alt

বাংলাদেশ

চিম্বুক পাহাড়ে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণের প্রতিবাদে রাজধানীতে ম্রো’দের সমাবেশ

খালেদ মাহমুদ

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
image
মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১

বান্দরবানের নাইতং পাহাড়ে পাঁচ তারকা হোটেল ও বিনোদন কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে রাজধানীতে সংহতি সমাবেশ করেছে চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত ম্রো আদিবাসীসহ বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত পাঁচ শতাধিক ম্রো নারী-পুরুষ রাজধানী ঢাকায় এসে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শাহবাগ চত্বরে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ সমাবেশ করেছে৷

সমাবেশে ম্রো আদিবাসীদের সাথে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, এলআরডি, ব্লাস্ট, কাপেং ফাউন্ডেশন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপা, বেলা, সিপিবি, বাসদ, জাসদ, জনউৎসব, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, ঐক্য ন্যাপ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটি, আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, পার্বত্য চট্টগ্রাম সামাজিক ছাত্র সংগঠন, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদ, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, গানের দল মাদল, আদিবাসী যুব ফোরাম, আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ প্রভৃতি সংগঠনসমূহ সংহতি জ্ঞাপন করেন। এতে প্রায় পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেয়। সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটি সভাপতি গৌতম দেওয়ানের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং এর সঞ্চালনায় সমাবেশে সংহতি জানিয়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নাট্যকার মামুনুর রশীদ, সাবেক সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম, ঐক্য ন্যাপ এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, বেলার নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রেজওয়ানা হাসান, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য নিরুপা দেওয়ান প্রমুখ।

চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত ম্রোদের দাবি, যেখানে (নাইতং পাহাড়ে) পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণ করা হচ্ছে সেটি তাদের পূর্ব পুরুষদের চাষের জমি। এলাকার মানুষদের অন্ধকারে রেখে অবৈধভাবে পথ অনুসরণ করে ম্রোদের ভোগদখলীয় জায়গা জোরপূর্বক নেয়া হয়েছে।

সমাবেশে বক্তারা স্রোদের তাদের আবাসভূমি থেকে উচ্ছেদ, তাদের কৃষ্টি-সংস্কৃতি-ঐতিহ্যের প্রতি হুমকি ছাড়াও সিকদার গ্রুপের মতাে একটি বিতর্কিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ব্যবসায়িক সম্পৃক্ততা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে জমস্বার্থ বিরােধী এ প্রকল্প বাতিলের দাবি জানান। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি ১৯৯৭ ও প্রযােজ্য আইনের অধীনে পার্বত্য চট্টগ্রামের ভূমি বিরােধ নিষ্পত্তিসহ চুক্তির সার্বিক বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা সংহতি জানিয়ে বলেন, ম্রো’রা যখন তাদের আবাস ও আবাদভূমি জবরদস্তি বেদখলের বিরুদ্ধে ন্যায্য অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদমুখর হলেন, তখন প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে নানা রকম ভয়-ভীতি প্রদর্শনের প্রচুর অভিযােগ উঠেছে। তাছাড়া সাজানাে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে হােটেল ও বিনােদন পার্ক স্থাপনে ম্রো জনগােষ্ঠীর সম্মতি আছে মর্মেও প্রচারণা চালানাে হয়েছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আরাে উল্লেখ্য যে, পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ আইন ১৯৮৯, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরােধ নিস্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ এবং উপরোক্ত আইনসমূহের মাধ্যমে স্বীকৃত প্রথা, রীতি, রেওয়াজ ও পদ্ধতিকে লঙ্গন করে ম্রো জাতির স্বাধীন ও পূর্বাবহিত সম্মতি ব্যতিরেকে পাঁচতারকা হােটেল নির্মাণ করা হচ্ছে। এটি অবিলম্বে বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস বলেন, আমাদের কেবল ধর্মনিরপেক্ষ হলেই চলবে না জাতি নিরপেক্ষ হতে হবে, রাষ্ট্রনিরপেক্ষ হতে হবে। বাংলাদেশ যে একটা বহুজাতিক, বহু ধর্মের, বহু ভাষার, এবং বহু বৈচিত্রের সংস্কৃতপূর্ণ রাষ্ট্র, সেটি আমাদের ধারণ করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় এভাবে জমি ইজারা নেয়ার বিষয়টি একেবারেই অবৈধ মন্তব্য করে এর প্রতিবাদ জানান তিনি।

এসময় চিম্বুক পাহাড়বাসীদের পক্ষে ৫ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। তাদের দাবিসমূহের মধ্যে রয়েছে-

