alt

সারাদেশ

হোটেলে বাড়তি ভাড়া আদায়, তবুও তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে

জেলা বার্তা পরিবেশক, কক্সবাজার : রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

ঈদের টানা ছুটিতে সৈকত শহর কক্সবাজারে ভ্রমণে আসা পর্যটকরা মেতেছেন বাঁধ ভাঙা আনন্দ-উল্লাসে। তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে। তীব্র গরমে প্রশান্তি খুঁজে পাচ্ছে নোনাজলে। পর্যটন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার ঈদের ছুটির তৃতীয় দিনে কক্সবাজারে ভিড় করেছে ২ লাখের বেশি পর্যটক।

পর্যটকদের অভিযোগ, সুযোগ বুঝে অনেক হোটেল বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। তবে প্রশাসন বলছে তারা এখন পর্যন্ত বাড়তি ভাড়া আদায়ের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) বিকালে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। নেই বাতাস, নেই কোনো কিছুর ছায়া। তারপরও লাখো মানুষের সমাগম। তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে। তীব্র গরমকে উপেক্ষা করে সমুদ্র সৈকতে মেতেছেন পর্যটকরা। সৈকতের শৈবাল থেকে কলাতলী পয়েন্টে নোনাজলে যেনো মানুষের উপচে পড়া ভিড়। তীব্র গরমে সব প্রশান্তি যেনো সাগরপাড়ে।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক সাজ্জাদ বলেন, ‘তীব্র গরমও হার মানাতে পারছে না। কক্সবাজারে ঈদ আনন্দ করতে এসেছি। খুব ভালোভাবে ঈদ আনন্দ উদযাপন করছি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে।’

আরেক পর্যটক ফারহানা বলেন, ‘ঈদ উদযাপন করতে প্রথমবারের মতো কক্সবাজার সৈকতে আসা। ঈদে তো সাধারণত আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় যাওয়া হয়। কিন্তু এবার সমুদ্রে প্রথমবারের মতো ঈদ উদযাপন করছি পরিবারের সঙ্গে খুবই ভালো লাগছে।’

প্রতিবছর ঈদ মৌসুমকে কেন্দ্র করে বেপরোয়া হয়ে উঠে হোটেল, রেস্তোরাঁ ও যানবাহন চালকরা। পর্যটকদের অভিযোগ, এবার হয়রানির মাত্রা কিছুটা কম হলেও কিছু কিছু হোটেল বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। সাইফুল নামের পর্যটক বলেন, ‘যেহেতু ঈদ মৌসুম, সেহেতু বাড়তি ভাড়া তো গুনতে হবে। এটা এখন স্বাভাবিক নিয়মে পরিণত হয়েছে।’

আরেক পর্যটক মাহিন বলেন, ‘যে রুম ২ হাজার টাকা এখন সে রুম ভাড়া নিতে হয়েছে ৬ হাজার ৫০০ টাকায়। হোটেল ব্যবসায়ীরা মানুষের দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে। আমি হোটেল গ্রীস প্যারাডাইসে উঠেছি।’

তবে প্রশাসন বলছে, পর্যটকদের হয়রানি রোধে সব সময় মাঠে রয়েছেন তারা। এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) মাসুদ রানা বলেন, ঈদ পরবর্তী ১০ দিনের যে ছুটি এ ছুটিতে ভ্রাম্যমাণ টিম মাঠে রয়েছে। ট্যুরিস্ট পুলিশও কাজ করছে। প্রতিটি হোটেলে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ টিমের নম্বর দেয়া হয়েছে। এতে পর্যটকদের কোনো অভিযোগ থাকলে তা জানানোর জন্য। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো পর্যটক অভিযোগ করেননি।

নারায়ণগঞ্জে সড়কে প্রাণ গেল অন্তঃসত্ত্বা নারীর

ছবি

৬০ জন যাত্রী নিয়ে মোংলায় নৌকাডুবি

ছবি

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : কক্সবাজার ছাড়ছেন পর্যটকরা, বিমান উঠা নামা বন্ধ

