alt

বিনোদন

অভিনেত্রী শিমু হত্যার নেপথ্যে ভয়ানক তথ্য

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : বুধবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

বাবা-মায়ের অমতে প্রেম করে বিয়ে করেন এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু। বিয়ের পর বিভিন্ন বিষয়ে মনোমালিন্য দেখা দেয় দুজনের। এর মধ্যে নোবেল শিমুকে সিনেমায় অভিনয় করতে নিষেধ করেন। তার কথামতো সিনেমা ছেড়ে বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেল চাকরি নেন শিমু। এ চাকরিটাও ভালোভাবে নেননি নোবেল। এ নিয়ে নোবেল ও শিমুর সংসারে চলে আসছিল কলহ। এ কলহের কথা নোবেল তার বাল্যবন্ধু ফরহাদের সঙ্গে শেয়ার করতেন।

সম্প্রতি ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যার ঘটনায় স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বাল্যবন্ধু এস এম ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে।

শিমু হত্যা মামলাটি তদন্ত করছেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক শহিদুল ইসলাম।

অভিযোগ পত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি সকাল সোয়া ৮টায় নোবেলের বাসায় যান ফরহাদ। এ সময় ফরহাদকে ড্রইংরুমে বসতে দিয়ে নোবেলকে জানান শিমু। নোবেল গিয়ে ফরহাদের সঙ্গে দেখা করে রান্নাঘরে চা বানাতে যান।

এ সময় বেডরুমে বসে মোবাইলে কিছু একটা দেখছিলেন শিমু। তখন নোবেল গিয়ে সেই মোবাইল দেখতে চান। কিন্তু শিমু দেখাতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি ও ধস্তাধস্তি শুরু হয়। হইচই শুনে ফরহাদ উঠে শিমুর রুমে যান। তখন নোবেল ফরহাদকে বলেন, শিমুকে ধর, ওকে আজ মেরেই ফেলব।

কথামতো ফরহাদ ধরতে গেলে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন শিমু। এর পর নোবেল প্রথমে শিমুর গলা ধরতে গেলে তাকেও ধাক্কা মেরে ফেলে দেন। এবার ফরহাদকে শিমুর গলা ধরার জন্য বলেন নোবেল। ফরহাদ গলা আর নোবেল দুই হাত চেপে ধরেন। একপর্যায়ে নিচে পড়ে যান শিমু। নোবেল শিমুর গলার ওপর পা দিয়ে দাঁড়ান। এতে প্রস্রাব করে দেন শিমু। এক সময় শিমু নিস্তেজ হয়ে পড়েন।

এ সময় নোবেল ফরহাদকে দেখতে বলেন শিমু বেঁচে আছে কিনা। ফরহাদ শিমুর হাত দেখে বলেন, ‘শিমু বেঁচে নেই।’ তখন তারা দুজনে মিলে মরদেহ লুকানোর পরিকল্পনা করতে থাকেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, একপর্যায়ে নোবেল রান্নাঘর থেকে দুটি পাটের বস্তা এবং ফ্রিজের ওপর থেকে মিষ্টির প্যাকেট বাঁধার প্লাস্টিকের রশি আনেন। ফরহাদ শিমুর মাথা উঁচু করে ধরেন। আর নোবেল একটি বস্তার ভেতর শিমুর মাথার অংশ এবং আরেকটি বস্তায় পায়ের অংশ ভরেন।

এর পর প্লাস্টিকের রশি দিয়ে দুটি বস্তা একত্রে সেলাই করে দেন নোবেল। পরে শিমুর মরদেহ নোবেলের গাড়ির পেছনের সিটে ওঠান ফরহাদ। এর পর কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন আলীপুর ব্রিজ এলাকার একটি ঝোপে মরদেহ ফেলে দেন তারা। পরদিন ১৭ জানুয়ারি আলীপুর এলাকার রাস্তার পাশ থেকে শিমুর বস্তাবন্দি খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে তার পরিচয় মিলছিল না। পরে ওইদিন রাতে তার ফিঙ্গার প্রিন্ট নিয়ে নাম-পরিচয় শনাক্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি সকালে কেরাণীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকা থেকে শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়। শিমুকে হত্যা করার অভিযোগে তার স্বামী নোবেল ও বন্ধু ফরহাদকে গ্রেফতার করে কেরাণীগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। নিহতের বড় ভাই শহীদুল ইসলাম খোকন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন এই অভিনেত্রী।

