alt

নগর-মহানগর

লকডাউনে রিকসা চলে কিন্তু যাত্রী অনেক কম

শাফিউল ইমরান : রোববার, ১১ জুলাই ২০২১

রফিক মিয়া। রাজধানীতে রিকশা চালান। সকাল থেকে ব্যস্ত সময় তার। সকাল ৮টায় রিকশা নিয়ে বের হয়ে সন্ধা পর্যন্ত চলে।

সকালে ৯টার দিকে এক যাত্রী নিয়ে মোহম্মদপুর থেকে মতিঝিলে এসছেন। অপেক্ষা করছেন পল্টনে। যদি কোন দূরের যাত্রী পাওয়া যায়। তবে, ভাড়া পেতে অপেক্ষা করতে হয়।

শাহানূর মিয়া। গ্রামের বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জে। পরিবার নিয়ে থাকেন গ্রামের বাড়িতে। রোজ রিকশার প্যাডেল ঘুরিয়ে যে টাকা আয় হয় তা দিয়েই চলে সংসারের চাকা। লকডাউনের প্রথমদিকে আয় ভাল না হওয়ায় খুব কষ্টে ছিলেন পরিবার নিয়ে। যাত্রী না পাওয়ায় আয় কমে এসেছে চারের এক ভাগে। তবে, দুইতিন দিন যাবৎ বেশ ভালো আয় হওয়ায় খুশি।

রবিবার রাজধানীর পল্টন ও ধানমণ্ডিতে কথা হয় তাদের সঙ্গে। তারা বলেন, আজ সপ্তাহের প্রথম অফিস তাই সকাল সকাল বের হয়েছি যাতে বড় ‘ট্রিপ’ ধরতে পারি। দুইজনই বড় একটা বড় ট্রিপ পেয়ে খুশি। এখন পর্যন্ত মোটামুটি ভাল আয়। এখন ছোট ছোট ট্রিপ দিচ্ছি। যাত্রীরা যা ভাড়া দিতে চায় সেই ভাড়াতেই যাচ্ছি। বেঁচে থাকতে হবে, সংসার চালাইতে হবে।

রফিক মিয়া বলেন, আগে যেখানে হাজার টাকা আয় হতো সেখানে এখন আয়হয় ৪শ ৫শ টাকা। রিকশার জমা ১২০ টাকা ও ভাতের খরচ দেওয়ার পর আর তেমন কিছু না থাকলেও খেয়ে পরে বেঁচে আছি এই শুকরিয়া।

সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন মোড় ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। প্রায় প্রতিটি সড়কের মোড়ে রিকশা নিয়ে ২০-৩০ জন চালককে রিকশা নিয়ে যাত্রীর অপেক্ষায় বসে থাকতে দেখা গেছে। রিক্সা চালকরা জানান, রাস্তা ফাঁকা থাকার কারণে যেকোন যায়গায় অতি সহজে যাওয়া যায়। ভাড়া শেষ হয়ে যাবার পর অলস সময় বসে কাটাতে হয়। তাদের মধ্যে কেউ যাত্রী পাচ্ছেন তো, অন্যরা পাচ্ছেন না। এক জন যাত্রী দেখলে তিন-চার জন চালকই এক সঙ্গে ডাকাডাকি করেন। এ সুযোগে যাত্রীরাও অপেক্ষাকৃত কম ভাড়ায় রিকশায় উঠতে পারছেন।

কডাউনের ১১তম দিনে অন্যান্য দিনের তুলনায় রাজধানীর সড়কগুলোতে যানবাহন ও মানুষের উপস্থিতি বেশি।সড়কগুলোতে ভিন্ন জায়গায় যনবহনের চাপে সিগনালে আটকে থাকতে হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা আগের মতো থাকলেও কোন কোন জায়গায় ঢিলেঢালা। শ্যামলী থেকে পল্টন পর্যন্ত এলাকার সড়কগুলো ঘুরে দেখা যায়, কয়েকটি জায়গায় চেক পোস্ট বসিয়ে চলছে পুলিশের তল্লাশী।

সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস হওয়ায় লকডাউনের মধ্যেও সকাল থেকেই রাস্তাঘাটে কর্মমুখী মানুষের ভিড়।