ছবি

রিমালের প্রভাবে চাঁদপুর থেকে সবধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ

ছবি

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ আঘাত হানতে পারে রোববার সন্ধ্যায়

সব সাম্যের বেলায় বারবার নজরুল ফিরে আসেন আমাদের মাঝে: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

ঘূণিঝড় রেমালের প্রভাব,বরগুনায় বেড়েছে জোয়ারের পানি, প্লাবিত হচ্ছে নিম্নাঞ্চল,প্রশাসনের প্রস্ততি সভা

ছবি

নওগাঁ হামলার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর, গ্রেপ্তার ৮

ছবি

রুয়েট শিক্ষার্থীর ‘ঝুলন্ত’ লাশ উদ্ধার

ছবি

বান্দরবানে গুলি, পাল্টা গুলিতে পাহাড়ে বসবাসরতরা নিরাপত্তা হুমকিতে

ছবি

শরীয়তপুরে অস্ত্রও উদ্ধার, নারী আটক

বশেমুরকৃবি ফিশারিজ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ১ম পুনর্মিলন উদযাপিত

ছবি

ভোলায় উপকূলের বাসিন্দাদের সচেতনতায় মাইকিং

ছবি

জামালপুরে রিকশাচালকের লাশ উদ্ধার

ছবি

রাণীশংকৈলে স্বর্ণের খোঁজে মাটি খুঁড়ছেন কয়েক হাজার মানুষ

ছবি

সামান্য উত্তর দিকে এগিয়েছে বঙ্গোপসাগরের গভীর নিম্নচাপ

ছবি

সিলেটে আরেকটি কূপের সন্ধান

শার্শায় শালিসি বৈঠকে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

সখীপুরে আগুনে পুড়ল ১১ দোকান, তিন কোটি টাকার ক্ষতি

ঘুমধুম সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে আহত ২ একজনের অবস্থা আশংকা জনক

সৌদি আরবে আরেক বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

ছবি

গাজীপুরে আগুন পুড়লো কলোনির ৭০টি ঘর

ছবি

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, পুড়েছে ৩ শতাধিক বসতি

ছবি

ঝিনাইদহে প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

ছবি

বাঁশখালী ছনুয়া-কুতুবদিয়া জেটিঘাট এখন মরণ ফাঁদ

আখতারুজ্জামান, শিমুল-এরা কারা

ছবি

টানা তাপপ্রাবাহে ফলন তলানিতে, বাজারে চড়া দাম লিচুর

ছবি

ধনবাড়ীতে ডায়াবেটিক ধান চাষে মিলেছে সফলতা

ছবি

খাবারের প্যাকেট নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ১

ছবি

কুমারখালীর হাবাসপুর সরকারি বিদ্যালয় ৩ শিক্ষার্থীর বিপরীতে ৪ শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা থাকে অনুপস্থিত

ছবি

বরুড়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে দেড় কিমি. রাস্তা তৈরি করছেন দেওড়া গ্রামবাসীরা

মতলবে ঋণের চাপে বিকাশ ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ছবি

বেগমগঞ্জে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৪ ডাকাত গ্রেপ্তার

ছবি

সেই গৃহবধূর চুল কাটা ঘটনায় মামলা নথিভুক্ত

ছবি

কিরগিজস্তানের মাফিয়ার কবলে ইন্দুরকানীর যুবক

ছবি

সিরাজদিখানে বাইক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২ স্কুলছাত্র নিহত

tab

সারাদেশ

হোটেলে বাড়তি ভাড়া আদায়, তবুও তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে

জেলা বার্তা পরিবেশক, কক্সবাজার

রোববার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪

ঈদের টানা ছুটিতে সৈকত শহর কক্সবাজারে ভ্রমণে আসা পর্যটকরা মেতেছেন বাঁধ ভাঙা আনন্দ-উল্লাসে। তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে। তীব্র গরমে প্রশান্তি খুঁজে পাচ্ছে নোনাজলে। পর্যটন সংশ্লিষ্টরা বলছেন, এবার ঈদের ছুটির তৃতীয় দিনে কক্সবাজারে ভিড় করেছে ২ লাখের বেশি পর্যটক।

পর্যটকদের অভিযোগ, সুযোগ বুঝে অনেক হোটেল বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। তবে প্রশাসন বলছে তারা এখন পর্যন্ত বাড়তি ভাড়া আদায়ের কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) বিকালে সৈকতের সুগন্ধা পয়েন্টে তীব্র গরম অনুভূত হচ্ছে। নেই বাতাস, নেই কোনো কিছুর ছায়া। তারপরও লাখো মানুষের সমাগম। তিল ধারণের ঠাঁই নেই সাগরপাড়ে। তীব্র গরমকে উপেক্ষা করে সমুদ্র সৈকতে মেতেছেন পর্যটকরা। সৈকতের শৈবাল থেকে কলাতলী পয়েন্টে নোনাজলে যেনো মানুষের উপচে পড়া ভিড়। তীব্র গরমে সব প্রশান্তি যেনো সাগরপাড়ে।

ঢাকা থেকে আসা পর্যটক সাজ্জাদ বলেন, ‘তীব্র গরমও হার মানাতে পারছে না। কক্সবাজারে ঈদ আনন্দ করতে এসেছি। খুব ভালোভাবে ঈদ আনন্দ উদযাপন করছি পরিবারের সদস্যদের নিয়ে।’

আরেক পর্যটক ফারহানা বলেন, ‘ঈদ উদযাপন করতে প্রথমবারের মতো কক্সবাজার সৈকতে আসা। ঈদে তো সাধারণত আত্মীয়-স্বজনদের বাসায় যাওয়া হয়। কিন্তু এবার সমুদ্রে প্রথমবারের মতো ঈদ উদযাপন করছি পরিবারের সঙ্গে খুবই ভালো লাগছে।’

প্রতিবছর ঈদ মৌসুমকে কেন্দ্র করে বেপরোয়া হয়ে উঠে হোটেল, রেস্তোরাঁ ও যানবাহন চালকরা। পর্যটকদের অভিযোগ, এবার হয়রানির মাত্রা কিছুটা কম হলেও কিছু কিছু হোটেল বাড়তি ভাড়া আদায় করছে। সাইফুল নামের পর্যটক বলেন, ‘যেহেতু ঈদ মৌসুম, সেহেতু বাড়তি ভাড়া তো গুনতে হবে। এটা এখন স্বাভাবিক নিয়মে পরিণত হয়েছে।’

আরেক পর্যটক মাহিন বলেন, ‘যে রুম ২ হাজার টাকা এখন সে রুম ভাড়া নিতে হয়েছে ৬ হাজার ৫০০ টাকায়। হোটেল ব্যবসায়ীরা মানুষের দুর্বলতার সুযোগ নিচ্ছে। আমি হোটেল গ্রীস প্যারাডাইসে উঠেছি।’

তবে প্রশাসন বলছে, পর্যটকদের হয়রানি রোধে সব সময় মাঠে রয়েছেন তারা। এখন পর্যন্ত কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি। কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট (পর্যটন সেল) মাসুদ রানা বলেন, ঈদ পরবর্তী ১০ দিনের যে ছুটি এ ছুটিতে ভ্রাম্যমাণ টিম মাঠে রয়েছে। ট্যুরিস্ট পুলিশও কাজ করছে। প্রতিটি হোটেলে জেলা প্রশাসনের ভ্রাম্যমাণ টিমের নম্বর দেয়া হয়েছে। এতে পর্যটকদের কোনো অভিযোগ থাকলে তা জানানোর জন্য। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো পর্যটক অভিযোগ করেননি।

back to top