alt

জাতীয়

দালালদের হাতে

রোগীদের হয়রানি রোধে ঢাকা মেডিকেলে ৫ বিশেষ ব্যবস্থা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ১৪ জুন ২০২১

রাজধানীসহ বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চল থেকে চিকিৎসা পেতে প্রতিদিন শত শত রোগী আসেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে। দালালরা রোগীদের সহযোগিতা করার নামে বিভিন্নভাবে ফুসলিয়ে অন্য হাসপাতালে ‘ভাগিয়ে’ নিয়ে যায়। হাতিয়ে নেয় মোটা অঙ্কের টাকা। শুধু তাই নয়, ভর্তি রোগীদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে সিট পাওয়া, পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ট্রলি পাওয়া, সিরিয়াল করা- এ রকম নানা কাজে গুনতে হয় অতিরিক্ত টাকা আর এসবই ঘটে হাসপাতালের কতিপয় কর্মচারীর প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণে। অভিযোগ আছে, কর্মচারীদের সঙ্গে আঁতাত করে তাদের মাসোহারা দিয়ে বহিরাগতরা কাজ করেন ওয়ার্ডগুলোতে। হাসপাতালে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও বাইরে দালালের মাধ্যমে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে বাধ্য করা হয়।

এতসব হয়রানি ঠেকাতে এবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিয়েছেন বিশেষ পাঁচ ব্যবস্থা। তারা মনে করছেন এর মাধ্যমে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষ হয়রানি থেকে মুক্তি পাবে।

হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক জানান, দালালের সহযোগিতা যেন না লাগে, কেউ যদি একজন রোগী নিয়ে আসেন তিনি কোথায় যাবেন, কীভাবে যাবেন, তার জন্য কিছু কিছু জায়গায় লোকেশন চার্টসহ ডিজিটাল নির্দেশক বোর্ড লাগানো হয়েছে। আরও লাগানো হবে। যাতে বাইরে থেকে আসা মানুষের বুঝতে সুবিধা হয়।

এছাড়া হাসপাতালের কর্মচারীদের সহজে চেনার জন্য আলাদা পোশাক দেয়া হবে। ডিউটির সময় তাদের সেই পোশাক পরতে হবে। শুধু তাই নয়, রোগীর সঙ্গে ভিজিটরদের জন্য করা হয়েছে আইডি কার্ডের ব্যবস্থা। ভিজিটররা ওই কার্ড সঙ্গে রাখবেন। এতে তাদের চিনতে সুবিধা হবে। হাসপাতালে দৈনিক চুক্তিতে লোক নেয়া হয়েছে। তাদেরও কার্ড ও পোশাক দেয়া হবে। সরকারি কর্মচারী ও বেসরকারিদের আলাদা পোশাক দেয়া হবে।

হাসপাতালের স্টাফরা নিজেরাই যখন দালালির সঙ্গে জড়িত তখন কীভাবে এটা নির্মূল হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে পরিচালক বলেন, অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। তিনি বলেন, অলরেডি আমরা লোক লাগিয়ে দিয়েছি। রোগী ভাগানোর কাজে যারা জড়িত থাকে, তাদের নজরদারিতে রাখছি। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভিযোগের প্রমাণ পেলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রয়োজনে বদলি, এমনকি চাকরিচ্যুত পর্যন্ত করা হবে।

রোগী ও তার স্বজনদের সচেতন করতে মাঝে মধ্যেই মাইকিং করা হয় বলে জানান তিনি। রোগী ও তাদের স্বজনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কাউকে টাকা-পয়সা দেবেন না। যে সমস্ত পরীক্ষা হাসপাতালে হয়, সেগুলো বাইরে থেকে করাবেন না। কারো প্রতারণার শিকার হলে, তাদের চিহ্নিত করে আমাদের কাছে অভিযোগ দেবেন।

তিনি আরও বলেন, রোগীদের সেবার জন্য আমরা আরও বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছি, কাজও চলছে। অল্প সময়ের মধ্যে তা শেষ হবে।

