alt

আন্তর্জাতিক

ইউরোপে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: ফের লকডাউন, বিধিনিষেধ

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০

করোনা সংক্রমণের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’-এর জের ধরে ইউরোপে আরও কড়াকড়ি বাড়ছে। জার্মানি ও ফ্রান্স ইতিমধ্যেই নতুন করে লকডাউনে যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গ্রীষ্মের বিদায়ের পর বদ্ধ জায়গায় মানুষের সমাবেশের কারণে সংক্রমণের হার আরো বাড়বে এমন আশঙ্কা করছেন ইউরোপভুক্ত দেশগুলোর নীতিনির্ধারকরা।

শুক্রবার থেকেই লকডাউন চালু হচ্ছে ফ্রান্সে। বলা হচ্ছে ঘরের বাইরে বেরোতেও পুলিশি অনুমতির প্রয়োজন হবে। তবে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য কেনার ব্যাপারে ছাড়পত্র পাওয়া যাবে। কাজের ক্ষেত্রে ওয়ার্ক ফ্রম হোমেই জোর দেওয়া হবে। ফ্রান্সে প্রতিদিন প্রায় ৩৬ হাজারেরও বেশি মানুষ নতুন করে সংক্রমিত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাঁখো কারফিউ জারি করেন। তিনি বলেন, “আমাদের অন্যান্য প্রতিবেশীর মতো আমাদের দেশেও নতুন করে ভাইরাসের ঢেউ আছড়ে পড়ছে। তাই আমরা চাইছি আবার নতুন করে লকডাউন জারি করতে।“

ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় জার্মানিতে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের হার কম হলেও সম্প্রতি প্রতিবেশী দেশগুলোতে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সর্বোচ্চ সতর্কতা মেনে চলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। আগামী ২ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আংশিকভাবে লকডাউন জারি থাকবে জার্মানি জুড়ে। বন্ধ থাকবে সমস্ত পানশালা ও রেস্তোরাঁ। বন্ধ থাকবে সিনেমা হল,থিয়েটার, কনসার্ট, খেলার মাঠ,বানিজ্য প্রদর্শনীতে। তবে স্কুল ও কিন্ডারগার্ডেন খোলা থাকবে।

এ বিষয়ে জার্মানির চান্সেলর আঙ্গেলা মের্কেল জানান, “করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আসন্ন শীতে সর্বোচ্চ সতর্কতা মেনে চলা খুব জরুরী। এই বৈশ্বিক মহামারী থেকে আমরা বিচ্ছিন্ন নই ফলে সতর্ক থাকাটা নিজের জন্য যেমন জরুরী তেমনি পরিবার, কর্মক্ষেত্রসহ গোটা দেশের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার জন্য আবশ্যক।“

ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলোতেও করোনা ভাইরাসের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ মোকাবেলায় কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের একটি নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে প্রতিদিন প্রায় লক্ষ মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে দেশটির আঞ্চলিক পদ্ধতিতে নেয়া ভাইরাস মোকাবেলার প্রস্তুতি থেকে আরো কঠোরতর বিধিনিষেধ গ্রহন করার জন্য সরকারকে চাপে রেখেছেন নীতিনির্ধারকরা।

ইউরোপে করোনা সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ের কেন্দ্রস্থল বলে পরিচিত ইতালিতে ইতিমধ্যেই এক মাসের জন্য নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ ঘোষণা করা হয়েছে। সকল ধরনের সামাজিক আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া সকল পানশালা, খাবারের দোকান শর্তসাপেক্ষে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

গত ২৫ শে অক্টোবর থেকে স্পেন সারা দেশজুড়ে সুনির্দিষ্ট সময়ের জন্য কারফিউ ঘোষণা করে। এই ঘোষনায় ১১ টা থেকে ৬ টা পর্যন্ত সকলকে নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

চেক প্রজাতন্ত্রে বুধবার পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণের হিসাবে গত ১৪ দিনে লাখে ১৪৪৮ জন নতুন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় চেক প্রজাতন্ত্রে নতুন সংক্রমণের হার সর্বোচ্চ। নতুন সংক্রমণের দিক থেকে এর পরের অবস্থানে রয়েছে বেলজিয়াম। বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী এই পরিস্থিতিকে যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলে মানছেন।

আয়ারল্যান্ড করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় এই মাসেই ছয় সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করেছে।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন ইউরোপে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’কে যথেষ্ট আশঙ্কাজনক উল্লেখ করে বলেন, “স্বাস্থ্য ঝুঁকির প্রেক্ষিতে আমরা গভীর সঙ্কটের মুখে আছি। এবারের ক্রিসমাস উদযাপন অন্য যেকোন বছরের তুলনায় কঠিন হবে।“

এদিকে পশ্চিমা অর্থনীতির প্রধান দুই দেশে লকডাউন ও অন্যান্য দেশে কঠোর বিধিনিষেধের খবর আসতেই শেয়ার বাজারে দর পতন শুরু হয়েছে।

