alt

বাংলাদেশ

মিতু হত্যা মামলার বাদী এসপি বাবুল এখন আসামি হয়ে পাঁচদিনের রিমান্ডে

চট্টগ্রাম ব্যুরো : রোববার, ১৬ মে ২০২১
image

চট্টগ্রামে বহুল আলোচিত মাহমুদা খানম মিতু হত্যার ঘটনায় নতুন মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে এখন পুলিশি হেফাজতে সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার। গত ১২ মে বুধবার মিতুর বাবার সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশারফ হোসেনের দায়ের করা মামলায় বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার দেখায় মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ইতোমধ্যে নতুন এ মামলায় বাবুল আক্তারকে ৫ দিনের রিমান্ড হেফাজতে নিয়েছে পিবিআই। এর মধ্য দিয়ে ৫ বছর আগের আলোচিত এ হত্যা মামলার বাদী সাবেক এসপি বাবুল আক্তার এখন আসামি হিসেবে গ্রেপ্তার হন।

পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার গত ১৩ মে বৃহস্পতিবার পিবিআই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আলোচিত মিতু হত্যার মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর তারা তদন্ত শুরু করেন। মামলার নথিপত্রের পাশাপাশি বিভিন্ন আলামত তারা পর্যালোচনা করেন। এরপর তাদের কাছে মনে হয়েছে মিতু হত্যায় তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে বিষয়টি নিয়ে তারা পুলিশ মহাপরির্দশক এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। তাদের তিনি বলেন, পিবিআই যে জায়গায় পৌঁছেছে সেখান থেকে পিছপা হওয়ার সুযোগ নেই। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পুলিশপ্রধান তাদের নির্বিঘেœ তদন্তে এগিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেন এবং হত্যায় যে বা যারা জড়িত তাদের প্রয়োজনে গ্রেপ্তার করার জন্য নির্দেশনা দেন। এরপর তারা ঢাকায় কর্মরত বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকেন। বাবুল আক্তার চট্টগ্রামে যাওয়ার জন্য রাজি হন। যেহেতু বাবুল আক্তার একটি হত্যা মামলার বাদী সেই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করার আইনি ভিত্তি না থাকায় তারা তখন বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার করেননি। এরপর তারা বাবুল আক্তারের শ্বশুর মিতুর বাবা মোশারফ হোসেনের সঙ্গে তদন্তের বিষয় নিয়ে কথা বলেন। মোশাররফ হোসেনকে তারা মামলা করার জন্য বলেন। এরপর মোশারফ হোসেন সবকিছু শুনে মামলা করতে রাজি হন।

২০১৬ সালে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ এলাকায় ছেলেকে স্কুলে নিয়ে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে। একই সময় হামলাকারীরা মিতুকে লক্ষ্য করে গুলিও ছোড়ে। ছেলের সামনে মারা যান মা মিতু। ওই সময় সদ্য এসপি পদে পদোন্নতি পেয়ে ঢাকায় ছিলেন বাবুল আক্তার। মিতু হত্যার পর খবর পেয়ে ছুটে যান বাবুল আক্তার। তখন চট্টগ্রামে বাবুল আক্তারের সাহসী কিছু কর্মকা-ের জেরে জঙ্গিগোষ্ঠী এ হত্যাকা- ঘটাতে পারে বলে আলোচনায় আসে। পরে স্ত্রী খুন হওয়ার ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলাও করেন। মামলায় পুলিশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে। এদের মধ্যে আলোচিত ছিল মুছা। পরে বেরিয়ে আসে মুছা বাবুল আক্তারের সোর্স ছিলেন। নানা নাটকীয়তায় পুলিশ মামলার তদন্ত শুরু করলে সন্দেহের তীর খোদ এসপি বাবুল আক্তারের দিকে যায়। নানা তর্ক-বিতর্কের মধ্যে পুলিশের চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন বাবুল আক্তার। এরপর কেটে যায় অনেক বছর। মামলা ডিবি থেকে তদন্তের জন্য দেয়া হয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআইকে। পরে খবর বের হয় এক নারীর সঙ্গে অবৈধ প্রেমের সম্পর্কের জেরে নিজ স্ত্রীকে সোর্সের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের দিয়ে বাবুল আক্তার নিজেই হত্যা করিয়েছেন। এ অভিযোগের ভিত্তিতে বেশ কিছু প্রমাণাদিও জোগাড় করে পুলিশ। এসব ঘটনার পর বাবুল আক্তারের সঙ্গে তার সাবেক শ্বশুর সাবেক পুলিশ কর্মকর্তারাও সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

