alt

বাংলাদেশ

গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি প্রতারণার সামিল : যাত্রী অধিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০
image

করোনাভাইরাসের দূর্দিনে গণপরিবহনে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে সরকারের জনস্বার্থবিরোধী বলে দাবি করেছেন যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। ২ জুন মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি জানায় সংগঠনটি। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বজুড়ে মহামারী আকারে ছড়ানো করোনা প্রতিরোধের জন্য সরকার সারাদেশে প্রায় দুই মাসের অধিক সময় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে গণপরিবহন বন্ধ রেখেছিল। ৩১ মে থেকে বিমান, ট্রেন ও লঞ্চ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে পূর্বেও নির্ধারিত ভাড়ায় চলাচল শুরু করলেও। দেশের ৮৫ শতাংশ যাত্রীর ব্যবহার করা গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়েছে সরকার। করোনার এই দূর্দিনে ভাড়া বাড়িয়ে গণপরিবহন পরিচালনার যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তা অযৌক্তিক এবং জনস্বার্থবিরোধী। এটি দেশের সাধারণ নাগরিকদের জন্য মরার ওপর খাঁড়ার ঘা ছাড়া আর কিছুই নয়।

গত তিন মাস ধরে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি চলাকালে দেশের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার অজুহাতে অনেক শ্রমিকের ঠিকমতো বেতন-ভাতা পরিশোধ করেনি এ অবস্থায় পকেট খালি হওয়া সাধারণ মানুষ জীবন বাজি রেখে কাজের জন্য ঘর থেকে বের হতে গিয়ে কী করে অতিরিক্ত বাসভাড়া দেবেন সেটা মোটেও ভাবেনি সরকার। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী যেখানে ব্যবসায়ীদের স্বার্থে একের পর এক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেই যাচ্ছেন, সেখানে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও জ্বালানি তেলের দাম না কমিয়ে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি গণমানুষের সঙ্গে সরকারের প্রতারণারই শামিল। সরকারের অন্য কর্মসূচিগুলোরও পুরো বিপরীত। এখানে যাত্রী সাধারণের স্বার্থ মোটেও বিবেচনায় নেয়া হয়নি। বাস মিনিবাসের ৮০ শতাংশ গড় বুঝায় হিসাব করে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল। এ হিসাব একটি ৫০ আসনের বাসে ১০টি সিট ফাঁকা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি এই ফাঁকা থাকা আসনের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে ২৫টিতে দাঁড়িয়েছে। ১৫টি আসনের ভাড়া আদায় করতে সরকার এখন ৬০ শতাংশ ভাড়া না বাড়িয়ে জ্বালানি তেলের দাম কমানো, পরিবহনের চাঁদাবাজী বন্ধ, যানজট নিয়ন্ত্রণ করে বাস মিনিবাসের ট্রিপ বাড়িয়ে পরিবহন ভাড়া নিয়ন্ত্রণ করতে পারত। প্রয়োজনে কিছুটা ভর্তুকিও ঘোষণা করা যেত।

এ বিষয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন চৌধুরী বলেন, বাড়তি ভাড়ার জন্য যে সুপারিশ বিআরটিএ’র কমিটি করেছে তাতে বাস মালিকদের দাবি বিবেচনা করা হচ্ছে।

সৈয়দপুরে বিয়েতে কনের পক্ষের সঙ্গে বরপক্ষের মারামারি, জরিমানা দিয়ে বরপক্ষের রেহাই

ছবি

মাদারীপুরে সাংসদ ও আ.লীগ সভাপতির সমর্থদের মধ্যে সংঘর্ষে, পুলিশসহ আহত ১৫, দুটি ব্যাংক ভাঙচুর

ছবি

খুলনায় করোনায় আরও ৫ জনের মৃত্যু

ছবি

প্রয়োজন সমাজের সহযোগিতা

ছবি

মশা নিধনে নগরীর ড্রেন ও জলাশয়ে মাছ অবমুক্ত করলেন মেয়র

ছবি

টঙ্গীর বস্তিতে আগুন, শত শত ঘর পুড়ে ছাই

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে স্থায়ীভাবে বাসের সুযোগ হারাচ্ছেন ৩ লাখেরও বেশি মানুষ

ছবি

কুষ্টিয়া পৌর এলাকায় ৭দিনের কঠোর বিধিনিষেধ

ছবি

চিকিৎসা নিয়ে দিশেহারা রোগীরা

ছবি

সংক্রমণ ঢাকাকে ছাড়িয়ে গেছে রাজশাহী, লকডাউন শুরু

ছবি

লালমনিরহাট সীমান্ত দিয়ে ভারতীয়দের অবাধ যাওয়া আসা

ছবি

ড্রাগন চাষী শামিমা এখন সফল নারী কৃষি উদ্যোক্তা

ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়া রেল স্টেশন সংস্কার কাজ প্রাথমিক ভাবে শুরু