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য আলাদা ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান ব্রিগেডিয়ার নাজমুল। তিনি জানান, এবার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য এই হাসপাতালে খোলা হচ্ছে আলাদা বিভাগ। এটা বহির্বিভাগে করা হচ্ছে। এর কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়ে উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে।

এসবের পাশাপাশি কিছু মানবিক উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছে। যেমন, শিশু সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য তৈরি হচ্ছে ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার।

হাসপাতাল এলাকার পাশে বসানো হবে বিভিন্ন ব্যাংকের বুথ। এতে ঢাকার বাইরে থেকে আসা স্বজনদের অচেনা শহরে সমস্যা কমবে। এছাড়া অপেক্ষমাণ পঙ্গু বা প্রতিবন্ধী রোগী ও তাদের স্বজনদের জন্য করা হবে আলাদা ব্যবস্থা। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক বলেন, দালাল প্রতারকমুক্ত করা ও হাসপাতালের সঠিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে এই উদ্যোগগুলো নেয়া হয়েছে। হাসপাতালকে আরও আধুনিক করতে যা যা করা দরকার, পর্যায়ক্রমে তার সবকিছুই করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত র‌্যাবের অভিযানের পর বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দালালদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে অভিযান পরিচালনা করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযানে পাঁচ নারীকে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ২৪ দালালকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।

ছবি

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে রোহিঙ্গা ইস্যুতে আইসিআরসি প্রধানের আলোচনা

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে বুড়িগঙ্গায় নৌকাবাইচ

ছবি

২৮ সেপ্টেম্বর উদ্বোধন করা হবে ‘মুজিব আমার পিতা’ অ্যানিমেটেড চলচ্চিত্র

ছবি

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত আরও ২৪২, মৃত্যু ২

ছবি

অন্তর্ভুক্তিমূলক অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির জন্য পর্যটনের গুরুত্ব অবশ্যম্ভাবী: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

পর্যটন শিল্পের উন্নয়নে সবাইকে একসাথে কাজ করার আহ্বান রাষ্ট্রপতির

ছবি

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে পাঠ্যবইয়ে তথ্যবিভ্রাট: এনসিটিবি চেয়ারম্যানকে তলব

ছবি

চার মাস পর সর্বনিম্ন মৃত্যু ২১, শনাক্ত ৯৮০

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিনে ৮০ লাখ টিকা দেয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

কাল আসছে ফাইজারের আরও ২৫ লাখ টিকা

ছবি

জার্মানিতে চলছে জাতীয় নির্বাচনের ভোটগ্রহণ

ছবি

২৮ সেপ্টেম্বর থেকে বিমানবন্দরে আরটি-পিসিআর টেস্ট

ছবি

গুলাবের প্রভাবে সাগর উত্তাল, দুই নম্বর সংকেত

ছবি

দেশে ৪ কোটি ডোজের বেশি করোনা টিকা প্রয়োগ

ছবি

করোনা শনাক্ত হাজারের নিচে, আরও মৃত্যু ২৫

ছবি

বিমানবন্দরে আজ আরটি-পিসিআর ল্যাব চালু হচ্ছে না

ছবি

পরীক্ষামূলকভাবে আগামী ডিসেম্বরে ৫-জি চালু : টেলিযোগাযোগমন্ত্রী

ছবি

দেশে বিনিয়োগ করুন: প্রবাসীদের প্রতি প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বঙ্গোপসাগরে গভীর নিম্নচাপ, সারাদেশে মাঝারি থেকে ভারী বৃষ্টির সম্ভবনা

