alt

বাংলাদেশ

আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনিয়ম ঢাকতেই নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন চেয়ারম্যান

মো. মানিক মিয়া, আখাউড়া : শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১

করোনা মহামারীর শুরুতে মেয়ের বিয়ের আয়োজন করে সমালোচনার মুখে পড়েন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তৎকালীন সিভিল সার্জন। একই দিনে জেলার বিজয়নগর উপজেলায় এক বিয়ের আয়োজনে জরিমানা করা হলে বিষয়টি আরও বেশি আলোচনার খোরাক হয়ে দাঁড়ায়। পরে অবশ্য ওই সিভিল সার্জনকে ওএসডি করা হয়।

চলমান টানা ১৪ দিনের ‘কঠোর লকডাউনের’ শুরুতে জেলার নবীনগর উপজেলায় নৌকা ভ্রমণে যাওয়া কয়েজনকে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ঠিক এর পরের দিন পরিবার নিয়ে নৌকা ভ্রমণে যান আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা আক্তার। যদিও গত এ সপ্তাহে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনো ধরনের পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

তবে ইউএনও রুমানা আক্তারের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা ইতোমধ্যেই আখাউড়ায় এসে বিষয়টি তদন্ত করে গেছেন। তবে তদন্তে কী পাওয়া গেছে সে বিষয়টি এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

একাধিক সূত্র জানায়, স্বজনদের নিয়ে নৌকা ভ্রমণে যাওয়ার কথা তদন্তের সময় স্বীকার করেছেন ইউএনও। তবে যথারীতি সরকারি কাজেই তিনি সেখানে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের একাধিক সদস্য এ সময় চেয়ারম্যানের ‘শিখিয়ে দেয়া’ বুলি আওড়ান। সড়কে গাড়ি রাখা নিয়ে ঝামেলার কথা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যরা অস্বীকার করেন। চেয়ারম্যান এর আগের দিন ইউএনও’র সঙ্গে দেখা করলে ভ্রমণের ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় ‘কটু কথা’ শুনেন।

এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, মূলত ইউএনওকে খুশি করে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনিয়ম দুর্নীতি ঢাকার জন্যই এ নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। এতে সায় ও জোগান দেন প্রকল্পের ঘর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২৩ জুলাই শুক্রবার দুপুরের পর ইউএনও’র সরকারি গাড়ি ও একটি প্রাইভেটকারে করে কয়েকজন আজমপুরের খেয়াঘাট এলাকায় যান। পরে ইউএনও রুমানা আক্তারসহ তাঁর পরিবারের লোকজন একটি নৌকায় করে ভ্রমণে যান। যদিও চেয়ারম্যান বলেছেন ওনাদের সঙ্গে সেখানে তাঁর পরিবারের কয়েকজন সদস্য ছিলেন।

নৌকার একটি ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, শিশুসহ অন্তত ১৫ জন এর ছাউনীতে বসে আছেন। তারা একে অপরের সঙ্গে গল্পে মশগুল। একজন নৌকা থেকেই পানিসহ সবার বসে থাকার দৃশ্য ধারণ করছেন। নৌকাটি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়ার দৃশ্যও ধারণ করেন স্থানীয় লোকজন। নৌকায় উঠার সময় ইউএনও’র সরকারি গাড়িসহ দু’টি গাড়ি সড়কে রাখা হয়। এতে করে চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। আজমপুরের কাজী জাহিদুল ইসলাম শরীফ নামে এক যুবক মোটর সাইকেল নিয়ে যেতে পারছিলেন না বলে গাড়ি সরাতে অনুরোধ করলে তাকে হুমকি দেয়া হয়। আরেকটি গাড়ির পরিণতির উদাহরণ দিয়ে ওই যুবকের গাড়িও পুড়িয়ে ফেলা হবে বলেও বলতে শুনা যায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে।

