alt

জাতীয়

জাতীয় কবি নজরুলের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ২৫ মে ২০২০
image

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী আজ (২৫ মে) উদযাপিত হয়েছে। জাতীয় পর্যায়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবছর ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হলেও এ বছর করোনাভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত পর্যায়ে কর্মসূচি গ্রহন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকালে কবির সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং ফাতেহা পাঠ ও দোয়া। বিশ্ব¦বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান কবির সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।তিনি কবির বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও দোয়া করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূইয়া এবং প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান কবির স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনা, সম্প্রীতি, সাম্য ও মানবতার কবি। তিনি সবসময় অন্যায়-অত্যাচার ও অসাম্যের বিরুদ্ধে দৃঢ়ভাবে প্রতিবাদী ছিলেন।

তার লেখা গান, কবিতা, গল্প ও উপন্যাস আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে সকলকে উদ্বুদ্ধ করেছে বলে উল্লেখ করে উপাচার্য আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, কবির অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক মূল্যবোধে সকলে উজ্জীবিত হয়ে ধৈর্য ও সাহসিকতার সাথে করোনাভাইরাস উদ্ভূত দুর্যোগ মোকাবেলা করতে সক্ষম হবে।

এ উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্মিত ‘জাগো অমৃত পিয়াসী’ শীর্ষক আনুমানিক ৫০ মিনিটের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান আজ বিটিভিসহ বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে একযোগে সম্প্রচারিত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে নজরুলের উপর নির্মিত অনুষ্ঠান প্রচার করছে এবং করবে।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা ১৩০৬ বঙ্গাব্দের ১১ জ্যৈষ্ঠ বর্ধমান জেলার আসানসোলের জামুরিয়া থানার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মেছিলেন। তার ডাক নাম ‘দুখু মিয়া’। পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ ও মাতা জাহেদা খাতুন

বাংলা কবিতায় নজরুলের আবির্ভাব একেবারেই উল্কার মত। হঠাৎ করে একদিন তিনি বাংলা সাহিত্যে আবির্ভুত হয়ে সমস্ত আকাশকে কিভাবে রাঙ্গিয়ে গেলেন অথবা উজ্জ্বল করে দিলেন তা নিয়ে এখনো গবেষণা হতে পারে।

নজরুল বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, নজরুল ইতিহাসও সময় সচেতন মানুষ ছিলেন। যার প্রভাব তার লেখায় স্পষ্টভাবে পাওয়া যায়। তিনি বলেন, তুরস্কে কামাল পাশার নেতৃত্বে প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা,রাশিয়ায় সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব আর ভারতবর্ষে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের তরঙ্গকে নজরুল তাঁর সাহিত্যে বিপুলভাবে ধারণ করেছেন।

বাংলা সাহিত্যে বিদ্রোহী কবি হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি ছিলেন একাধারে কবি, সংগীতজ্ঞ, ঔপন্যাসিক, গল্পকার, নাট্যকার, প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক, চলচ্চিত্রকার, গায়ক ও অভিনেতা।

তিনি বৈচিত্র্যময় অসংখ্য রাগ-রাগিনী সৃষ্টি করে বাংলা সঙ্গীত জগতকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। তার কবিতা, গান ও সাহিত্য কর্ম বাংলা সাহিত্যে নবজাগরণ সৃষ্টি করেছিল। তিনি ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার পথিকৃৎ লেখক।

তাঁর লেখনি জাতীয় জীবনে অসাম্প্রদায়িক চেতনা বিকাশে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। তাঁর কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষণ ও বঞ্চনা থেকে মুক্তির পথ দেখিয়ে চলছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর গান ও কবিতা ছিল প্রেরণার উৎস।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর পরই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামকে সপরিবারে সদ্যস্বাধীন বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বাংলাদেশে তাঁর বসবাসের ব্যবস্থা করেন। ধানমন্ডিতে কবির জন্য একটি বাড়ি প্রদান করেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শোকাবহ ঘটনার এক বছর পর ১২ই ভাদ্র ১৯৭৬ সালের শোকের মাসেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (সাবেক পিজি হাসপাতাল) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নজরুল। কবিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হয়। এখানেই তিনি চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন।

ছবি

বইয়ের জগৎ থেকে হারিয়ে যাচ্ছে শিক্ষার্থীরা

ছবি

‘করোনার চেয়ে নির্বাচন বেশি গুরুত্বপূর্ণ’

ছবি

‘সিনোফার্মের টিকা কিনতে চীনের সঙ্গে চুক্তি সম্পন্ন’