ছবি

মুখোমুখি মাহি ও পূজা

ছবি

কেউ গুজব ছড়াবেন না: তানজিন তিশা

ছবি

শাকিবের সঙ্গে বিয়ের তারিখ জানালেন বুবলি

ছবি

বাংলাদেশে স্টার র‌্যাপারের খোঁজে রিয়েলমি

ছবি

বীরের নতুন ছবি পোস্ট করে দোয়া চাইলেন বুবলী

ছবি

৫৭ পেরিয়ে ৫৮ তে ‘রকস্টার’ জেমস

ছবি

শুটিংয়ে ফিরেছেন শাকিব-বুবলী

ছবি

বুবলী এখন কোথায়, মিলছে না উত্তর

ছবি

বুবলীর পোস্ট ‘নকল’ করেছেন শাকিব

ছবি

শেহজাদ আমার ও শাকিবের সন্তান : বুবলী

ছবি

সন্তানের কথা স্বীকার করলেন শাকিবও

ছবি

‘হাওয়া’ সিনেমার বিরুদ্ধে কোটি টাকার মামলা প্রত্যাহার

ছবি

শাকিরার বিচার শুরুর নির্দেশ

ছবি

শাকিব খানের বাসায় অপু বিশ্বাস, লিখলেন সুখী পরিবার

ছবি

৯৫তম অস্কারে যাচ্ছে সুমনের ‍‍‘হাওয়া’

ছবি

দুর্গাপূজায় মিমির নতুন গান

ছবি

দগ্ধ আবু হেনা রনিকে কেবিনে নেওয়া হয়েছে

ছবি

যেসব প্রেক্ষাগৃহে দেখা যাবে তাদের ‘বিউটি সার্কাস’

ছবি

শ্বাস নিচ্ছেন, খাবার খেতে পারছেন আবু হেনা রনি

ছবি

৩০ ডিসেম্বর আসছে ‘ওরা ৭ জন’

ছবি

শ্রাবন্তীর ও ছেলের প্রেম নিয়ে যা বললেন প্রাক্তন স্বামী

ছবি

ইনস্টায় ৩০ লাখ অনুসারী, উচ্ছ্বসিত পূর্ণিমা

ছবি

জনপ্রিয় ভারতীয় কমেডিয়ান রাজু শ্রীবাস্তব না ফেরার দেশে

ছবি

প্রস্তুত হচ্ছেন কর্ণিয়া

ছবি

হাসপাতালে ভর্তি অভিনেত্রী তনুশ্রী

ছবি

অভিনেত্রীর মরদেহ উদ্ধার

ছবি

ভারতে অভিনেত্রী দীপার মরদেহ উদ্ধার

ছবি

চিত্রনায়িকা শিমু হত্যা: স্বামীসহ দুজনের বিরুদ্ধে চার্জশিট গ্রহণ

ছবি

শ্বাসনালী পুড়ে গেছে আবু হেনা রনির, আইসিইউতে ভর্তি

ছবি

প্রকাশ হলো ‘বিউটি সার্কাস’ সিনেমার প্রথম গান

ছবি

অজয়ের সিনেমা দিয়ে বলিউডে ইয়োহানি

ছবি

‘ব্রহ্মাস্ত্র’ সিনেমায় শাহরুখের চরিত্র নিয়ে পূর্ণাঙ্গ সিনেমা

ছবি

মোটা অঙ্কের পারিশ্রমিক, বিজয়ের সিনেমায় সঞ্জয়

ছবি

কিংবদন্তি নির্মাতা জ্যঁ লুক গদার আর নেই

ছবি

সিনেমা নয়, সত্যিই মা হচ্ছেন নায়িকা মাহি

ছবি

বাউল শাহ আবদুল করিমের ১৪তম প্রয়াণ দিবস আজ

tab

বিনোদন

অভিনেত্রী শিমু হত্যার নেপথ্যে ভয়ানক তথ্য

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

বুধবার, ০৭ সেপ্টেম্বর ২০২২

বাবা-মায়ের অমতে প্রেম করে বিয়ে করেন এক সময়ের জনপ্রিয় চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু। বিয়ের পর বিভিন্ন বিষয়ে মনোমালিন্য দেখা দেয় দুজনের। এর মধ্যে নোবেল শিমুকে সিনেমায় অভিনয় করতে নিষেধ করেন। তার কথামতো সিনেমা ছেড়ে বেসরকারি একটি টিভি চ্যানেল চাকরি নেন শিমু। এ চাকরিটাও ভালোভাবে নেননি নোবেল। এ নিয়ে নোবেল ও শিমুর সংসারে চলে আসছিল কলহ। এ কলহের কথা নোবেল তার বাল্যবন্ধু ফরহাদের সঙ্গে শেয়ার করতেন।