বিষয়টি নিয়ে দৈনিক সংবাদে খবর প্রকাশিত হয়। জেলা প্রশাসকের নজরেও আসে বিষয়টি। এ অবস্থায় তদন্তে নামে প্রশাসন। গত ২৭ জুলাই জেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বিষয়টি সম্পর্কে জানতে আখাউড়ায় আসেন। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট বেশ কয়েকজনকে তিনি জিজ্ঞাসাবাদও করেন। এ সময় ইউএনওসহ প্রত্যেকে নৌকা দিয়ে যাওয়ার বিষয়টি তখন স্বীকার করেন। গাড়ি রাখা প্রসঙ্গে তখন জানানো হয় যে, সড়কটি গাড়ি রাখার স্থানেই শেষ। এতে চলাচলের কোনো বিঘ্ন ঘটেনি। এ নিয়ে কারো সঙ্গে কোনো ঝামেলাও হয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মূলত উত্তর ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের চারটি ঘর অনিয়ম হয়েছে মর্মে বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হলে ইউএনও তদন্ত শুরু করেন। এমনকি কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। এরপর থেকে ইউএনওকে ম্যানেজ করতে উঠে পড়ে লাগেন উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হান্নান ভূঁইয়া স্বপন। তিনি মূলত নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন। তবে ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. কুতুব আলী।

এদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর থেকেই ইউএনও নানাভাবে এলাকার প্রতি বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন। আখাউড়াতে তিনি চাকরি করবেন না বলেও তিনি বলছেন। পাশাপাশি নিজের ভালো কর্মকাণ্ডকে তুলে ধরতে বেশ সরব হয়ে উঠেছেন। পাশাপাশি সেদিন নৌকা ভ্রমণে যাওয়ার দৃশ্য চেয়ারম্যান মোবাইল ফোনে ধারণ করার বিষয়ে ক্ষোভ ঝাড়ছেন।

একটি সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেলের সহকারি কমিশনার (ভূমি) থাকাকালে রুমানা আক্তারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উঠে। এর মধ্যে ভূমি অধিগ্রহন সংক্রান্ত একটি অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় হয়। ওই অভিযোগের কপি এ প্রতিবেদকের কাছে রয়েছে।

রুমানা আক্তারকে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের ইউএনও হিসেবে পদায়ন করা হয়। কিন্তু পূর্বের বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে আলোচনা উঠলে ওই আদেশ বাতিল করা হয়। এরপর তিনি চলতি মাসের শুরুতে আখাউড়ায় ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন।

তদন্তের মুখোমুখি হওয়া এক জনপ্রতিনিধি জানান, তিনি যা সত্য তাই বলেছেন। ইউএনও সরকারি কাজে যাওয়ার সময় স্বজনদের নিয়ে গেছেন বলে জানান। তবে সড়কে গাড়ি রাখা নিয়ে কারো সঙ্গে কোনো ঝামেলা হয়নি বলে তখন জানানো হয়।

ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. কুতুব আলী বলেন, ‘আমরা যে ঘরগুলো নির্মাণ করছি সেগুলোতে কোনো ধনের অনিয়ম হয়নি। অন্য একটি ঘরের সঙ্গে মিলিয়ে আমাদেরগুলো সম্পর্কেও লেখা হয়। অথচ তখন আমরা ঘরের তেমন কোনো কাজই করিনি।’

নৌকা ভ্রমণের পর পর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হান্নান ভূঁইয়া স্বপন বলেছিলেন, ‘আমাদের এলাকার খেয়া ঘাটে একটি ঘাটলা করা যায় কি-না সেটি দেখার জন্য ইউএনওকে অনুরোধ করা হয়। পরে ঘাটে আসার পর অনতিদূরেই থাকা বিজয়নগর উপজেলা চেয়ারম্যানের একটি মাছের প্রজেক্ট দেখতে নৌকায় উঠা হয়।’

আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা আক্তার অবশ্য তখন সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিরক্তবোধ করেন। আখাউড়াতে চাকরি করতে দিবেন কিনা- এমন প্রশ্ন প্রতিবেদকের প্রতি ছুড়ে দেন। প্রকল্পের কাজ দেখতে তিনি নৌকায় করে গিয়েছিলেন বলে জানান।

ছবি

ঝুমন দাসের জামিন আদেশ বৃহস্পতিবার

লক্ষ্মীপুর যুবলীগ সভাপতির বিরুদ্ধে নেতাকর্মীদের মারধরের অভিযোগ

ছবি

জাতিসংঘের অধিবেশনের উদ্বোধনী দিনে প্রধানমন্ত্রীর যোগদান

ছবি

সিলেটে দুই বোনের ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার, নেপথ্যে বিয়ে?