ছবি

লালমোহনে শেখ হাসিনার কারামুক্তি দিবস পালিত

ছবি

অবৈধ নলকুপে ক্ষতিগ্রস্থ্ হচ্ছে সরকারী গভীর নলকুপ

ছবি

কমিউনিটি ক্লিনিক গুলো বেশীর ভাগ সময় থাকে তালা বদ্ধ

ছবি

নিস্কাশন ব্যবস্থা না থাকায় সামান্য বৃষ্টিতেই হাটু পানি

ঝালকাঠিতে আদালতের নির্দেশ অমান্য করে ঘর নির্মাণের অভিযোগ

চার জেলায় নতুন শনাক্ত ১২৮

হোসেনপুরের বেহাল রাস্তা সংস্কারের উদ্যোগ

ছবি

ভারতীয় ভ্যারিয়েন্টের শঙ্কায় মেহেরপুরবাসী

রাজশাহীতে মানুষের আগ্রহ বাড়ছে অ্যান্টিজেন পরীক্ষায়

বাহরাইনে করোনায় নোয়াখালী প্রবাসীর মৃত্যু

তিন জেলায় মৃত্যু ৮

ছবি

ইয়াসের ক্ষতিগ্রস্তরা ১৫ দিনেও ফিরতে পারেনি স্বাভাবিক জীবনে

সোনারগাঁয়ে বৈধ গ্যাস পুনঃসংযোগের দাবিতে মানববন্ধন

ছবি

খাগড়াছড়ির ৯ উপজেলায় পাহাড় ধসের শঙ্কা : ঝুঁকিপূর্ণ বসবাস

ছবি

মুন্সীগঞ্জে ছাত্রলীগের নির্যাতনে যুবকের মৃত্যু

ছবি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় হেফাজত নেতাসহ গ্রেফতার ৩

ছবি

‘মাদকবাহী’ মাইক্রোবাস আটকাতে গিয়ে প্রাণ গেল পুলিশ কর্মকর্তার

ছবি

বিকাল থেকে রাজশাহী শহরে ৭ দিনের লকডাউন

ছবি

পাকিস্তানে বাস দুর্ঘটনায় নিহত ১৮

ছবি

রামেক হাসপাতালে আরও ১৫ জনের মৃত্যু

ছবি

কক্সবাজার ১ আসনের এমপি জাফর আলমকে আ’লীগের পদ থেকে অব্যাহতি

ছবি

বিভিন্ন জেলায় ছড়িয়ে পড়ছে সংক্রমণ

ছবি

শ্রমিক কল্যাণ তহবিলে ৩১.৪ কোটি টাকা জমা দিলো গ্রামীণফোন

tab

বাংলাদেশ

গণপরিবহনে ভাড়া বৃদ্ধি প্রতারণার সামিল : যাত্রী অধিকার

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০

করোনাভাইরাসের দূর্দিনে গণপরিবহনে ভাড়া বাড়ানোর সিদ্ধান্তকে সরকারের জনস্বার্থবিরোধী বলে দাবি করেছেন যাত্রী অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ। ২ জুন মঙ্গলবার এক বিজ্ঞপ্তিতে এই দাবি জানায় সংগঠনটি। বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বিশ্বজুড়ে মহামারী আকারে ছড়ানো করোনা প্রতিরোধের জন্য সরকার সারাদেশে প্রায় দুই মাসের অধিক সময় সাধারণ ছুটি ঘোষণা করে গণপরিবহন বন্ধ রেখেছিল। ৩১ মে থেকে বিমান, ট্রেন ও লঞ্চ স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে পূর্বেও নির্ধারিত ভাড়ায় চলাচল শুরু করলেও। দেশের ৮৫ শতাংশ যাত্রীর ব্যবহার করা গণপরিবহনে ৬০ শতাংশ ভাড়া বাড়িয়েছে সরকার। করোনার এই দূর্দিনে ভাড়া বাড়িয়ে গণপরিবহন পরিচালনার যে সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে তা অযৌক্তিক এবং জনস্বার্থবিরোধী। এটি দেশের সাধারণ নাগরিকদের জন্য মরার ওপর খাঁড়ার ঘা ছাড়া আর কিছুই নয়।

গত তিন মাস ধরে সরকার ঘোষিত সাধারণ ছুটি চলাকালে দেশের বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার অজুহাতে অনেক শ্রমিকের ঠিকমতো বেতন-ভাতা পরিশোধ করেনি এ অবস্থায় পকেট খালি হওয়া সাধারণ মানুষ জীবন বাজি রেখে কাজের জন্য ঘর থেকে বের হতে গিয়ে কী করে অতিরিক্ত বাসভাড়া দেবেন সেটা মোটেও ভাবেনি সরকার। বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, প্রধানমন্ত্রী যেখানে ব্যবসায়ীদের স্বার্থে একের পর এক প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেই যাচ্ছেন, সেখানে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও জ্বালানি তেলের দাম না কমিয়ে ৬০ শতাংশ ভাড়া বৃদ্ধি গণমানুষের সঙ্গে সরকারের প্রতারণারই শামিল। সরকারের অন্য কর্মসূচিগুলোরও পুরো বিপরীত। এখানে যাত্রী সাধারণের স্বার্থ মোটেও বিবেচনায় নেয়া হয়নি। বাস মিনিবাসের ৮০ শতাংশ গড় বুঝায় হিসাব করে ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছিল। এ হিসাব একটি ৫০ আসনের বাসে ১০টি সিট ফাঁকা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বর্তমানে করোনা পরিস্থিতি এই ফাঁকা থাকা আসনের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে ২৫টিতে দাঁড়িয়েছে। ১৫টি আসনের ভাড়া আদায় করতে সরকার এখন ৬০ শতাংশ ভাড়া না বাড়িয়ে জ্বালানি তেলের দাম কমানো, পরিবহনের চাঁদাবাজী বন্ধ, যানজট নিয়ন্ত্রণ করে বাস মিনিবাসের ট্রিপ বাড়িয়ে পরিবহন ভাড়া নিয়ন্ত্রণ করতে পারত। প্রয়োজনে কিছুটা ভর্তুকিও ঘোষণা করা যেত।

এ বিষয়ে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সামসুদ্দীন চৌধুরী বলেন, বাড়তি ভাড়ার জন্য যে সুপারিশ বিআরটিএ’র কমিটি করেছে তাতে বাস মালিকদের দাবি বিবেচনা করা হচ্ছে।

back to top