alt

সারাদেশ

করলা চাষে দ্বিগুণ লাভে খুশি কৃষক

প্রতিনিধি, লালমনিরহাট : সোমবার, ২০ মে ২০২৪

লালমনিরহাটে কালীগঞ্জে কম খরচে অধিক লাভবান সবজি হিসেবে দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে করলা চাষাবাদ। করলা চাষ করে বাজারে ভালো দাম পাওয়ায় প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকেও চাষিদের নিরাপদ বিষমুক্ত সবজি চাষে দেওয়া হচ্ছে নানাবিধ পরামর্শ।

উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের সবজি চাষি নুর মোস্তফা (৫৫) দীর্ঘদিন ধরে তিনি কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত। অনান্য ফসলের পাশাপাশি চলতি মৌসুমে তিনি নিজের ২০শতাংশ জমিতে করেছেন করলার চাষ। গত একমাসেই তিনি ৩০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করেছেন। আগামী কয়েক মাসে আরও ৪০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করবেন বলে আশা করছেন। তার মতো এমন আরও অনেক চাষি উপজেলায় এ বছর করলার চাষ করেছেন।

করলা চাষি আবুল বাশার বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে ধান, গম, শাক সবজির চাষাবাদ করি। কৃষিকাজ করেই আমার জীবন জীবিকা চলে। এ বছর গত এপ্রিল মাসে আমি নিজের ২০ শতাংশ জমিতে উন্নতজাতের করলা চাষ করি। ৩৫দিন পরে ফলন আসে। প্রথম দিকে স্থানীয় বাজারে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করি।

বর্তমানে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি করছি। প্রতি সপ্তাহে ২দিন গড়ে ৪০ থেকে ৫০কেজি করলা বিক্রি করছি। এই পর্যন্ত ৩০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করেছি। এই মৌসুমে আরও ৪০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করবো বলে আশা করছি।

কাকিনা ইউনিয়নের আরেক চাষি সুমন মিয়া বলেন, আমি আমার ১৫ শতাংশ জমিতে চলতি মৌসুমে করলার চাষ করেছি। আল্লাহর রহমতে ভালো ফলন হয়েছে। বাজারে ভালো দামও পেয়েছি। আমার পরিবারের মুখে এখন খুশির হাসি।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম বলেন, আমার চলবলা ইউনিয়নে প্রায় ৫০ জন কৃষক করলা চাষে সফলতা পেয়েছেন। কম খরচে অল্প পরিশ্রমে অধিক লাভবান হয়েছেন চাষিরা। ফলনের শুরুর দিকে স্থানীয় বাজারে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে করলা। এখন ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। দিন দিন করলা চাষে আগ্রহ বাড়ছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ তুষার কান্তি বলেন, করলা একটি অধিক পুষ্টিসমৃদ্ধ সবজি। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, নিরাপদ ও বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যে করলা চাষিদের নিয়মিত সুপরামর্শ দিয়ে আসছি।

ক্ষতিকর পোকা দমনে ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার শিখিয়েছি। অনান্য সবজির পাশাপাশি করলা চাষে ভালো দাম পেয়ে অধিক লাভ হওয়ায় দিন দিন করলা চাষে আগ্রহী হচ্ছেন চাষিরা। করলা চাষে লাভবান হয়ে চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে। তাদের পরিবারে সচ্ছলতা ফিরে এসেছে। আমরা কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সব সময় চাষিদের সঙ্গে আছি। তাদের প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দিয়ে আসছি।

