alt

জাতীয়

বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানার ৬৭তম জন্মদিন আজ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার আজ জন্মদিন। ১৯৫৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় জন্ম তার। এবার তিনি ৬৬ বছর পূর্ণ করে, ৬৭ তম বছরে পা রাখলেন।

দেশের মানুষসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা সবাই তাকে ছোট আপা হিসাবে চিনে। সেই ছোট আপা শেখ রেহানার জন্মদিনে সোশাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছায় ভাসাচ্ছেন অনেকে। বঙ্গবন্ধুর পরিবারের অন্যদের সঙ্গে শেখ রেহানার ছবি, শেখ রেহানার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড এবং জন্মদিন উপলক্ষে তাকে নিয়ে তৈরি করা পোস্টারও স্থান পেয়েছে ফেইসবুকে আসা শুভেচ্ছা বার্তায়।

পঁচাত্তর ট্রাজেডির পর বড় বোন শেখ হাসিনার মতো শেখ রেহানার জীবনেও ঝড় বয়ে যায়, সেই দুঃসময় সামলে উঠেই চলছেন তিনি জীবনের পথে। শেখ হাসিনার সঙ্গে সে সময় বেলজিয়ামে ছিলেন শেখ রেহানা। শেখ হাসিনার স্বামী এম ওয়াজেদ মিয়ার কর্মস্থল ছিল জার্মানির কার্লসরুয়েতে।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট সেনাবাহিনীর একদল কর্মকর্তা ও সৈনিকের হাতে সপরিবারে জীবন দিতে হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা ও তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে। বঙ্গবন্ধুর দুই মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা দেশের বাইরে থাকায় সে সময় প্রাণে বেঁচে যান।

১৯৮৩ সালে সাপ্তাহিক চিত্রবাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শেখ রেহানা বলেছিলেন, ১৫ অগাস্ট আমি মরে গেলেই ভালো হত। বাবা নেই, মা নেই, ভাই নেই। আমার আর বাঁচতে ইচ্ছা করে না। আমি কী নিয়ে বাঁচব? কী আছে আমার? রাসেল কী অপরাধ করেছিল? ও তো রাজনীতি করত না। আমার মা তো রাজনীতি করত না। কেন ওরা তাদের হত্যা করল?

খোদার কাছে বলছি, আমার মতো যেন কাউকে তিনি শাস্তি না দেন। আমি এতিম বড় অসহায়। আমি মেয়ে হিসেবে বাঙালি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার চাই। তখন জার্মানি থেকে পরে ভারতে চলে গিয়েছিলেন দুই বোন। তাদের নির্বাসিত জীবনের অনেকটা কাল কাটে সেখানে।

শেখ রেহানা পরে লন্ডনে চলে যান এবং সেখানেই স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করেন। আর শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধুর দল আওয়ামী লীগের হাল ধরেন। তার নেতৃত্বে চারবার রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ।

চিত্রবাংলাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে শেখ রেহানা ১৫ অগাস্টের পরের ঘটনা তুলে ধরে বলেছিলেন, প্রথমে আমি বিশ্বাসই করতে পারিনি। ফাঁসির মঞ্চ থেকে বঙ্গবন্ধু ফিরে এলেন, পাকিস্তানিরা তাকে মারল না। অথচ বাংলা-বাঙালির অস্তিত্ব প্রতিষ্ঠা করার জন্য যিনি জীবন বাজি রেখে আন্দোলন করেছেন, সেই বাঙালির হাতেই তাকে প্রাণ দিতে হল! সবকিছু মনে হল একটা কারবালা। আমরা এতিম হলাম।

তিনি আরও বলেছিলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যায় সাম্রাজ্যবাদী শক্তির হাত তো অবশ্যই আছে, এদেশীয় এজেন্টরাও ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিল। কথায় আছে ঘরের শত্রু বিভীষণ, ঘটনাটা ঠিক সেরকম। বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার বিচারের দাবিতে এ দেশের নেতৃবৃন্দের যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা থাকা দরকার ছিল, সে ব্যাপারে অনেকেই পিছিয়ে রয়েছেন। এমন অভিযোগ প্রচুর।

রাজনীতিতে সক্রিয় না থাকলেও শেখ রেহানা নানাভাবে নানা পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেন বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বিভিন্ন সময় বলেছেন। শেখ রেহানার স্বামী ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। তাদের তিন ছেলে-মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিক ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লেবার পার্টির একজন এমপি।

ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক একটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় কর্মরত এবং আওয়ামী লীগের গবেষণা উইং সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) ট্রাস্টি। ছোট মেয়ে আজমিনা সিদ্দিক রূপন্তী লন্ডনে কন্ট্রোল রিস্কস নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গ্লোবাল রিস্ক অ্যানালাইসিস সম্পাদক হিসেবে কর্মরত।

