alt

বাংলাদেশ

গফরগাঁও-ময়মনসিংহ সড়কের ৪০ কিমি. জুড়ে মৃত্যুফাঁদ!

সংবাদ :
  • রুবেল মাহমুদ, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ)
image
বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গফরগাঁও-ময়মনসিংহ সড়কটি এ জেলার অন্যতম পুরনো সড়ক। এটি গফরগাঁও পৌর এলাকার পাবলিক হল মোড় থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ৪০ কিলোমিটার দির্ঘ। ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ঘেঁষে সোজাসুজি গফরগাঁও সদরে যাওয়ার এ সড়কটি খান বাহাদুর ইসমাইল রোড নামে পরিচিত। সড়কটি বর্তমানে প্রায় পুরোটাই বেহাল।

৪০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ সড়কটি খানা খন্দে ভরপুর। কার্পেটিং উঠে গেছে অনেক আগেই। বহুস্থানে ভাঙ্গা সড়কে বিছানো ইটও ভাঙ্গা। ওইসব অংশে যানবাহনতো দূরের কথা মানুষ হাঁটাও দায়। কেউ কেউ ঝুঁকি নিতে গিয়ে রিকশা-ইজি বাইকসহ উল্টে গেছে ওই সব গর্তে। রোগীদের রীতিমতো যুদ্ধ করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের সামনের পথটুকু পার হতে হয়। এ অবস্থায় যানবাহন চালকেরা সড়কটি ব্যবহার একেবারে বন্ধ করে দিয়েছে। অতিরিক্ত সময় ব্যয় হলেও চালকরা এখন বিকল্প পথে যাতায়াত করতে শুরু করেছে।

গফরগাঁও ছাড়াও ধলা, বালিপাড়া, কালির বাজার, সুতিয়াখালী এলাকার অনেক মানুষের সড়ক যোগাযোগে অন্যতম পথ এ সড়কটি। গত দশ বছরে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) ঠিকাদারের পাশাপাশি নিজস্ব তত্বাবধানে কমপক্ষে ৮ বার সড়কটি সংস্কার করেও কোন লাভ হয়নি। বর্তমানে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী সড়কটি। এ অবস্থায় জরুরি প্রয়োজনে লোকজন ঢাকা-ময়মনসিংহের ৈ বৈলর বা ত্রিশাল অথবা ভালুকা হয়ে গফরগাঁও যাতায়াত করে।

গফরগাঁও উপজেলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাইনুদ্দিন খান মানিক জানান, হাসপাতালের সামনের অংশটুকু এতই খারাপ যে রোগীরা ভয়ে হাসপাতালে আসতে চাননা।

রোগীদের নিরাপদে আসা-যাওয়ায় জন্য দ্রুত মেরামত হওয়া দরকার। এ ব্যাপারে কালীরবাজার স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি রতন সরকার বলেন, গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি এখন আর চলাচলের উপযোগী নয়। ময়মনসিংহ থেকে এ সড়ক ধরে তিনি আধ ঘণ্টায় বাড়ি পৌঁছাতেন। কিন্তু এখন বিকল্প সড়ক ধরে বাড়ি পৌঁছাতে সময় লাগে কমপক্ষে এক ঘণ্টা। এভাবেই চলছে গত প্রায় সাত বছর।

জানা যায়, চাঁদনী মোড় থেকে পৌর শহরের শেষ সীমানা পর্যন্ত সড়কটির দেড় কিলোমিটার সড়ক ও জনপথ বিভাগের হওয়ায় পৌর কর্তৃপক্ষ সংস্কার করতে পারছে না। এদিকে সড়কটি সংস্কার কাজের জন্য তিন মাস পূর্বে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ প্রদান করলেও রহস্যজনক কারণে তারা কাজ শুরু করছে না।

জানা যায়, ২০১১/১২ অর্থবছরে সওজ ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে এ সড়কটি মেরামত করার কার্যাদেশ দেয়।

পরে নিয়ম ভঙ্গ করে আরেক প্রতিষ্ঠান সাব কন্ট্রাক নিয়ে ২০১২ সালের জুন মাসে মেরামত কাজ সম্পন্ন করে। অভিযোগ রয়েছে তারা অধিকাংশ জায়গায় সংস্কার না করে চূড়ান্ত বিল উত্তোলন করায় কয়েকমাস পরেই সড়কটি চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

এমনিভাবে গত দশ বছরে সওজ ঠিকাদারের পাশাপাশি নিজস্ব তত্ত্বাবধানে কমপক্ষে ৮ বার সড়কটি সংস্কার করে। কিন্তু এ সংস্কারের কোন লাভই পাচ্ছেন না এলাকাবাসী।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান সোহেল বলেন, যত দ্রুত সম্ভব এ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করার জন্য ঠিকাদারকে তাগিদা দেয়া হচ্ছে। আশা করছি শীঘ্রই কাজ শুরু হবে।

ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় তাণ্ডব : আরও ৩ জন গ্রেফতার

ছবি

বাসচাপায় প্রাণ গেল দুই মোটরসাইকেল আরোহীর

ছবি

উপাচার্যদের দুর্নীতির তদন্ত, কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না

ছবি

বিজিবি দিয়েও ঠেকানো যাচ্ছে না জনস্রোত

ছবি

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট : সতর্ক বার্তা জনস্বাস্থ্যবিদদের

ছবি

কক্সবাজার শহরে অস্ত্র-গুলিসহ ৩ সন্ত্রাসী আটক

ছবি

ভাড়াটিয়া কর্তৃক অবরুদ্ধ হোটেল কল্লোল’র মালিক!

ছবি

ময়মনসিংহে সিটি কর্পোরেশনের ঈদ উপহার বিতরণ

ছবি

এনার্জিপ্যাকের ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক উদ্বোধন

ছবি

অর্ধেক দামে মোটরসাইকেল দিচ্ছে থলে ডট এক্সওয়াইজেড

ছবি

করোনাকালে অসহায় মানুষের জন্য তাসাউফ ফাউন্ডেশনের “পাশেই আছি” কর্মসূচী পালন

ছবি

অব্যবহৃতই থাকছে আবু নাসের হাসপাতালের পরিচালক, উপ-পরিচালকের বাসভবন

ছবি

বিয়ানীবাজারে ঈদ শপিংয়ে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

ছবি

চেয়ারম্যানের অত্যাচার নির্যাতন থেকে বাচঁতে প্রধানমন্ত্রীর সহানুভূতি কামনা

ছবি

নওগাঁয় বিভিন্ন রোগিদের সরকারী সহায়তা প্রদান

ছবি

নারায়ণগঞ্জে করোনা হাসপাতালে বসেছে অক্সিজেন ট্যাংক

ছবি

মামুনুলের রিমান্ড শুনানি পেছাল

ছবি

সিলেটে মাজারে রক্তের ছােপ

ছবি

জাফলংয়ে সিরাত প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন

ছবি

পত্নীতলায় গোল্ডেন তরমুজ চাষে সফল মিজানুর

ছবি

করোনা: গ্রামের মানুষের রঙ্গরস

ছবি

মির্জাপুরে মাটি ব্যবসায়ীর তিনদিনের জেল

ছবি

মির্জাপুরে ঈমামদের সম্মানি প্রদান

বিশেষ মহলের চাপে বন্ধ বাসদের মানবতার বাজার

কিশোরগঞ্জে মনি সিংহ ফরহাদ ট্রাস্টের ত্রাণ

ছবি

করতোয়ার বালু তুলে তীর ভরাট, হুমকিতে সড়ক : ভাঙন আশঙ্কা

সোনাইমুড়িতে যুবককে পিটিয়ে হত্যা : আটক ২

ছবি

অনাবৃষ্টিতে সেচ সংকট বীজতলা ফেটে চৌচির

বাইক হাতে বেপরোয়া কিশোররা : নিত্য দুর্ঘটনা

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ধর্ম অবমাননা, আটক : এক

ছবি

শিল্পে ভূগর্ভস্থ পানির ব্যবহার টিউবওয়েলে উঠছে না পানি

পঞ্চগড় সড়কে মৃত্যু ১

ঈশ্বরদীতে হেরোইনসহ যুবক গ্রেফতার

মির্জাগঞ্জে মাস্ক না পড়ায় ৮ জনকে জরিমানা

কলাপাড়ায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার

রামেক হাসপাতালে করোনায় মৃত্যু ২

tab

বাংলাদেশ

গফরগাঁও-ময়মনসিংহ সড়কের ৪০ কিমি. জুড়ে মৃত্যুফাঁদ!