ছবি

এবারও বাংলাদেশ থেকে হজে যাওয়া হচ্ছে না

ছবি

দেশে করোনায় আরও ৩৯ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ১৬৩৭

ছবি

উত্তাল সাগর, চার সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর সতর্কতা

ছবি

তিন আসনের উপনির্বাচনে আ’লীগের মনোনয়ন পেলেন যারা

ছবি

এ বছর চার মাসে বজ্রপাতে ১৭৭ জনের মৃত্যু

ছবি

চাঁদ দেখা যায়নি, রোববার থেকে জিলকদ মাস শুরু

ছবি

দেশে করোনায় মৃত্যু ১৩ হাজার ছাড়াল

ছবি

রাজধানীসহ সারাদেশে দিনভর থেমে থেমে বৃষ্টির সম্ভাবনা

ছবি

১০ লাখের বেশি টিকা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র: ড. মোমেন

ছবি

করোনার ভুয়া রিপোর্ট ঠেকাতে বিদেশগামীদের নতুন নির্দেশনা

ছবি

স্টিমকার গেমিং অ্যাপে জুয়া, আড্ডা ও টাকা পাচার

ছবি

স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তীতে ঘুরবে ‘বিশ্ব’ বাংলাদেশ

ছবি

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি বিভাগের ২২ কোটি ২৫ লাখ টাকা অনুদান

ছবি

নতুন সেনাপ্রধান এস এম শফিউদ্দিন আহমেদ

ছবি

অগ্নিকাণ্ডে দক্ষিণ আফ্রিকায় দুই বাংলাদেশি পরিবারের ৬ জন নিহত

ছবি

দেশে করোনায় মৃত্যু ৪০, শনাক্ত আড়াই হাজারের বেশি

ছবি

সবাই বলে টিকা দেবে, কবে দেবে বলে না : পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

সরকারি তথ্যে গোপনীয়তায় গণমাধ্যমকে সম্মান দেখানোর আহ্বান

ছবি

সন্ত্রাস,জঙ্গিবাদ, ও মানুষ হত্যা করে কেউ বেহেশতে যাবে না :প্রধানমন্ত্রী

ছবি

একযোগে ৫০টি মডেল মসজিদ উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

১৪০টি দেশের মধ্যে অবস্থান ১৩৭

ছবি

বেঁধে দেয়া দামে এলপি গ্যাস বিক্রিতে অনাগ্রহী ব্যবসায়ীরা

ছবি

দেশে করোনায় আরও ৩৬ জনের মৃত্যু, শনাক্ত ২৫৩৭

ছবি

করোনায় বাহরাইনে ৭০ বাংলাদেশির মৃত্যু

ছবি

আবেদনের এক সপ্তাহের মধ্যে কোয়ারেন্টিন ভর্তুকির টাকা হাতে পাবেন সৌদি প্রবাসীরা

যুক্তরাষ্ট্র যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ছবি

অর্ধশত মডেল মসজিদের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী

ছবি

নৌবাহিনী প্রধানের সাথে বিমান বাহিনীর প্রধানের বিদায়ী সাক্ষাৎ

ছবি

দেশে করোনায় এক মাসে সর্বোচ্চ মৃত্যু ও শনাক্ত

ছবি

জুনের প্রথম সপ্তাহে বজ্রপাতে প্রাণ হারালো ৫৬ জন

ছবি

দেশে ভ্যাকসিনের কোনো সংকট হবে না

ছবি

জাতিসংঘের সহ-সভাপতি নির্বাচিত বাংলাদেশ

ছবি

কাউন্টারে ট্রেনের টিকিট বিক্রি শুরু

tab

জাতীয়

জাতীয় কবি নজরুলের জন্মবার্ষিকী উদযাপিত

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক
image

সোমবার, ২৫ মে ২০২০

যথাযোগ্য মর্যাদায় জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১২১তম জন্মবার্ষিকী আজ (২৫ মে) উদযাপিত হয়েছে। জাতীয় পর্যায়ে জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে প্রতিবছর ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হলেও এ বছর করোনাভাইরাসের কারণে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ করে সীমিত পর্যায়ে কর্মসূচি গ্রহন করা হয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মসূচির মধ্যে ছিল সকালে কবির সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ এবং ফাতেহা পাঠ ও দোয়া। বিশ্ব¦বিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান কবির সমাধিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন।তিনি কবির বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে ফাতেহা পাঠ ও দোয়া করেন। এসময় অন্যান্যের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো. নিজামুল হক ভূইয়া এবং প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী উপস্থিত ছিলেন।

উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান কবির স্মৃতির প্রতি গভীর শ্রদ্ধা জানিয়ে বলেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনা, সম্প্রীতি, সাম্য ও মানবতার কবি। তিনি সবসময় অন্যায়-অত্যাচার ও অসাম্যের বিরুদ্ধে দৃঢ়ভাবে প্রতিবাদী ছিলেন।

তার লেখা গান, কবিতা, গল্প ও উপন্যাস আমাদের স্বাধীনতা যুদ্ধে সকলকে উদ্বুদ্ধ করেছে বলে উল্লেখ করে উপাচার্য আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, কবির অসাম্প্রদায়িক ও মানবিক মূল্যবোধে সকলে উজ্জীবিত হয়ে ধৈর্য ও সাহসিকতার সাথে করোনাভাইরাস উদ্ভূত দুর্যোগ মোকাবেলা করতে সক্ষম হবে।

এ উপলক্ষে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় নির্মিত ‘জাগো অমৃত পিয়াসী’ শীর্ষক আনুমানিক ৫০ মিনিটের একটি বিশেষ অনুষ্ঠান আজ বিটিভিসহ বিভিন্ন টেলিভিশন চ্যানেলে একযোগে সম্প্রচারিত হয়। এছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলে নজরুলের উপর নির্মিত অনুষ্ঠান প্রচার করছে এবং করবে।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা ১৩০৬ বঙ্গাব্দের ১১ জ্যৈষ্ঠ বর্ধমান জেলার আসানসোলের জামুরিয়া থানার চুরুলিয়া গ্রামে জন্মেছিলেন। তার ডাক নাম ‘দুখু মিয়া’। পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ ও মাতা জাহেদা খাতুন

বাংলা কবিতায় নজরুলের আবির্ভাব একেবারেই উল্কার মত। হঠাৎ করে একদিন তিনি বাংলা সাহিত্যে আবির্ভুত হয়ে সমস্ত আকাশকে কিভাবে রাঙ্গিয়ে গেলেন অথবা উজ্জ্বল করে দিলেন তা নিয়ে এখনো গবেষণা হতে পারে।

নজরুল বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, নজরুল ইতিহাসও সময় সচেতন মানুষ ছিলেন। যার প্রভাব তার লেখায় স্পষ্টভাবে পাওয়া যায়। তিনি বলেন, তুরস্কে কামাল পাশার নেতৃত্বে প্রজাতন্ত্রের প্রতিষ্ঠা,রাশিয়ায় সমাজতান্ত্রিক বিপ্লব আর ভারতবর্ষে ব্রিটিশ বিরোধী আন্দোলনের তরঙ্গকে নজরুল তাঁর সাহিত্যে বিপুলভাবে ধারণ করেছেন।

বাংলা সাহিত্যে বিদ্রোহী কবি হিসেবে পরিচিত হলেও তিনি ছিলেন একাধারে কবি, সংগীতজ্ঞ, ঔপন্যাসিক, গল্পকার, নাট্যকার, প্রাবন্ধিক, সাংবাদিক, চলচ্চিত্রকার, গায়ক ও অভিনেতা।

তিনি বৈচিত্র্যময় অসংখ্য রাগ-রাগিনী সৃষ্টি করে বাংলা সঙ্গীত জগতকে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করেছেন। তার কবিতা, গান ও সাহিত্য কর্ম বাংলা সাহিত্যে নবজাগরণ সৃষ্টি করেছিল। তিনি ছিলেন অসাম্প্রদায়িক চেতনার পথিকৃৎ লেখক।

তাঁর লেখনি জাতীয় জীবনে অসাম্প্রদায়িক চেতনা বিকাশে ব্যাপক ভূমিকা পালন করে। তাঁর কবিতা ও গান মানুষকে যুগে যুগে শোষণ ও বঞ্চনা থেকে মুক্তির পথ দেখিয়ে চলছে। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে তাঁর গান ও কবিতা ছিল প্রেরণার উৎস।

বাংলাদেশের স্বাধীনতার পর পরই জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিদ্রোহী কবি কাজী নজরুল ইসলামকে সপরিবারে সদ্যস্বাধীন বাংলাদেশে নিয়ে আসেন। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় বাংলাদেশে তাঁর বসবাসের ব্যবস্থা করেন। ধানমন্ডিতে কবির জন্য একটি বাড়ি প্রদান করেন।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের শোকাবহ ঘটনার এক বছর পর ১২ই ভাদ্র ১৯৭৬ সালের শোকের মাসেই বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে (সাবেক পিজি হাসপাতাল) শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন নজরুল। কবিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মসজিদের পাশে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সমাহিত করা হয়। এখানেই তিনি চিরনিদ্রায় শায়িত আছেন।

back to top