alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

কম্পিউটার অপারেটরের চাকরি থেকে এখন ‘সাড়ে ৪০০ কোটি টাকার’ মালিক

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে টেকনাফ স্থল বন্দরে দিনে ১৩০ টাকা বেতনে চাকরি করতেন নুরুল ইসলাম । ২০ বছরে তিনি চাকরিকে পুঁজি করে ‘অবৈধভাবে’ সাড়ে ৪০০ কোটি টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে র‌্যাব।

গতকাল (১৩ সেপ্টেম্বর) সোমবার মধ্যরাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে র‌্যাব কর্মকর্তারা তাকে বাংলাদেশি জাল নোট, মিয়ানমারের মুদ্রা ও ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেন।

আজ (১৪ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন সাংবাদিকদের বলেন, নুরুল বন্দরে কর্মরত থাকাকালীন তার অবস্থানকে কাজে লাগিয়ে চোরাকারবার, শুল্ক ফাঁকি, অবৈধ পণ্য খালাস ও দালালির কৌশল রপ্ত করে। প্রায় ৮ বছর পর চাকরি ছেড়ে নিজেই দালালির সিন্ডিকেট তৈরি করেন।

“নুরুল নিজের লোককে তার পদে বসিয়ে ওই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বন্দর এলাকায় দালালির কার্যক্রমের প্রসার ঘটায়। চিহ্নিত ১০-১৫ জন সদস্যকে নিয়ে নুরুল পণ্য খালাস, পরিবহন সিরিয়াল নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি পথিমধ্যে অবৈধ মালামাল খালাসে সক্রিয় থাকত। একই সাথে পার্শ্ববর্তী দেশ হতে কাঠ, শুটকি মাছ, বরইয়ের আচার, মাছের চালান রপ্তানির আড়ালে মাদকসহ অবৈধ পণ্য নিয়ে আসত।”

র‌্যাব কর্মকর্তা মঈন বলেন, টেকনাফ বন্দর, ট্রাক স্ট্যান্ড, বন্দরের শ্রমিকদের ও জাহাজের আগমন-বর্হিগমনও নুরুলের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করত।

“সিন্ডিকেটের মাধ্যমে উপার্জিত কোটি কোটি টাকাকে হালাল করতে এমএস আল নাহিয়ান এন্টারপ্রাইজ, এমএস মিফতাউল এন্টারপ্রাইজ, এমএস আলকা এন্টারপ্রাইজ, আলকা রিয়েল স্টেট লিমিটেড এবং এমএস কানিজ এন্টারপ্রাইজ নামে প্রতিষ্ঠান গড়িয়ে তুলে নুরুল।”

প্রাথমিক অনুষ্ঠানে ঢাকা শহরে তার ছয়টি বাড়ি ও ১৩টি প্লট ছাড়াও সাভার, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন, ভোলাসহ বিভিন্ন জায়গায় নামে-বেনামে ৩৭টি বাড়ি, খোলা জায়গা-প্লট ও বাগানবাড়ি এবং ১৯টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকার তথ্য মিলেছে বলে জানান এই র্যাব কর্মকর্তা জানান,

‘অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদের আনুমানিক মূল্য ৪৬০ কোটি টাকা’ জানিয়ে কমান্ডার মঈন বলেন, নুরুল এখন জাহাজ শিল্প ও ঢাকার কাছে একটি বিনোদন পার্কে বিনিয়োগ করছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানিয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও তদন্তের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলে আশাপ্রকাশ করেন এই কর্মকর্তা।

