alt

জাতীয়

নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এবং সংস্থাটির সাবেক-বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তার ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

নিউ ইয়র্ক সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোটেল লোটেতে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে গত বছরের ১০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে র‍্যাবের বর্তমান ও সাবেক ৬ কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির পররাষ্ট্র বিভাগ ও রাজস্ব বিভাগ আলাদা করে এ নিষেধাজ্ঞা দেয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যে ছয়জনের বিরুদ্ধে আমেরিকান সরকার...দিয়েছে, আমরা কারণ জানতে চাই। ওরা আমাদের কোনো সঠিক, সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি এখনও।

‘সুতরাং আমরা জানি না। আর আমেরিকার একটা অভ্যাসও আছে বিভিন্ন দেশে স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) দিয়ে থাকে। এটা তাদের ব্যাপার।’

সন্ত্রাস দমনে র‌্যাবের ভূমিকার প্রশংসা করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এই র‌্যাব প্রতিষ্ঠার ফলে আপনার যে কাজটা হয়েছে, ইদানীং আমাদের দেশে সন্ত্রাসী নাই। লাস্ট সন্ত্রাসী ছিল হলি আর্টিজান। দ্যাট ওয়াজ লাস্ট ওয়ান।’

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর তৎপরতার কারণেই দেশে উন্নয়ন হচ্ছে দাবি করে মোমেন বলেন, ‘স্কুল-কলেজের সেশন অন টাইমে হচ্ছে, কোনো ঝামেলা নাই। ব্যবসায়ী নিশ্চিন্তে ব্যবসা করতেছে; অভিভাবকরা খুশি। স্কুলে বাচ্চা গেলে ফিরে আসছে ঠিক টাইমলি। কোনো সন্ত্রাসীর ভয় নাই।

‘শুধু আমাদের দেশে না, প্রতিবেশী রাষ্ট্রও খুশি। সন্ত্রাসীর আতঙ্ক না থাকার কারণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স টু টেরোরিজম।’

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘কিছু কিছু দুষ্টু লোক, তারা মনে করে এই র‌্যাবের কারণে এবং সরকারের বিশেষ অবস্থানের কারণে সন্ত্রাসী হচ্ছে না, ঝামেলা করতে পারতেছে না, বিভিন্ন রকম প্রচারণা করেছে।

‘যারা এদের ওপরে স্যাংশন দিয়েছেন, এটা উইথড্র করার দায়দায়িত্ব তাদের। আর তারা (যুক্তরাষ্ট্র) আমাদের বলেন নাই কেন দিয়েছেন।’

মন্ত্রী জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র জানাতে পারত যে, এ কারণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

দেশটি সেটি করেনি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের সেই তথ্য দেয়া হয়নি। আমরা এখানে আমাদের কথা বলেছি এবং তারা শুনেছেন। আমি আশা করি...আপনি এটা জানেন, আমেরিকা বহু দেশে শত শত স্যাংশন দিয়ে রেখেছে।’

তোয়াব খানের দাফন আজ

যুক্তরাজ্য ও যুক্তরাষ্ট্র সফর শেষে দেশের পথে প্রধানমন্ত্রী

ছবি

মায়ানমার সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে রোহিঙ্গা শরণার্থীর মৃত্যু

জাতিসংঘের ই-গভর্নমেন্ট ডেভেলপমেন্ট ইনডেক্সে ৮ ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ

ছবি

গরমে মানুষ হারাচ্ছে কর্মক্ষমতা, বছরে ঢাকায় ক্ষতি ৬শ’ কোটি ডলার

জেনোসাইডের স্বীকৃতির জন্য ‘এগ্রেসিভ ডিপ্লোমেসি’ প্রয়োজন

ছবি

একদিন ছুটি নিলেই মিলবে টানা ৫ দিনের ছুটি

ছবি

করোনা: একজনের মৃত্যু, নতুন রোগী ৫৩৫

ছবি

র‌্যাব সবসময়ই সংস্কারের মধ্যেই আছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

উৎপাদনশীলতা বাড়াতে পরিকল্পনা গ্রহণ করতে হবে : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

জাতীয় পথশিশু দিবস আজ

ছবি

নামজারির দুই ফি শুধু অনলাইনে

ছবি

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের অপব্যবহার, বেশি অভিযোগ শিক্ষকদের বিরুদ্ধে

ছবি

করোনা: একদিনে মৃত্যু ৫, নতুন রোগী ৪৮০

ছবি

বঙ্গবন্ধুর খুনি রাশেদ চৌধুরীকে দেশে ফেরানোর চেষ্টা চলছে

ছবি

সড়ক দুর্ঘটনায় পুলিশের দেয়া তথ্য সঠিক নয়: ইলিয়াস কাঞ্চন

ছবি

তোয়াব খানর মৃত্যুতে শোক জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

র‍্যাব সংস্কারের প্রশ্নই ওঠে না: র‍্যাব ডিজি

আজ থেকে দুর্গাপূজার আনুষ্ঠানিকতা শুরু

ছবি

আট মাসে ধর্ষণের শিকার ৫৭৪ কন্যাশিশু

৯ মাসে রাজনৈতিক সহিংসতায় নিহত ৫৮

ছবি

সেপ্টেম্বরে অর্ধশতাধিক রাজনৈতিক সহিংসতা

ছবি

৮ মাসে ৫৭৪ শিশু ধর্ষণ, বাল্যবিয়ে ২৩০১ জনের: প্রতিবেদন

ছবি

আইজিপির দায়িত্ব নিলেন চৌধুরী আবদুল্লাহ আল-মামুন

ছবি

করোনা: দৈনিক শনাক্ত ফের ৭০০ ছাড়াল, মৃত্যু ১

ছবি

৮০ ভাগ রোগী বিদেশে চিকিৎসা নিতে যাচ্ছে: পরিকল্পনা মন্ত্রী

ছবি

দেশের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো বিএনপির প্রধান কাজ : প্রধানমন্ত্রী