ছবি

নাফনদীতে মায়ানমারের ৩টি জাহাজ, নেই কোনো বিস্ফোরণের শব্দ

ছবি

বরিশালে অটোরিকশা-ইজিবাইক মুখোমুখি সংঘর্ষে নারী নিহত

শেষ সময়ে ঈদে বাড়ি যেতে ঘরমুখো মানুষের ভিড় বেড়েছে সড়ক মহাসড়কে

ছবি

বনানীতে বাসের ধাক্কায় বাইকচালক নিহত

ছবি

কাভার্ডভ্যানের পেছনে লিচুবাহী ট্রাকের ধাক্কা, নিহত ২

ছবি

সামিট-ওরিয়নের দুটিসহ রেন্টাল ৬ বিদ্যুৎকেন্দ্রের মেয়াদ ফের বাড়ছে

ছবি

ট্রেনের টিকিট কালোবাজারি: র‌্যাবের অভিযানে ১০ জনকে গ্রেপ্তার

ফরিদপুরে পুকুর থেকে শিশুর লাশ উদ্ধার

ছবি

নিত্যপণ্য নিয়ে কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন যাচ্ছে জাহাজ

ছবি

রোহিঙ্গা ক্যাম্প থেকে অস্ত্র ও গুলিসহ আরসা সন্ত্রাসী গ্রেপ্তার

ছবি

গাজীপুরে পুকুরে ডুবে দুই মাদ্রাসা শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

বেতন-বোনাসের দাবিতে কুমিল্লায় শ্রমিক বিক্ষোভ, ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে ধীরগতি

ছবি

টাঙ্গাইলে মহাসড়‌কে ট্রাক উল্টে ১৫ কিলোমিটার যানজট

ছবি

মাদকের টাকার জন্য ছোট ভাইয়ের সঙ্গে ঝগড়া, নিজের বুকে ছুরি চালাল কিশোর

ছবি

দুম্বা পালন করে স্বাবলম্বী ভৈরবের সবুজ

আখাউড়া স্থলবন্দর দিয়ে প্রথমবার জিরা আমদানি

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বজ্রপাতে ২ জন নিহত

ছবি

সিলেটে আবারও বন্যার পদধ্বনি, প্রস্তুত আশ্রয়কেন্দ্র

সিলেটে ছাত্রলীগের নাম ভাঙিয়ে প্রবাসীর কাছে মোটা অঙ্কের চাঁদা দাবি

ছবি

সিলেটে ড্রেনে পড়ে শিশুর মৃত্যু

ছবি

তিন দিন ভারি বৃষ্টির সতর্কতা

ছবি

বাবাকে ডাকাতের গুলি, দেখে হৃদ্‌রোগে ছেলের মৃত্যু

ছবি

টেকনাফ-সেন্টমার্টিন রুটে সীমিত নৌযান চলাচল শুরু

ছবি

ঈদযাত্রায় গাজীপুরের দুই মহাসড়কে বেড়েছে ঘরমুখো মানুষের চাপ

ছবি

ময়মনসিংহে পুকুরে ডুবে ভাই-বোনসহ ৩ শিশুর মৃত্যু

ছবি

সেন্টমার্টিন যেতে মুন্ডার ডেইল ঘাটে মানুষের ভিড়

ছবি

রামগড় কৃষি গবেষণার জঙ্গল থেকে শ্রমিকের লাশ উদ্ধার

ছবি

ফুলবাড়ীতে ট্রাক চাপায় নিহত ২ আহত ২ মহাসড়ক অবরোধ

নড়াইলে কিশোরের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

এনডিসি প্রতিনিধি দলের বারি পরিদর্শন

ছবি

সেন্টমার্টিন থেকে ৩ ট্রলারে ফিরছে দুই শতাধিক মানুষ

ছবি

বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট

ছবি

গাজীপুরে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে নারী শ্রমিকের মৃত্যু

ছবি

ঈদযাত্রায় চাপ নেই, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়‌ক ফাঁকা

ছবি

টাঙ্গাইলে সড়ক দুর্ঘটনায় কৃষি কর্মকর্তাসহ নিহত ২

ছবি

এখন গরিবেরা তিনবেলা ভাত খায় আর ধনীরা খায় আটা:খাদ্যমন্ত্রী

tab

সারাদেশ

করলা চাষে দ্বিগুণ লাভে খুশি কৃষক

প্রতিনিধি, লালমনিরহাট

সোমবার, ২০ মে ২০২৪

লালমনিরহাটে কালীগঞ্জে কম খরচে অধিক লাভবান সবজি হিসেবে দিন দিন জনপ্রিয় হচ্ছে করলা চাষাবাদ। করলা চাষ করে বাজারে ভালো দাম পাওয়ায় প্রান্তিক পর্যায়ের কৃষকের মুখে হাসি ফুটেছে। কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকেও চাষিদের নিরাপদ বিষমুক্ত সবজি চাষে দেওয়া হচ্ছে নানাবিধ পরামর্শ।

