alt

সারাদেশ

এলাকায় ডাকাত বলে প্রচার

ঝড়ের রাতে প্রবাসীর বাড়িতে দাদি ও নাতিকে কুপিয়ে হত্যা

প্রতিনিধি, চাঁদপুর : মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রবাসীর বাড়িতে দাদি ও নাতিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় অপর এক নাতনিকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ও পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (২৭ মে) রাতে উপজেলার ২নং বাকিলা ইউনিয়ন পশ্চিম রাধাসার বকাউল বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ডাকাতের হামলায় নিহতরা হলেন, বকাউল বাড়ির ইউসুফের ছেলে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী আরাফাত (১২) ও তার দাদি হামিদা (৭০)।

এ ঘটনায় ইউসুফের মেয়ে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হালিমাকে (১৪) কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান চিকিৎসক।

ওই গ্রামের খান বাড়ির বাবলু জানান, রাত সাড়ে ১২টার দিকে নিহত আরাফাতের মা শাহিন ফোন করে তাদের বাড়িতে ডাকাত ঢুকেছে, অনেককে কুপিয়েছে বলে ফোনে জানান। পরে স্থানীয় মসজিদের মাইকে প্রচার করা হয়। পরে কয়েকজনসহ ওই বাড়িতে গিয়ে দেখি প্রবাসী ইউসুফের মায়ের মরদেহ খাটের ওপর পড়ে আছে। তার ছেলে আরাফাত ও মেয়ে হালিমা নিচে আহত অবস্থায় পড়ে আছে। তাদের শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

তিনি বলেন, স্থানীয় মসজিদের ইমাম ও অন্যদের সহযোগিতায় আহতদের কাঁধে করে রাস্তায় এনে পাশের বাড়ি থেকে অটোরিকশা নিয়ে হাসপাতালে আসি। আসার পথেই আরাফাত মারা যায়। হাসপাতাল থেকে আরাফাতের বোন হালিমাকে কুমিল্লায় রেফার করা হয়। শুনেছি সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে রেফার করা হয়েছে। তার পিঠে ও বুকে কোপ দেওয়া হয়েছে।

অটোরিকশা চালক জহির জানান, রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। আনুমানিক সাড়ে ১২টার পর আমার বাড়িতে আহত আরাফাত ও তার বোন হালিমাকে নিয়ে আসে স্থানীয়রা। পরে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে তাদেরকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি।

স্থানীয়রা জানান, ডাকাতদল ডাকাতির উদ্দেশ্যে ওই ঘরে প্রবেশ করলেও ঘর থেকে কোনো স্বর্ণালংকার খোয়া যায়নি। এমনকি নিহত বৃদ্ধার গলা ও কানেও স্বর্ণালংকার রয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ জানান, প্রচণ্ড ঝড় বৃষ্টিতে হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়েছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক দ্বন্দ্বে হত্যার ঘটনাটি ঘটতে পারে। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। বিস্তারিত তদন্ত শেষে বলা যাবে।

ছবি

গাজায় নিখোঁজ ২০ হাজারের বেশি শিশু

রংপুরে হসপিটালের নামে রোগীদের সাথে প্রতারনা, দেড় লাখ টাকা জরিমানা করলো ভ্রাম্যমান আদালত

সিলেটে ছাদ থেকে ফেলে যুবককে হত্যার রহস্য উদঘাটন, গ্রেপ্তার ১

গজারিয়ায় দুই গ্রুপের মারামরি, আহত পাঁচ

ছবি

কৃষকের প্রণোদনার সার কৃষককে না দিয়ে বাজারে বিক্রির সময় আটকে দিল জনতা, অভিযোগ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে

ছবি

নদী ভাঙনসহ নানা কারণে দশমিনায় কমছে ফসলি জমি

ছবি

পদ্মায় পানি বাড়ায় দৌলতদিয়া ফেরিঘাটে ভাঙন আতঙ্ক

ছবি

রাসেলস ভাইপার আতঙ্কে মহেশপুর সীমান্তের মানুষ

ছবি

টঙ্গীতে যুবক রিফাত হত্যার আসামি গ্রেপ্তার

ছবি

সোনাইমুড়ীতে প্রাণিসম্পদ কার্যালয়ে জনবল ও ভ্যাকসিন সংকট

ছবি

চট্টগ্রামে মাদক মামলায় ৩ জনের যাবজ্জীবন

ছবি

জাজিরায় শিশুকে ধর্ষণ, বৃদ্ধ গ্রেপ্তার

ছবি

‘জল্লাদ’ শাহজাহান মারা গেছেন

ছবি

বাম্পার উৎপাদন আর ভালো দামে হাসি বেলাবরের লটকন চাষিদের মুখে

ছবি

দেড় হাজার শ্রমিক বেকার সুন্দরবন টেক্সটাইল মিলসটি ৫ বছরেও চালু হলো না

ছবি

চোরাচালান দেবহাটা উপজেলা চেয়ারম্যান আলফা কারাগারে

ছবি

সিরাজগঞ্জে স্বামী হত্যা স্ত্রীর যাবজ্জীবন

ছবি

বিল না দেওয়ায় চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজের বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন

ছবি

তারাকান্দা বিকল্প সড়ক ভেঙে দুই ইউপি মানুষের যোগাযোগ বিছিন্ন

ছবি

৩ জেলায় ৩ মরদেহ উদ্ধার

ছবি

৪ জেলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ৫

ছবি

পাবনায় পদ্মা নদীতে তিন শিশুর মৃত্যু

ছবি

ঈদের দিন খুন হওয়া যুবক রিফাত হত্যার আসামি সিয়াম গ্রেপ্তার

ছবি

চুয়াডাঙ্গায় ডায়রিয়ার প্রকোপ, বৃদ্ধার মৃত্যু

ছবি

সিলেটে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি

ছবি

ভোলায় থানার মধ্যে এএসআই গুলিবিদ্ধ, অবস্থা আশঙ্কাজনক

ছবি

পর্যটকদের ভিড়ে মুখরিত নাইক্ষ্যংছড়ির উপবন পর্যটন কেন্দ্র

সাংবাদিকের ওপর হামলা, আরেক সাংবাদিক গ্রেপ্তার

ছবি

নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুমের গহীন জঙ্গল থেকে অজ্ঞাত ব্যক্তির লাশ উদ্ধার,

ছবি

নেত্রকোণায় পানিতে ডুবে শিশুসহ ৪ জনের মৃত্যু

ছবি

বগুড়ায় বাসের ধাক্কায় প্রাণ গেল নারীসহ দুইজনের

ছবি

গাজীপুরে ঝুট গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

ছবি

বরগুনায় ব্রিজ ভেঙে মাইক্রোবাস খালে : নিহত ৯, নিখোঁজ ৩

ছবি

গোদাগাড়ী সৌর বিদ্যুৎ প্লান্ট হঠাৎ বন্ধ, অন্ধকারে দের হাজার পরিবার

রাজশাহী বাঘায় আ.লীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষ, ৩০জন আহত

সিলেট-সুনামগঞ্জ বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি, বেড়েছে দুর্ভোগ

tab

সারাদেশ

এলাকায় ডাকাত বলে প্রচার

ঝড়ের রাতে প্রবাসীর বাড়িতে দাদি ও নাতিকে কুপিয়ে হত্যা

প্রতিনিধি, চাঁদপুর

মঙ্গলবার, ২৮ মে ২০২৪

চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে প্রবাসীর বাড়িতে দাদি ও নাতিকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। এ ঘটনায় গুরুতর আহত অবস্থায় অপর এক নাতনিকে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে ও পরে সেখান থেকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।

সোমবার (২৭ মে) রাতে উপজেলার ২নং বাকিলা ইউনিয়ন পশ্চিম রাধাসার বকাউল বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে।

ডাকাতের হামলায় নিহতরা হলেন, বকাউল বাড়ির ইউসুফের ছেলে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ষষ্ঠ শ্রেণির শিক্ষার্থী আরাফাত (১২) ও তার দাদি হামিদা (৭০)।

এ ঘটনায় ইউসুফের মেয়ে শ্রীপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের নবম শ্রেণির শিক্ষার্থী হালিমাকে (১৪) কুপিয়ে গুরুতর আহত করেছে দুর্বৃত্তরা। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানান চিকিৎসক।

ওই গ্রামের খান বাড়ির বাবলু জানান, রাত সাড়ে ১২টার দিকে নিহত আরাফাতের মা শাহিন ফোন করে তাদের বাড়িতে ডাকাত ঢুকেছে, অনেককে কুপিয়েছে বলে ফোনে জানান। পরে স্থানীয় মসজিদের মাইকে প্রচার করা হয়। পরে কয়েকজনসহ ওই বাড়িতে গিয়ে দেখি প্রবাসী ইউসুফের মায়ের মরদেহ খাটের ওপর পড়ে আছে। তার ছেলে আরাফাত ও মেয়ে হালিমা নিচে আহত অবস্থায় পড়ে আছে। তাদের শরীর থেকে রক্তক্ষরণ হচ্ছে।

তিনি বলেন, স্থানীয় মসজিদের ইমাম ও অন্যদের সহযোগিতায় আহতদের কাঁধে করে রাস্তায় এনে পাশের বাড়ি থেকে অটোরিকশা নিয়ে হাসপাতালে আসি। আসার পথেই আরাফাত মারা যায়। হাসপাতাল থেকে আরাফাতের বোন হালিমাকে কুমিল্লায় রেফার করা হয়। শুনেছি সেখান থেকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে রেফার করা হয়েছে। তার পিঠে ও বুকে কোপ দেওয়া হয়েছে।

অটোরিকশা চালক জহির জানান, রাতে প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছিল। আনুমানিক সাড়ে ১২টার পর আমার বাড়িতে আহত আরাফাত ও তার বোন হালিমাকে নিয়ে আসে স্থানীয়রা। পরে ব্যাটারিচালিত অটোরিকশায় করে তাদেরকে হাজীগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসি।

স্থানীয়রা জানান, ডাকাতদল ডাকাতির উদ্দেশ্যে ওই ঘরে প্রবেশ করলেও ঘর থেকে কোনো স্বর্ণালংকার খোয়া যায়নি। এমনকি নিহত বৃদ্ধার গলা ও কানেও স্বর্ণালংকার রয়েছে।

হাজীগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আবদুর রশিদ জানান, প্রচণ্ড ঝড় বৃষ্টিতে হত্যাকাণ্ডের খবর পেয়ে রাতেই ঘটনাস্থলে গিয়েছি। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পারিবারিক দ্বন্দ্বে হত্যার ঘটনাটি ঘটতে পারে। বিষয়টি গুরুত্বসহকারে দেখা হচ্ছে। বিস্তারিত তদন্ত শেষে বলা যাবে।

back to top