alt

বাংলাদেশ

জেলা-উপজেলার সরকারি কলেজে সংযুক্ত ও ইনসিটু শিক্ষকদের বাড়িভাড়া নিয়ে জটিলতা

রাকিব উদ্দিন : বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১

রফিকুল ইসলাম (প্রকৃত নাম নয়) কর্মহীন (ওএসডি) অবস্থায় আছেন ঢাকায় মাউশিতে। সংযুক্ত হিসেবে কর্মরত আছেন কুমিল্লা সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজে। তিনি সহকারী অধ্যাপক। বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের এই শিক্ষক বাড়িভাড়া নিচ্ছেন ঢাকার হারে। তবে এই কলেজে স্থায়ী পদে কর্মরত থাকা অন্য সহকারী অধ্যাপকরা ন্যূনতম সাত হাজার টাকা কম বাড়িভাড়া পাচ্ছেন। এই বৈষম্য নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই স্থায়ী পদে কর্মরত থাকা শিক্ষকদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছিল।

শিক্ষাক্যাডার সদস্যরা মফস্বল এলাকায় স্থায়ী ও শূন্যপদে কর্মরত থাকলে মূল বেতনের ৩৫ শতাংশ বাড়িভাড়া ভাতা পান। তবে একই কলেজে ওএসডি ও সংযুক্তি থাকলে মূল বেতনের ৫০ শতাংশ বাড়িভাড়া ভাতা পান।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে তিন থেকে চার হাজার শিক্ষক ওএসডি ও সংযুক্তিতে কর্মকর্তা রয়েছেন। তাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই ঢাকার বিভিন্ন কলেজ ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে সংযুক্তিতে রয়েছেন। বাকি অর্ধেক জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সংযুক্তিতে রয়েছেন।

শিক্ষকদের জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের কলেজে সংযুক্তি থেকে ঢাকার হারে বাড়িভাড়া নেয়াকে ‘আর্থিক শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং সরকারের আর্থিক ক্ষতি’ হিসেবে দেখছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়।

এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে গত ১১ অক্টোবর মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক বরাবর ‘কর্মস্থলের হারে বাড়িভাড়া ভাতা প্রাপ্যতা’ শীর্ষক এক চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আপনার আওতাধীন যে সব কর্মকর্তা ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হিসেবে মাউশিতে রয়েছেন, কিন্তু সংযুক্ত/ইনসিটু হিসেবে বিভিন্ন উপজেলা/জলা/বিভাগে কর্মরত তাদের সংযুক্তি (অ্যাটাচমেন্ট) ‘আইবাস প্লাস প্লাসে’ তিন কর্ম দিবসের মধ্যে এন্ট্রি দেয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুনরায় অনুরোধ করা যাচ্ছে। অন্যথায় তাদের বেতন-ভাতার বিল এ কার্যালয় হতে ইএফটির (ইলেক্ট্রনিক ফান্ডস ট্রান্সফার) মাধ্যমে পরিশোধ করা সম্ভবপর হবে না।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) প্রফেসর শাহেদুল খবির চৌধুরী বুধবার (১৩ অক্টোবর) সংবাদকে বলেছেন, ‘প্রধানত এটা কোন সমস্যা নয়। কারণ শিক্ষক-কর্মকর্তারা তো নিজ ইচ্ছাই কেউ ওএসডি বা সংযুক্ত হয়নি। পর্যাপ্ত পদ থাকায় তাদের সংযুক্তি থাকতে হচ্ছে। নিচের পদে চাকরি করতে হচ্ছে।’

ওএসডি ও সংযুক্তিতে থাকা শিক্ষকদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে জানিয়ে মাউশি পরিচালক বলেন, ‘কতজন শিক্ষক ওএসডি ও সংযুক্তিতে আছেন, সেটা এখনই সুনির্দিষ্ট করে বলা কঠিন। বিভিন্ন সময়ে এই সংযুক্তি হয়েছে, আবার নিয়মিত পদের বিপরীতে পদায়নও হচ্ছে। এ কারণে তালিকা তৈরিতে একটু সময় লাগছে। এ সংক্রান্ত সব তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। এরপর তালিকা দেয়া হবে।’ চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারের চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ওএসডি ও সংযুক্তি শিক্ষকদের তালিকা দেয়ার জন্য গত ২৯ আগস্ট ও ২৮ সেপ্টেম্বর দুই দফা মাউশি কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়। ‘কিন্তু মাউশি ওই শিক্ষকদের তালিকা দেয়নি। আইবাস প্লাস প্লাসে এ সংক্রান্ত সংযুক্তি এন্ট্রিও দেয়া হয়নি। ফলে তাদের বাড়িভাড়া কর্মস্থলের হারে প্রাপ্ত না হয়ে ঢাকার হারে প্রাপ্ত হচ্ছেন, যা আর্থিক শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং সরকারের আর্থিক ক্ষতি।’

