alt

অর্থ-বাণিজ্য

রবি’র সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ১৮ লাখ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১

৪৭ কোটি টাকা কর পরবর্তী মুনাফা (পিএটি) নিয়ে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষ করল রবি। বছরের প্রথমার্ধে অপারেটরটির পিএটি পৌঁছেছে ৮১ কোটি টাকায়। ২৮ জুলাই এক ডিজিটাল সংবাদ সম্মেলনে এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের ফলাফল ঘোষণার সময় এসব তথ্য জানিয়েছে অপারেটরটি।

এ সময় জানানো হয়, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় রবির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা দ্বিতীয় প্রান্তিকে বৃদ্ধি পেয়েেছ ৭.৫ শতাংশ। তবে ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় রবির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা ৬৫ শতাংশ বেড়েছে। মোট ৫ কোটি ১৮ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় ২ কোটি গ্রাহক ফোরজি সেবার আওতায় এসেছে। এছাড়া অপারেটরটির ৭২.৪ শতাংশ গ্রাহক ইন্টারনেট ব্যবহার করেন যা এ খাতে সর্বোচ্চ। প্রতি মাসে গ্রাহক কর্তৃক ব্যবহৃত ডাটার পরিমাণ দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গ্রাহক প্রতি মাসিক ডাটা ব্যবহারের পরিমাণ এখন ৩.৯ জিবিতে দাঁড়িয়েছে।

২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় এ প্রান্তিকে রবি’র গ্রাহক সংখ্যা ৮.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেলেও চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবির গ্রাহক সংখ্যা ০.২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে রবি’র মোট গ্রাহক দেশের মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর ২৯.৪ শতাংশ।

করোনা মহামারির কারণে লকডাউন পরিস্থিতি সত্ত্বেও চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি’র রাজস্ব আয় ২,০৩১ কোটি টাকায় পৌঁছেছে। এটি প্রথম প্রান্তিক থেকে ২.৫ শতাংশ বেশি। আর গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ১৫.২ শতাংশ বেড়েছে। ভয়েস সেবা থেকে রবি’র রাজস্বের হার ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ১.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ভয়েস সেবায় রাজস্ব ১৩.৭ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে ডাটা সেবায় রাজস্ব আয় দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ আয় গত প্রান্তিকের তুলনায় ৩.৬ শতাংশ এবং গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ২১.৯ শতাংশ বেড়েছে।

গত প্রান্তিকের তুলনায় ৫.২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের শেষ নাগাদ রবি’র ইবিআইটিডিএ দাঁড়িয়েছে ৮৫৪ কোটি টাকায়। তবে ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় ইবিআইটিডিএ ৩.২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। চলতি প্রান্তিক শেষে ইবিআইটিডিএ মার্জিন দাঁড়িয়েছে ৪২.১ শতাংশে।

ফোরজি নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি ৫৮৪ কোটি টাকা মূলধনী বিনিয়োগ করেছে। ১৩,৫৪৫টি ফোরজি সাইট দিয়ে চলতি প্রান্তিক শেষ করেছে রবি। এটি ৯৮ শতাংশ জনসংখ্যার কাভারেজ নিশ্চিত করছে। রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ১,১৩৮ কোটি টাকা যা ওই প্রান্তিকের মোট রাজস্বের ৫৬ শতাংশ।

কোম্পানির আর্থিক ফলাফল সম্পর্কে রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত যে আমাদের ডিজিটাল লক্ষ্যমাত্রা ইতিমধ্যে আমাদের আর্থিক অগ্রগতিতে অবদান রাখতে শুরু করেছে। আমরা দক্ষতার সাথে আমাদের ব্যয় পরিচালনা করার পাশাপাশি কোম্পানির উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়তে বিভিন্ন উদ্ভাবনী ডিজিটাল প্রযুক্তির পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছি। করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে কোম্পানির ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতীয় কল সেন্টার ৩৩৩-তে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা গর্বিত, যা কোভিড হেল্পলাইন হিসাবে নাগরিকদের সেবা দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া ৩৩৩ এর মাধ্যমে নাগরিকদের দ্বারপ্রান্তে ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে। রবি-টেন মিনিট স্কুলের মাধ্যমে আমরা প্রতিদিন সকল বয়সের ৩০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থীকে মানসম্পন্ন শিক্ষা কন্টেন্ট সরবরাহ করছি।