ছবি

‌‌‌‘ঢাকার অভিজাত এলাকায় গাড়ি চালালে দিতে হবে ‌‌‌‘এক্সট্রা চার্জ’ : আতিক

ছবি

নভেম্বরে এসএসসি, ডিসেম্বরে এইচএসসি পরীক্ষা নেয়ার পরিকল্পনা

ছবি

আজ ঐতিহাসিক ২৫ সেপ্টেম্বর

ছবি

দাঁড়িয়ে থাকা ট্রাকে পিকআপের ধাক্কায় দুই ভাইসহ নিহত ৩

ছবি

জাতিসংঘে বঙ্গবন্ধুর বাংলায় ভাষণ দেয়ার দিন কাল

ছবি

করোনায় মৃত্যু আরও ৩১, শনাক্তের হার ৪.৫৪

ছবি

ডেঙ্গুতে একদিনে আক্রান্ত আরও ১৮৯ জন

ছবি

বিশ্বব্যাপী ‘স্থিতিশীল খাদ্য ব্যবস্থা’ গড়ে তুলতে প্রধানমন্ত্রীর ৫ পরামর্শ

ছবি

ধনী-দরিদ্রের মধ্যে ‘ভ্যাকসিন বিভাজন’ দূর করার আহ্বান প্রধানমন্ত্রীর

কোভিড উপসর্গ থাকলে শিক্ষার্থীকে স্কুলে পাঠানো যাবে না : শিক্ষামন্ত্রী

এক কোটির বেশি লোক একসঙ্গে টিকা পাবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

ডেঙ্গু নতুন আক্রান্ত আরও ২৫৪ জন

ছবি

‘বিমানবন্দরের পিসিআর ল্যাবে শনিবারের মধ্যে করোনা পরীক্ষা শুরু’

২০২২ সালে ঢাকা-কক্সবাজার সরাসরি ট্রেনে : রেলমন্ত্রী

ছবি

চার মাসে করোনায় সর্বনিম্ন মৃত্যু ২৪, শনাক্তের হার নিম্নমুখী

ছবি

আফগান সঙ্কটে ‘ঢাকা পড়েনি’ রোহিঙ্গা প্রত্যাবর্তনের বিষয়টি: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

কৃষকরা ফসলের ন্যায্য মূল্য পাচ্ছেন : খাদ্যমন্ত্রী

tab

জাতীয়

দালালদের হাতে

রোগীদের হয়রানি রোধে ঢাকা মেডিকেলে ৫ বিশেষ ব্যবস্থা

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

সোমবার, ১৪ জুন ২০২১

রাজধানীসহ বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চল থেকে চিকিৎসা পেতে প্রতিদিন শত শত রোগী আসেন ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে। দালালরা রোগীদের সহযোগিতা করার নামে বিভিন্নভাবে ফুসলিয়ে অন্য হাসপাতালে ‘ভাগিয়ে’ নিয়ে যায়। হাতিয়ে নেয় মোটা অঙ্কের টাকা। শুধু তাই নয়, ভর্তি রোগীদের ক্ষেত্রে দেখা গেছে সিট পাওয়া, পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্য ট্রলি পাওয়া, সিরিয়াল করা- এ রকম নানা কাজে গুনতে হয় অতিরিক্ত টাকা আর এসবই ঘটে হাসপাতালের কতিপয় কর্মচারীর প্রত্যক্ষ অংশগ্রহণে। অভিযোগ আছে, কর্মচারীদের সঙ্গে আঁতাত করে তাদের মাসোহারা দিয়ে বহিরাগতরা কাজ করেন ওয়ার্ডগুলোতে। হাসপাতালে সুযোগ থাকা সত্ত্বেও বাইরে দালালের মাধ্যমে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করতে বাধ্য করা হয়।

এতসব হয়রানি ঠেকাতে এবার হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ নিয়েছেন বিশেষ পাঁচ ব্যবস্থা। তারা মনে করছেন এর মাধ্যমে চিকিৎসা নিতে আসা মানুষ হয়রানি থেকে মুক্তি পাবে।

হাসপাতাল পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক জানান, দালালের সহযোগিতা যেন না লাগে, কেউ যদি একজন রোগী নিয়ে আসেন তিনি কোথায় যাবেন, কীভাবে যাবেন, তার জন্য কিছু কিছু জায়গায় লোকেশন চার্টসহ ডিজিটাল নির্দেশক বোর্ড লাগানো হয়েছে। আরও লাগানো হবে। যাতে বাইরে থেকে আসা মানুষের বুঝতে সুবিধা হয়।

