alt

সারাদেশ

বাহুবলে লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

প্রতিনিধি, বাহুবল (হবিগঞ্জ) : বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩

বাহুবল : লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে কারিগররা -সংবাদ

হবিগঞ্জের বাহুবলে অগ্রহায়ণ মাসে মাঝামাঝিতে বইছে শীতল হাওয়া, ভোরের আকাশে ঘনকুয়াশায় যেন শীতের দেখা মিলছে। দিনের গরমের সঙ্গে সঙ্গে সন্ধ্যার শুরুতে পড়ছে কুয়াশার ফুলঝুরি। হেমন্তের দিনগুলো শেষ হতে না হতেই শীতের বুড়ি এসে যেন জবরদখল করে নিচ্ছে আশপাশের প্রকৃতি। দিনে গরম, রাতে হিমালয়ের কুয়াশার শীতল হাওয়া আর ভোর রাতে ঘন কুয়াশার হাতছানিই বলে দিচ্ছে শীত বেশ দূরে নয়। দিনের বেলা সূর্যের আলোর দেখা মিললেও দিন-দিন তাপমাত্রা কমছে।

শীতকে সামনে রেখে উপজেলার প্রতিটি বাড়ি-বাড়ি ছুটে বেড়াচ্ছেন লেপ-তোষক তৈরির কারিগররা। অনেকেই আগাম শীতের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আবার অনেকেই লেপ-তোষক তৈরি করতে শুরু করেছেন। শীতের আগমনী বার্তা আসার সঙ্গে সঙ্গে ধুনারীদের তুলা ছাঁটাই ও লেপ তৈরির কাজে কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে।

তাই গ্রামাঞ্চলের মানুষ আগে ভাগেই লেপ-তোষক বানাতে শুরু করেছেন। লেপ-তোষকের কারিগরদের এখন দম ফেলার সময় নেই। বিরামহীনভাবে কাজ করছেন তারা। কেউ কেউ পুরনো লেপ ভেঙে নতুন করে বানিয়ে নিচ্ছেন। আবার কেউ নতুন তুলা দিয়ে তৈরি করে নিচ্ছে লেপ-তোষক ও বালিশ।

উপজেলার পূর্বরায় গ্রাম থেকে লেপ তৈরি করতে আসা উস্তার মিয়া বলেন, এখনো শীতের দেখা না মিললেও আগেভাগেই শীতের জন্য একটি লেপ বানিয়ে নিচ্ছি।

আরেক ক্রেতা সংকরপুর গ্রাম থেকে আসা তোয়েল মিয়া বলেন, আমি শীত শুরুর আগেই একটি লেপ ও তোষক অর্ডার দিয়েছি। তবে দাম গত বছরের তুলনায় এবার বেশি।

বাহুবলে ভিতর বাজারের সাজিউড়া মেঘনা বেডিং স্টোরের মালিক আব্দুল মতিন বলেন, শীত এখনো জেঁকে না বসলেও অনেকে আগেভাগেই লেপ-তোষক বানাতে আসছেন। গত বছরের তুলনায় এ বছর ক্রেতার সংখ্যা অনেকটাই বেশি। সারা বছরের চেয়ে শীতের এ তিন মাস বেচাকেনা একটু বেশিই হয়। তাই ক্রেতাদের কথা ভেবে কাজের গুণগতমান বজায় রেখে অর্ডারি কাজের পাশাপাশি রেডিমেট জিনিসও তৈরি করে বিক্রি করছেন এই লেপ-তোষকের দোকান মালিক।

তিনি আরও বলেন, শীত উপলক্ষে লোকজন নতুন লেপ, তোষক ও গদি তৈরি করার জন্য অর্ডার দিচ্ছেন। প্রতি পিস ছোট লেপ ৭০০-৮০০ টাকা, বড় লেপ ১০০০-১২৫০ টাকা এবং প্রতি পিস তোষক ছোট ৮০০-৯০০ টাকা ও বড় তোষক ১৫০০-২৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে ব্যবসায়ীরা জানান, সবাই জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় লেপ-তোষকের দাম আরও বাড়বে এবং পুরোপুরি শীত নামার সঙ্গে সঙ্গে তাদের ব্যস্ততাও বেড়ে যাবে।