কিন্তু নিয়ন্ত্রক পরিস্থিতি নিয়ে মাহতাব উদ্বিগ্ন। এসএমপি নিয়ন্ত্রণে ফলপ্রসূ বাস্তবায়নের অভাবের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সামগ্রিক প্রতিযোগিতামূলক ত্রুটিগুলো বাজারকে ব্যর্থতার দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দিচ্ছে। প্রতিযোগিতার এমন ভঙ্গুর পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক সক্ষমতা অর্জন করা কঠিন হয়ে পড়েছে অপেক্ষাকৃত ছোট অপারেটরদের জন্য। তিনি উল্লেখ করেন, ত্রুটিপূর্ণ মূল্য নির্ধারণ প্রক্রিয়া এবং বিতরণ ব্যবস্থা গ্রাহকদের স্বার্থ ক্ষুন্ন করছে এবং একইসাথে টেলিকম শিল্পকে দূর্বল করে ফেলছে যা ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনের পথে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি হতাশা প্রকাশ করে বলেন, সুষ্ঠুভাবে বাজার পরিচালনার জন্য এটি নিশ্চিত করা জরুরি যেন কোনো একক সংস্থা মূল্য নির্ধারণ ও উৎপাদন সিদ্ধান্তের বিষয়ে প্রভাব ফেলতে না পারে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে, আমাদের বাজারে উল্লেখযোগ্য একচেটিয়া আধিপত্য রয়েছে যার কারণে প্রতিযোগীরা উদ্ভাবনী ডিজিটাল প্রযুক্তিতে বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। অথচ দেশের ভবিষ্যতের জন্য এ খাতে বিনিয়োগ জরুরি।

ছবি

বাংলাদেশ হাই-টেক পার্ক কর্তৃপক্ষ এবং কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

ছবি

তৈরি পোশাক খাতের ডিজিটাইজেশানের জন্য প্রি-সিড রাউন্ডে ২ লাখ ৬০ হাজার ডলার বিনিয়োগ পেল মার্চেন্টবে

ছবি

আসিয়ানে বাণিজ্য ও অর্থনীতি ডিজিটাল করতে আগামী পাঁচ বছর অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ

ছবি

৪৯৩টি উপজেলায় ‘বিসিক-ঐক্য ডিজিটাল ডিসপ্লে অ্যান্ড সেলস সেন্টার’ স্থাপনে চুক্তি

ছবি

চলছে হুয়াওয়ে কানেক্ট ২০২১

ছবি

শেষ হলো দারাজ চ্যাম্পিয়নশিপ কেস স্টাডি পর্ব

ছবি

ই-কমার্স সাইট থেকে পণ্য কিনে বাণিজ্যমন্ত্রী নিজেই প্রতারিত

সূচক কমলেও লেনদেন বেড়েছে শেয়ারবাজারে

এবার ধামাকার বিরুদ্ধে টঙ্গীতে মামলা

৪শ’ চীনা কোম্পানি কাজ করছে বাংলাদেশে : পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী

বিএসটিআই’র অভিযানে মামলা ও জরিমানা

ছবি

টেকসই বৈশ্বিক অর্থনৈতিক ভিত্তি তৈরি করে গেছেন বঙ্গবন্ধু : এফবিসিসিআই সভাপতি

এনআরবিসি ব্যাংক কর্মকর্তাকে মারধরের মামলায় প্রধান আসামি আটক

১-৫ অক্টোবর মার্কেন্টাইল ব্যাংকে লেনদেন বন্ধ

ছবি

চালু হলো স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ডের ‘স্মার্ট কার্ড’

ছবি

ডেসটিনি-যুবকের গ্রাহকরা অর্ধেক টাকা ফেরত পেতে পারেন: বাণিজ্যমন্ত্রী

ছবি

সঞ্চয়পত্রে নতুন মুনাফার হার পালনে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা

ছবি

ই-কমার্স সাইট থেকে গরু কিনে বাণিজ্যমন্ত্রী নিজেই প্রতারিত

৫৬ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের দর বৃদ্ধিতেও সূচকে মিশ্রপ্রবণতা

