alt

সারাদেশ

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের ২০ ভাগই ঢাকা মহানগরীর

রাকিব উদ্দিন : বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১

দেশে সংঘটিত সড়ক দুর্ঘটনার শতকরা ২০ ভাগই ঢাকা মহানগরীতে হয়, যেগুলোর বেশির ভাগই পথচারী সংশ্লিষ্ট। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের নেয়া সুপারিশ বাস্তবায়নে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের দায় থাকলেও তাদের কোন ‘কর্মপরিকল্পনা’ দৃশ্যমান নয়।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত লোকজনের অর্ধেকেরই বয়স ২১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। প্রতিদিন গড়ে সারাদেশে ৭টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় গড়ে প্রতিদিন ন্যূনতম ৮ জনের মৃত্যু হয়, আঘাতপ্রাপ্ত হন ৭ জন।

সরকার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসডিজি) ‘টার্গেট : ৩.৬’ বাস্তবায়নে ২০৩০ সালের মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু অর্ধেকে নামিয়ে আনতে চাই। এই লক্ষ্য পূরণে কঠোর সড়কে অধিকতর শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে কঠোর পদক্ষেপের বিকল্প নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

‘সড়ক পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা জোরদারকরণ এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে’ জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিল ১১১টি সুপারিশ গ্রহণ করেছে। বৃহত্তর ঢাকা কেন্দ্রিক ২৭টি সুপারিশের সঙ্গে ডিটিসিএ’র সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ সুপারিশ বাস্তবায়নের কাজ মূলত ঢাকা দক্ষিণ এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ওপর ন্যস্ত। এছাড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এই দুটি সংস্থারও কিছু কার্যক্রম রয়েছে।

ওইসব সুপারিশ বাস্তবায়নের অগ্রগতির ওপর গত ১৫ নভেম্বর ঢাকায় নগর ভবনে ডিটিসিএ’র সম্মেলন কক্ষে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সভায় ‘ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন হতে তাদের সংশ্লিষ্ট সুপারিশসমূহ বাস্তবায়নের কোন কর্মপরিকল্পনা/অগ্রগতি’ পাওয়া যায়নি।

ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের (বুয়েট) এক্সিডেন্ট রিচার্স ইনস্টিটিউট (এআরআই) যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারের কার্যবিবরণীতে ওই তথ্য তুলে ধরা হয়। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ওই কার্যবিবরণী প্রকাশ হয়, চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ডিটিসিএ’র সভায়ও ওইসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। সড়ক দুর্ঘটনা রোধ ও দুর্ঘটনায় ক্ষতি কমিয়ে আনতে আট দফা সুপারিশমালা তৈরি করেছে ডিটিসিএ এবং বুয়েট।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘সকালে ঘুম থেকে উঠে সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেলে মন খারাপ হয়ে যায়। আমি মন্ত্রী হলেও মানুষ তো। সড়কে যেন মাছের মতো মানুষ মরছে। এত উন্নয়নের পরও সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে পারিনি।’

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের সেমিনার হলে ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি’র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘সড়কে দুর্ঘটনা কমলেও মৃত্যুহার কমেনি বরং বেড়েছে। ২২টি জাতীয় মহাসড়কে তিন চাকার যানবাহন চলাচল বন্ধ করা হয়েছিল। সেই নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। ছোট তিন চাকার যানবাহনে দুর্ঘটনা বেশি প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশ এবং বুয়েটের ডেটাবেজ অনুসারে প্রতি বছর দেশে প্রায় দুই হাজার ৫০০টির মতো সড়ক দুঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় তিন হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এ হিসেবে প্রতিদিন গড়ে ৭টি দুর্ঘটনায় ৮ জনের প্রাণহানি হয়।

দুর্ঘটনার মূল কারণ হিসেবে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মাত্রাতিরিক্ত যানজট, উচ্চশব্দ, ঝুঁকিপূর্ণ সড়ক, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, অদক্ষ চালক এবং সড়ক ব্যবহারকারীদের অসচেতনতা প্রধানত দায়ী।