>> ম্রো জনগােষ্ঠীর জীবন-জীবিকা, প্রাকৃতিক সম্পদে প্রথাগত অভিগম্যতা, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও নিরাপত্তার দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে ম্রো অধ্যুষিত এলাকায় ম্যারিয়ট হােটেল ও বিনােদন পার্ক নামক প্রকল্পটি অবিলম্বে বাতিল করা;

>> পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক নিরাপত্তা বাহিনীকে যে ২০ একর জমি ইজারা প্রদান করা হয়েছে তা অবিলম্বে বাতিল করা;

>> এ প্রকল্প থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সকল প্রকার সম্পৃক্ততা প্রত্যাহার করা;

>> আন্দোলনরত জনগােষ্ঠীকে সেনাবাহিনীর নামে ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও নানা ধরনের হুমকি দেওয়ার অভিযােগ খতিয়ে দেখা ও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা;

>> পরিবেশ ও প্রতিবেশের প্রতি হুমকি সৃষ্টিকারী পর্যটনসহ উন্নয়নের নামে অবাধ ও পূর্বাবহিত সম্মতি ব্যতিরেকে অন্যান্য সকল প্রশাসনিক ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড অবিলম্বে বন্ধ করে অনুরূপ প্রক্রিয়ায় দখলকৃত সকল ভূমি থেকে দখলদারদের উচ্ছেদ করা।

প্রসঙ্গত, বান্দরবানের চিম্বুক-থানচি সড়কের পাশে ২০ একর জমিতে ’ম্যারিয়ট-চন্দ্রপাহাড় রিসোর্ট আ্যান্ড অ্যামিউজমেন্ট পার্ক’ নামে এ পাঁচতারা রিসোর্ট নির্মাণ করছে সিকদার গ্রুপের আর অ্যান্ড আর হোল্ডিংস ও সেনা কল্যাণ সংস্থা। সেখান থেকে নীলগিরি আর্মি রিসোর্ট পর্যন্ত ক্যাবল কার চালুর পরিকল্পনাও আছে তাদের।

ছবি

উপাচার্যদের দুর্নীতির তদন্ত, কোন ব্যবস্থা নেয়া হয় না

ছবি

বিজিবি দিয়েও ঠেকানো যাচ্ছে না জনস্রোত

ছবি

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট : সতর্ক বার্তা জনস্বাস্থ্যবিদদের

ছবি

কক্সবাজার শহরে অস্ত্র-গুলিসহ ৩ সন্ত্রাসী আটক

ছবি

ভাড়াটিয়া কর্তৃক অবরুদ্ধ হোটেল কল্লোল’র মালিক!

ছবি

ময়মনসিংহে সিটি কর্পোরেশনের ঈদ উপহার বিতরণ

ছবি

এনার্জিপ্যাকের ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক উদ্বোধন

ছবি

অর্ধেক দামে মোটরসাইকেল দিচ্ছে থলে ডট এক্সওয়াইজেড

ছবি

করোনাকালে অসহায় মানুষের জন্য তাসাউফ ফাউন্ডেশনের “পাশেই আছি” কর্মসূচী পালন

ছবি

অব্যবহৃতই থাকছে আবু নাসের হাসপাতালের পরিচালক, উপ-পরিচালকের বাসভবন

ছবি

বিয়ানীবাজারে ঈদ শপিংয়ে ক্রেতাদের উপচে পড়া ভিড়, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