ছবি

নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংকে যোগ দিল বাংলাদেশ

ছবি

সালমান বলছেন, বাংলাদেশে বিনিয়োগে আগ্রহ দেখিয়েছে সৌদি আরব

ছবি

করোনার ক্ষতি কাটাতে ২ হাজার কোটি টাকা ঋণ দেবে এডিবি

নিবন্ধন প্রক্রিয়ার আওতায় আসছে ই-কমার্স

বাণিজ্যিক সম্পর্কোন্নয়নে প্রবাসীদের এগিয়ে আসার আহ্বান এফবিসিসিআই’র

ই-কমার্সে নিয়ন্ত্রক সংস্থা চান না উদ্যোক্তারা

বাড়ছে ডলারের দাম, কমছে টাকার মান

ছবি

ভারতে গেলো তৃতীয় দিনে ১৮৬ মেট্রিক টন ইলিশ

ছবি

বাংলাদেশকে স্বাগত জানিয়ে বার্তা দিলেন এনডিবি প্রেসিডেন্ট

ছবি

নিউ ডেভেলপমেন্ট ব্যাংক প্রেসিডেন্ট নতুন সদস্য হিসেবে বাংলাদেশকে স্বাগত জানালেন

ছবি

বেড়েই চলেছে সবজির দাম

শেয়ারবাজারে ফিরলো আড়াই হাজার কোটি টাকা

এলডিসি পরবর্তী চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় জাতিসংঘের সহায়তা চায় এফবিসিসিআই

ছবি

পানিফল চাষ জনপ্রিয় হচ্ছে সাতক্ষীরায়

নতুন চারটি পণ্য আনছে আরডি ফুড

ছবি

ভারতে তুলার উৎপাদন কমার আশঙ্কা

ছবি

‘স্বপ্ন’ এখন দক্ষিণ সস্তাপুরে

tab

অর্থ-বাণিজ্য

রবি’র সক্রিয় গ্রাহক সংখ্যা ৫ কোটি ১৮ লাখ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১

৪৭ কোটি টাকা কর পরবর্তী মুনাফা (পিএটি) নিয়ে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষ করল রবি। বছরের প্রথমার্ধে অপারেটরটির পিএটি পৌঁছেছে ৮১ কোটি টাকায়। ২৮ জুলাই এক ডিজিটাল সংবাদ সম্মেলনে এ বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের ফলাফল ঘোষণার সময় এসব তথ্য জানিয়েছে অপারেটরটি।

এ সময় জানানো হয়, চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় রবির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা দ্বিতীয় প্রান্তিকে বৃদ্ধি পেয়েেছ ৭.৫ শতাংশ। তবে ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় রবির ফোরজি গ্রাহক সংখ্যা ৬৫ শতাংশ বেড়েছে। মোট ৫ কোটি ১৮ লাখ গ্রাহকের মধ্যে প্রায় ২ কোটি গ্রাহক ফোরজি সেবার আওতায় এসেছে। এছাড়া অপারেটরটির ৭২.৪ শতাংশ গ্রাহক ইন্টারনেট ব্যবহার করেন যা এ খাতে সর্বোচ্চ। প্রতি মাসে গ্রাহক কর্তৃক ব্যবহৃত ডাটার পরিমাণ দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। গ্রাহক প্রতি মাসিক ডাটা ব্যবহারের পরিমাণ এখন ৩.৯ জিবিতে দাঁড়িয়েছে।

২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় এ প্রান্তিকে রবি’র গ্রাহক সংখ্যা ৮.১ শতাংশ বৃদ্ধি পেলেও চলতি বছরের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবির গ্রাহক সংখ্যা ০.২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিক শেষে রবি’র মোট গ্রাহক দেশের মোবাইল ফোন ব্যবহারকারীর ২৯.৪ শতাংশ।

করোনা মহামারির কারণে লকডাউন পরিস্থিতি সত্ত্বেও চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি’র রাজস্ব আয় ২,০৩১ কোটি টাকায় পৌঁছেছে। এটি প্রথম প্রান্তিক থেকে ২.৫ শতাংশ বেশি। আর গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ১৫.২ শতাংশ বেড়েছে। ভয়েস সেবা থেকে রবি’র রাজস্বের হার ২০২১ সালের প্রথম প্রান্তিকের তুলনায় ১.৪ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ভয়েস সেবায় রাজস্ব ১৩.৭ শতাংশ বেড়েছে। অন্যদিকে ডাটা সেবায় রাজস্ব আয় দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এ আয় গত প্রান্তিকের তুলনায় ৩.৬ শতাংশ এবং গত বছরের একই প্রান্তিকের তুলনায় ২১.৯ শতাংশ বেড়েছে।