সম্প্রতি ঢাকার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে চিত্রনায়িকা রাইমা ইসলাম শিমু হত্যার ঘটনায় স্বামী সাখাওয়াত আলী নোবেল ও তার বাল্যবন্ধু এস এম ফরহাদের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়েছে।

শিমু হত্যা মামলাটি তদন্ত করছেন কেরানীগঞ্জ মডেল থানার পরিদর্শক শহিদুল ইসলাম।

অভিযোগ পত্রে জানা যায়, চলতি বছরের ১৬ জানুয়ারি সকাল সোয়া ৮টায় নোবেলের বাসায় যান ফরহাদ। এ সময় ফরহাদকে ড্রইংরুমে বসতে দিয়ে নোবেলকে জানান শিমু। নোবেল গিয়ে ফরহাদের সঙ্গে দেখা করে রান্নাঘরে চা বানাতে যান।

এ সময় বেডরুমে বসে মোবাইলে কিছু একটা দেখছিলেন শিমু। তখন নোবেল গিয়ে সেই মোবাইল দেখতে চান। কিন্তু শিমু দেখাতে অস্বীকৃতি জানান। এ নিয়ে তাদের মধ্যে কথাকাটাকাটি ও ধস্তাধস্তি শুরু হয়। হইচই শুনে ফরহাদ উঠে শিমুর রুমে যান। তখন নোবেল ফরহাদকে বলেন, শিমুকে ধর, ওকে আজ মেরেই ফেলব।

কথামতো ফরহাদ ধরতে গেলে তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দেন শিমু। এর পর নোবেল প্রথমে শিমুর গলা ধরতে গেলে তাকেও ধাক্কা মেরে ফেলে দেন। এবার ফরহাদকে শিমুর গলা ধরার জন্য বলেন নোবেল। ফরহাদ গলা আর নোবেল দুই হাত চেপে ধরেন। একপর্যায়ে নিচে পড়ে যান শিমু। নোবেল শিমুর গলার ওপর পা দিয়ে দাঁড়ান। এতে প্রস্রাব করে দেন শিমু। এক সময় শিমু নিস্তেজ হয়ে পড়েন।

এ সময় নোবেল ফরহাদকে দেখতে বলেন শিমু বেঁচে আছে কিনা। ফরহাদ শিমুর হাত দেখে বলেন, ‘শিমু বেঁচে নেই।’ তখন তারা দুজনে মিলে মরদেহ লুকানোর পরিকল্পনা করতে থাকেন।

অভিযোগপত্রে বলা হয়, একপর্যায়ে নোবেল রান্নাঘর থেকে দুটি পাটের বস্তা এবং ফ্রিজের ওপর থেকে মিষ্টির প্যাকেট বাঁধার প্লাস্টিকের রশি আনেন। ফরহাদ শিমুর মাথা উঁচু করে ধরেন। আর নোবেল একটি বস্তার ভেতর শিমুর মাথার অংশ এবং আরেকটি বস্তায় পায়ের অংশ ভরেন।

এর পর প্লাস্টিকের রশি দিয়ে দুটি বস্তা একত্রে সেলাই করে দেন নোবেল। পরে শিমুর মরদেহ নোবেলের গাড়ির পেছনের সিটে ওঠান ফরহাদ। এর পর কেরানীগঞ্জ মডেল থানাধীন আলীপুর ব্রিজ এলাকার একটি ঝোপে মরদেহ ফেলে দেন তারা। পরদিন ১৭ জানুয়ারি আলীপুর এলাকার রাস্তার পাশ থেকে শিমুর বস্তাবন্দি খণ্ডিত মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। তবে তার পরিচয় মিলছিল না। পরে ওইদিন রাতে তার ফিঙ্গার প্রিন্ট নিয়ে নাম-পরিচয় শনাক্ত করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)।

চলতি বছরের ১৭ জানুয়ারি সকালে কেরাণীগঞ্জের হজরতপুর ব্রিজের কাছে আলিয়াপুর এলাকা থেকে শিমুর বস্তাবন্দি লাশ উদ্ধার করা হয়। শিমুকে হত্যা করার অভিযোগে তার স্বামী নোবেল ও বন্ধু ফরহাদকে গ্রেফতার করে কেরাণীগঞ্জ থানা পুলিশ। তাদের আসামি করে হত্যা মামলা দায়ের করা হয়। নিহতের বড় ভাই শহীদুল ইসলাম খোকন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। আজিমপুর কবরস্থানে চিরনিদ্রায় শায়িত হয়েছেন এই অভিনেত্রী।

back to top