ধর্ষণের অভিযোগে ময়মনসিংহে জাপা নেতা গ্রেপ্তার

ছবি

মুন্সীগঞ্জে স্বর্ণের দোকানে ডাকাতি,৮ ডাকাত গ্রেফতার

প্রধানমন্ত্রীর আপত্তিকর ছবি ফেসবুকে, রাজশাহীতে ১ ব্যক্তির দন্ড

ছবি

নিরাপদ সুপেয় পানি নিশ্চিতে ওয়াসার কর্মপরিকল্পনা দেখতে চায় হাইকোর্ট

ছবি

পাওনা চাইতে গেলে ব্যবসায়ীকে ক্ষুর দিয়ে খুন করলো সেলুনকর্মী

ছবি

স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজি ও সাহেদসহ ৬ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট অনুমোদন

ছবি

নারায়ণগঞ্জে সোলেমান হত্যা মামলার ২ আসামির জবানবন্দি

ছবি

স্বাস্থ্য অধিদফতরের গাড়িচালক মালেকের ১৫ বছরের কারাদণ্ড

ছবি

মিটফোর্ডে নকল-ভেজাল ওষুধের ছড়াছড়ি, অভিযানেও থামছে না

ছবি

দুর্নীতিবাজরা যেন শাস্তি পায়: দুদককে রাষ্ট্রপতি

ছবি

টেকনাফে রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী কালা জোবায়ের আটক

ছবি

রাজারবাগ দরবার শরিফের সব সম্পদের বিষয়ে তদন্ত করতে নির্দেশ: হাইকোর্ট

ছবি

থানচি হেডম্যানপাড়া সড়ক নির্মাণে ঠিকাদারের গাফিলতি : দুর্ভোগ

ছবি

দুদকের মামলায় ২১ সেপ্টেম্বর বাবরের আত্মপক্ষ শুনানি

ছবি

ইভ্যালির রাসেলসহ আরোও ২০ জনের বিরুদ্ধে আরেক মামলা

ছবি

ডিআইজি প্রিজনস পার্থ গোপাল বণিক কারাগারে

কুড়িগ্রাম ধর্ষণ মামলায় বিএনপি নেতা গ্রেপ্তার

ছবি

চট্টগ্রামে ১০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে ঢাকায় বিলাসবহুল জীবনযাপন

জয়েন্ট স্টক ও বিএসইসি কর্মকর্তাদের সহযোগিতা ছিল

টঙ্গীতে ধর্ষণের শিকার কিশোরী অন্তঃসত্বা : ধৃত ১

ঝালকাঠির গৃহবধূর দেহ সোনারগাঁয়ে উদ্ধার

ছবি

বগুড়ায় শালিস নিয়ে বিরোধে এক ব্যক্তিকে কুপিয়ে হত্যা

ছবি

ইভ্যালির রাসেল রিমান্ডে ‘অসুস্থ’ ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসা

ছবি

আদালতে বিচারাধীন হিন্দু পরিবারের জমিতে পাঁচ তলা ভবন নির্মাণ

মহেশপুরে ইজিবাইক চালককে পিটিয়ে হত্যা : বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

মুক্তাগাছায় আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দুই সদস্য গ্রেপ্তার

চাঁপাইয়ে অস্ত্র-গুলিসহ যুবক আটক

তারাকান্দায় জুয়া, মাদক বিরোধী অভিযানে ধৃত ১১

ছবি

১১ সাংবাদিক নেতার ‘সম্মানহানি’র প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

ছবি

হেফাজত নেতা রিজওয়ান রফিকী গ্রেপ্তার

ছবি

ইভ্যালির অফিস বন্ধ ঘোষণা

বাঘাইছড়িতে প্রতিপক্ষের গুলিতে সন্তুলারমা দলের নেতা নিহত

ছবি

ত্রাণ নিতে এসে হয়রানীর শিকার ৩৩৩ শে আবেদনকারীরা

ছবি

গৃহকর্মীকে মাথা ন্যাড়া করে মারধর, আটক গৃহকর্তা

ছবি

জঙ্গি সন্দেহে দিনাজপুরে এবিটির ৪২ সদস্য গ্রেপ্তার

কিশোরগঞ্জে তুচ্ছ ঘটনায় বৃদ্ধাসহ নিহত দুই

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

কম্পিউটার অপারেটরের চাকরি থেকে এখন ‘সাড়ে ৪০০ কোটি টাকার’ মালিক

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২১

কম্পিউটার অপারেটর হিসেবে টেকনাফ স্থল বন্দরে দিনে ১৩০ টাকা বেতনে চাকরি করতেন নুরুল ইসলাম । ২০ বছরে তিনি চাকরিকে পুঁজি করে ‘অবৈধভাবে’ সাড়ে ৪০০ কোটি টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন বলে অভিযোগ করেছে র‌্যাব।

