alt

আন্তর্জাতিক

স্ত্রীরা স্বামীদের সমান উপার্জন করতে পারে না: বৈশ্বিক জরিপ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১

নতুন এক জরিপে দেখা গেছে স্ত্রীরা উপার্জনের দিক থেকে পুরুষের চেয়ে পিছিয়ে আছে। অধিকাংশ নারীই উপার্জনের ক্ষেত্রে স্বামীর চেয়ে কম উপার্জন করে থাকেন। ১৯৭৩ থেকে ২০১৬ সাল- এই চার দশকে বিশ্বের ৪৫ দেশে বিদ্যমান তথ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো পরিবারের ভেতরে স্বামী-স্ত্রীর মজুরিতে লিঙ্গ বৈষম্যের এই বৈশ্বিক গবেষণাটি করা হয়।

এই জরিপটি বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্টের সেন্টার ফর পাবলিক পলিসির দুই গবেষক অধ্যাপক হেমা স্বামীনাথ ও অধ্যাপক দীপক মালগান করেছেন। তারা ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সী ২.৮৫ মিলিয়ন পরিবারের স্বামী-স্ত্রী থেকে প্রাপ্ত তথ্য দিয়ে এই জরিপটি করেছেন। তথ্যগুলো অলাভজনক লুক্সেমাবার্গ ইনকাম স্টাডি সংগ্রহ করেছিল। খবর বিবিসি অনলাইনের।

অধ্যাপক স্বামীনাথ বলেন, প্রথাগত দারিদ্রতার ক্ষেত্রে পরিবারকে একটি একক হিসেবে দেখা হয়। একটি সাধারণ চিন্তা হলো পরিবারের মধ্যে আয় এক জায়গায় করা হয় এবং সদস্যদের মধ্যে সমানভাবে তা বণ্টন করা হয়। কিন্তু পরিবারই হচ্ছে বৈষম্যের সবচেয়ে বড় জায়গা এবং আমরা সেটিই দেখাতে চেয়েছি।

প্রতিবেদনে পরিবারকে ‘ব্ল্যাক বক্স’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে অধ্যাপক স্বামীনাথ বলেন, আমরা ভেরতটায় চোখ রাখি না। আমরা যদি ভেতরটায় চোখ রাখতাম তাহলে ছবিটা অন্যরকমভাবে বদলে যেত।

কর্মক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্যের জন্য ভারত বেশ পরিচিতি। তবে সেখানে খুব বেশি নারী চাকরি করেন না এবং যারাই করেন তাদের অধিকাংশই পূণকালীন চাকরি করেন না। যদিও স্বামীনাথ ও মালগান বৈশ্বিক চিত্রটা দেখাতে চেয়েছেন। তারা বলেন, উদাহরণ হিসেবে বলা যায় নর্ডিক দেশগুলোকে লিঙ্গ সমতার বাতিঘর মনে করা হয়।কিন্তু সেখানকার অবস্থা কেমন? সেখানে বাড়িতে কি সম্পদ ও কাজকে সমভাবে বণ্টন করা হয়?

তারা বিশ্বের দেশগুলোকে সামগ্রিক ও পরিবার এই জায়গাতে বৈষম্যের ভিত্তিতে স্থান দিয়েছেন। তাদের ফল অনুসারে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সব দেশের পরিবারেই বৈষম্য আছে, তা গরিব বা ধনী দেশই হোক না কেন।

মালগান বলেন, সম্পতি পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই চাকরি করেন, এমন একটি দেশও পাওয়া যায়নি- (সেটা উন্নত কিংবা ধনী দেশ হোক না কেন) যেখানে স্বামীর সমান সমান আয় স্ত্রী করেন। এমনকি নর্ডিক দেশগুলো যেখানে বিশ্বের সবচেয়ে কম লিঙ্গ বৈষম্য, আমরা সবখানেই দেখেছি নারীর ভাগ ৫০ শতাংশের চেয়ে কম।

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) ২০১৮ সালের প্রতিবেদন অনুসারে, বিশ্বব্যাপী নারীরা মোট কর্মঘণ্টার ৭৬.২ শতাংশ বিনামূল্যে সেবা দিয়ে থাকে। যা পুরুষের তুলনায় তিনগুণেরও বেশি। আর এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশে এটি বেড়ে ৮০ শতাংশে দাঁড়ায়।

এই সবের মধ্যেও আশার কথা হলো ১৯৭৩ থেকে ২০১৬ সাল এই চার দশকে পরিবারের ভেতরের এই বৈষম্য ২০ শতাংশ কমেছে।

