alt

সারাদেশ

জামালপুরে সরকারী খাস জমিতে পুকুর খনন করে ইট ভাটায় মাটি বিক্রি

প্রতিনিধি, জামালপুর : সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

জামালপুরে সরকারী খাস ফসলী জমি পুকুর খনন করে স্থানীয় ইট ভাটায় মাটি বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী জানায়, সদর উপজেলার শাহাবাজপুর ইউনিয়নে সাউনিয়া মৌজার নিরখাল বিলে ৭০ শতাংশ সরকারি খাস ফসলী জমি সন্ধ্যা রাত থেকে ভোর পর্যন্ত সময়ে পুকুর খনন করে মাটি বিক্রি করছেন স্থানীয় এক শ্রেনীর ভূমি খোকোরা।

ভূক্তভোগিদের অভিযোগ, ৭০ শতাংশ সরকারী খাস জমিতে তিনটি পুকুর খনন করায় একদিকে বর্ষার মৌসুমে পুকুরের চারদিকে পাড় ভেঙ্গে তাদের ফসলী জমির মারাত্বক ক্ষতির সুম্মুখ হতে পারে। অপর দিকে সরকারি আদেশ অমান্য করে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে ইট ভাটায় মাটি বিক্রি করে রাতারাতি আঙ্গুল ফলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন ভূমি খেকোরা। এসব বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন দেখেও যেন না দেখার ভান করছেন। অভিযোগকারি ভূক্তভোগিদের অভিযোগ কিভাবে সরকারি ফসলী খাস জমির মাটি কেটে দিনের পর দিন পুকুর খনন করে ইট ভাটায় মাটি বিক্র করা হচ্ছে তা নিয়ে সংকিত হয়ে পড়ছেন এলাকাবাসি।

গত ২২ এপ্রিল সোমবার সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, সদর উপজেলার শাহাবাজপুর ইউনিয়নে সাউনিয়া মৌজার নিরখাল বিলে বিআর এস ১নং খতিয়ান ভূক্ত ১৪০১নং দাগের ৭০শতাংশ সরকারি খাস ফসলী জমি থেকে তিতপল্লা সাইতেনিপাড়ার বাসিন্দা জয়নদ্দিনের ছেলে মুকসেদ আলী ও মোতালেব গংরা প্রতিদিন সন্ধ্যা রাত থেকে ভোর রাত পর্যন্ত সময়ে ভেকু মেশিন দিয়ে পুকুর খনন করে ট্রাকে তোলে সেই মাটি বিক্রি করছেন নারিকেলী গহেরপাড়া স্থানীয় আলফা ইট ভাটায়।

এ ব্যাপারে মুকসেদ আলী ও মোতালে এর কাছে সরকারি খাস ফসলী জমি পুকুর খননের বিষয় জানতে চাইলে তারা বলেন,৭০ শতাংশ জমি আমরা পত্তন নিয়ে মাটি কেটে পুকুর খনন করছি বলে জানান।

এ বিষয়ে শাহাবাজপুর ইউনিয়ন তহশীলের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মজিবুর রহমানের কাছে খাসজমি পুকুর খননের বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি যেনে মাটি কাটা বন্ধ করে দিয়ে ছিলাম।

এ ব্যাপারে জামালপুর সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার(ভূমি) শিহাবুল আরিফ এর কাছে সরকারী খাস ফসলী জমিতে পুকুর খনন আইন সংগত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সম্পর্কে জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) মোঃ শরিফুল ইসলাম

বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

ছবি

নাব্যতা সংকটে পায়রাবন্দর, বিদ্যুতের কয়লা আমদানিতে জটিলতা

ছবি

আশুলিয়ায় বেতনের দাবিতে সড়ক অবরোধ করে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