উপজেলার চলবলা ইউনিয়নের সবজি চাষি নুর মোস্তফা (৫৫) দীর্ঘদিন ধরে তিনি কৃষিকাজের সঙ্গে যুক্ত। অনান্য ফসলের পাশাপাশি চলতি মৌসুমে তিনি নিজের ২০শতাংশ জমিতে করেছেন করলার চাষ। গত একমাসেই তিনি ৩০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করেছেন। আগামী কয়েক মাসে আরও ৪০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করবেন বলে আশা করছেন। তার মতো এমন আরও অনেক চাষি উপজেলায় এ বছর করলার চাষ করেছেন।

করলা চাষি আবুল বাশার বলেন, আমি দীর্ঘদিন ধরে ধান, গম, শাক সবজির চাষাবাদ করি। কৃষিকাজ করেই আমার জীবন জীবিকা চলে। এ বছর গত এপ্রিল মাসে আমি নিজের ২০ শতাংশ জমিতে উন্নতজাতের করলা চাষ করি। ৩৫দিন পরে ফলন আসে। প্রথম দিকে স্থানীয় বাজারে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি করি।

বর্তমানে ৪০ টাকা কেজি বিক্রি করছি। প্রতি সপ্তাহে ২দিন গড়ে ৪০ থেকে ৫০কেজি করলা বিক্রি করছি। এই পর্যন্ত ৩০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করেছি। এই মৌসুমে আরও ৪০ হাজার টাকার করলা বিক্রি করবো বলে আশা করছি।

কাকিনা ইউনিয়নের আরেক চাষি সুমন মিয়া বলেন, আমি আমার ১৫ শতাংশ জমিতে চলতি মৌসুমে করলার চাষ করেছি। আল্লাহর রহমতে ভালো ফলন হয়েছে। বাজারে ভালো দামও পেয়েছি। আমার পরিবারের মুখে এখন খুশির হাসি।

উপ সহকারী কৃষি কর্মকর্তা রবিউল ইসলাম বলেন, আমার চলবলা ইউনিয়নে প্রায় ৫০ জন কৃষক করলা চাষে সফলতা পেয়েছেন। কম খরচে অল্প পরিশ্রমে অধিক লাভবান হয়েছেন চাষিরা। ফলনের শুরুর দিকে স্থানীয় বাজারে ৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে করলা। এখন ৪০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। দিন দিন করলা চাষে আগ্রহ বাড়ছে।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ তুষার কান্তি বলেন, করলা একটি অধিক পুষ্টিসমৃদ্ধ সবজি। শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বৃদ্ধি করে, নিরাপদ ও বিষমুক্ত সবজি উৎপাদনের লক্ষ্যে করলা চাষিদের নিয়মিত সুপরামর্শ দিয়ে আসছি।

ক্ষতিকর পোকা দমনে ফেরোমন ফাঁদ ব্যবহার শিখিয়েছি। অনান্য সবজির পাশাপাশি করলা চাষে ভালো দাম পেয়ে অধিক লাভ হওয়ায় দিন দিন করলা চাষে আগ্রহী হচ্ছেন চাষিরা। করলা চাষে লাভবান হয়ে চাষিদের মুখে হাসি ফুটেছে। তাদের পরিবারে সচ্ছলতা ফিরে এসেছে। আমরা কৃষি বিভাগের পক্ষ থেকে সব সময় চাষিদের সঙ্গে আছি। তাদের প্রশিক্ষণ ও পরামর্শ দিয়ে আসছি।

back to top