প্রতিবেদনে বুয়েটের ‘এআরআই’র পরিচালক অধ্যাপক ড. হাদিউজ্জমানের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, ‘ঢাকা মহানগরীতে পথচারী মৃত্যুর হার অনেক বেশি। সুতরাং সড়কে প্যাজিকাল ইন্টারভেনশন বা কাউন্টারম্যাজার নেয়ার ক্ষেত্রে পথচারীর নিরাপত্তা বিশেষভাবে বিবেচনায় রাখা উচিত। পথচারীদের জন্য পর্যাপ্ত ফুটপাতের ব্যবস্থা রাখা উচিত।’

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় গত দুদিনে দুজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় বৃহস্পতিবার বসুন্ধরা মার্কেটের সামনে সাবেক এক সংবাদকর্মী মারা গেছেন। আগের দিন গুলিস্তানে সিটি করপোরেশনের একটি গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে নটরডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী প্রাণ হারিয়েছেন।

৮ দফা সুপারিশ :

সড়ক দুর্ঘটনা রোধ, পথচারীদের নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত করা এবং সড়কে অধিকতর শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে আট দফা সুপারিশ করা হয়েছে ডিটিসিএ এবং বুয়েটের প্রতিবেদনে।

১. বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণার মাধ্যমে ঢাকা শহরের দুর্ঘটনার তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দুর্ঘটনাপ্রবণ স্থানসমূহ চিহ্নিত করে তা নিরসনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

২. ঢাকা শহরের সড়ক সংযোগস্থলসমূহে পথচারীর সহজ, নির্বিঘœ ও নিরাপদ যাতায়াতকে প্রাধান্য দিয়ে নিরাপদ ডিজাইন করতে হবে।

৩. স্কুল জোনিংয়ের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত নিরাপদ করতে হবে।

৪. সড়কের নিয়ম ও শৃঙ্খলা মেনে চলার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে স্কুলের শিশুদের উপযোগী করে একটি সহপাঠ বা নির্দেশিকা পুস্তিকা তৈরি করতে হবে।

৫. ঢাকা শহরে সড়ক নিরাপত্তা ও পথচারী বান্ধব সড়ক নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একটি গাইডলাইন প্রস্তুত করা প্রয়োজন।

৬. ঢাকা শহরের সড়কের রোড সেফটি অডিট পরিচালনার জন্য গাইডলাইন প্রস্তুত করতে হবে।

৭. ঢাকা শহরে পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন, গ্যাস সরবরাহ পাইপলাইন স্থাপন, টেলিফোন ও বৈদ্যুতিক তারের সংযোগ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রাস্তাখনন কাজে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও যানজট না হওয়ার বিষয়ে গাইডলাইন প্রস্তুত করতে হবে।

৮. গণপরিবহনে যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য একটি গাইডলাইন বা রূপরেখা প্রণয়ন করতে হবে।

ছবি

লক্ষ্মীপুরে নির্বাচনী সহিংসতায় ছাত্রলীগ নেতা নিহত

ছবি

গোলা ভেঙে ধান খাওয়ায় বন্যহাতির বিরুদ্ধে জিডি

ছবি

তিন মাস বয়সী বাছুরের দাম দুই লাখ

মির্জাগঞ্জে সহকারী প্রিজাইডিং কর্তার মৃত্যু

অধ্যক্ষের বিরুদ্ধে ২১ লাখ আত্মসাতের অভিযোগ

সরিষাবাড়ীতে ৭ ইউপিতে চেয়ারম্যান প্রার্থী ৫১

বদরগঞ্জের এক পরিবারের চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬ জন

এরশাদ শিকদারের নামে বিদ্যালয়ের নাম পরিবর্তন

ছবি

মশার যন্ত্রণায় নগরবাসী অতিষ্ঠ : ঘুমিয়ে খুশিক!