সংবাদ :
  • রুবেল মাহমুদ, গফরগাঁও (ময়মনসিংহ)
image
বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৯

গফরগাঁও-ময়মনসিংহ সড়কটি এ জেলার অন্যতম পুরনো সড়ক। এটি গফরগাঁও পৌর এলাকার পাবলিক হল মোড় থেকে ময়মনসিংহ পর্যন্ত ৪০ কিলোমিটার দির্ঘ। ব্রহ্মপুত্র নদের পাড়ঘেঁষে সোজাসুজি গফরগাঁও সদরে যাওয়ার এ সড়কটি খান বাহাদুর ইসমাইল রোড নামে পরিচিত। সড়কটি বর্তমানে প্রায় পুরোটাই বেহাল।

৪০ কিলোমিটার দৈর্ঘ্যরে এ সড়কটি খানা খন্দে ভরপুর। কার্পেটিং উঠে গেছে অনেক আগেই। বহুস্থানে ভাঙ্গা সড়কে বিছানো ইটও ভাঙ্গা। ওইসব অংশে যানবাহনতো দূরের কথা মানুষ হাঁটাও দায়। কেউ কেউ ঝুঁকি নিতে গিয়ে রিকশা-ইজি বাইকসহ উল্টে গেছে ওই সব গর্তে। রোগীদের রীতিমতো যুদ্ধ করে উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সের সামনের পথটুকু পার হতে হয়। এ অবস্থায় যানবাহন চালকেরা সড়কটি ব্যবহার একেবারে বন্ধ করে দিয়েছে। অতিরিক্ত সময় ব্যয় হলেও চালকরা এখন বিকল্প পথে যাতায়াত করতে শুরু করেছে।

গফরগাঁও ছাড়াও ধলা, বালিপাড়া, কালির বাজার, সুতিয়াখালী এলাকার অনেক মানুষের সড়ক যোগাযোগে অন্যতম পথ এ সড়কটি। গত দশ বছরে সড়ক ও জনপথ বিভাগ (সওজ) ঠিকাদারের পাশাপাশি নিজস্ব তত্বাবধানে কমপক্ষে ৮ বার সড়কটি সংস্কার করেও কোন লাভ হয়নি। বর্তমানে যানবাহন চলাচলের অনুপযোগী সড়কটি। এ অবস্থায় জরুরি প্রয়োজনে লোকজন ঢাকা-ময়মনসিংহের ৈ বৈলর বা ত্রিশাল অথবা ভালুকা হয়ে গফরগাঁও যাতায়াত করে।

গফরগাঁও উপজেলা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মাইনুদ্দিন খান মানিক জানান, হাসপাতালের সামনের অংশটুকু এতই খারাপ যে রোগীরা ভয়ে হাসপাতালে আসতে চাননা।

রোগীদের নিরাপদে আসা-যাওয়ায় জন্য দ্রুত মেরামত হওয়া দরকার। এ ব্যাপারে কালীরবাজার স্কুল অ্যান্ড কলেজের গভর্নিং বডির সভাপতি রতন সরকার বলেন, গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটি এখন আর চলাচলের উপযোগী নয়। ময়মনসিংহ থেকে এ সড়ক ধরে তিনি আধ ঘণ্টায় বাড়ি পৌঁছাতেন। কিন্তু এখন বিকল্প সড়ক ধরে বাড়ি পৌঁছাতে সময় লাগে কমপক্ষে এক ঘণ্টা। এভাবেই চলছে গত প্রায় সাত বছর।

জানা যায়, চাঁদনী মোড় থেকে পৌর শহরের শেষ সীমানা পর্যন্ত সড়কটির দেড় কিলোমিটার সড়ক ও জনপথ বিভাগের হওয়ায় পৌর কর্তৃপক্ষ সংস্কার করতে পারছে না। এদিকে সড়কটি সংস্কার কাজের জন্য তিন মাস পূর্বে একটি ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে কার্যাদেশ প্রদান করলেও রহস্যজনক কারণে তারা কাজ শুরু করছে না।

জানা যায়, ২০১১/১২ অর্থবছরে সওজ ওই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানকে এ সড়কটি মেরামত করার কার্যাদেশ দেয়।

পরে নিয়ম ভঙ্গ করে আরেক প্রতিষ্ঠান সাব কন্ট্রাক নিয়ে ২০১২ সালের জুন মাসে মেরামত কাজ সম্পন্ন করে। অভিযোগ রয়েছে তারা অধিকাংশ জায়গায় সংস্কার না করে চূড়ান্ত বিল উত্তোলন করায় কয়েকমাস পরেই সড়কটি চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়ে।

এমনিভাবে গত দশ বছরে সওজ ঠিকাদারের পাশাপাশি নিজস্ব তত্ত্বাবধানে কমপক্ষে ৮ বার সড়কটি সংস্কার করে। কিন্তু এ সংস্কারের কোন লাভই পাচ্ছেন না এলাকাবাসী।

সড়ক ও জনপথ বিভাগ ময়মনসিংহের নির্বাহী প্রকৌশলী ওয়াহিদুজ্জামান সোহেল বলেন, যত দ্রুত সম্ভব এ সড়কের সংস্কার কাজ শুরু করার জন্য ঠিকাদারকে তাগিদা দেয়া হচ্ছে। আশা করছি শীঘ্রই কাজ শুরু হবে।

back to top