মাউশির সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সরকারি কলেজের শিক্ষক অর্থাৎ বিসিএস শিক্ষাক্যাডারে প্রায় ১৬ হাজার সদস্য রয়েছেন। তাদের মধ্যে তিন থেকে চার হাজার শিক্ষক ওএসডি আছেন। ওএসডি শিক্ষকদের একটি বড় অংশই রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের কলেজে সংযুক্তি এবং ইনসিটু (পদোন্নতি পেয়েও নিচের পদে চাকরি) কর্মরত রাখা হয়েছে।

সর্বশেষ গত ২৯ জুন এক হাজার ৮৪ জন সহকারী অধ্যাপককে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই সময় পদোন্নতির প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পদোন্নতি পাওয়া কর্মকর্তারা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দিয়ে আগের পদের দায়িত্ব (ইনসিটু) পালন করে যাবেন।

প্রায় আড়াই মাস আগে পদোন্নতি পেলেও ওই শিক্ষকদের বেশিরভাগই এখন সহকারী অধ্যাপকের দায়িত্ব পালন করছেন।

জানতে চাইলে স্বাধীনতা বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সংসদের আহ্বায়ক প্রফেসর নাসির উদ্দিন সংবাদকে বলেছেন, ‘ওএসডি-সংযুক্তি হবে কেন, পদ সৃষ্টি করলেই হয়। পদ না থাকার কারণেই শিক্ষকদের ওএসডি-সংযুক্তিতে রাখতে হচ্ছে। এর জন্য শিক্ষকরা দায়ী নয়, প্রশাসন দায়ী। শূন্য পদে পদায়ন পেলে কাউকেই ঢাকার হারে বাড়িভাড়া ভাতা নিতে হবে না।’

অচেনা হামলাকারীদের সঙ্গে ছিল মই হাতুড়ি পাথর

ছবি

সিলেটের পুলিশ সুপারের মায়ের মৃত্যু

ছবি

ঢামেকে নবজাতক মুমূর্ষ রোগীদের এনআইসিউতে ভর্তি করলেই আয়াদের দিতে হয় ঘুষ

ছবি

সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখতে জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক থাকতে হবে: স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ছবি

সার্বিয়ার পররাষ্ট্র, বাণিজ্য ও শ্রমমন্ত্রীর সাথে ড. মোমেনের বৈঠক

ছবি

নারী,শিশু, প্রতিবন্ধীদের জন্য ঢামেকের বর্হিবিভাগে আধুনিক টয়লেট

ছবি

প্রতিমা বিসর্জনে হাজার-হাজার মানুষের ঢল

ছবি

চট্টগ্রামে প্রশাসনের অনুরোধে প্রতিমা বিসর্জন

ছবি

পূজামণ্ডপে হামলা কোনোভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়: জাফরুল্লাহ চৌধুরী

ছবি

মাগুরায় দু’গ্রুপের সংঘর্ষে নিহত ৪, আহত ২৫

সম্প্রীতির মিলনমেলা কক্সবাজার সৈকতে

ছবি

নদীবন্দর সমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত

ছবি

শুভেচ্ছা সফরে যুক্তরাজ্যের রাজকীয় যুদ্ধজাহাজ এখন বাংলাদেশে

ছবি

শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে আবারও ফেরি চলাচল বন্ধ

ছবি

বায়তুল মোকাররম থেকে মিছিল, সংঘর্ষে উত্তপ্ত কাকরাইল

ছবি

বিশ্ব ক্ষুধা সূচকে ভারত ও পাকিস্তানের চেয়ে এগিয়ে বাংলাদেশ

ছবি

সোনারগাঁয়ে সড়ক সংস্কারের দাবিতে মানববন্ধন-বিক্ষোভ

ছবি

কুবিতে সিনিয়র-জুনিয়র দ্বন্দ্বে আহত ১০

ছবি

হাজীগঞ্জে ১৪৪ ধারা চলছে, পুলিশ–বিজিবির বাড়তি নিরাপত্তা

ছবি

পাবনায় ট্রাকচাপায় ৩ জন নিহত

ছবি

চোরের জন্য পেতে রাখা ফাঁদে বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে কৃষকের মৃত্যু