ছবি

হাউজকিপার মরিয়ম হত্যায় ২ কাঠমিস্ত্রির মৃত্যুদণ্ড

ছবি

রাজশাহীতে চার দফা দাবিতে ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ারিং এর বিক্ষোভ মিছিল সমাবেশ

ছবি

প্রতারণামূলক বিজ্ঞাপন প্রচার-প্রকাশে নিয়ন্ত্রণ কর্তৃপক্ষের নিষ্ক্রিয়তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে হাইকোর্ট

ছবি

‘মুকুট মণি’ আখ্যায়িত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

ছবি

জলবায়ু বিজ্ঞান প্রতিযোগিতার শীর্ষ দশ কমিউনিকেটদের মধ্যে রয়েছে এক বাংলাদেশি শিক্ষার্থী

ছবি

শেখ হাসিনার সঙ্গে বার্বাডোজের প্রধানমন্ত্রীর সৌজন্য সাক্ষাৎ

ছবি

রাজশাহীতে সড়ক নির্মাণ চার লেনে উন্নীতকরণ কাজের উদ্বোধন

বেরোবিতে জাতীয় পতাকা বিকৃত প্রদর্শন, ১৯ শিক্ষক-কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন

ছবি

১৮ অক্টোবর শেখ রাসেল দিবস পালনের নির্দেশ

ছবি

ঢাকা-নিউ ইয়র্ক ফ্লাইট দ্রুত সময়ে চালু হবে, আশা পররাষ্ট্রমন্ত্রীর

ছবি

বদলগাছীর কোলা হাট-বাজার ইজারায় অনিয়ম

কাপাসিয়ায় বিদ্যুতে চালকের মৃত্যু

টেকনাফ ইউপি নির্বাচনে সহিংসতা : ১৩ পুলিশসহ আহত ১৫

নৌকা প্রতীকে ৩৩ স্বতন্ত্র ৮ বিনা ভোটে ৩৮ চেয়ারম্যান প্রার্থী বিজয়ী

সোনারগাঁয়ে করোনা সংকট মোকাবিলায় নগদ অর্থ বিতরণ

মহেশখালীতে মকছুদ চকরিয়ায় আলমগীর নৌকা প্রতীকে মেয়র নির্বাচিত

ছবি

কীর্তনখোলায় জোয়ার এলেই ডুবে যায় চরবাড়িয়ার সড়ক

কিশোরগঞ্জে গত সপ্তাহের সংক্রমণ হার ২.৪৬ ভাগ আগস্টে ছিল ৩৩ ভাগ

ছবি

লালমনিরহাটে পানিতে পড়ে শিশুর মৃত্যু

ছবি

ময়মনসিংহে ভিজিডির ৮৪ বস্তা চাল পাচারের সময় জব্দ

ছবি

বিমানবন্দরে কবে নাগাদ ল্যাব চালু হবে, জানেন না দুই মন্ত্রী

ছবি

শূন্য পদে কারা চিকিৎসক নিয়োগে হাইকোর্টের নির্দেশ

ছবি

ডা. জাফরুল্লাহর রিট মামলা শুনতে হাইকোর্টের অপারগতা

ছবি

নিজেকে নির্দোষ দাবি করে ন্যায় বিচারের প্রার্থনা: আদালতে বাবর

ছবি

শ্রেণিকক্ষে টিকটক ভিডিও ধারন, অভিভাবকদের ডেকে সতর্ক

ছবি

বাগেরহাটের সব ইউনিয়নে আ. লীগের জয়

ছবি

বিমানবন্দরে খোলা জায়গায় করোনা পরীক্ষার ল্যাব বসানোর বিপক্ষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

প্রধানমন্ত্রী পেলেন এসডিজি পুরস্কার

ছবি

রাসেলের মুক্তি চেয়ে আদালত প্রাঙ্গনে ইভ্যালির গ্রাহকদের মানববন্ধন

ছবি

জলবায়ু ইস্যুতে বলিষ্ঠ পদক্ষেপের আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

ছবি

টঙ্গীতে ট্রেনের বগি লাইনচ্যুত, ঢাকার সঙ্গে রেল যোগাযোগ বন্ধ

কক্সবাজারে ইউপি নির্বাচনে যারা বেসরকারিভাবে নির্বাচিত

tab

বাংলাদেশ

আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনিয়ম ঢাকতেই নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন চেয়ারম্যান

মো. মানিক মিয়া, আখাউড়া

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১

করোনা মহামারীর শুরুতে মেয়ের বিয়ের আয়োজন করে সমালোচনার মুখে পড়েন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার তৎকালীন সিভিল সার্জন। একই দিনে জেলার বিজয়নগর উপজেলায় এক বিয়ের আয়োজনে জরিমানা করা হলে বিষয়টি আরও বেশি আলোচনার খোরাক হয়ে দাঁড়ায়। পরে অবশ্য ওই সিভিল সার্জনকে ওএসডি করা হয়।