ছবি

বোয়ালখালীতে দিন দিন বাড়ছে বারি মাল্টার আবাদ

ঘরের দরজা ভেঙে কাস্টমস কর্মকর্তার দেহ উদ্ধার

বাগেরহাটে মাছের ঘের থেকে নিখোঁজ কৃষকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

আটক এড়াতে ছোটাছুটিতে আহত নীল গাইয়ের মৃত্যু

ছবি

কুমড়ো বড়ির আয়ে সচ্ছল অনেক সংসার

নারী ভোটকক্ষে সিল মারলেন নৌকার প্ল্যাকার্ড ঝোলানো যুবক

সুশাসন ছাড়া উন্নয়ন অর্থবহ হয় না : স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ছবি

রংপুরের কাউনিয়ায় উৎসবমুখর ভোট

ছবি

খুলনায় প্রতিপক্ষের পিটুনিতে আহত নৌকা সমর্থকের মৃত্যু

ছবি

বাংলাদেশের নারীরা সারাবিশ্বে নিজেদের যোগ্যতার পরিচয় দিচ্ছেন: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

নারায়ণগঞ্জে বিস্ফোরণ: দগ্ধ আরও ১ জনের মৃত্যু

ছবি

লক্ষ্মীপুরে ভোটের আগেই বিপুল পরিমাণ অস্ত্রসহ আটক ৩১

ছবি

যশোরের শার্শায় ভোটের সংঘাতে নিহত ১

ছবি

করোনার নতুন ধরনে উদ্বেগ

ছবি

ফের শিক্ষার্থীরা সড়কে

ছবি

ভর্তুকি ছাড়া অর্ধেক ভাড়ায় রাজি নয় মালিকরা

ছবি

খুলনায় বার্জারের নতুন এক্সপেরিয়েন্স জোন চালু

ছবি

ডোমিনো’জ পিৎজা’র ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন তাসকিন আহমেদ

ছবি

রংপুরে ট্রাকের ধাক্কায় দুই নারী শ্রমিকসহ নিহত ৩

কুমারখালীতে মহিলা পরিষদের পক্ষকালব্যাপী কর্মসূচি

টঙ্গীতে আট দিন ধরে পানির সংকট

ছবি

ঢাকার ৮০ শতাংশ বাস মালিক গরিব, দাবি এনায়েত উল্লাহর

১৩০ টাকায় কনস্টেবল

বেগমগঞ্জে যুবকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

পাইকগাছায় ইয়াসে ক্ষতিগ্রস্ত রাস্তা সংস্কার হয়নি আজও

ছবি

সাংস্কৃতিক আন্দোলনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধু স্বাধীনতা আন্দোলনের সূত্রপাত ঘটিয়েছিলেন : কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন

নাটোরে নর্থ বেঙ্গল চিনিকলের আখ মাড়াই শুরু

tab

সারাদেশ

সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতদের ২০ ভাগই ঢাকা মহানগরীর

রাকিব উদ্দিন

বৃহস্পতিবার, ২৫ নভেম্বর ২০২১

দেশে সংঘটিত সড়ক দুর্ঘটনার শতকরা ২০ ভাগই ঢাকা মহানগরীতে হয়, যেগুলোর বেশির ভাগই পথচারী সংশ্লিষ্ট। সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিলের নেয়া সুপারিশ বাস্তবায়নে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনের দায় থাকলেও তাদের কোন ‘কর্মপরিকল্পনা’ দৃশ্যমান নয়।

এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, দেশে সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ও আহত লোকজনের অর্ধেকেরই বয়স ২১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে। প্রতিদিন গড়ে সারাদেশে ৭টি সড়ক দুর্ঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় গড়ে প্রতিদিন ন্যূনতম ৮ জনের মৃত্যু হয়, আঘাতপ্রাপ্ত হন ৭ জন।