ছবি

কক্সবাজারের তিন উপজেলায় শান্তিপূর্ণভাবে চলছে ভোট গ্রহণ

ছবি

পেটে গজ রেখেই সেলাই, রোগী আইসিইউতে

রামেকে দুদকের আকস্মিক অভিযান মিলেছে বহু অভিযোগের সত্যতা

রংপুরে জঙ্গি তৎপরতার দায়ে তিন জনের ৪ বছরের দণ্ড

ছবি

দোহারে ব্রি ধান-৮৯ এর ওপর মাঠ দিবস ও কারিগরি সেশন

ছবি

হাওরের প্রায় শতভাগ বোরো ধান কাটা শেষ

ছবি

সুন্দরগঞ্জে ইটভাটায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান, ভাটা বন্ধের নির্দেশ

ছবি

রায়গঞ্জে ভাঙা ব্রিজে ঝুঁকি নিয়ে চলাচল, ঘটছে দুর্ঘটনা

ছবি

পোরশায় সড়ক দুর্ঘটনায় শিশু নিহত

ছবি

চট্টগ্রামে প্রবাসীর স্বর্ণ ছিনতাইকালে এসআই গ্রেপ্তার

ছবি

ডিমলায় সংস্কারের দুদিন পরই উঠে যাচ্ছে কোটি টাকার কার্পেটিং

ছবি

সিরাজগঞ্জে শিশু ধর্ষণ মামলায় বৃদ্ধের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড

পেটে গজ রেখেই সেলাই, সংকটাপূর্ণ রোগী আইসিইউতে

ছবি

বাগাতিপাড়ায় চেয়ারম্যান প্রার্থীর সমর্থকের বাড়িতে হামলা

জমি বিবাদে গৃহবধূকে হত্যা, গ্রেপ্তার ৪

ছবি

ইন্দুরকানীতে সংস্কারের অভাবে সড়ক বেহাল

সংবাদ-এর ৭৪ বর্ষে পদার্পণ উপলক্ষে আলোচনা

ছবি

কুড়িগ্রামে এক টাকায় ১০টি হাতপাখা বিক্রি

ছবি

করলা চাষে দ্বিগুণ লাভে খুশি কৃষক

ছবি

দেশ ছাড়িয়ে বিদেশেও কাউখালীর ঐতিহ্যবাহী শীতলপাটির কদর

ছবি

সাড়ে ৮ বিঘা জমির ফসল কাটল দুর্বৃত্তরা

ছবি

বগুড়ায় আলুর হিমাগার থেকে এক লাখ ডিম উদ্ধার

ছবি

মৌলভীবাজার সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাচন স্থগিত

ছবি

সাটুরিয়া উপজেলা নির্বাচন এমপি এক প্রার্থীকে সমর্থন উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় ভোটাররা

ছবি

সিরাজগঞ্জে হেরোইন রাখার দায়ে দুই যুবকের যাবজ্জীবন

সংবাদ প্রতিনিধি হারাধন পেলেন মাদার তেরেসা অ্যাওয়ার্ড

ছবি

আনোয়ারায় অধ্যক্ষের রুমে দুই শিক্ষকের মারামারি, শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন

ছবি

মুন্সীগঞ্জ আব্দুল আজহার উচ্চ বিদ্যালয় ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচনে দশগুণ বেশি মূল্যে মনোনয়নপত্র বিক্রি

ছবি

মুকসুদপুরে অজ্ঞাত নারীর মরদেহ উদ্ধার

ছবি

ডাকাতি করতে গিয়ে দলবেঁধে ধর্ষণ, গ্রেপ্তার ৪

ছবি

লক্ষ্মীছড়ির স্থগিত দুই কেন্দ্রের ভোট ২৯ মে

ছবি

অটোরিকশা চালকদের তাণ্ডবের ঘটনায় ৪ মামলা, আসামি প্রায় ২৫০০

ছবি

র‍্যাব হেফাজতে নারী মৃত্যুর ঘটনায় ক্যাম্প কমান্ডার প্রত্যাহার

ছবি

লিচু : তাপপ্রবাহে লোকসানের আশঙ্কায় বাগানি ও ব্যবসায়ীরা

tab

সারাদেশ

জামালপুরে সরকারী খাস জমিতে পুকুর খনন করে ইট ভাটায় মাটি বিক্রি

প্রতিনিধি, জামালপুর

সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

জামালপুরে সরকারী খাস ফসলী জমি পুকুর খনন করে স্থানীয় ইট ভাটায় মাটি বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে।