চলমান টানা ১৪ দিনের ‘কঠোর লকডাউনের’ শুরুতে জেলার নবীনগর উপজেলায় নৌকা ভ্রমণে যাওয়া কয়েজনকে জরিমানা করেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। ঠিক এর পরের দিন পরিবার নিয়ে নৌকা ভ্রমণে যান আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা আক্তার। যদিও গত এ সপ্তাহে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে কোনো ধরনের পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি।

তবে ইউএনও রুমানা আক্তারের বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের তদন্ত শুরু হয়েছে। জেলা প্রশাসনের এক কর্মকর্তা ইতোমধ্যেই আখাউড়ায় এসে বিষয়টি তদন্ত করে গেছেন। তবে তদন্তে কী পাওয়া গেছে সে বিষয়টি এখনো পর্যন্ত নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

একাধিক সূত্র জানায়, স্বজনদের নিয়ে নৌকা ভ্রমণে যাওয়ার কথা তদন্তের সময় স্বীকার করেছেন ইউএনও। তবে যথারীতি সরকারি কাজেই তিনি সেখানে গিয়েছিলেন বলে জানিয়েছেন। সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদের একাধিক সদস্য এ সময় চেয়ারম্যানের ‘শিখিয়ে দেয়া’ বুলি আওড়ান। সড়কে গাড়ি রাখা নিয়ে ঝামেলার কথা ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যরা অস্বীকার করেন। চেয়ারম্যান এর আগের দিন ইউএনও’র সঙ্গে দেখা করলে ভ্রমণের ভিডিও ফেসবুকে ছেড়ে দেয়ার ঘটনায় ‘কটু কথা’ শুনেন।

এদিকে অনুসন্ধানে জানা গেছে, মূলত ইউএনওকে খুশি করে প্রধানমন্ত্রীর আশ্রয়ণ প্রকল্পের অনিয়ম দুর্নীতি ঢাকার জন্যই এ নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। এতে সায় ও জোগান দেন প্রকল্পের ঘর সংশ্লিষ্ট ইউনিয়ন পরিষদ সদস্যরা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ২৩ জুলাই শুক্রবার দুপুরের পর ইউএনও’র সরকারি গাড়ি ও একটি প্রাইভেটকারে করে কয়েকজন আজমপুরের খেয়াঘাট এলাকায় যান। পরে ইউএনও রুমানা আক্তারসহ তাঁর পরিবারের লোকজন একটি নৌকায় করে ভ্রমণে যান। যদিও চেয়ারম্যান বলেছেন ওনাদের সঙ্গে সেখানে তাঁর পরিবারের কয়েকজন সদস্য ছিলেন।

নৌকার একটি ভিডিও ক্লিপে দেখা যায়, শিশুসহ অন্তত ১৫ জন এর ছাউনীতে বসে আছেন। তারা একে অপরের সঙ্গে গল্পে মশগুল। একজন নৌকা থেকেই পানিসহ সবার বসে থাকার দৃশ্য ধারণ করছেন। নৌকাটি ঘাট থেকে ছেড়ে যাওয়ার দৃশ্যও ধারণ করেন স্থানীয় লোকজন। নৌকায় উঠার সময় ইউএনও’র সরকারি গাড়িসহ দু’টি গাড়ি সড়কে রাখা হয়। এতে করে চলাচলে বিঘ্ন ঘটে। আজমপুরের কাজী জাহিদুল ইসলাম শরীফ নামে এক যুবক মোটর সাইকেল নিয়ে যেতে পারছিলেন না বলে গাড়ি সরাতে অনুরোধ করলে তাকে হুমকি দেয়া হয়। আরেকটি গাড়ির পরিণতির উদাহরণ দিয়ে ওই যুবকের গাড়িও পুড়িয়ে ফেলা হবে বলেও বলতে শুনা যায় ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যানকে।

