alt

সারাদেশ

সিরাজগঞ্জ যমুনার চরে মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে সূর্যমুখী

জেলা বার্তা পরিবেশক, সিরাজগঞ্জ : বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

সিরাজগঞ্জ যমুনা নদীর তীরে বিশাল এলাকাজুড়ে ফুটেছে হাজার হাজার সূর্যমুখি ফুল। এলোমেলো বাতাসে দোল খাচ্ছে সেই ফুল। তার উপর উড়ে বেড়াচ্ছে মৌমাছি দল। পাশেই নদীতে ছুটে চলেছে হরেক রকম নৌকা। শহর থেকে দূরে সে এক ভিন্ন প্রাকৃতিক পরিবেশ। নৈর্সগিক এমন সুন্দর্য উপভোগ প্রতিদিন সেখানে ভিড় করছে শত শত মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূর্যমুখির হলুদ আভা সেই সুন্দর্যের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কাওয়াকোলার চরে দেখা দিয়েছে এমন সুন্দর্য। কৃষি বিভাগের সহযোগিতা ও পরামর্শে কৈগাড়ী জড়তা গ্রামের কৃষক আব্দুল হামিদ ৬ বিঘা, সাইদুল ইসলাম ২ বিঘা, তারেক হোসেন ২ বিঘা জমিতে এই ফুল চাষাবাদ করেছেন। বন্যায় চরের জমিতে পলি পরায় সূর্যমুখি ফুল ও গাছের বাড়ন্ত চোখে পড়ার মতো। গত দুই বছর ধরে এখানে এ চাষাবাদ হচ্ছে।

সাধারণ এই সময় বসতিহীন চরাঞ্চলের বিশাল এলাকা পরিত্যক্ত থাকে। কৃষি বিভাগের প্রনোদনা কর্মসূচির সহায়তায় চরে সূর্যমুখি চাষাবাদে কৃষকরা লাভবান হওয়ায় বৈচিত্র্যময় চরের কৃষিতে এ চাষাবাদে ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। চরে ডিসেম্বর মাসের প্রথম দিকে কৃষকরা এর চাষাবাদ করেছেন। মাটিতে লাইন ধরে এর বীজ বপন করা হয়। ১১০ দিন পর ফুল থেকে বীজ সংগ্রহ করা যায়। এ চাষাবাদে ৬-৭ হাজার টাকা খরচ হয়। সামান্য সার ও কয়েকবার পানি দেয়া ছাড়া তেমন কোন পরিশ্রম ও খরচ নেই।

কৃষকরা জানায়, সদর উপজেলা কৃষি অফিস তাদের এই চাষাবাদে বীজ, রাসায়নিক সারসহ সব রকমের সহযোগিতা ও পরার্মশ দিচ্ছেন। তাদের সূর্যমুখি গাছে প্রচুর ফুল ধরেছে। গত বছর তারা বিঘাপ্রতি ৬ মণ হারে সূর্যমুখি বীজ পেয়েছেন। যা ৫ হাজার টাকা মন দরে বিক্রি করেছেন। এবারও তারা ভাল ফলনের আশা করছেন।

চরে সূর্যমুখির এমন সুন্দর্য দেখতে প্রতিদিন ভিড় করছে বিভিন্ন বয়সি মানুষ। নৌকাযোগে তারা এখানে আসছেন। হলুদের রাজ্য নিজেদের ছবি তুলছেন। সূর্যমুখি ফুলের কারনে চরে ছুটে আসছে ভ্রমণ পিপাসুরা। তারা এমন সুন্দর্যে মুগ্ধ হচ্ছেন।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকতা কৃষিবিদ আনোয়ার সাদাত জানান, সূর্যমুখীর তেলে কোলেস্টেরল মুক্ত প্রচুর পরিমাণে প্রাণশক্তি থাকায় আমাদের শরীরের দুর্বলতা, কার্যক্ষমতা বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। যেকোনো তেলের চাইতে সূর্যমুখী তেল দশগুণ বেশি পুষ্টি সমৃদ্ধ। আর এ কারণেই দিন দিন এ চাষাবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সদর উপজেলায় এবার ২০ বিঘা জমিতে সূর্যমুখি চাষাবাদ হয়েছে। আমার চেষ্টা করছি চরাঞ্চলে এ চাষাবাদ আরো ছড়িয়ে দিতে।