ছবি

রাজধানীর অভিজাত এলাকায় আরো বেশি হারে বিল-কর চান স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ছবি

ই-অরেঞ্জ গ্রাহকদের মিছিলে পুলিশের লাঠিচার্জ

ছবি

৮৭ বছরের ঐতিহ্যবাহি কাচ্চি ব্যবসা ও একজন ফজলুর রহমান

ছবি

সৌদি বসে ঢাকায় অবৈধ ভিওআইপি ব্যবসা, গ্রেপ্তার ১

ছবি

মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় প্রাণ গেল যুবকের, আহত ৩

ছবি

রাজধানীর যেসব এলাকায় ৮ ঘণ্টা গ্যাস থাকবে না আজ

ছবি

হাতিরঝিলের অনুরূপ দৃষ্টিনন্দন জলাধার হবে কল্যাণপুরে: মেয়র আতিক

ছবি

রাজধানীতে র‌্যাবের অভিযানে মানবপাচারকারী চক্রের ২ সদস্য গ্রেপ্তার

ছবি

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারের পাশ থেকে নবজাতকের লাশ উদ্ধার

মালিবাগে ট্রেনে কাটা পড়ে শিক্ষক নিহত

ছবি

দক্ষিণ আফ্রিকায় নোয়াখালীর ব্যবসায়ীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা

ছবি

রাজধানীতে মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে নিহত ২

ছবি

‘বাঁইচা ফিরমু ভাবি নাই’

ছবি

রাজশাহীতে সন্তানের হাতে পিতা খুন

ছবি

মিরপুরের ওয়াসার অফিস যেন এডিস উৎপাদনের কারখানা, নির্বাহী প্রকৌশলীর বিরুদ্ধে মামলা

কলাগাছ দিয়ে স্যুয়ারেজ লাইন বন্ধ করতে চান মেয়র

ছবি

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কায় যুবক নিহত

‘কষ্ট সইতে না পেরে ওদের খুন করলাম’

ছবি

যাত্রাবাড়ীতে ‘পরকীয়া’র জেরে স্বামীর হাতে স্ত্রী-সন্তান খুন

ছবি

সংসদের চতুর্দশ অধিবেশন উপলক্ষে ডিএমপির নিষেধাজ্ঞা

ছবি

রাজধানীতে সাড়ে ৩ হাজার ঝুঁকিপূর্ণ ও অবৈধ ভবন

ছবি

বিআরটিএ যানবাহনের পাশাপাশি এডিস মশার লাইসেন্সও দিচ্ছে: মেয়র

ছবি

রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা থেকে গ্রেপ্তার ৫৭

ছবি

রাজধানীতে বাসের ধাক্কায় তরুণ ক্রিকেটারের মৃত্যু

ছবি

একদিনে চট্টগ্রামে করোনায় আক্রান্ত ২৬৯, মৃত্যু ৬

ছবি

রাজধানীতে মাদক বিরোধী অভিযানে আটক ৫৪

ছবি

ঢাকায় পুলিশের মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৫৪

ছবি

মিরপুরে গ্যাসের পাইপলাইনে বিস্ফোরণে দগ্ধ ৭

মশা নিধনে সুপারভাইজারদের দায়িত্ব নিতে হবে : মেয়র আতিক

ছবি

নিরাপদ নগরীর তালিকায় এখনও তলানিতে ঢাকা

বরিশাল ইউএনওর বিরুদ্ধে মেয়রের মামলা, পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ

ছবি

রাজধানী ‘আইস’ ও ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ১০

ছবি

রাজধানীতে বহুতল ভবনে ভয়াবহ আগুন

ছবি

‘দায় না চাপিয়ে মশা নিয়ন্ত্রণে সবাইকে কাজ করতে হবে’

সূত্রাপুরে হেলে পড়া ভবন সিলগালা

রাজধানীতে মাদক বিরোধী অভিযানে গ্রেফতার ৪৪

tab

নগর-মহানগর

লকডাউনে রিকসা চলে কিন্তু যাত্রী অনেক কম

শাফিউল ইমরান

রোববার, ১১ জুলাই ২০২১

রফিক মিয়া। রাজধানীতে রিকশা চালান। সকাল থেকে ব্যস্ত সময় তার। সকাল ৮টায় রিকশা নিয়ে বের হয়ে সন্ধা পর্যন্ত চলে।