গতকাল (১৩ সেপ্টেম্বর) সোমবার মধ্যরাতে রাজধানীর মোহাম্মদপুর থেকে র‌্যাব কর্মকর্তারা তাকে বাংলাদেশি জাল নোট, মিয়ানমারের মুদ্রা ও ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার করেন।

আজ (১৪ সেপ্টেম্বর) মঙ্গলবার র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন সাংবাদিকদের বলেন, নুরুল বন্দরে কর্মরত থাকাকালীন তার অবস্থানকে কাজে লাগিয়ে চোরাকারবার, শুল্ক ফাঁকি, অবৈধ পণ্য খালাস ও দালালির কৌশল রপ্ত করে। প্রায় ৮ বছর পর চাকরি ছেড়ে নিজেই দালালির সিন্ডিকেট তৈরি করেন।

“নুরুল নিজের লোককে তার পদে বসিয়ে ওই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বন্দর এলাকায় দালালির কার্যক্রমের প্রসার ঘটায়। চিহ্নিত ১০-১৫ জন সদস্যকে নিয়ে নুরুল পণ্য খালাস, পরিবহন সিরিয়াল নিয়ন্ত্রণের পাশাপাশি পথিমধ্যে অবৈধ মালামাল খালাসে সক্রিয় থাকত। একই সাথে পার্শ্ববর্তী দেশ হতে কাঠ, শুটকি মাছ, বরইয়ের আচার, মাছের চালান রপ্তানির আড়ালে মাদকসহ অবৈধ পণ্য নিয়ে আসত।”

র‌্যাব কর্মকর্তা মঈন বলেন, টেকনাফ বন্দর, ট্রাক স্ট্যান্ড, বন্দরের শ্রমিকদের ও জাহাজের আগমন-বর্হিগমনও নুরুলের সিন্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করত।

“সিন্ডিকেটের মাধ্যমে উপার্জিত কোটি কোটি টাকাকে হালাল করতে এমএস আল নাহিয়ান এন্টারপ্রাইজ, এমএস মিফতাউল এন্টারপ্রাইজ, এমএস আলকা এন্টারপ্রাইজ, আলকা রিয়েল স্টেট লিমিটেড এবং এমএস কানিজ এন্টারপ্রাইজ নামে প্রতিষ্ঠান গড়িয়ে তুলে নুরুল।”

প্রাথমিক অনুষ্ঠানে ঢাকা শহরে তার ছয়টি বাড়ি ও ১৩টি প্লট ছাড়াও সাভার, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন, ভোলাসহ বিভিন্ন জায়গায় নামে-বেনামে ৩৭টি বাড়ি, খোলা জায়গা-প্লট ও বাগানবাড়ি এবং ১৯টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থাকার তথ্য মিলেছে বলে জানান এই র্যাব কর্মকর্তা জানান,

‘অবৈধভাবে অর্জিত সম্পদের আনুমানিক মূল্য ৪৬০ কোটি টাকা’ জানিয়ে কমান্ডার মঈন বলেন, নুরুল এখন জাহাজ শিল্প ও ঢাকার কাছে একটি বিনোদন পার্কে বিনিয়োগ করছে বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে।

তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে জানিয়ে সরকারের সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষও তদন্তের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলে আশাপ্রকাশ করেন এই কর্মকর্তা।

back to top