বিষয়টি নিয়ে দৈনিক সংবাদে খবর প্রকাশিত হয়। জেলা প্রশাসকের নজরেও আসে বিষয়টি। এ অবস্থায় তদন্তে নামে প্রশাসন। গত ২৭ জুলাই জেলা প্রশাসনের একজন কর্মকর্তা বিষয়টি সম্পর্কে জানতে আখাউড়ায় আসেন। বিষয়টি নিয়ে সংশ্লিষ্ট বেশ কয়েকজনকে তিনি জিজ্ঞাসাবাদও করেন। এ সময় ইউএনওসহ প্রত্যেকে নৌকা দিয়ে যাওয়ার বিষয়টি তখন স্বীকার করেন। গাড়ি রাখা প্রসঙ্গে তখন জানানো হয় যে, সড়কটি গাড়ি রাখার স্থানেই শেষ। এতে চলাচলের কোনো বিঘ্ন ঘটেনি। এ নিয়ে কারো সঙ্গে কোনো ঝামেলাও হয়নি।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, মূলত উত্তর ইউনিয়নে আশ্রয়ণ প্রকল্পের চারটি ঘর অনিয়ম হয়েছে মর্মে বিভিন্ন গণমাধ্যম ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে খবর প্রকাশ হলে ইউএনও তদন্ত শুরু করেন। এমনকি কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন। এরপর থেকে ইউএনওকে ম্যানেজ করতে উঠে পড়ে লাগেন উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হান্নান ভূঁইয়া স্বপন। তিনি মূলত নৌকা ভ্রমণের আয়োজন করেন। তবে ব্যবস্থাপনায় ছিলেন ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. কুতুব আলী।

এদিকে বিভিন্ন গণমাধ্যমে সংবাদ প্রকাশের পর থেকেই ইউএনও নানাভাবে এলাকার প্রতি বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখাচ্ছেন। আখাউড়াতে তিনি চাকরি করবেন না বলেও তিনি বলছেন। পাশাপাশি নিজের ভালো কর্মকাণ্ডকে তুলে ধরতে বেশ সরব হয়ে উঠেছেন। পাশাপাশি সেদিন নৌকা ভ্রমণে যাওয়ার দৃশ্য চেয়ারম্যান মোবাইল ফোনে ধারণ করার বিষয়ে ক্ষোভ ঝাড়ছেন।

একটি সূত্র জানায়, নারায়ণগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ রাজস্ব সার্কেলের সহকারি কমিশনার (ভূমি) থাকাকালে রুমানা আক্তারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ উঠে। এর মধ্যে ভূমি অধিগ্রহন সংক্রান্ত একটি অভিযোগ নিয়ে তোলপাড় হয়। ওই অভিযোগের কপি এ প্রতিবেদকের কাছে রয়েছে।

রুমানা আক্তারকে প্রথমে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা সদরের ইউএনও হিসেবে পদায়ন করা হয়। কিন্তু পূর্বের বিভিন্ন অভিযোগ নিয়ে আলোচনা উঠলে ওই আদেশ বাতিল করা হয়। এরপর তিনি চলতি মাসের শুরুতে আখাউড়ায় ইউএনও হিসেবে যোগদান করেন।

তদন্তের মুখোমুখি হওয়া এক জনপ্রতিনিধি জানান, তিনি যা সত্য তাই বলেছেন। ইউএনও সরকারি কাজে যাওয়ার সময় স্বজনদের নিয়ে গেছেন বলে জানান। তবে সড়কে গাড়ি রাখা নিয়ে কারো সঙ্গে কোনো ঝামেলা হয়নি বলে তখন জানানো হয়।

ইউনিয়ন পরিষদ সদস্য মো. কুতুব আলী বলেন, ‘আমরা যে ঘরগুলো নির্মাণ করছি সেগুলোতে কোনো ধনের অনিয়ম হয়নি। অন্য একটি ঘরের সঙ্গে মিলিয়ে আমাদেরগুলো সম্পর্কেও লেখা হয়। অথচ তখন আমরা ঘরের তেমন কোনো কাজই করিনি।’

নৌকা ভ্রমণের পর পর উত্তর ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হান্নান ভূঁইয়া স্বপন বলেছিলেন, ‘আমাদের এলাকার খেয়া ঘাটে একটি ঘাটলা করা যায় কি-না সেটি দেখার জন্য ইউএনওকে অনুরোধ করা হয়। পরে ঘাটে আসার পর অনতিদূরেই থাকা বিজয়নগর উপজেলা চেয়ারম্যানের একটি মাছের প্রজেক্ট দেখতে নৌকায় উঠা হয়।’

আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) রুমানা আক্তার অবশ্য তখন সাংবাদিকদের প্রশ্নে বিরক্তবোধ করেন। আখাউড়াতে চাকরি করতে দিবেন কিনা- এমন প্রশ্ন প্রতিবেদকের প্রতি ছুড়ে দেন। প্রকল্পের কাজ দেখতে তিনি নৌকায় করে গিয়েছিলেন বলে জানান।

back to top