নারায়ণগঞ্জে সড়কে প্রাণ গেল অন্তঃসত্ত্বা নারীর

ছবি

৬০ জন যাত্রী নিয়ে মোংলায় নৌকাডুবি

ছবি

ঘূর্ণিঝড় রেমাল : কক্সবাজার ছাড়ছেন পর্যটকরা, বিমান উঠা নামা বন্ধ

ছবি

রিমালের প্রভাবে চাঁদপুর থেকে সবধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ

ছবি

ঘূর্ণিঝড় ‘রেমাল’ আঘাত হানতে পারে রোববার সন্ধ্যায়

সব সাম্যের বেলায় বারবার নজরুল ফিরে আসেন আমাদের মাঝে: সমাজকল্যাণ মন্ত্রী

ঘূণিঝড় রেমালের প্রভাব,বরগুনায় বেড়েছে জোয়ারের পানি, প্লাবিত হচ্ছে নিম্নাঞ্চল,প্রশাসনের প্রস্ততি সভা

ছবি

নওগাঁ হামলার পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীর, গ্রেপ্তার ৮

ছবি

রুয়েট শিক্ষার্থীর ‘ঝুলন্ত’ লাশ উদ্ধার

ছবি

বান্দরবানে গুলি, পাল্টা গুলিতে পাহাড়ে বসবাসরতরা নিরাপত্তা হুমকিতে

ছবি

শরীয়তপুরে অস্ত্রও উদ্ধার, নারী আটক

বশেমুরকৃবি ফিশারিজ অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের ১ম পুনর্মিলন উদযাপিত

ছবি

ভোলায় উপকূলের বাসিন্দাদের সচেতনতায় মাইকিং

ছবি

জামালপুরে রিকশাচালকের লাশ উদ্ধার

ছবি

রাণীশংকৈলে স্বর্ণের খোঁজে মাটি খুঁড়ছেন কয়েক হাজার মানুষ

ছবি

সামান্য উত্তর দিকে এগিয়েছে বঙ্গোপসাগরের গভীর নিম্নচাপ

ছবি

সিলেটে আরেকটি কূপের সন্ধান

শার্শায় শালিসি বৈঠকে যুবককে পিটিয়ে হত্যা

সখীপুরে আগুনে পুড়ল ১১ দোকান, তিন কোটি টাকার ক্ষতি

ঘুমধুম সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে আহত ২ একজনের অবস্থা আশংকা জনক

সৌদি আরবে আরেক বাংলাদেশি হজযাত্রীর মৃত্যু

ছবি

গাজীপুরে আগুন পুড়লো কলোনির ৭০টি ঘর

ছবি

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আগুন, পুড়েছে ৩ শতাধিক বসতি

ছবি

ঝিনাইদহে প্রবাসীর স্ত্রীকে গলা কেটে হত্যা

ছবি

বাঁশখালী ছনুয়া-কুতুবদিয়া জেটিঘাট এখন মরণ ফাঁদ

আখতারুজ্জামান, শিমুল-এরা কারা

ছবি

টানা তাপপ্রাবাহে ফলন তলানিতে, বাজারে চড়া দাম লিচুর

ছবি

ধনবাড়ীতে ডায়াবেটিক ধান চাষে মিলেছে সফলতা

ছবি

খাবারের প্যাকেট নিয়ে দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, নিহত ১

ছবি

কুমারখালীর হাবাসপুর সরকারি বিদ্যালয় ৩ শিক্ষার্থীর বিপরীতে ৪ শিক্ষক, শিক্ষার্থীরা থাকে অনুপস্থিত

ছবি

বরুড়ায় স্বেচ্ছাশ্রমে দেড় কিমি. রাস্তা তৈরি করছেন দেওড়া গ্রামবাসীরা

মতলবে ঋণের চাপে বিকাশ ব্যবসায়ীর আত্মহত্যা

ছবি

বেগমগঞ্জে আগ্নেয়াস্ত্রসহ ৪ ডাকাত গ্রেপ্তার

ছবি

সেই গৃহবধূর চুল কাটা ঘটনায় মামলা নথিভুক্ত

ছবি

কিরগিজস্তানের মাফিয়ার কবলে ইন্দুরকানীর যুবক

ছবি

সিরাজদিখানে বাইক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ২ স্কুলছাত্র নিহত