পিবিআইয়ের একটি সূত্র জানায়, মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় দায়ের হওয়া নতুন মামলার এজাহারে বাদী যেসব অভিযোগ করেছেন সেসব বিষয়কে প্রাধান্য দিয়েই প্রধান আসামি বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বাবুল আক্তার বর্তমানে পিবিআইয়ের কাছে রিমান্ড হেফাজতে আছে। পিবিআইয়ের কাছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে। এসব তথ্যের ভিত্তিতে মনে হয়েছে মিতু হত্যা তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারই জড়িত। যেসব তথ্য পেয়েছে সেইসব বিষয়ে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পিবিআই। পিবিআই জানিয়েছে বুধবার দুপুরে বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন তার শ্বশুর অর্থাৎ মিতুর বাবা সেই মামলায় আসামি করা হয়েছে আরও সাতজনকে। তারা হলেনÑ কামরুল ইসলাম মুছা, কালু, ওয়াসিম, শাহজাহান, আনোয়ার, এহতেসামুল হক ভোলা ও সাকি। আগের মামলায় যারা গ্রেপ্তার আছেন তাদের নতুন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর জন্য ইতোমধ্যে আদালতে আবেদন করেছি পিবিআই।

পিবিআই জানিয়েছে, মিতু হত্যায় তৎকালীন এসপি বাবুল আক্তার (যিনি মিতু আক্তারের স্বামী) বাদী হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। সেই মামলা ডিবি তদন্তের পর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে আদালত মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)। চলতি মাসের প্রথম দিকে বাবুল আক্তারের ব্যবসায়িক পার্টনার সাইফুল ও মামুন নামের দুইজন আদালতে জবানবন্দিতে জানান, বাবুল আক্তার স্ত্রীকে হত্যার জন্য মামলার আসামিদের তিন লাখ টাকা দেন। এরপর ১১ মে বাবুল আক্তারকে পিবিআই চট্টগ্রামে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে মিতু হত্যার ঘটনায় তাকে পিবিআই হেফাজতে নেয়া হয়। এরপর পরকীয়ার জের ধরে মিতুকে হত্যার অভিযোগে বাবুল আক্তারসহ আটজনের বিরুদ্ধে ১২ মে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন। সেই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সেদিনই বাবুলকে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে পাঁচদিনের রিমান্ডে পাঠান। বর্তমানে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পিবিআই। ১৬ মে রোববার নতুন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো দুই আসামি ওয়াসিম ও আনোয়ার প্রায় পাঁচ বছর ধরে আগের মামলায় কারাগারে ছিলেন। মিতু হত্যার পর ২০১৬ সালের ২৬ জুন আনোয়ার ও ওয়াসিমকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, ওয়াসিম এবং আনোয়ার মিতু হত্যার ঘটনায় বাবুল আক্তারের দায়ের করা মামলায় আগে থেকেই কারাগারে আছেন। আগের যে মামলা পিবিআই তদন্ত করেছে ইতোমধ্যে সেই হত্যা মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়ে নিষ্পত্তি করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মিতু হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া নতুন মামলায় বাবুল আক্তারসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো। চারজনই নতুন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। গ্রেপ্তার দেখানো ওয়াসিম ও আনোয়ারকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

বিভিন্ন ব্যাংকের ৩০০ কোটি টাকা লোপাটের ৫৪ মামলা, ১০টির বিচার শেষ

মুক্তি পেলেন অন্যের সাজা খাটা শিমু আক্তার

ছবি

সংক্রমণ বেড়েই চলেছে

ছবি

পরীমনিকে যেভাবে দেখা গেল বোট ক্লাবের সিসি ক্যামেরায়

ছবি

বেদখল হওয়া সরকারি জায়গা উদ্ধারে সরব গজারিয়া প্রশাসন

ছবি

চার লাখ টাকার জন্য পায়ের অপারেশন হচ্ছেনা বেরোবির মেধাবী শিক্ষার্থী লিমনের

ছবি

পরিচ্ছন্ন কর্মীদের জন্য দশতলা ভবন

ছবি

নরসিংদী’র বাতিঘর মনোহরদী শাখার বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি

