alt

প্রথম নারী

শীর্ষ দাবাড়ু

image
বুধবার, ১০ মার্চ ২০২১

বাংলাদেশের প্রথম মহিলা আন্তর্জাতিক মাস্টার খেতাবপ্রাপ্ত দাবা খেলোয়াড় রাণী হামিদ। তিনি বর্তমান জাতীয় মহিলা দাবা চ্যাম্পিয়ন। তিনি ১৯৭৯ সাল থেকে মোট ২০ বার জাতীয় মহিলা দাবায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। তিনি দেশের একমাত্র মহিলা দাবা খেলোয়াড় যিনি ২০ বার জাতীয় মহিলা দাবা শিরোপা জয় করতে সক্ষম হন। তিনি তিনবার ব্রিটিশ মহিলা দাবা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন।

রাণী হামিদ দেশের মূল জাতীয় দাবা চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বেও একাধিকবার দেশের শীর্ষস্থানীয় গ্র্যান্ডমাস্টার ও আন্তর্জাতিক মাস্টারদের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি দুই বছর অন্তর অনুষ্ঠিত বিশ্ব দাবা অলিম্পিয়িাডে বাংলাদেশ জাতীয় দাবা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। তিনি দুইবার ওপেন বিভাগে বাংলাদেশের মূল জাতীয় দাবা দলের খেলোয়াড় হিসেবে দাবা অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে থাকেন। বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাবা প্রতিযোগিতায় তিনি দেশের প্রতিনিধিত্ব করে একাধিকবার সম্মান নিয়ে এসেছেন। তার বর্তমান আন্তর্জাতিক রেটিং ১৮৭৪।

রাণী হামিদের জন্ম সিলেটে ১৯৪৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি। বাবা সৈয়দ মমতাজ আলী ছিলেন পুলিশ কর্মকতা। মা কামরুন্নেসা খাতুন একজন গৃহিনী। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে রাণী হামিদ তৃতীয়। রাণী হামিদের পুরো নাম সৈয়দা জসিমুন্নেসা খাতুন। ডাক নাম রাণী। ইডেন কলেজ থেকে তিনি প্রাইভেটে ডিগ্রি পাস করেছেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আবদুল হামিদের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তিনি স্বামীর নাম যুক্ত করে রাণী হামিদ হন। তাদের তিন ছেলে ও এক মেয়ে। বর্তমানে তিনি রাণী হামিদ নামেই পরিচিত।

tab

প্রথম নারী

শীর্ষ দাবাড়ু

image
বুধবার, ১০ মার্চ ২০২১

বাংলাদেশের প্রথম মহিলা আন্তর্জাতিক মাস্টার খেতাবপ্রাপ্ত দাবা খেলোয়াড় রাণী হামিদ। তিনি বর্তমান জাতীয় মহিলা দাবা চ্যাম্পিয়ন। তিনি ১৯৭৯ সাল থেকে মোট ২০ বার জাতীয় মহিলা দাবায় চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন। তিনি দেশের একমাত্র মহিলা দাবা খেলোয়াড় যিনি ২০ বার জাতীয় মহিলা দাবা শিরোপা জয় করতে সক্ষম হন। তিনি তিনবার ব্রিটিশ মহিলা দাবা চ্যাম্পিয়ন হয়েছেন।

রাণী হামিদ দেশের মূল জাতীয় দাবা চ্যাম্পিয়নশিপের চূড়ান্ত পর্বেও একাধিকবার দেশের শীর্ষস্থানীয় গ্র্যান্ডমাস্টার ও আন্তর্জাতিক মাস্টারদের সঙ্গে অংশগ্রহণ করেছেন। তিনি দুই বছর অন্তর অনুষ্ঠিত বিশ্ব দাবা অলিম্পিয়িাডে বাংলাদেশ জাতীয় দাবা দলের প্রতিনিধিত্ব করেন। তিনি দুইবার ওপেন বিভাগে বাংলাদেশের মূল জাতীয় দাবা দলের খেলোয়াড় হিসেবে দাবা অলিম্পিয়াডে অংশগ্রহণ করে থাকেন। বিভিন্ন দেশে অনুষ্ঠিত বিভিন্ন আন্তর্জাতিক দাবা প্রতিযোগিতায় তিনি দেশের প্রতিনিধিত্ব করে একাধিকবার সম্মান নিয়ে এসেছেন। তার বর্তমান আন্তর্জাতিক রেটিং ১৮৭৪।

রাণী হামিদের জন্ম সিলেটে ১৯৪৪ সালের ২৩ ফেব্রুয়ারি। বাবা সৈয়দ মমতাজ আলী ছিলেন পুলিশ কর্মকতা। মা কামরুন্নেসা খাতুন একজন গৃহিনী। চার ভাই ও চার বোনের মধ্যে রাণী হামিদ তৃতীয়। রাণী হামিদের পুরো নাম সৈয়দা জসিমুন্নেসা খাতুন। ডাক নাম রাণী। ইডেন কলেজ থেকে তিনি প্রাইভেটে ডিগ্রি পাস করেছেন। মাত্র ১৫ বছর বয়সে নৌবাহিনীর কর্মকর্তা মোহাম্মাদ আবদুল হামিদের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। বিয়ের পর তিনি স্বামীর নাম যুক্ত করে রাণী হামিদ হন। তাদের তিন ছেলে ও এক মেয়ে। বর্তমানে তিনি রাণী হামিদ নামেই পরিচিত।

back to top