tab

সারাদেশ

সিরাজগঞ্জ যমুনার চরে মুগ্ধতা ছড়াচ্ছে সূর্যমুখী

জেলা বার্তা পরিবেশক, সিরাজগঞ্জ

বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪

সিরাজগঞ্জ যমুনা নদীর তীরে বিশাল এলাকাজুড়ে ফুটেছে হাজার হাজার সূর্যমুখি ফুল। এলোমেলো বাতাসে দোল খাচ্ছে সেই ফুল। তার উপর উড়ে বেড়াচ্ছে মৌমাছি দল। পাশেই নদীতে ছুটে চলেছে হরেক রকম নৌকা। শহর থেকে দূরে সে এক ভিন্ন প্রাকৃতিক পরিবেশ। নৈর্সগিক এমন সুন্দর্য উপভোগ প্রতিদিন সেখানে ভিড় করছে শত শত মানুষ। বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে সূর্যমুখির হলুদ আভা সেই সুন্দর্যের মাত্রা আরো বাড়িয়ে দেয়।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার কাওয়াকোলার চরে দেখা দিয়েছে এমন সুন্দর্য। কৃষি বিভাগের সহযোগিতা ও পরামর্শে কৈগাড়ী জড়তা গ্রামের কৃষক আব্দুল হামিদ ৬ বিঘা, সাইদুল ইসলাম ২ বিঘা, তারেক হোসেন ২ বিঘা জমিতে এই ফুল চাষাবাদ করেছেন। বন্যায় চরের জমিতে পলি পরায় সূর্যমুখি ফুল ও গাছের বাড়ন্ত চোখে পড়ার মতো। গত দুই বছর ধরে এখানে এ চাষাবাদ হচ্ছে।

সাধারণ এই সময় বসতিহীন চরাঞ্চলের বিশাল এলাকা পরিত্যক্ত থাকে। কৃষি বিভাগের প্রনোদনা কর্মসূচির সহায়তায় চরে সূর্যমুখি চাষাবাদে কৃষকরা লাভবান হওয়ায় বৈচিত্র্যময় চরের কৃষিতে এ চাষাবাদে ব্যাপক সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। চরে ডিসেম্বর মাসের প্রথম দিকে কৃষকরা এর চাষাবাদ করেছেন। মাটিতে লাইন ধরে এর বীজ বপন করা হয়। ১১০ দিন পর ফুল থেকে বীজ সংগ্রহ করা যায়। এ চাষাবাদে ৬-৭ হাজার টাকা খরচ হয়। সামান্য সার ও কয়েকবার পানি দেয়া ছাড়া তেমন কোন পরিশ্রম ও খরচ নেই।

কৃষকরা জানায়, সদর উপজেলা কৃষি অফিস তাদের এই চাষাবাদে বীজ, রাসায়নিক সারসহ সব রকমের সহযোগিতা ও পরার্মশ দিচ্ছেন। তাদের সূর্যমুখি গাছে প্রচুর ফুল ধরেছে। গত বছর তারা বিঘাপ্রতি ৬ মণ হারে সূর্যমুখি বীজ পেয়েছেন। যা ৫ হাজার টাকা মন দরে বিক্রি করেছেন। এবারও তারা ভাল ফলনের আশা করছেন।

চরে সূর্যমুখির এমন সুন্দর্য দেখতে প্রতিদিন ভিড় করছে বিভিন্ন বয়সি মানুষ। নৌকাযোগে তারা এখানে আসছেন। হলুদের রাজ্য নিজেদের ছবি তুলছেন। সূর্যমুখি ফুলের কারনে চরে ছুটে আসছে ভ্রমণ পিপাসুরা। তারা এমন সুন্দর্যে মুগ্ধ হচ্ছেন।

সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলা কৃষি কর্মকতা কৃষিবিদ আনোয়ার সাদাত জানান, সূর্যমুখীর তেলে কোলেস্টেরল মুক্ত প্রচুর পরিমাণে প্রাণশক্তি থাকায় আমাদের শরীরের দুর্বলতা, কার্যক্ষমতা বাড়াতে কার্যকর ভূমিকা রাখে। যেকোনো তেলের চাইতে সূর্যমুখী তেল দশগুণ বেশি পুষ্টি সমৃদ্ধ। আর এ কারণেই দিন দিন এ চাষাবাদ বৃদ্ধি পাচ্ছে। সদর উপজেলায় এবার ২০ বিঘা জমিতে সূর্যমুখি চাষাবাদ হয়েছে। আমার চেষ্টা করছি চরাঞ্চলে এ চাষাবাদ আরো ছড়িয়ে দিতে।

back to top