ছবি

ব্রীজ আছে রাস্তা নেই, দুভোর্গ চরমে

ছবি

আ’লীগ কার্যালয়ে নৃশংস বোমা হামলার ২০ বছর, বিচার হয়নি

ছবি

সিলেট নগরীর মােড়ে মােড়ে ট্রাফিক পুলিশের অভিযান

ছবি

৬৫ বছরের বৃদ্ধকে পিটিয়ে পা ভেঙে দেওয়ার ঘটনায় মামলা না নেওয়ার অভিযোগ

মোরেলগঞ্জে ১০ দোকান পুড়ে ছাই

সখীপুরে বিনা নোটিশে কৃষকের কলাবাগান কর্তন বনবিভাগের

বেনাপোল কাস্টম কর্তারাই চুরি করেন ২০ কেজি স্বর্ণ

তারাকান্দায় একযুগ পর সাজাপ্রাপ্ত আসামি গ্রেপ্তার

সাথিয়ায় চালক হত্যার রহস্য উদ্ঘাটন নারীসহ গ্রেপ্তার ৫

খুলনায় গভীর রাতে ঘর থেকে ডেকে নারীকে হত্যা

ছবি

চাঁদপুরে মিনি পার্ক থেকে অজগরসহ বন্যপ্রাণী উদ্ধার

মেম্বারের বিরুদ্ধে সর. ঘর-ভাতা প্রদানে বাণিজ্যের অভিযোগ

ছবি

অপরিকল্পিত খাল খননে ধসে গেছে সড়ক, হুমকিতে শতাধিক বাড়ি

শরণখোলায় ছেলেকে বাঁচাতে ভ্যান চালক পিতার আকুতি

জাজিরায় স্বাস্থ্যবিধি না মানায় ৩ লঞ্চ মালিককে জরিমানা

কুড়িগ্রামে করোনা সচেতনতায় পৌরসভায় বিধি নিষেধ আরোপ

বাগেরহাটে করোনায় মৃত ৩ শনাক্ত ৭৬

রাজশাহীতে করোনার‘মৃত্যু মিছিলেযুক্ত’ আরও ১৩ প্রাণ

কী কারণে মা ও দুই সন্তানকে হত্যা ?

সিলেটে করােনাভাইরাসে ৭ জনের মৃত্যু

ছবি

শায়েস্তাগঞ্জে প্রাণ আরএফএল কোম্পানির এক শ্রমিকের করুণ মৃত্যু

ছবি

বদলগাছীতে নির্মাণ কাজের ৭ দিনের মধ্যে ভাঙতে শুরু করেছে সড়কের দুই পাড়

ছবি

২৪ ঘণ্টায় যশোরে ২০৪ জনের করোনা শনাক্ত, মৃত ৫

ছবি

রাজশাহী মেডিকেলে করোনায় আরও ১৩ জনের মৃত্যু

ছবি

সিলেটে একই পরিবারের তিনজনের গলা কাটা মরদেহ উদ্ধার

ছবি

পাবনায় সেই নেতাদের অস্ত্রের লাইসেন্স বাতিল হচ্ছে

কিশোরগঞ্জে টিকার দ্বিতীয় ডোজ থেকে বঞ্চিত হবেন ১৭ হাজার মানুষ

ছবি

কক্সবাজারে ১৫ ফুট দৈর্ঘের অজগর অবমুক্ত

tab

বাংলাদেশ

মিতু হত্যা মামলার বাদী এসপি বাবুল এখন আসামি হয়ে পাঁচদিনের রিমান্ডে

চট্টগ্রাম ব্যুরো
image

রোববার, ১৬ মে ২০২১

চট্টগ্রামে বহুল আলোচিত মাহমুদা খানম মিতু হত্যার ঘটনায় নতুন মামলায় গ্রেপ্তার হয়ে এখন পুলিশি হেফাজতে সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তার। গত ১২ মে বুধবার মিতুর বাবার সাবেক পুলিশ কর্মকর্তা মোশারফ হোসেনের দায়ের করা মামলায় বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার দেখায় মামলার তদন্ত সংশ্লিষ্ট সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। ইতোমধ্যে নতুন এ মামলায় বাবুল আক্তারকে ৫ দিনের রিমান্ড হেফাজতে নিয়েছে পিবিআই। এর মধ্য দিয়ে ৫ বছর আগের আলোচিত এ হত্যা মামলার বাদী সাবেক এসপি বাবুল আক্তার এখন আসামি হিসেবে গ্রেপ্তার হন।