এছাড়া হাসপাতালের কর্মচারীদের সহজে চেনার জন্য আলাদা পোশাক দেয়া হবে। ডিউটির সময় তাদের সেই পোশাক পরতে হবে। শুধু তাই নয়, রোগীর সঙ্গে ভিজিটরদের জন্য করা হয়েছে আইডি কার্ডের ব্যবস্থা। ভিজিটররা ওই কার্ড সঙ্গে রাখবেন। এতে তাদের চিনতে সুবিধা হবে। হাসপাতালে দৈনিক চুক্তিতে লোক নেয়া হয়েছে। তাদেরও কার্ড ও পোশাক দেয়া হবে। সরকারি কর্মচারী ও বেসরকারিদের আলাদা পোশাক দেয়া হবে।

হাসপাতালের স্টাফরা নিজেরাই যখন দালালির সঙ্গে জড়িত তখন কীভাবে এটা নির্মূল হবে- এমন প্রশ্নের জবাবে পরিচালক বলেন, অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে, কাউকে ছাড় দেয়া হবে না। তিনি বলেন, অলরেডি আমরা লোক লাগিয়ে দিয়েছি। রোগী ভাগানোর কাজে যারা জড়িত থাকে, তাদের নজরদারিতে রাখছি। অভিযোগ পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে। অভিযোগের প্রমাণ পেলে বিভাগীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। প্রয়োজনে বদলি, এমনকি চাকরিচ্যুত পর্যন্ত করা হবে।

রোগী ও তার স্বজনদের সচেতন করতে মাঝে মধ্যেই মাইকিং করা হয় বলে জানান তিনি। রোগী ও তাদের স্বজনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, কাউকে টাকা-পয়সা দেবেন না। যে সমস্ত পরীক্ষা হাসপাতালে হয়, সেগুলো বাইরে থেকে করাবেন না। কারো প্রতারণার শিকার হলে, তাদের চিহ্নিত করে আমাদের কাছে অভিযোগ দেবেন।

তিনি আরও বলেন, রোগীদের সেবার জন্য আমরা আরও বেশ কিছু উদ্যোগ নিয়েছি, কাজও চলছে। অল্প সময়ের মধ্যে তা শেষ হবে।

সাধারণ মানুষের পাশাপাশি তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য আলাদা ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও জানান ব্রিগেডিয়ার নাজমুল। তিনি জানান, এবার তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের জন্য এই হাসপাতালে খোলা হচ্ছে আলাদা বিভাগ। এটা বহির্বিভাগে করা হচ্ছে। এর কাজ ইতোমধ্যে শেষ হয়ে উদ্বোধনের অপেক্ষায় রয়েছে।

এসবের পাশাপাশি কিছু মানবিক উদ্যোগও গ্রহণ করা হয়েছে। যেমন, শিশু সন্তানকে বুকের দুধ খাওয়ানোর জন্য তৈরি হচ্ছে ব্রেস্ট ফিডিং সেন্টার।

হাসপাতাল এলাকার পাশে বসানো হবে বিভিন্ন ব্যাংকের বুথ। এতে ঢাকার বাইরে থেকে আসা স্বজনদের অচেনা শহরে সমস্যা কমবে। এছাড়া অপেক্ষমাণ পঙ্গু বা প্রতিবন্ধী রোগী ও তাদের স্বজনদের জন্য করা হবে আলাদা ব্যবস্থা। হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল নাজমুল হক বলেন, দালাল প্রতারকমুক্ত করা ও হাসপাতালের সঠিক পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে এই উদ্যোগগুলো নেয়া হয়েছে। হাসপাতালকে আরও আধুনিক করতে যা যা করা দরকার, পর্যায়ক্রমে তার সবকিছুই করার পরিকল্পনা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার (১০ জুন) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত র‌্যাবের অভিযানের পর বিকেলে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দালালদের দৌরাত্ম্য ঠেকাতে অভিযান পরিচালনা করে। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অভিযানে পাঁচ নারীকে আটক করে থানায় সোপর্দ করা হয়। ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ২৪ দালালকে আটক করে বিভিন্ন মেয়াদে সাজা দেয়া হয়।

back to top