সকালে ৯টার দিকে এক যাত্রী নিয়ে মোহম্মদপুর থেকে মতিঝিলে এসছেন। অপেক্ষা করছেন পল্টনে। যদি কোন দূরের যাত্রী পাওয়া যায়। তবে, ভাড়া পেতে অপেক্ষা করতে হয়।

শাহানূর মিয়া। গ্রামের বাড়ি রংপুরের পীরগঞ্জে। পরিবার নিয়ে থাকেন গ্রামের বাড়িতে। রোজ রিকশার প্যাডেল ঘুরিয়ে যে টাকা আয় হয় তা দিয়েই চলে সংসারের চাকা। লকডাউনের প্রথমদিকে আয় ভাল না হওয়ায় খুব কষ্টে ছিলেন পরিবার নিয়ে। যাত্রী না পাওয়ায় আয় কমে এসেছে চারের এক ভাগে। তবে, দুইতিন দিন যাবৎ বেশ ভালো আয় হওয়ায় খুশি।

রবিবার রাজধানীর পল্টন ও ধানমণ্ডিতে কথা হয় তাদের সঙ্গে। তারা বলেন, আজ সপ্তাহের প্রথম অফিস তাই সকাল সকাল বের হয়েছি যাতে বড় ‘ট্রিপ’ ধরতে পারি। দুইজনই বড় একটা বড় ট্রিপ পেয়ে খুশি। এখন পর্যন্ত মোটামুটি ভাল আয়। এখন ছোট ছোট ট্রিপ দিচ্ছি। যাত্রীরা যা ভাড়া দিতে চায় সেই ভাড়াতেই যাচ্ছি। বেঁচে থাকতে হবে, সংসার চালাইতে হবে।

রফিক মিয়া বলেন, আগে যেখানে হাজার টাকা আয় হতো সেখানে এখন আয়হয় ৪শ ৫শ টাকা। রিকশার জমা ১২০ টাকা ও ভাতের খরচ দেওয়ার পর আর তেমন কিছু না থাকলেও খেয়ে পরে বেঁচে আছি এই শুকরিয়া।

সকাল থেকে নগরীর বিভিন্ন মোড় ঘুরে এমন চিত্র দেখা গেছে। প্রায় প্রতিটি সড়কের মোড়ে রিকশা নিয়ে ২০-৩০ জন চালককে রিকশা নিয়ে যাত্রীর অপেক্ষায় বসে থাকতে দেখা গেছে। রিক্সা চালকরা জানান, রাস্তা ফাঁকা থাকার কারণে যেকোন যায়গায় অতি সহজে যাওয়া যায়। ভাড়া শেষ হয়ে যাবার পর অলস সময় বসে কাটাতে হয়। তাদের মধ্যে কেউ যাত্রী পাচ্ছেন তো, অন্যরা পাচ্ছেন না। এক জন যাত্রী দেখলে তিন-চার জন চালকই এক সঙ্গে ডাকাডাকি করেন। এ সুযোগে যাত্রীরাও অপেক্ষাকৃত কম ভাড়ায় রিকশায় উঠতে পারছেন।

কডাউনের ১১তম দিনে অন্যান্য দিনের তুলনায় রাজধানীর সড়কগুলোতে যানবাহন ও মানুষের উপস্থিতি বেশি।সড়কগুলোতে ভিন্ন জায়গায় যনবহনের চাপে সিগনালে আটকে থাকতে হয়েছে।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা আগের মতো থাকলেও কোন কোন জায়গায় ঢিলেঢালা। শ্যামলী থেকে পল্টন পর্যন্ত এলাকার সড়কগুলো ঘুরে দেখা যায়, কয়েকটি জায়গায় চেক পোস্ট বসিয়ে চলছে পুলিশের তল্লাশী।

সপ্তাহের প্রথম কর্মদিবস হওয়ায় লকডাউনের মধ্যেও সকাল থেকেই রাস্তাঘাটে কর্মমুখী মানুষের ভিড়।

back to top