ছবি

বারি ও মদিনা টেক এর মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

ছবি

গাজীপু‌রে সোয়া লাখ পিস ইয়াব উদ্ধার, আটক ৪ মাদক কারবারী

ছবি

গাজীপুরে কারখানা শ্রমিকদের মাঝে নিত্যপণ্য সামগ্রী বিতরণ

ছবি

নওগাঁয় ভয়াবহ ‘প্রক্সিকাণ্ড’ ৫৯ দাখিল পরীক্ষার্থীই ভুয়া

ছবি

অস্ত্রসহ পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে : পুলিশ

ছবি

উপজেলা নির্বাচনে জামানত ‘বহুগুণ’ বাড়াতে চায় ইসি

ছবি

নগরীর সমস্যা নিয়ে পোস্টার: কবি ও গ্রাফিক ডিজাইনার শামীম কারাগারে

ছবি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে স্কুলছাত্র হত্যায় দুজনের যাবজ্জীবন

ছবি

দাখিল পরীক্ষা দিচ্ছিল অন্যের হয়ে, নওগাঁয় ৫৯ জন আটক

ছবি

কক্সবাজারের সুগন্ধ্যা বীচের নতুন নাম ‘বঙ্গবন্ধু বীচ’

ছবি

গাইবান্ধার ডিসিকে প্রত্যাহারের দাবিতে মানববন্ধন, না মানলে বৃহত্তর কর্মসুচি

ছবি

হত্যার ১৪ বছর পর ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

ছবি

ঢাকা-কক্সবাজার রুটে ‘বিশেষ ট্রেন’

মোল্লাহাটে আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দুই গ্রুপে সংঘর্ষ, নিহত ১, পুলিশসহ আহত ২৮

শরীয়তপুরে ধুতুরাপাতা খেয়ে নারী ও শিশুসহ একই পরিবারের ৬ জন অসুস্থ, দুজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক

ছবি

মিরপুরে ঝিলপাড় বস্তিতে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৮ ইউনিট

ছবি

জয়পুরহাটে হত্যা মামলায় মা-ছেলেসহ পাঁচজনের মৃত্যুদণ্ড

ছবি

ঢাকা-কক্সবাজার পথে পাঁচ দিনে ৫ ‘বিশেষ ট্রেন’

ছবি

গাজীপুরে ট্রাকচাপায় নিহত ৩

রাজশাহীতে কুড়িয়ে পাওয়া বরই খেয়ে দুই শিশুর মৃত্যু

ছবি

ভাতিজার লাঠির আঘাতে চাচা নিহত

ছবি

অপহরণের ৬ দিন পর মুক্তিপণে ফিরলো স্কুল ছাত্র

ছবি

ময়মনসিংহে ডোবায় মিলল বস্তাবন্দি অজ্ঞাত নারীর লাশ

ছবি

অনুপ্রবেশের অপেক্ষায় নাফনদীতে হাজারো রোহিঙ্গা, সতর্ক অবস্থানে বিজিবি

ছবি

রাজশাহীতে দুই শিশুর মৃত্যুর কারণ নিপা ভাইরাস নয় : আইইডিসিআর

ছবি

টাঙ্গাইলে পিকআপ-অটোরিকশা সংঘর্ষে নিহত ৪

ছবি

অনুপ্রবেশকারী ৫ রোহিঙ্গাকে মায়ানমারে ফেরত

ছবি

গুলিবিদ্ধ নারীসহ পাঁচ রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ

ছবি

অজানা ভাইরাসে ২ মেয়ের মৃত্যুর পর মা-বাবাকে নেওয়া হলো আইসোলেশনে

ছবি

গুলিবিদ্ধ নারীসহ মায়ানমারের ৫ রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ

ছবি

‘মাদকনির্ভরশীলতা এবং মানসিক রোগীদের চিকিৎসা গুরুত্বপূর্ণ’

ছবি

কক্সবাজারে তিনদিনে পেটে ডিমসহ ৬ মৃত কাছিম উদ্ধার

ছবি

আবারও কাঁপল টেকনাফ সীমান্ত, নাফনদীর ওপারে থেমে থেমে বিস্ফোণের শব্দ

ছবি

সারাদেশে নিরবিচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সরবরাহের লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার : শিল্পমন্ত্রী

ছবি

চাঁপাইনবাবগঞ্জে ‘মাছ ধরতে গিয়ে’ বিএসএফের গুলিতে যুবক আহত

ছবি

অতিরিক্ত যাত্রীবহন, সেন্টমার্টিনগামী দুই জাহাজে জরিমানা

tab

সারাদেশ

বাহুবলে লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত কারিগররা

প্রতিনিধি, বাহুবল (হবিগঞ্জ)