ছবি

করোনায় একদিনে ১১ হাজার মানুষের মৃত্যু

ছবি

গাজায় ইসরায়েলের বিমান হামলা, নিহত ২১‌

ছবি

দেশে ফেরার দাবিতে বাংলাদেশিদের বিক্ষোভ

ছবি

নতুন-পুরনো নিয়ে মমতার নতুন মন্ত্রিসভা বিতর্কিতরা বাদ

ছবি

ভারতে গঙ্গা-যমুনায় ভাসছে শত শত লাশ

ছবি

শপথ নিলেন মমতার মন্ত্রিসভার ৪৩ সদস্য

ছবি

আল-আকসার মসজিদের ভেতরে ইসরায়েলি বাহিনীর হামলা

ছবি

এ বছর ‘বিশেষ শর্তে’ হজ

ছবি

মন্ত্রিসভায় একাধিক নতুন মুখ আনছেন মমতা

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে জন্মদিনের পার্টিতে ৬ জনকে গুলি করে হত্যা

ছবি

করোনায় মৃত্যু ৩৩ লাখ ছাড়াল

ছবি

‘ক্ষমার অযোগ্য অপরাধ’ করেছেন নরেন্দ্র মোদি: ল্যানসেট

ছবি

নিউইয়র্কের টাইমস স্কয়ারে শিশুসহ গুলিবিদ্ধ তিন

ছবি

করোনায় বিপর্যস্ত ভারত, টানা চার দিন ৪ হাজারের বেশি মৃত্যু

ছবি

আল-আকসায় ইসরায়েলি হামলা, ১৬৩ ফিলিস্তিনি আহত

ছবি

মমতার মন্ত্রিসভায় এবারও ৪৪ জন সদস্য থাকছেন

ছবি

কঠিন পরিস্থিতি ভারতে, একদিনে চার হাজারের বেশি মৃত্যু

ছবি

ভারতে করোনার দুই ডোজ টিকা পেয়েছেন মাত্র ৩ শতাংশ মানুষ

ছবি

বিধ্বস্ত ভারতে সংক্রমণের নতুন রেকর্ড

ছবি

কিশোরদের জন্যে ফাইজারের টিকার ছাড়পত্র দিল কানাডা

ছবি

ভেঙে পড়েছে ভারতের স্বাস্থ্য ব্যবস্থা

ছবি

বিল-মেলিন্ডার সন্তানরা কে কত টাকার সম্পদ পাচ্ছেন

ছবি

টানা তৃতীয় দফায় শপথ নিলেন মমতা

ছবি

তৃণমূল বিপুল জয় পেলেও বিজেপির ভোটও কম নয়

ছবি

পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতা, নিহত ১২

ছবি

মুখ্যমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করলেন মমতা

ছবি

মেক্সিকোতে মেট্রো ট্রেন দুর্ঘটনা, নিহত ১৫

ছবি

সাত বছর তুমুল প্রেম করে বিয়ে করেছিলেন বিল-মেলিন্ডা

ছবি

মেক্সিকোতে মেট্রোরেল ভেঙে পড়ে নিহত ১৫, আহত ৭০

ছবি

আফগানিস্তানে ফের গৃহযুদ্ধের শঙ্কা দেখছেন হিলারি

ছবি

বিধ্বস্ত ভারতে করোনা আক্রান্ত দুই কোটি পার

ছবি

তৃতীয় দফায় মুখ্যমন্ত্রী পদে কাল শপথ নিচ্ছেন মমতা

ছবি

টেকনো’র গ্লোবাল ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসেডর হলেন ক্যাপ্টেন আমেরিকা খ্যাত সুপারস্টার ক্রিস ইভানস

ছবি

যেকোনো গণজমায়েতের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করুন: ভারত সুপ্রিম কোর্ট

ছবি

পাল্টা আক্রমণেই জয় তুলে নিলো মমতা

ছবি

ইসরায়েলি সেনার গুলিতে ফিলিস্তিনি বৃদ্ধা নিহত

tab

আন্তর্জাতিক

ইউরোপে করোনার দ্বিতীয় ঢেউ: ফের লকডাউন, বিধিনিষেধ

সংবাদ :
  • সংবাদ অনলাইন ডেস্ক
শুক্রবার, ৩০ অক্টোবর ২০২০

করোনা সংক্রমণের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’-এর জের ধরে ইউরোপে আরও কড়াকড়ি বাড়ছে। জার্মানি ও ফ্রান্স ইতিমধ্যেই নতুন করে লকডাউনে যাবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। গ্রীষ্মের বিদায়ের পর বদ্ধ জায়গায় মানুষের সমাবেশের কারণে সংক্রমণের হার আরো বাড়বে এমন আশঙ্কা করছেন ইউরোপভুক্ত দেশগুলোর নীতিনির্ধারকরা।