পিবিআই প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার গত ১৩ মে বৃহস্পতিবার পিবিআই কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনে বলেন, আলোচিত মিতু হত্যার মামলাটি তদন্তের দায়িত্ব পাওয়ার পর তারা তদন্ত শুরু করেন। মামলার নথিপত্রের পাশাপাশি বিভিন্ন আলামত তারা পর্যালোচনা করেন। এরপর তাদের কাছে মনে হয়েছে মিতু হত্যায় তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারের সংশ্লিষ্টতা রয়েছে। তথ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে বিষয়টি নিয়ে তারা পুলিশ মহাপরির্দশক এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলেন। তাদের তিনি বলেন, পিবিআই যে জায়গায় পৌঁছেছে সেখান থেকে পিছপা হওয়ার সুযোগ নেই। এরপর স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং পুলিশপ্রধান তাদের নির্বিঘেœ তদন্তে এগিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেন এবং হত্যায় যে বা যারা জড়িত তাদের প্রয়োজনে গ্রেপ্তার করার জন্য নির্দেশনা দেন। এরপর তারা ঢাকায় কর্মরত বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকেন। বাবুল আক্তার চট্টগ্রামে যাওয়ার জন্য রাজি হন। যেহেতু বাবুল আক্তার একটি হত্যা মামলার বাদী সেই মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত তাকে গ্রেপ্তার করার আইনি ভিত্তি না থাকায় তারা তখন বাবুল আক্তারকে গ্রেপ্তার করেননি। এরপর তারা বাবুল আক্তারের শ্বশুর মিতুর বাবা মোশারফ হোসেনের সঙ্গে তদন্তের বিষয় নিয়ে কথা বলেন। মোশাররফ হোসেনকে তারা মামলা করার জন্য বলেন। এরপর মোশারফ হোসেন সবকিছু শুনে মামলা করতে রাজি হন।

২০১৬ সালে চট্টগ্রামের পাঁচলাইশ এলাকায় ছেলেকে স্কুলে নিয়ে যাওয়ার সময় দুর্বৃত্তরা ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে চট্টগ্রাম মহানগর পুলিশের সাবেক এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতুকে। একই সময় হামলাকারীরা মিতুকে লক্ষ্য করে গুলিও ছোড়ে। ছেলের সামনে মারা যান মা মিতু। ওই সময় সদ্য এসপি পদে পদোন্নতি পেয়ে ঢাকায় ছিলেন বাবুল আক্তার। মিতু হত্যার পর খবর পেয়ে ছুটে যান বাবুল আক্তার। তখন চট্টগ্রামে বাবুল আক্তারের সাহসী কিছু কর্মকা-ের জেরে জঙ্গিগোষ্ঠী এ হত্যাকা- ঘটাতে পারে বলে আলোচনায় আসে। পরে স্ত্রী খুন হওয়ার ঘটনায় বাবুল আক্তার বাদী হয়ে একটি মামলাও করেন। মামলায় পুলিশ কয়েকজনকে গ্রেপ্তার করে। এদের মধ্যে আলোচিত ছিল মুছা। পরে বেরিয়ে আসে মুছা বাবুল আক্তারের সোর্স ছিলেন। নানা নাটকীয়তায় পুলিশ মামলার তদন্ত শুরু করলে সন্দেহের তীর খোদ এসপি বাবুল আক্তারের দিকে যায়। নানা তর্ক-বিতর্কের মধ্যে পুলিশের চাকরি থেকে অব্যাহতি নেন বাবুল আক্তার। এরপর কেটে যায় অনেক বছর। মামলা ডিবি থেকে তদন্তের জন্য দেয়া হয় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন পিবিআইকে। পরে খবর বের হয় এক নারীর সঙ্গে অবৈধ প্রেমের সম্পর্কের জেরে নিজ স্ত্রীকে সোর্সের মাধ্যমে সন্ত্রাসীদের দিয়ে বাবুল আক্তার নিজেই হত্যা করিয়েছেন। এ অভিযোগের ভিত্তিতে বেশ কিছু প্রমাণাদিও জোগাড় করে পুলিশ। এসব ঘটনার পর বাবুল আক্তারের সঙ্গে তার সাবেক শ্বশুর সাবেক পুলিশ কর্মকর্তারাও সম্পর্কের অবনতি ঘটে।