সরকার টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রার (এসডিজি) ‘টার্গেট : ৩.৬’ বাস্তবায়নে ২০৩০ সালের মধ্যে সড়ক দুর্ঘটনাজনিত মৃত্যু অর্ধেকে নামিয়ে আনতে চাই। এই লক্ষ্য পূরণে কঠোর সড়কে অধিকতর শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে কঠোর পদক্ষেপের বিকল্প নেই বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

‘সড়ক পরিবহন সেক্টরে শৃঙ্খলা জোরদারকরণ এবং দুর্ঘটনা নিয়ন্ত্রণে’ জাতীয় সড়ক নিরাপত্তা কাউন্সিল ১১১টি সুপারিশ গ্রহণ করেছে। বৃহত্তর ঢাকা কেন্দ্রিক ২৭টি সুপারিশের সঙ্গে ডিটিসিএ’র সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। এর মধ্যে বেশিরভাগ সুপারিশ বাস্তবায়নের কাজ মূলত ঢাকা দক্ষিণ এবং ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনের ওপর ন্যস্ত। এছাড়া সড়ক ও জনপথ অধিদপ্তর এবং রাজধানী উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ এই দুটি সংস্থারও কিছু কার্যক্রম রয়েছে।

ওইসব সুপারিশ বাস্তবায়নের অগ্রগতির ওপর গত ১৫ নভেম্বর ঢাকায় নগর ভবনে ডিটিসিএ’র সম্মেলন কক্ষে এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। কিন্তু সভায় ‘ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন হতে তাদের সংশ্লিষ্ট সুপারিশসমূহ বাস্তবায়নের কোন কর্মপরিকল্পনা/অগ্রগতি’ পাওয়া যায়নি।

ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ) এবং বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ^বিদ্যালয়ের (বুয়েট) এক্সিডেন্ট রিচার্স ইনস্টিটিউট (এআরআই) যৌথ উদ্যোগে অনুষ্ঠিত এক সেমিনারের কার্যবিবরণীতে ওই তথ্য তুলে ধরা হয়। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে ওই কার্যবিবরণী প্রকাশ হয়, চলতি সপ্তাহে অনুষ্ঠিত ডিটিসিএ’র সভায়ও ওইসব বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়। সড়ক দুর্ঘটনা রোধ ও দুর্ঘটনায় ক্ষতি কমিয়ে আনতে আট দফা সুপারিশমালা তৈরি করেছে ডিটিসিএ এবং বুয়েট।

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) ঢাকায় এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘সকালে ঘুম থেকে উঠে সড়ক দুর্ঘটনার খবর পেলে মন খারাপ হয়ে যায়। আমি মন্ত্রী হলেও মানুষ তো। সড়কে যেন মাছের মতো মানুষ মরছে। এত উন্নয়নের পরও সড়কে শৃঙ্খলা ফিরিয়ে আনতে পারিনি।’

রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ারিং ইনস্টিটিউটের সেমিনার হলে ‘বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন মালিক সমিতি’র দ্বি-বার্ষিক সাধারণ সভা ও কাউন্সিল অধিবেশনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, ‘সড়কে দুর্ঘটনা কমলেও মৃত্যুহার কমেনি বরং বেড়েছে। ২২টি জাতীয় মহাসড়কে তিন চাকার যানবাহন চলাচল বন্ধ করা হয়েছিল। সেই নির্দেশনা মানা হচ্ছে না। ছোট তিন চাকার যানবাহনে দুর্ঘটনা বেশি প্রতিবেদনে বলা হয়, পুলিশ এবং বুয়েটের ডেটাবেজ অনুসারে প্রতি বছর দেশে প্রায় দুই হাজার ৫০০টির মতো সড়ক দুঘটনা ঘটে। এসব দুর্ঘটনায় তিন হাজারের বেশি মানুষের প্রাণহানি ঘটে। এ হিসেবে প্রতিদিন গড়ে ৭টি দুর্ঘটনায় ৮ জনের প্রাণহানি হয়।