ছবি

ডেঙ্গু জ্বরে নতুন আক্রান্ত আরও ২৩৪ জন

ছবি

করোনায় আরও মৃত্যু ৫১, শনাক্তের হার ৫.৯৮

ছবি

আজ শেষ হলো সংসদের অধিবেশন

ছবি

বাংলাদেশে শহরাঞ্চলে প্রতি ৫ জনে একজন দরিদ্র, এগিয়ে গ্রামাঞ্চল : বিশ্বব্যাংক

ছবি

পদোন্নতির পরও ৩৮ পুলিশ সুপার বেতন পাচ্ছেন না

ছবি

বছরে তিনবার দেয়া হবে জিডিপি তথ্য : বিবিএস

ছবি

ফের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধে আইনি নোটিশ

ছবি

কুইক রেন্টাল : বিরোধিতার মধ্যেই মেয়াদ বাড়িয়ে সংসদে বিল পাস

ছবি

ইভ্যালির রাসেল ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে গুলশান থানায় মামলা

ছবি

চীনকে ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য ও অস্ট্রেলিয়ার নতুন চুক্তি

ছবি

শিক্ষার্থীদের অংশগ্রহণে হবে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন

ছবি

ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৩০৭ জন

ছবি

করোনায় মৃত্যু বেড়ে ৫১, শনাক্তের হার ৬.৬৪

ছবি

আগামী ডিসেম্বর-জানুয়ারির মধ্যেই ড্যাপ চুড়ান্ত করা হবে: এলজিআরডি মন্ত্রী

ছবি

দেশে দ্রুতই করোনা ভ্যাকসিন তৈরি হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী

ছবি

যমুনা সেতুতে কর্ণফুলীর আদলে টানেল নির্মাণের পরিকল্পনা আছে: নৌ প্রতিমন্ত্রী

ছবি

আগামী বছর মার্চ-এপ্রিলে পাবো ২৪ কোটি টিকা: ড. মোমেন

ছবি

অনিবন্ধিতি সব অনলাইন বন্ধ করে দেওয়া সমীচীন হবে না

ছবি

দেশের প্রতিটি মানুষের মাথাপিছু বৈদেশিক ঋণ ২৫ হাজার টাকা

ছবি

১২ বছর বয়সী শিক্ষার্থীরাও আসছে টিকার আওতায়

ছবি

পরীর পাহাড়ে নতুন স্থাপনা : ‘মানা প্রধানমন্ত্রীর’

ছবি

বিশ্ববিদ্যালয়, আটকে আছে টিকায়

শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোকে দীপু মনির হুঁশিয়ারি

জলবায়ু পরিবর্তন প্রকল্পের টাকায় উপকুলের ৩ কোটি মানুষ উপকৃত হয়েছে : মতবিনিময় সভায় মন্ত্রী

ছবি

বঙ্গবন্ধুর ঘনিষ্ঠ সহচর খাজা মহিউদ্দিন আর নেই

ছবি

সাধারণ ছুটিতে মানুষ ঢাকা ত্যাগ করায় করোনার বিস্তার: গবেষণা

ছবি

ডেঙ্গুতে মৃত্যু ৩, নতুন আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ২৮৮ জন

ছবি

করোনায় মৃত্যু ৩৫, শনাক্তের হার নিম্নমুখী

ছবি

চাকরিতে প্রবেশের বয়স বৃদ্ধির কোনো পরিকল্পনা নেই

ছবি

টিকা নেওয়ার পরও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলুন: প্রধানমন্ত্রী

ছবি

কনস্টেবল নিয়োগে অনিয়ম বরদাস্ত করা হবে না : আইজিপি

ছবি

২৪ সেপ্টেম্বর জাতিসংঘে ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

বদলে যাচ্ছে শিক্ষাক্রম

ছবি

শিক্ষা কার্যক্রমকে সময়োপযোগী করা অপরিহার্য : প্রধানমন্ত্রী

ছবি

করোনায় দ্বিতীয় ডোজের আওতায় এক কোটি ৪০ লাখ মানুষ

আন্তর্জাতিক ক্লাইমেট সায়েন্স অলিম্পিয়াডে অনারেবল মেনশন পেয়েছে বাংলাদেশের আটজন শিক্ষার্থী

tab

জাতীয়

বঙ্গবন্ধুর ছোট মেয়ে শেখ রেহানার ৬৭তম জন্মদিন আজ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

সোমবার, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২১

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ছোট মেয়ে ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ছোট বোন শেখ রেহানার আজ জন্মদিন। ১৯৫৫ সালের ১৩ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় জন্ম তার। এবার তিনি ৬৬ বছর পূর্ণ করে, ৬৭ তম বছরে পা রাখলেন।

দেশের মানুষসহ দলীয় নেতা-কর্মীরা সবাই তাকে ছোট আপা হিসাবে চিনে। সেই ছোট আপা শেখ রেহানার জন্মদিনে সোশাল মিডিয়ায় শুভেচ্ছায় ভাসাচ্ছেন অনেকে। বঙ্গবন্ধুর পরিবারের অন্যদের সঙ্গে শেখ রেহানার ছবি, শেখ রেহানার বিভিন্ন কর্মকাণ্ড এবং জন্মদিন উপলক্ষে তাকে নিয়ে তৈরি করা পোস্টারও স্থান পেয়েছে ফেইসবুকে আসা শুভেচ্ছা বার্তায়।