ছবি

দুই সন্তানকে মেরে মায়ের আত্মহত্যা

ছবি

আবারও ধর্মীয় উসকানি, সাম্প্রদায়িক হামলা, নিহত ৪

ছবি

সম্প্রীতির এক অনন্য নিদর্শন

সাম্প্রদায়িক অপচেষ্টা, দুর্বৃত্তদের শাস্তির দাবি

ছবি

রাজশাহীর ৩৫টি স্কুলে ‘মুজিব’ গ্রাফিক নভেল বিতরণ করলো বিকাশ

ছবি

গ্লাসগো, লন্ডন ও প্যারিস সফরে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

ইউটিসি প্রোমো ক্যাম্পেইনের প্রথম দুই ব্যাচের বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করলো কোকা-কোলা বাংলাদেশ

ছবি

ই-ক্যাবের সচেতনতামূলক প্রচারণা কর্মসূচী উদ্বোধন

ছবি

বিটিসিএল এবং বাংলাদেশ পুলিশের মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

ছবি

বজ্রপাত ঠেকাতে হাওরে হবে এক হাজার ছাউনি: ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

ছবি

দেশের শান্তি-শৃঙ্খলা ও ধর্মীয় সম্প্রতি অক্ষুন্ন রাখতে ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর আহ্বান

অসুস্থ খালেদা জিয়া

ছবি

সিলেট ছাত্রলীগের কমিটি বাতিল না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন

ভারত থেকে আরও ১০ লাখ টিকা আসছে

ছবি

কৃষি ও খাদ্য নিরাপত্তায় অভাবনীয় সাফল্য অর্জন করেছে বাংলাদেশ: এমপি শাওন

tab

বাংলাদেশ

জেলা-উপজেলার সরকারি কলেজে সংযুক্ত ও ইনসিটু শিক্ষকদের বাড়িভাড়া নিয়ে জটিলতা

রাকিব উদ্দিন

বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১

রফিকুল ইসলাম (প্রকৃত নাম নয়) কর্মহীন (ওএসডি) অবস্থায় আছেন ঢাকায় মাউশিতে। সংযুক্ত হিসেবে কর্মরত আছেন কুমিল্লা সরকারি ভিক্টোরিয়া কলেজে। তিনি সহকারী অধ্যাপক। বিসিএস সাধারণ শিক্ষা ক্যাডারের এই শিক্ষক বাড়িভাড়া নিচ্ছেন ঢাকার হারে। তবে এই কলেজে স্থায়ী পদে কর্মরত থাকা অন্য সহকারী অধ্যাপকরা ন্যূনতম সাত হাজার টাকা কম বাড়িভাড়া পাচ্ছেন। এই বৈষম্য নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই স্থায়ী পদে কর্মরত থাকা শিক্ষকদের মধ্যে অসন্তোষ বিরাজ করছিল।

শিক্ষাক্যাডার সদস্যরা মফস্বল এলাকায় স্থায়ী ও শূন্যপদে কর্মরত থাকলে মূল বেতনের ৩৫ শতাংশ বাড়িভাড়া ভাতা পান। তবে একই কলেজে ওএসডি ও সংযুক্তি থাকলে মূল বেতনের ৫০ শতাংশ বাড়িভাড়া ভাতা পান।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে তিন থেকে চার হাজার শিক্ষক ওএসডি ও সংযুক্তিতে কর্মকর্তা রয়েছেন। তাদের মধ্যে প্রায় অর্ধেকই ঢাকার বিভিন্ন কলেজ ও সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানে সংযুক্তিতে রয়েছেন। বাকি অর্ধেক জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সংযুক্তিতে রয়েছেন।

শিক্ষকদের জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের কলেজে সংযুক্তি থেকে ঢাকার হারে বাড়িভাড়া নেয়াকে ‘আর্থিক শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং সরকারের আর্থিক ক্ষতি’ হিসেবে দেখছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারের কার্যালয়।

এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে গত ১১ অক্টোবর মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তরের (মাউশি) মহাপরিচালক বরাবর ‘কর্মস্থলের হারে বাড়িভাড়া ভাতা প্রাপ্যতা’ শীর্ষক এক চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আপনার আওতাধীন যে সব কর্মকর্তা ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) হিসেবে মাউশিতে রয়েছেন, কিন্তু সংযুক্ত/ইনসিটু হিসেবে বিভিন্ন উপজেলা/জলা/বিভাগে কর্মরত তাদের সংযুক্তি (অ্যাটাচমেন্ট) ‘আইবাস প্লাস প্লাসে’ তিন কর্ম দিবসের মধ্যে এন্ট্রি দেয়ার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য পুনরায় অনুরোধ করা যাচ্ছে। অন্যথায় তাদের বেতন-ভাতার বিল এ কার্যালয় হতে ইএফটির (ইলেক্ট্রনিক ফান্ডস ট্রান্সফার) মাধ্যমে পরিশোধ করা সম্ভবপর হবে না।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাউশির পরিচালক (কলেজ ও প্রশাসন) প্রফেসর শাহেদুল খবির চৌধুরী বুধবার (১৩ অক্টোবর) সংবাদকে বলেছেন, ‘প্রধানত এটা কোন সমস্যা নয়। কারণ শিক্ষক-কর্মকর্তারা তো নিজ ইচ্ছাই কেউ ওএসডি বা সংযুক্ত হয়নি। পর্যাপ্ত পদ থাকায় তাদের সংযুক্তি থাকতে হচ্ছে। নিচের পদে চাকরি করতে হচ্ছে।’

ওএসডি ও সংযুক্তিতে থাকা শিক্ষকদের তালিকা তৈরি করা হচ্ছে জানিয়ে মাউশি পরিচালক বলেন, ‘কতজন শিক্ষক ওএসডি ও সংযুক্তিতে আছেন, সেটা এখনই সুনির্দিষ্ট করে বলা কঠিন। বিভিন্ন সময়ে এই সংযুক্তি হয়েছে, আবার নিয়মিত পদের বিপরীতে পদায়নও হচ্ছে। এ কারণে তালিকা তৈরিতে একটু সময় লাগছে। এ সংক্রান্ত সব তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। এরপর তালিকা দেয়া হবে।’ চিফ অ্যাকাউন্টস অ্যান্ড ফিন্যান্স অফিসারের চিঠিতে আরও বলা হয়েছে, ওএসডি ও সংযুক্তি শিক্ষকদের তালিকা দেয়ার জন্য গত ২৯ আগস্ট ও ২৮ সেপ্টেম্বর দুই দফা মাউশি কর্তৃপক্ষকে চিঠি দেয়া হয়। ‘কিন্তু মাউশি ওই শিক্ষকদের তালিকা দেয়নি। আইবাস প্লাস প্লাসে এ সংক্রান্ত সংযুক্তি এন্ট্রিও দেয়া হয়নি। ফলে তাদের বাড়িভাড়া কর্মস্থলের হারে প্রাপ্ত না হয়ে ঢাকার হারে প্রাপ্ত হচ্ছেন, যা আর্থিক শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং সরকারের আর্থিক ক্ষতি।’

মাউশির সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, সরকারি কলেজের শিক্ষক অর্থাৎ বিসিএস শিক্ষাক্যাডারে প্রায় ১৬ হাজার সদস্য রয়েছেন। তাদের মধ্যে তিন থেকে চার হাজার শিক্ষক ওএসডি আছেন। ওএসডি শিক্ষকদের একটি বড় অংশই রাজধানীসহ বিভিন্ন জেলা, উপজেলা ও বিভাগীয় পর্যায়ের কলেজে সংযুক্তি এবং ইনসিটু (পদোন্নতি পেয়েও নিচের পদে চাকরি) কর্মরত রাখা হয়েছে।

সর্বশেষ গত ২৯ জুন এক হাজার ৮৪ জন সহকারী অধ্যাপককে সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে পদোন্নতি দেয় শিক্ষা মন্ত্রণালয়। ওই সময় পদোন্নতির প্রজ্ঞাপনে বলা হয়, পদোন্নতি পাওয়া কর্মকর্তারা পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরে বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে যোগ দিয়ে আগের পদের দায়িত্ব (ইনসিটু) পালন করে যাবেন।

প্রায় আড়াই মাস আগে পদোন্নতি পেলেও ওই শিক্ষকদের বেশিরভাগই এখন সহকারী অধ্যাপকের দায়িত্ব পালন করছেন।

জানতে চাইলে স্বাধীনতা বিসিএস সাধারণ শিক্ষা সংসদের আহ্বায়ক প্রফেসর নাসির উদ্দিন সংবাদকে বলেছেন, ‘ওএসডি-সংযুক্তি হবে কেন, পদ সৃষ্টি করলেই হয়। পদ না থাকার কারণেই শিক্ষকদের ওএসডি-সংযুক্তিতে রাখতে হচ্ছে। এর জন্য শিক্ষকরা দায়ী নয়, প্রশাসন দায়ী। শূন্য পদে পদায়ন পেলে কাউকেই ঢাকার হারে বাড়িভাড়া ভাতা নিতে হবে না।’

back to top