পিবিআইয়ের একটি সূত্র জানায়, মাহমুদা খানম মিতু হত্যায় দায়ের হওয়া নতুন মামলার এজাহারে বাদী যেসব অভিযোগ করেছেন সেসব বিষয়কে প্রাধান্য দিয়েই প্রধান আসামি বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। বাবুল আক্তার বর্তমানে পিবিআইয়ের কাছে রিমান্ড হেফাজতে আছে। পিবিআইয়ের কাছে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য রয়েছে। এসব তথ্যের ভিত্তিতে মনে হয়েছে মিতু হত্যা তার স্বামী সাবেক পুলিশ সুপার বাবুল আক্তারই জড়িত। যেসব তথ্য পেয়েছে সেইসব বিষয়ে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পিবিআই। পিবিআই জানিয়েছে বুধবার দুপুরে বাবুল আক্তারকে প্রধান আসামি করে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন তার শ্বশুর অর্থাৎ মিতুর বাবা সেই মামলায় আসামি করা হয়েছে আরও সাতজনকে। তারা হলেনÑ কামরুল ইসলাম মুছা, কালু, ওয়াসিম, শাহজাহান, আনোয়ার, এহতেসামুল হক ভোলা ও সাকি। আগের মামলায় যারা গ্রেপ্তার আছেন তাদের নতুন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানোর জন্য ইতোমধ্যে আদালতে আবেদন করেছি পিবিআই।

পিবিআই জানিয়েছে, মিতু হত্যায় তৎকালীন এসপি বাবুল আক্তার (যিনি মিতু আক্তারের স্বামী) বাদী হয়ে নগরীর পাঁচলাইশ থানায় অজ্ঞাতনামাদের আসামি করে হত্যা মামলা করেন। সেই মামলা ডিবি তদন্তের পর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে আদালত মামলাটির তদন্তের দায়িত্ব পায় পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই)। চলতি মাসের প্রথম দিকে বাবুল আক্তারের ব্যবসায়িক পার্টনার সাইফুল ও মামুন নামের দুইজন আদালতে জবানবন্দিতে জানান, বাবুল আক্তার স্ত্রীকে হত্যার জন্য মামলার আসামিদের তিন লাখ টাকা দেন। এরপর ১১ মে বাবুল আক্তারকে পিবিআই চট্টগ্রামে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়। জিজ্ঞাসাবাদে মিতু হত্যার ঘটনায় তাকে পিবিআই হেফাজতে নেয়া হয়। এরপর পরকীয়ার জের ধরে মিতুকে হত্যার অভিযোগে বাবুল আক্তারসহ আটজনের বিরুদ্ধে ১২ মে পাঁচলাইশ থানায় মামলা করেন মিতুর বাবা মোশাররফ হোসেন। সেই মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে সেদিনই বাবুলকে আদালতে তোলা হলে বিচারক তাকে পাঁচদিনের রিমান্ডে পাঠান। বর্তমানে বাবুল আক্তারকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পিবিআই। ১৬ মে রোববার নতুন মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো দুই আসামি ওয়াসিম ও আনোয়ার প্রায় পাঁচ বছর ধরে আগের মামলায় কারাগারে ছিলেন। মিতু হত্যার পর ২০১৬ সালের ২৬ জুন আনোয়ার ও ওয়াসিমকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ।

পিবিআই সূত্রে জানা গেছে, ওয়াসিম এবং আনোয়ার মিতু হত্যার ঘটনায় বাবুল আক্তারের দায়ের করা মামলায় আগে থেকেই কারাগারে আছেন। আগের যে মামলা পিবিআই তদন্ত করেছে ইতোমধ্যে সেই হত্যা মামলার চূড়ান্ত প্রতিবেদন দিয়ে নিষ্পত্তি করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। মিতু হত্যার ঘটনায় দায়ের হওয়া নতুন মামলায় বাবুল আক্তারসহ ৪ জনকে গ্রেপ্তার করা হলো। চারজনই নতুন মামলার এজাহারভুক্ত আসামি। গ্রেপ্তার দেখানো ওয়াসিম ও আনোয়ারকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।

back to top