পঁচাত্তর ট্রাজেডির পর বড় বোন শেখ হাসিনার মতো শেখ রেহানার জীবনেও ঝড় বয়ে যায়, সেই দুঃসময় সামলে উঠেই চলছেন তিনি জীবনের পথে। শেখ হাসিনার সঙ্গে সে সময় বেলজিয়ামে ছিলেন শেখ রেহানা। শেখ হাসিনার স্বামী এম ওয়াজেদ মিয়ার কর্মস্থল ছিল জার্মানির কার্লসরুয়েতে।

১৯৭৫ সালের ১৫ অগাস্ট সেনাবাহিনীর একদল কর্মকর্তা ও সৈনিকের হাতে সপরিবারে জীবন দিতে হয় বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতা ও তৎকালীন রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে। বঙ্গবন্ধুর দুই মেয়ে শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা দেশের বাইরে থাকায় সে সময় প্রাণে বেঁচে যান।

১৯৮৩ সালে সাপ্তাহিক চিত্রবাংলাকে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে শেখ রেহানা বলেছিলেন, ১৫ অগাস্ট আমি মরে গেলেই ভালো হত। বাবা নেই, মা নেই, ভাই নেই। আমার আর বাঁচতে ইচ্ছা করে না। আমি কী নিয়ে বাঁচব? কী আছে আমার? রাসেল কী অপরাধ করেছিল? ও তো রাজনীতি করত না। আমার মা তো রাজনীতি করত না। কেন ওরা তাদের হত্যা করল?

খোদার কাছে বলছি, আমার মতো যেন কাউকে তিনি শাস্তি না দেন। আমি এতিম বড় অসহায়। আমি মেয়ে হিসেবে বাঙালি হিসেবে বঙ্গবন্ধুর হত্যার বিচার চাই। তখন জার্মানি থেকে পরে ভারতে চলে গিয়েছিলেন দুই বোন। তাদের নির্বাসিত জীবনের অনেকটা কাল কাটে সেখানে।

শেখ রেহানা পরে লন্ডনে চলে যান এবং সেখানেই স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করেন। আর শেখ হাসিনা ১৯৮১ সালে দেশে ফিরে বঙ্গবন্ধুর দল আওয়ামী লীগের হাল ধরেন। তার নেতৃত্বে চারবার রাষ্ট্রক্ষমতায় আসে আওয়ামী লীগ।

চিত্রবাংলাকে দেয়া সাক্ষাৎকারে শেখ রেহানা ১৫ অগাস্টের পরের ঘটনা তুলে ধরে বলেছিলেন, প্রথমে আমি বিশ্বাসই করতে পারিনি। ফাঁসির মঞ্চ থেকে বঙ্গবন্ধু ফিরে এলেন, পাকিস্তানিরা তাকে মারল না। অথচ বাংলা-বাঙালির অস্তিত্ব প্রতিষ্ঠা করার জন্য যিনি জীবন বাজি রেখে আন্দোলন করেছেন, সেই বাঙালির হাতেই তাকে প্রাণ দিতে হল! সবকিছু মনে হল একটা কারবালা। আমরা এতিম হলাম।

তিনি আরও বলেছিলেন, বঙ্গবন্ধু হত্যায় সাম্রাজ্যবাদী শক্তির হাত তো অবশ্যই আছে, এদেশীয় এজেন্টরাও ওতপ্রোতভাবে জড়িত ছিল। কথায় আছে ঘরের শত্রু বিভীষণ, ঘটনাটা ঠিক সেরকম। বঙ্গবন্ধুকে নির্মমভাবে হত্যার বিচারের দাবিতে এ দেশের নেতৃবৃন্দের যে উল্লেখযোগ্য ভূমিকা থাকা দরকার ছিল, সে ব্যাপারে অনেকেই পিছিয়ে রয়েছেন। এমন অভিযোগ প্রচুর।

রাজনীতিতে সক্রিয় না থাকলেও শেখ রেহানা নানাভাবে নানা পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করেন বলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজেই বিভিন্ন সময় বলেছেন। শেখ রেহানার স্বামী ড. শফিক আহমেদ সিদ্দিক বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। তাদের তিন ছেলে-মেয়ের মধ্যে বড় মেয়ে টিউলিপ সিদ্দিক ব্রিটিশ পার্লামেন্টে লেবার পার্টির একজন এমপি।

ছেলে রাদওয়ান মুজিব সিদ্দিক একটি আন্তর্জাতিক সংস্থায় কর্মরত এবং আওয়ামী লীগের গবেষণা উইং সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) ট্রাস্টি। ছোট মেয়ে আজমিনা সিদ্দিক রূপন্তী লন্ডনে কন্ট্রোল রিস্কস নামে একটি প্রতিষ্ঠানের গ্লোবাল রিস্ক অ্যানালাইসিস সম্পাদক হিসেবে কর্মরত।

back to top