এলাকাবাসী জানায়, সদর উপজেলার শাহাবাজপুর ইউনিয়নে সাউনিয়া মৌজার নিরখাল বিলে ৭০ শতাংশ সরকারি খাস ফসলী জমি সন্ধ্যা রাত থেকে ভোর পর্যন্ত সময়ে পুকুর খনন করে মাটি বিক্রি করছেন স্থানীয় এক শ্রেনীর ভূমি খোকোরা।

ভূক্তভোগিদের অভিযোগ, ৭০ শতাংশ সরকারী খাস জমিতে তিনটি পুকুর খনন করায় একদিকে বর্ষার মৌসুমে পুকুরের চারদিকে পাড় ভেঙ্গে তাদের ফসলী জমির মারাত্বক ক্ষতির সুম্মুখ হতে পারে। অপর দিকে সরকারি আদেশ অমান্য করে বৃদ্ধাঙ্গুলী দেখিয়ে ইট ভাটায় মাটি বিক্রি করে রাতারাতি আঙ্গুল ফলে কলাগাছ বনে যাচ্ছেন ভূমি খেকোরা। এসব বিষয়ে স্থানীয় প্রশাসন দেখেও যেন না দেখার ভান করছেন। অভিযোগকারি ভূক্তভোগিদের অভিযোগ কিভাবে সরকারি ফসলী খাস জমির মাটি কেটে দিনের পর দিন পুকুর খনন করে ইট ভাটায় মাটি বিক্র করা হচ্ছে তা নিয়ে সংকিত হয়ে পড়ছেন এলাকাবাসি।

গত ২২ এপ্রিল সোমবার সরেজমিনে খোঁজ নিয়ে দেখা যায়, সদর উপজেলার শাহাবাজপুর ইউনিয়নে সাউনিয়া মৌজার নিরখাল বিলে বিআর এস ১নং খতিয়ান ভূক্ত ১৪০১নং দাগের ৭০শতাংশ সরকারি খাস ফসলী জমি থেকে তিতপল্লা সাইতেনিপাড়ার বাসিন্দা জয়নদ্দিনের ছেলে মুকসেদ আলী ও মোতালেব গংরা প্রতিদিন সন্ধ্যা রাত থেকে ভোর রাত পর্যন্ত সময়ে ভেকু মেশিন দিয়ে পুকুর খনন করে ট্রাকে তোলে সেই মাটি বিক্রি করছেন নারিকেলী গহেরপাড়া স্থানীয় আলফা ইট ভাটায়।

এ ব্যাপারে মুকসেদ আলী ও মোতালে এর কাছে সরকারি খাস ফসলী জমি পুকুর খননের বিষয় জানতে চাইলে তারা বলেন,৭০ শতাংশ জমি আমরা পত্তন নিয়ে মাটি কেটে পুকুর খনন করছি বলে জানান।

এ বিষয়ে শাহাবাজপুর ইউনিয়ন তহশীলের সহকারী ভূমি কর্মকর্তা মজিবুর রহমানের কাছে খাসজমি পুকুর খননের বিষয় জানতে চাইলে তিনি বলেন বিষয়টি আমি যেনে মাটি কাটা বন্ধ করে দিয়ে ছিলাম।

এ ব্যাপারে জামালপুর সদর উপজেলার সহকারি কমিশনার(ভূমি) শিহাবুল আরিফ এর কাছে সরকারী খাস ফসলী জমিতে পুকুর খনন আইন সংগত কিনা জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই জেনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ সম্পর্কে জামালপুরের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) মোঃ শরিফুল ইসলাম

বলেন, বিষয়টি আমার জানা নেই। খোঁজ নিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন।

back to top