শুক্রবার থেকেই লকডাউন চালু হচ্ছে ফ্রান্সে। বলা হচ্ছে ঘরের বাইরে বেরোতেও পুলিশি অনুমতির প্রয়োজন হবে। তবে অত্যাবশ্যকীয় পণ্য কেনার ব্যাপারে ছাড়পত্র পাওয়া যাবে। কাজের ক্ষেত্রে ওয়ার্ক ফ্রম হোমেই জোর দেওয়া হবে। ফ্রান্সে প্রতিদিন প্রায় ৩৬ হাজারেরও বেশি মানুষ নতুন করে সংক্রমিত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ম্যাঁখো কারফিউ জারি করেন। তিনি বলেন, “আমাদের অন্যান্য প্রতিবেশীর মতো আমাদের দেশেও নতুন করে ভাইরাসের ঢেউ আছড়ে পড়ছে। তাই আমরা চাইছি আবার নতুন করে লকডাউন জারি করতে।“

ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় জার্মানিতে করোনা ভাইরাসে সংক্রমণের হার কম হলেও সম্প্রতি প্রতিবেশী দেশগুলোতে সংক্রমণ বাড়তে থাকায় সর্বোচ্চ সতর্কতা মেনে চলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে দেশটির সরকার। আগামী ২ নভেম্বর থেকে ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত আংশিকভাবে লকডাউন জারি থাকবে জার্মানি জুড়ে। বন্ধ থাকবে সমস্ত পানশালা ও রেস্তোরাঁ। বন্ধ থাকবে সিনেমা হল,থিয়েটার, কনসার্ট, খেলার মাঠ,বানিজ্য প্রদর্শনীতে। তবে স্কুল ও কিন্ডারগার্ডেন খোলা থাকবে।

এ বিষয়ে জার্মানির চান্সেলর আঙ্গেলা মের্কেল জানান, “করোনা ভাইরাস মোকাবেলায় আসন্ন শীতে সর্বোচ্চ সতর্কতা মেনে চলা খুব জরুরী। এই বৈশ্বিক মহামারী থেকে আমরা বিচ্ছিন্ন নই ফলে সতর্ক থাকাটা নিজের জন্য যেমন জরুরী তেমনি পরিবার, কর্মক্ষেত্রসহ গোটা দেশের স্বাস্থ্য নিরাপত্তার জন্য আবশ্যক।“

ইউরোপের অন্যান্য দেশগুলোতেও করোনা ভাইরাসের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’ মোকাবেলায় কড়াকড়ি আরোপ করা হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের একটি নতুন সমীক্ষায় দেখা গেছে প্রতিদিন প্রায় লক্ষ মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে দেশটির আঞ্চলিক পদ্ধতিতে নেয়া ভাইরাস মোকাবেলার প্রস্তুতি থেকে আরো কঠোরতর বিধিনিষেধ গ্রহন করার জন্য সরকারকে চাপে রেখেছেন নীতিনির্ধারকরা।

ইউরোপে করোনা সংক্রমণের প্রথম পর্যায়ের কেন্দ্রস্থল বলে পরিচিত ইতালিতে ইতিমধ্যেই এক মাসের জন্য নতুন করে কঠোর বিধিনিষেধ ঘোষণা করা হয়েছে। সকল ধরনের সামাজিক আয়োজনে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। এছাড়া সকল পানশালা, খাবারের দোকান শর্তসাপেক্ষে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত খোলা রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

গত ২৫ শে অক্টোবর থেকে স্পেন সারা দেশজুড়ে সুনির্দিষ্ট সময়ের জন্য কারফিউ ঘোষণা করে। এই ঘোষনায় ১১ টা থেকে ৬ টা পর্যন্ত সকলকে নিজ নিজ গৃহে অবস্থান করার নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

চেক প্রজাতন্ত্রে বুধবার পর্যন্ত করোনাভাইরাস সংক্রমণের হিসাবে গত ১৪ দিনে লাখে ১৪৪৮ জন নতুন আক্রান্তের খবর পাওয়া গেছে। ইউরোপের অন্যান্য দেশের তুলনায় চেক প্রজাতন্ত্রে নতুন সংক্রমণের হার সর্বোচ্চ। নতুন সংক্রমণের দিক থেকে এর পরের অবস্থানে রয়েছে বেলজিয়াম। বেলজিয়ামের প্রধানমন্ত্রী এই পরিস্থিতিকে যথেষ্ট উদ্বেগজনক বলে মানছেন।

আয়ারল্যান্ড করোনা ভাইরাস সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউ মোকাবেলায় এই মাসেই ছয় সপ্তাহের লকডাউন ঘোষণা করেছে।

ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্ট উরসুলা ফন ডেয়ার লাইয়েন ইউরোপে প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস সংক্রমণের ‘দ্বিতীয় ঢেউ’কে যথেষ্ট আশঙ্কাজনক উল্লেখ করে বলেন, “স্বাস্থ্য ঝুঁকির প্রেক্ষিতে আমরা গভীর সঙ্কটের মুখে আছি। এবারের ক্রিসমাস উদযাপন অন্য যেকোন বছরের তুলনায় কঠিন হবে।“

এদিকে পশ্চিমা অর্থনীতির প্রধান দুই দেশে লকডাউন ও অন্যান্য দেশে কঠোর বিধিনিষেধের খবর আসতেই শেয়ার বাজারে দর পতন শুরু হয়েছে।

back to top