ছবি

চেয়ারম্যানের অত্যাচার নির্যাতন থেকে বাচঁতে প্রধানমন্ত্রীর সহানুভূতি কামনা

ছবি

নওগাঁয় বিভিন্ন রোগিদের সরকারী সহায়তা প্রদান

ছবি

নারায়ণগঞ্জে করোনা হাসপাতালে বসেছে অক্সিজেন ট্যাংক

ছবি

মামুনুলের রিমান্ড শুনানি পেছাল

ছবি

সিলেটে মাজারে রক্তের ছােপ

ছবি

জাফলংয়ে সিরাত প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ সম্পন্ন

ছবি

পত্নীতলায় গোল্ডেন তরমুজ চাষে সফল মিজানুর

ছবি

করোনা: গ্রামের মানুষের রঙ্গরস

ছবি

মির্জাপুরে মাটি ব্যবসায়ীর তিনদিনের জেল

ছবি

মির্জাপুরে ঈমামদের সম্মানি প্রদান

বিশেষ মহলের চাপে বন্ধ বাসদের মানবতার বাজার

কিশোরগঞ্জে মনি সিংহ ফরহাদ ট্রাস্টের ত্রাণ

ছবি

করতোয়ার বালু তুলে তীর ভরাট, হুমকিতে সড়ক : ভাঙন আশঙ্কা

সোনাইমুড়িতে যুবককে পিটিয়ে হত্যা : আটক ২

ছবি

অনাবৃষ্টিতে সেচ সংকট বীজতলা ফেটে চৌচির

বাইক হাতে বেপরোয়া কিশোররা : নিত্য দুর্ঘটনা

ফেসবুক স্ট্যাটাসে ধর্ম অবমাননা, আটক : এক

ছবি

শিল্পে ভূগর্ভস্থ পানির ব্যবহার টিউবওয়েলে উঠছে না পানি

পঞ্চগড় সড়কে মৃত্যু ১

ঈশ্বরদীতে হেরোইনসহ যুবক গ্রেফতার

মির্জাগঞ্জে মাস্ক না পড়ায় ৮ জনকে জরিমানা

কলাপাড়ায় যুবকের মরদেহ উদ্ধার

রামেক হাসপাতালে করোনায় মৃত্যু ২

ছবি

আলফাডাঙ্গায় ধর্ষণের অভিযোগে যুবক গেপ্তার

ছবি

সখীপুরে ডেসকো বোর্ডের পরিচালকের বই মোড়ক উন্মোচন

tab

বাংলাদেশ

চিম্বুক পাহাড়ে পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণের প্রতিবাদে রাজধানীতে ম্রো’দের সমাবেশ

খালেদ মাহমুদ

সংবাদ :
  • প্রতিনিধি, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়
image
মঙ্গলবার, ০২ মার্চ ২০২১

বান্দরবানের নাইতং পাহাড়ে পাঁচ তারকা হোটেল ও বিনোদন কেন্দ্র নির্মাণের প্রতিবাদে রাজধানীতে সংহতি সমাবেশ করেছে চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত ম্রো আদিবাসীসহ বিভিন্ন পরিবেশবাদী সংগঠন।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত পাঁচ শতাধিক ম্রো নারী-পুরুষ রাজধানী ঢাকায় এসে সকাল সাড়ে ১০টার দিকে শাহবাগ চত্বরে জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ সমাবেশ করেছে৷

সমাবেশে ম্রো আদিবাসীদের সাথে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম, এলআরডি, ব্লাস্ট, কাপেং ফাউন্ডেশন, জাতীয় আদিবাসী পরিষদ, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলন বাপা, বেলা, সিপিবি, বাসদ, জাসদ, জনউৎসব, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি, ঐক্য ন্যাপ, বাংলাদেশ নারী প্রগতি সংঘ, পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটি, আদিবাসী নারী নেটওয়ার্ক, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন, পার্বত্য চট্টগ্রাম সামাজিক ছাত্র সংগঠন, আইন ও সালিশ কেন্দ্র, জয়েনশাহী আদিবাসী উন্নয়ন পরিষদ, সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন, গানের দল মাদল, আদিবাসী যুব ফোরাম, আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ প্রভৃতি সংগঠনসমূহ সংহতি জ্ঞাপন করেন। এতে প্রায় পাঁচ শতাধিক নারী-পুরুষ অংশ নেয়। সমাবেশ শেষে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি পেশ করা হয়।

পার্বত্য চট্টগ্রাম নাগরিক কমিটি সভাপতি গৌতম দেওয়ানের সভাপতিত্বে ও বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরামের সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং এর সঞ্চালনায় সমাবেশে সংহতি জানিয়ে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নাট্যকার মামুনুর রশীদ, সাবেক সংসদ সদস্য উষাতন তালুকদার, মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক শাহীন আনাম, ঐক্য ন্যাপ এর ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশীদ ভূঁইয়া, বেলার নির্বাহী পরিচালক সৈয়দা রেজওয়ানা হাসান, বাংলাদেশ কমিউনিস্ট পার্টির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স, জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক সদস্য নিরুপা দেওয়ান প্রমুখ।

চিম্বুক পাহাড়ে বসবাসরত ম্রোদের দাবি, যেখানে (নাইতং পাহাড়ে) পাঁচ তারকা হোটেল নির্মাণ করা হচ্ছে সেটি তাদের পূর্ব পুরুষদের চাষের জমি। এলাকার মানুষদের অন্ধকারে রেখে অবৈধভাবে পথ অনুসরণ করে ম্রোদের ভোগদখলীয় জায়গা জোরপূর্বক নেয়া হয়েছে।

সমাবেশে বক্তারা স্রোদের তাদের আবাসভূমি থেকে উচ্ছেদ, তাদের কৃষ্টি-সংস্কৃতি-ঐতিহ্যের প্রতি হুমকি ছাড়াও সিকদার গ্রুপের মতাে একটি বিতর্কিত ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের সাথে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ব্যবসায়িক সম্পৃক্ততা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করে জমস্বার্থ বিরােধী এ প্রকল্প বাতিলের দাবি জানান। পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তি ১৯৯৭ ও প্রযােজ্য আইনের অধীনে পার্বত্য চট্টগ্রামের ভূমি বিরােধ নিষ্পত্তিসহ চুক্তির সার্বিক বাস্তবায়নের দাবি জানিয়েছেন তারা।

বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য ফজলে হোসেন বাদশা সংহতি জানিয়ে বলেন, ম্রো’রা যখন তাদের আবাস ও আবাদভূমি জবরদস্তি বেদখলের বিরুদ্ধে ন্যায্য অবস্থান নিয়ে প্রতিবাদমুখর হলেন, তখন প্রতিবাদকারীদের বিরুদ্ধে নানা রকম ভয়-ভীতি প্রদর্শনের প্রচুর অভিযােগ উঠেছে। তাছাড়া সাজানাে অনুষ্ঠানের মাধ্যমে হােটেল ও বিনােদন পার্ক স্থাপনে ম্রো জনগােষ্ঠীর সম্মতি আছে মর্মেও প্রচারণা চালানাে হয়েছে, যা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আরাে উল্লেখ্য যে, পার্বত্য চট্টগ্রাম রেগুলেশন ১৯০০, বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদ আইন ১৯৮৯, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরােধ নিস্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ এবং উপরোক্ত আইনসমূহের মাধ্যমে স্বীকৃত প্রথা, রীতি, রেওয়াজ ও পদ্ধতিকে লঙ্গন করে ম্রো জাতির স্বাধীন ও পূর্বাবহিত সম্মতি ব্যতিরেকে পাঁচতারকা হােটেল নির্মাণ করা হচ্ছে। এটি অবিলম্বে বন্ধ করার জন্য সরকারের প্রতি আহ্বান জানান তিনি।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস বলেন, আমাদের কেবল ধর্মনিরপেক্ষ হলেই চলবে না জাতি নিরপেক্ষ হতে হবে, রাষ্ট্রনিরপেক্ষ হতে হবে। বাংলাদেশ যে একটা বহুজাতিক, বহু ধর্মের, বহু ভাষার, এবং বহু বৈচিত্রের সংস্কৃতপূর্ণ রাষ্ট্র, সেটি আমাদের ধারণ করতে হবে। পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকায় এভাবে জমি ইজারা নেয়ার বিষয়টি একেবারেই অবৈধ মন্তব্য করে এর প্রতিবাদ জানান তিনি।

এসময় চিম্বুক পাহাড়বাসীদের পক্ষে ৫ দফা দাবি তুলে ধরা হয়। তাদের দাবিসমূহের মধ্যে রয়েছে-

>> ম্রো জনগােষ্ঠীর জীবন-জীবিকা, প্রাকৃতিক সম্পদে প্রথাগত অভিগম্যতা, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও নিরাপত্তার দাবির প্রতি পূর্ণ সমর্থন জানিয়ে ম্রো অধ্যুষিত এলাকায় ম্যারিয়ট হােটেল ও বিনােদন পার্ক নামক প্রকল্পটি অবিলম্বে বাতিল করা;

>> পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক নিরাপত্তা বাহিনীকে যে ২০ একর জমি ইজারা প্রদান করা হয়েছে তা অবিলম্বে বাতিল করা;

>> এ প্রকল্প থেকে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সকল প্রকার সম্পৃক্ততা প্রত্যাহার করা;

>> আন্দোলনরত জনগােষ্ঠীকে সেনাবাহিনীর নামে ভয়-ভীতি প্রদর্শন ও নানা ধরনের হুমকি দেওয়ার অভিযােগ খতিয়ে দেখা ও যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা;

>> পরিবেশ ও প্রতিবেশের প্রতি হুমকি সৃষ্টিকারী পর্যটনসহ উন্নয়নের নামে অবাধ ও পূর্বাবহিত সম্মতি ব্যতিরেকে অন্যান্য সকল প্রশাসনিক ও অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড অবিলম্বে বন্ধ করে অনুরূপ প্রক্রিয়ায় দখলকৃত সকল ভূমি থেকে দখলদারদের উচ্ছেদ করা।

প্রসঙ্গত, বান্দরবানের চিম্বুক-থানচি সড়কের পাশে ২০ একর জমিতে ’ম্যারিয়ট-চন্দ্রপাহাড় রিসোর্ট আ্যান্ড অ্যামিউজমেন্ট পার্ক’ নামে এ পাঁচতারা রিসোর্ট নির্মাণ করছে সিকদার গ্রুপের আর অ্যান্ড আর হোল্ডিংস ও সেনা কল্যাণ সংস্থা। সেখান থেকে নীলগিরি আর্মি রিসোর্ট পর্যন্ত ক্যাবল কার চালুর পরিকল্পনাও আছে তাদের।

back to top