ছবি

ব্রিটিশ এমপিকে ছুরি মেরে হত্যা ‘সন্ত্রাসী ঘটনা’

ছবি

বিশ্বে করোনায় ২৪ ঘণ্টায় কমেছে সংক্রমণ-মৃত্যু-সুস্থতা

ছবি

কান্দাহারে শিয়া মসজিদে হামলায় নিহত বেড়ে ৪৭, দায় স্বীকার আইএসের

যুক্তরাজ্যে ৪৩,০০০ মানুষের ভুল কোভিড নেগেটিভ সনদ

ছবি

বিদেশীদের ওপর থেকে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

ছুরিকাঘাতে নিহত ব্রিটিশ এমপি ডেভিড অ্যামেস

ছবি

আফগানিস্তানে জুমার নামাজে বিস্ফোরণ, নিহত বেড়ে ৩২

ছবি

কাশ্মীরে প্রাণ গেলো আরও ২ ভারতীয় সেনার

ছবি

বিক্ষোভে রক্তপাতের পর আজ শোক পালন করছে লেবানন

ছবি

তিন বছর পর জাতিসংঘের মানবাধিকার কাউন্সিলে ফিরল যুক্তরাষ্ট্র

ছবি

বিদেশি পর্যটকদের ১৯ মাস পর অনুমতি দিচ্ছে ভারত

ছবি

নভেম্বর থেকে সিডনির কোয়ারেন্টিন তুলে দেওয়ার চিন্তা

ছবি

আইসিইউতে বিল ক্লিনটন

ছবি

অর্থ নেই, কাবুলের এতিমখানার শিশুদের খাবারে টান

ছবি

তুরস্ক সফরে তালেবানের ভারপ্রাপ্ত পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

তাইওয়ানে আবাসিক ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ৪৬ জনের মৃত্যু, আহত ৪১

ছবি

মোস্তফা পুরস্কার পেলেন ৫ মুসলিম বিজ্ঞানী

ছবি

ড. মনমোহন সিংয়ের দ্রুত আরোগ্য ও সুস্বাস্থ্য কামনা করছি: মোদী

ছবি

বাইডেনের জীবন বাঁচানো আফগান দোভাষী উদ্ধার

ছবি

ইরাক ও সিরিয়া থেকে সন্ত্রাসীরা ‘সক্রিয়ভাবে’ আফগানিস্তানে ঢুকছে: পুতিন

ছবি

করোনার উৎপত্তি খোঁজার এটাই শেষ সুযোগ হতে পারে: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

ছবি

এবার নতুন চাকরিতে হ্যারি-মেগান

ছবি

আলিবাবার প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক মার দেখা মিলল হংকংয়ে

ছবি

হ্দরোগ প্রতিরোধে অ্যাসপিরিনের ব্যবহার কমানোর পরামর্শ

ছবি

বিশ্বে করোনায় আক্রান্ত ও মৃতের সংখ্যা ফের বেড়েছে

ছবি

আফগানিস্তানে বিপর্যয় এড়ানোর অঙ্গীকার জি-২০ নেতাদের

ছবি

নেপালে বাস খাদে পড়ে ৩২জন নিহত

ছবি

আফগানিস্তানের মাটি যেন মৌলবাদ ও সন্ত্রাসবাদের ঘাঁটি না হয়: মোদি

ছবি

আইএস নির্মূলে আমেরিকার সহযোগিতার কোনো প্রয়োজন নেই: তালেবান

ছবি

সৌদি আরবে ড্রোন হামলায় তিন বাংলাদেশি আহত

ছবি

তালেবান সরকারের জবাবদিহি চায় ভারত

ছবি

চিন্তার কারণ নেই, সবকিছু ঠিক আছে: পুতিন

ছবি

পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতার কার্যালয়ে আগুন

ছবি

বয়স্কদের সিনোভ্যাক-সিনোফার্ম টিকার তৃতীয় ডোজ দিতে সুপারিশ

ছবি

ফিলিপিন্সে ঘূর্ণিঝড় কমপাসুর প্রভাবে বন্যা, ভূমিধসে ৯ জন নিহত

ছবি

নোবেল পুরস্কারে জেন্ডার কোটা হবে না : সুইডিশ অ্যাকাডেমি

tab

আন্তর্জাতিক

স্ত্রীরা স্বামীদের সমান উপার্জন করতে পারে না: বৈশ্বিক জরিপ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ১৩ অক্টোবর ২০২১