গত প্রান্তিকের তুলনায় ৫.২ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকের শেষ নাগাদ রবি’র ইবিআইটিডিএ দাঁড়িয়েছে ৮৫৪ কোটি টাকায়। তবে ২০২০ সালের একই প্রান্তিকের তুলনায় ইবিআইটিডিএ ৩.২ শতাংশ হ্রাস পেয়েছে। চলতি প্রান্তিক শেষে ইবিআইটিডিএ মার্জিন দাঁড়িয়েছে ৪২.১ শতাংশে।

ফোরজি নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণে চলতি বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে রবি ৫৮৪ কোটি টাকা মূলধনী বিনিয়োগ করেছে। ১৩,৫৪৫টি ফোরজি সাইট দিয়ে চলতি প্রান্তিক শেষ করেছে রবি। এটি ৯৮ শতাংশ জনসংখ্যার কাভারেজ নিশ্চিত করছে। রবি রাষ্ট্রীয় কোষাগারে জমা দিয়েছে ১,১৩৮ কোটি টাকা যা ওই প্রান্তিকের মোট রাজস্বের ৫৬ শতাংশ।

কোম্পানির আর্থিক ফলাফল সম্পর্কে রবি’র ম্যানেজিং ডিরেক্টর অ্যান্ড সিইও মাহতাব উদ্দিন আহমেদ বলেন, আমরা খুবই আনন্দিত যে আমাদের ডিজিটাল লক্ষ্যমাত্রা ইতিমধ্যে আমাদের আর্থিক অগ্রগতিতে অবদান রাখতে শুরু করেছে। আমরা দক্ষতার সাথে আমাদের ব্যয় পরিচালনা করার পাশাপাশি কোম্পানির উজ্জ্বল ভবিষ্যত গড়তে বিভিন্ন উদ্ভাবনী ডিজিটাল প্রযুক্তির পরীক্ষা চালিয়ে যাচ্ছি। করোনা মহামারি পরিস্থিতিতে কোম্পানির ভূমিকার কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জাতীয় কল সেন্টার ৩৩৩-তে সহযোগিতা করতে পেরে আমরা গর্বিত, যা কোভিড হেল্পলাইন হিসাবে নাগরিকদের সেবা দেওয়ার জন্য ব্যবহার করা হয়েছে। এছাড়া ৩৩৩ এর মাধ্যমে নাগরিকদের দ্বারপ্রান্তে ডিজিটাল সেবা পৌঁছে দেওয়া সম্ভব হচ্ছে। রবি-টেন মিনিট স্কুলের মাধ্যমে আমরা প্রতিদিন সকল বয়সের ৩০ লাখেরও বেশি শিক্ষার্থীকে মানসম্পন্ন শিক্ষা কন্টেন্ট সরবরাহ করছি।

কিন্তু নিয়ন্ত্রক পরিস্থিতি নিয়ে মাহতাব উদ্বিগ্ন। এসএমপি নিয়ন্ত্রণে ফলপ্রসূ বাস্তবায়নের অভাবের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সামগ্রিক প্রতিযোগিতামূলক ত্রুটিগুলো বাজারকে ব্যর্থতার দ্বারপ্রান্তে ঠেলে দিচ্ছে। প্রতিযোগিতার এমন ভঙ্গুর পরিস্থিতিতে অর্থনৈতিক সক্ষমতা অর্জন করা কঠিন হয়ে পড়েছে অপেক্ষাকৃত ছোট অপারেটরদের জন্য। তিনি উল্লেখ করেন, ত্রুটিপূর্ণ মূল্য নির্ধারণ প্রক্রিয়া এবং বিতরণ ব্যবস্থা গ্রাহকদের স্বার্থ ক্ষুন্ন করছে এবং একইসাথে টেলিকম শিল্পকে দূর্বল করে ফেলছে যা ডিজিটাল বাংলাদেশের লক্ষ্য অর্জনের পথে বড় বাঁধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তিনি হতাশা প্রকাশ করে বলেন, সুষ্ঠুভাবে বাজার পরিচালনার জন্য এটি নিশ্চিত করা জরুরি যেন কোনো একক সংস্থা মূল্য নির্ধারণ ও উৎপাদন সিদ্ধান্তের বিষয়ে প্রভাব ফেলতে না পারে। দুঃখের বিষয় হচ্ছে, আমাদের বাজারে উল্লেখযোগ্য একচেটিয়া আধিপত্য রয়েছে যার কারণে প্রতিযোগীরা উদ্ভাবনী ডিজিটাল প্রযুক্তিতে বিনিয়োগে নিরুৎসাহিত হচ্ছেন। অথচ দেশের ভবিষ্যতের জন্য এ খাতে বিনিয়োগ জরুরি।

back to top