বৈশ্বিক উষ্ণতায় উপকূল অঞ্চল বিলীন হচ্ছে

ছবি

প্রতিবন্ধী ব্যক্তিদের বই পড়ার অধিকার নিশ্চিতে মারাকেশ চুক্তিতে অনুস্বাক্ষর করেছে বাংলাদেশ

ছবি

নৌপরিবহণ মন্ত্রণালয়ের মূল্যায়নে প্রথম বিআইডব্লিউটিএ

ছবি

দুর্গাপূজায় জঙ্গি হামলার আশঙ্কা রয়েছে: ডিএমপি কমিশনার

ছবি

র‌্যাবের নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থান পরিবর্তন হয়নি: রাষ্ট্রদূত

ছবি

করোনা: শনাক্ত বেড়ে ৬৭৯, মৃত্যু ২

ছবি

দেশে নষ্ট রাজনীতির দুষ্টচর্চা ছিল, এখনো আছে: বিদায়ী আইজিপি

ছবি

পাঁচ দিনের সফরে ঢাকা আসছেন কসোভোর উপ-পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

রোহিঙ্গাদের অবশ্যই নিজ দেশে ফিরে যেতে হবে: প্রধানমন্ত্রী

tab

জাতীয়

নিষেধাজ্ঞা নিয়ে সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি যুক্তরাষ্ট্র: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২২

র‌্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‌্যাব) এবং সংস্থাটির সাবেক-বর্তমান কয়েকজন কর্মকর্তার ওপর আরোপ করা নিষেধাজ্ঞা নিয়ে যুক্তরাষ্ট্র সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি বলে জানিয়েছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আবদুল মোমেন।

নিউ ইয়র্ক সময় মঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোটেল লোটেতে এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা জানান।

গুরুতর মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগে গত বছরের ১০ ডিসেম্বর আন্তর্জাতিক মানবাধিকার দিবসে র‍্যাবের বর্তমান ও সাবেক ৬ কর্মকর্তার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের কথা জানায় যুক্তরাষ্ট্র। দেশটির পররাষ্ট্র বিভাগ ও রাজস্ব বিভাগ আলাদা করে এ নিষেধাজ্ঞা দেয়।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘যে ছয়জনের বিরুদ্ধে আমেরিকান সরকার...দিয়েছে, আমরা কারণ জানতে চাই। ওরা আমাদের কোনো সঠিক, সুনির্দিষ্ট তথ্য দেয়নি এখনও।

‘সুতরাং আমরা জানি না। আর আমেরিকার একটা অভ্যাসও আছে বিভিন্ন দেশে স্যাংশন (নিষেধাজ্ঞা) দিয়ে থাকে। এটা তাদের ব্যাপার।’

সন্ত্রাস দমনে র‌্যাবের ভূমিকার প্রশংসা করে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘এই র‌্যাব প্রতিষ্ঠার ফলে আপনার যে কাজটা হয়েছে, ইদানীং আমাদের দেশে সন্ত্রাসী নাই। লাস্ট সন্ত্রাসী ছিল হলি আর্টিজান। দ্যাট ওয়াজ লাস্ট ওয়ান।’

আইনশৃঙ্খলা রক্ষা বাহিনীর তৎপরতার কারণেই দেশে উন্নয়ন হচ্ছে দাবি করে মোমেন বলেন, ‘স্কুল-কলেজের সেশন অন টাইমে হচ্ছে, কোনো ঝামেলা নাই। ব্যবসায়ী নিশ্চিন্তে ব্যবসা করতেছে; অভিভাবকরা খুশি। স্কুলে বাচ্চা গেলে ফিরে আসছে ঠিক টাইমলি। কোনো সন্ত্রাসীর ভয় নাই।

‘শুধু আমাদের দেশে না, প্রতিবেশী রাষ্ট্রও খুশি। সন্ত্রাসীর আতঙ্ক না থাকার কারণ মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর জিরো টলারেন্স টু টেরোরিজম।’

আব্দুল মোমেন বলেন, ‘কিছু কিছু দুষ্টু লোক, তারা মনে করে এই র‌্যাবের কারণে এবং সরকারের বিশেষ অবস্থানের কারণে সন্ত্রাসী হচ্ছে না, ঝামেলা করতে পারতেছে না, বিভিন্ন রকম প্রচারণা করেছে।

‘যারা এদের ওপরে স্যাংশন দিয়েছেন, এটা উইথড্র করার দায়দায়িত্ব তাদের। আর তারা (যুক্তরাষ্ট্র) আমাদের বলেন নাই কেন দিয়েছেন।’

মন্ত্রী জানান, সুনির্দিষ্ট তথ্য দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র জানাতে পারত যে, এ কারণে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে।

দেশটি সেটি করেনি জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘এখন পর্যন্ত আমাদের সেই তথ্য দেয়া হয়নি। আমরা এখানে আমাদের কথা বলেছি এবং তারা শুনেছেন। আমি আশা করি...আপনি এটা জানেন, আমেরিকা বহু দেশে শত শত স্যাংশন দিয়ে রেখেছে।’

back to top