নতুন এক জরিপে দেখা গেছে স্ত্রীরা উপার্জনের দিক থেকে পুরুষের চেয়ে পিছিয়ে আছে। অধিকাংশ নারীই উপার্জনের ক্ষেত্রে স্বামীর চেয়ে কম উপার্জন করে থাকেন। ১৯৭৩ থেকে ২০১৬ সাল- এই চার দশকে বিশ্বের ৪৫ দেশে বিদ্যমান তথ্য দিয়ে প্রথমবারের মতো পরিবারের ভেতরে স্বামী-স্ত্রীর মজুরিতে লিঙ্গ বৈষম্যের এই বৈশ্বিক গবেষণাটি করা হয়।

এই জরিপটি বেঙ্গালুরুর ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্টের সেন্টার ফর পাবলিক পলিসির দুই গবেষক অধ্যাপক হেমা স্বামীনাথ ও অধ্যাপক দীপক মালগান করেছেন। তারা ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সী ২.৮৫ মিলিয়ন পরিবারের স্বামী-স্ত্রী থেকে প্রাপ্ত তথ্য দিয়ে এই জরিপটি করেছেন। তথ্যগুলো অলাভজনক লুক্সেমাবার্গ ইনকাম স্টাডি সংগ্রহ করেছিল। খবর বিবিসি অনলাইনের।

অধ্যাপক স্বামীনাথ বলেন, প্রথাগত দারিদ্রতার ক্ষেত্রে পরিবারকে একটি একক হিসেবে দেখা হয়। একটি সাধারণ চিন্তা হলো পরিবারের মধ্যে আয় এক জায়গায় করা হয় এবং সদস্যদের মধ্যে সমানভাবে তা বণ্টন করা হয়। কিন্তু পরিবারই হচ্ছে বৈষম্যের সবচেয়ে বড় জায়গা এবং আমরা সেটিই দেখাতে চেয়েছি।

প্রতিবেদনে পরিবারকে ‘ব্ল্যাক বক্স’ হিসেবে বর্ণনা করা হয়েছে। এই প্রসঙ্গে অধ্যাপক স্বামীনাথ বলেন, আমরা ভেরতটায় চোখ রাখি না। আমরা যদি ভেতরটায় চোখ রাখতাম তাহলে ছবিটা অন্যরকমভাবে বদলে যেত।

কর্মক্ষেত্রে লিঙ্গ বৈষম্যের জন্য ভারত বেশ পরিচিতি। তবে সেখানে খুব বেশি নারী চাকরি করেন না এবং যারাই করেন তাদের অধিকাংশই পূণকালীন চাকরি করেন না। যদিও স্বামীনাথ ও মালগান বৈশ্বিক চিত্রটা দেখাতে চেয়েছেন। তারা বলেন, উদাহরণ হিসেবে বলা যায় নর্ডিক দেশগুলোকে লিঙ্গ সমতার বাতিঘর মনে করা হয়।কিন্তু সেখানকার অবস্থা কেমন? সেখানে বাড়িতে কি সম্পদ ও কাজকে সমভাবে বণ্টন করা হয়?

তারা বিশ্বের দেশগুলোকে সামগ্রিক ও পরিবার এই জায়গাতে বৈষম্যের ভিত্তিতে স্থান দিয়েছেন। তাদের ফল অনুসারে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে সব দেশের পরিবারেই বৈষম্য আছে, তা গরিব বা ধনী দেশই হোক না কেন।

মালগান বলেন, সম্পতি পাওয়া তথ্যে দেখা গেছে স্বামী-স্ত্রী দুজনেই চাকরি করেন, এমন একটি দেশও পাওয়া যায়নি- (সেটা উন্নত কিংবা ধনী দেশ হোক না কেন) যেখানে স্বামীর সমান সমান আয় স্ত্রী করেন। এমনকি নর্ডিক দেশগুলো যেখানে বিশ্বের সবচেয়ে কম লিঙ্গ বৈষম্য, আমরা সবখানেই দেখেছি নারীর ভাগ ৫০ শতাংশের চেয়ে কম।

আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার (আইএলও) ২০১৮ সালের প্রতিবেদন অনুসারে, বিশ্বব্যাপী নারীরা মোট কর্মঘণ্টার ৭৬.২ শতাংশ বিনামূল্যে সেবা দিয়ে থাকে। যা পুরুষের তুলনায় তিনগুণেরও বেশি। আর এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় দেশে এটি বেড়ে ৮০ শতাংশে দাঁড়ায়।

এই সবের মধ্যেও আশার কথা হলো ১৯৭৩ থেকে ২০১৬ সাল এই চার দশকে পরিবারের ভেতরের এই বৈষম্য ২০ শতাংশ কমেছে।

back to top