককে পিটিয়ে মোবাইল ছিনতাই করেছে ছাত্রলীগ

ছবি

ছাত্রদলের নেতাকর্মীদের ঢাবি ক্যাম্পাসে ঢুকতে না দেয়ার পরিকল্পনা ছাত্রলীগের

ছবি

ছাত্রলীগ-ছাত্রদল সংঘর্ষের ঘটনায় মামলা ঢাবি প্রশাসনের

ছবি

ঢাবিতে সালাম না দেওয়ায় ছাত্রলীগের থাপ্পড় খেয়ে কানের শ্রবণশক্তি হারালো শিক্ষার্থী

ছবি

ছাত্রদলের দুই নেতাকে ড্রেনে রেখে পেটালো ছাত্রলীগ

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলের উপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ৪০

ছবি

ঢাবিতে ছাত্রদলের ওপর ছাত্রলীগের হামলা, আহত ২

বিএসএমএমইউতে বিশ্বআইবিডি ও নার্স দিবস পালিত

ঢাবিতে সাংবাদিকের ওপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা

ছবি

ঢাবিতে সাংবাদিকের উপর চড়াও হলেন ছাত্রলীগ নেতা পুতুল

ছবি

বিএসএমএমইউতে শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস পালিত

ছবি

নজরুল বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষামন্ত্রীর আগমণকে কেন্দ্র করে শিক্ষকদের দুই পক্ষের বাকবিতন্ডা

ছবি

হলের ছাদ থেকে পড়ে জাবি শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

১৭ তম নজরুল বিশ্ববিদ্যালয় দিবস: শিক্ষা, গবেষণা ও উন্নয়নের পথে নিরন্তর স্বপ্নযাত্রা

জাবিতে ভর্তি পরীক্ষা শুরু ১৮ মে

ছবি

আগামী শনিবার বিএসএমএমইউ এর ২৫তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবস ও প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী

ছবি

‘খন্দকার মোশতাককে শ্রদ্ধা’, ঢাবি অধ্যাপক সহ তিন জনকে রহমত উল্লাহর আইনি নোটিশ

ঢাবির চারুকলায় ছাত্রদের সাথে নিয়ে ছাত্রীদের যৌন হেনস্তার অভিযোগ শিক্ষকের বিরুদ্ধে

ছবি

ক্ষমা চেয়ে বড় শাস্তি থেকে পার পেলেন যৌন নিপীড়নে অভিযুক্ত ঢাবি অধ্যাপক

টয়লেট ছাড়াই স্কুলভবন

ঢাকা কলেজে র‍্যাব ও ডিবির যৌথ অভিযান, আটক ১

ছবি

ছিনতাইকারীকে ধরতে চলন্ত ট্রেন থেকে লাফ দিলেন শিক্ষার্থী

ছবি

‘আমরা ঘরে বসে থাকলেও শেখ হাসিনা ক্ষমতায় যেতে পারবেন না’

ছবি

নিউমার্কেট সাংবাদিক নির্যাতন-লাঞ্ছনার ঘটনায় ডুজার উদ্বেগ

ছবি

নিউমার্কেটে সাংবাদিকদের উপর হামলার প্রতিবাদে সতিকসাসের মানববন্ধন

বক্তব্যটি অধ্যাপক রহমত উল্লাহর ব্যক্তিগত, ঢাবি শিক্ষক সমিতির নয়

আন্দোলনে ঢাকা কলেজকে সমর্থন ঢাবি শিক্ষার্থীদের

হল ছাড়েনি ঢাকা কলেজের শিক্ষার্থীরা , অধ্যক্ষ অবরুদ্ধ

রমেক অধ্যক্ষের সরকারি বাস ভবনের মালামাল লুটের অভিযোগ

ছবি

৫ মে পর্যন্ত বন্ধ ঢাকা কলেজ , বিকেলের মধ্যে ছাড়তে হবে ছাত্রাবাস

ছবি

মধ্যরাতে ঢাকা কলেজের সব ক্লাস-পরীক্ষা ‘স্থগিত’

ছবি

ঢাবি থেকে অবসর চান সামিয়া রহমান

ছবি

অধ্যাপক রহমত উল্লাহর শাস্তি চেয়েছে ঢাবি ছাত্রলীগ

খন্দকার মোশতাককে শ্রদ্ধাঃ ক্ষমা চেয়েছেন ঢাবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি

tab

ক্যাম্পাস

ঢাবির ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে পরীক্ষার ফলে অসংগতি

দুই অধ্যাপককে অব্যাহতির সুপারিশ

খালেদ মাহমুদ ঢাবি প্রতিনিধি

মঙ্গলবার, ২৫ জানুয়ারী ২০২২

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ফার্সি ভাষা ও সাহিত্য বিভাগে ইচ্ছাকৃতভাবে পরীক্ষার খাতায় নম্বর কম দেওয়ার অভিযোগের সত্যতা প্রমাণিত হওয়ায় দুই অধ্যাপককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে তিন বছরের জন্য অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়েছে।

অভিযুক্ত দুই অধ্যাপক হচ্ছেন ওই বিভাগের বর্তমান চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন এবং বিভাগের অধ্যাপক ড. আবদুস সবুর খান।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, অভিযুক্ত দুই অধ্যাপকের তৈরি করা ফলাফলে অসঙ্গতির অভিযোগ উঠেছিল ২০১৮ সালে। ওই সময় ফলাফলে অনাস্থা এনে ফল পুন:নীরিক্ষণের দাবি জানায় বিভাগের ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীরা। পরে অভিযোগ আমলে নিয়ে পুন:নীরিক্ষিত ফলাফলে ১১ শিক্ষার্থীর চারটি কোর্সের ৩২ স্থানে প্রাপ্ত নম্বরের কমবেশি করার প্রমাণ মেলে। পূর্ব থেকে জমে থাকা কোনো ক্ষোভ ও মনোমালিণ্য থেকে ইচ্ছাকৃতভাবে ফলাফলে অসঙ্গতি হয়েছে বলে তখন অভিযোগ উঠেছিলো।

অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে এর আগে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ডিন(ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. মো. রহমত উল্লাহকে প্রধান করে তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। সেই কমিটি অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় তিন বছরের জন্য দুই অধ্যাপককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করে।

পরবর্তীতে অধিকতর তদন্তের স্বার্থে কলা অনুষদের বর্তমান ডিন অধ্যাপক আবু মোঃ দেলোয়ার হোসেনকে প্রধান করে তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। এই কমিটিও তদন্তের মাধ্যমে অভিযোগের প্রমাণ পাওয়ায় পুনরায় উপাচার্যের নিকট তিন বছরের জন্য দুই শিক্ষককে পরীক্ষা সংক্রান্ত কার্যক্রম থেকে অব্যাহতির সুপারিশ করেছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের কোন শিক্ষকের বিরুদ্ধে এমন অভিযোগ আসলে তার বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুযায়ী পদক্ষেপ নেয়া হয়। এর আগে এমন অভিযোগে বিশ্ববিদ্যালয়ের কয়েকজন শিক্ষকের চাকরিচ্যুতির দৃষ্টান্তও রয়েছে।

অধ্যাপক ড. মোহাম্মদ বাহাউদ্দিন এ বিষয়ে সংবাদকে বলেন, "এ বিষয়ে আমার জানা নেই। আমি এ পরীক্ষা কমিটির সভাপতিও ছিলাম না"।

বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আখতারুজ্জামান বলেন, "ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সবকিছু নিয়ম-নীতির মধ্য দিয়ে হয়। যখন যে ফোরামে দরকার তখন সেখানে সে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।"

back to top