দুর্ঘটনার মূল কারণ হিসেবে প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, মাত্রাতিরিক্ত যানজট, উচ্চশব্দ, ঝুঁকিপূর্ণ সড়ক, ফিটনেসবিহীন যানবাহন, অদক্ষ চালক এবং সড়ক ব্যবহারকারীদের অসচেতনতা প্রধানত দায়ী।

প্রতিবেদনে বুয়েটের ‘এআরআই’র পরিচালক অধ্যাপক ড. হাদিউজ্জমানের বরাত দিয়ে বলা হয়েছে, ‘ঢাকা মহানগরীতে পথচারী মৃত্যুর হার অনেক বেশি। সুতরাং সড়কে প্যাজিকাল ইন্টারভেনশন বা কাউন্টারম্যাজার নেয়ার ক্ষেত্রে পথচারীর নিরাপত্তা বিশেষভাবে বিবেচনায় রাখা উচিত। পথচারীদের জন্য পর্যাপ্ত ফুটপাতের ব্যবস্থা রাখা উচিত।’

রাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় গত দুদিনে দুজন নিহত হয়েছেন। এর মধ্যে সিটি করপোরেশনের ময়লার গাড়ির ধাক্কায় বৃহস্পতিবার বসুন্ধরা মার্কেটের সামনে সাবেক এক সংবাদকর্মী মারা গেছেন। আগের দিন গুলিস্তানে সিটি করপোরেশনের একটি গাড়ির চাকায় পিষ্ট হয়ে নটরডেম কলেজের এক শিক্ষার্থী প্রাণ হারিয়েছেন।

৮ দফা সুপারিশ :

সড়ক দুর্ঘটনা রোধ, পথচারীদের নিরাপদ যাতায়াত নিশ্চিত করা এবং সড়কে অধিকতর শৃঙ্খলা নিশ্চিত করতে আট দফা সুপারিশ করা হয়েছে ডিটিসিএ এবং বুয়েটের প্রতিবেদনে।

১. বিজ্ঞানভিত্তিক গবেষণার মাধ্যমে ঢাকা শহরের দুর্ঘটনার তথ্য-উপাত্ত বিশ্লেষণ করে দুর্ঘটনাপ্রবণ স্থানসমূহ চিহ্নিত করে তা নিরসনের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

২. ঢাকা শহরের সড়ক সংযোগস্থলসমূহে পথচারীর সহজ, নির্বিঘœ ও নিরাপদ যাতায়াতকে প্রাধান্য দিয়ে নিরাপদ ডিজাইন করতে হবে।

৩. স্কুল জোনিংয়ের মাধ্যমে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত নিরাপদ করতে হবে।

৪. সড়কের নিয়ম ও শৃঙ্খলা মেনে চলার বিষয়ে শিক্ষার্থীদের মধ্যে সচেতনতা সৃষ্টির উদ্দেশ্যে স্কুলের শিশুদের উপযোগী করে একটি সহপাঠ বা নির্দেশিকা পুস্তিকা তৈরি করতে হবে।

৫. ঢাকা শহরে সড়ক নিরাপত্তা ও পথচারী বান্ধব সড়ক নির্মাণ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একটি গাইডলাইন প্রস্তুত করা প্রয়োজন।

৬. ঢাকা শহরের সড়কের রোড সেফটি অডিট পরিচালনার জন্য গাইডলাইন প্রস্তুত করতে হবে।

৭. ঢাকা শহরে পানি ও পয়ঃনিষ্কাশন, গ্যাস সরবরাহ পাইপলাইন স্থাপন, টেলিফোন ও বৈদ্যুতিক তারের সংযোগ ও রক্ষণাবেক্ষণের জন্য রাস্তাখনন কাজে সড়ক নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণ ও যানজট না হওয়ার বিষয়ে গাইডলাইন প্রস্তুত করতে হবে।

৮. গণপরিবহনে যাত্রীদের নিরাপত্তার জন্য একটি গাইডলাইন বা রূপরেখা প্রণয়ন করতে হবে।

back to top