বাহুবল : লেপ-তোষক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে কারিগররা -সংবাদ

বৃহস্পতিবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২৩

হবিগঞ্জের বাহুবলে অগ্রহায়ণ মাসে মাঝামাঝিতে বইছে শীতল হাওয়া, ভোরের আকাশে ঘনকুয়াশায় যেন শীতের দেখা মিলছে। দিনের গরমের সঙ্গে সঙ্গে সন্ধ্যার শুরুতে পড়ছে কুয়াশার ফুলঝুরি। হেমন্তের দিনগুলো শেষ হতে না হতেই শীতের বুড়ি এসে যেন জবরদখল করে নিচ্ছে আশপাশের প্রকৃতি। দিনে গরম, রাতে হিমালয়ের কুয়াশার শীতল হাওয়া আর ভোর রাতে ঘন কুয়াশার হাতছানিই বলে দিচ্ছে শীত বেশ দূরে নয়। দিনের বেলা সূর্যের আলোর দেখা মিললেও দিন-দিন তাপমাত্রা কমছে।

শীতকে সামনে রেখে উপজেলার প্রতিটি বাড়ি-বাড়ি ছুটে বেড়াচ্ছেন লেপ-তোষক তৈরির কারিগররা। অনেকেই আগাম শীতের প্রস্তুতি নিচ্ছেন। আবার অনেকেই লেপ-তোষক তৈরি করতে শুরু করেছেন। শীতের আগমনী বার্তা আসার সঙ্গে সঙ্গে ধুনারীদের তুলা ছাঁটাই ও লেপ তৈরির কাজে কর্মচাঞ্চল্য বেড়েছে।

তাই গ্রামাঞ্চলের মানুষ আগে ভাগেই লেপ-তোষক বানাতে শুরু করেছেন। লেপ-তোষকের কারিগরদের এখন দম ফেলার সময় নেই। বিরামহীনভাবে কাজ করছেন তারা। কেউ কেউ পুরনো লেপ ভেঙে নতুন করে বানিয়ে নিচ্ছেন। আবার কেউ নতুন তুলা দিয়ে তৈরি করে নিচ্ছে লেপ-তোষক ও বালিশ।

উপজেলার পূর্বরায় গ্রাম থেকে লেপ তৈরি করতে আসা উস্তার মিয়া বলেন, এখনো শীতের দেখা না মিললেও আগেভাগেই শীতের জন্য একটি লেপ বানিয়ে নিচ্ছি।

আরেক ক্রেতা সংকরপুর গ্রাম থেকে আসা তোয়েল মিয়া বলেন, আমি শীত শুরুর আগেই একটি লেপ ও তোষক অর্ডার দিয়েছি। তবে দাম গত বছরের তুলনায় এবার বেশি।

বাহুবলে ভিতর বাজারের সাজিউড়া মেঘনা বেডিং স্টোরের মালিক আব্দুল মতিন বলেন, শীত এখনো জেঁকে না বসলেও অনেকে আগেভাগেই লেপ-তোষক বানাতে আসছেন। গত বছরের তুলনায় এ বছর ক্রেতার সংখ্যা অনেকটাই বেশি। সারা বছরের চেয়ে শীতের এ তিন মাস বেচাকেনা একটু বেশিই হয়। তাই ক্রেতাদের কথা ভেবে কাজের গুণগতমান বজায় রেখে অর্ডারি কাজের পাশাপাশি রেডিমেট জিনিসও তৈরি করে বিক্রি করছেন এই লেপ-তোষকের দোকান মালিক।

তিনি আরও বলেন, শীত উপলক্ষে লোকজন নতুন লেপ, তোষক ও গদি তৈরি করার জন্য অর্ডার দিচ্ছেন। প্রতি পিস ছোট লেপ ৭০০-৮০০ টাকা, বড় লেপ ১০০০-১২৫০ টাকা এবং প্রতি পিস তোষক ছোট ৮০০-৯০০ টাকা ও বড় তোষক ১৫০০-২৫০০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

তবে ব্যবসায়ীরা জানান, সবাই জিনিসপত্রের দাম বেড়ে যাওয়ায় লেপ-তোষকের দাম আরও বাড়বে এবং পুরোপুরি শীত নামার সঙ্গে সঙ্গে তাদের ব্যস্ততাও বেড়ে যাবে।

back to top