alt

সারাদেশ

তিন যমজ শিশু নিয়ে দিশেহারা হতদরিদ্র বাবা

প্রতিনিধি,গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) : শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

গোয়ালন্দে তিন জমজ শিশু নিয়ে চরম বিপাকে হতদরিদ্র পরিবার। নিজদের খাবার জোগাড় করা যেখানে কষ্টকর সেখানে তিন তিনটি শিশুর খাবার ও ওষুধের ব্যবস্থা করা নিয়ে মহাচিন্তায় পড়েছেন পরিবারটি।

জানা যায়, উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের শাহদত মেম্বারপাড়া গ্রামের দিনমজুর কিরণ মুন্সি’র স্ত্রী ববিতা বেগম (২৮) গত ৪ নভেম্বর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বাভাবিকভাবে একে একে তিনটি সুস্থ পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। পরিবারে নতুন সদস্যের আগামনে খুশিতে আত্মহারা কিরণ মুন্সি সন্তানদের নাম রাখেন তামিম, তাসিন, তানজিল। দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে তার সে আনন্দ ফিকে হয়ে ওঠে। তিনটি শিশু সন্তানকে লালন-পালন করতে যে খরচ হয় তা তিনি রোজগারও করতে পারেন না। ইতোমধ্যেই তাদের ২৪ দিন বয়সী ওই তিন শিশুর লালন-পালন ও চিকিৎসা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা।

সরেজমিনে জানা যায়, নদী ভাঙনে সহায়-সম্বল হারিয়ে ববিতা-কিরণ দম্পতি আশ্রয় নেন দৌলতদিয়া শাহাদাৎ মেম্বার পাড়া এলাকায়। সেখানেই তিন শতাংশ জমি লিজ নিয়ে কোনমতে মাথা গোজার ঠাঁই করে নেন কিরণ। জীবিকার তাগিদে কখনও হকারি, কখনো বা দিনমজুরের কাজ করে কোন মতে ভরণপোষণ করেন পরিবারের। তাদের ৭ বছর বয়সী আরও একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, পরিবারটি খুবই অসহায় হয়ে পড়েছে। এমনিতেই ৩ জনের সংসারে অভাবের শেষ নেই। তার ওপর আরও তিনটি শিশু সন্তান নিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। আশেপাশের লোকজন যে যতটুকু পাড়ছে সহযোগিতা করছে, কিন্তু এভাবে কয় দিন। সরকার যদি ওদেরকে একটু সহযোগিতা করত তাহলে পরিবারটি বেঁচে যেত।

গৃহবধূ ববিতা বেগম বলেন, আল্লাহ আমার ঘরে ফুটফুটে তিনটি পুত্র সন্তান দিয়েছেন। এই তিনটি সন্তান লালন-পালন করতে গিয়ে ধারদেনা করে আমরা খুব বিপদের মধ্যে আছি। সন্তানদের মুখের দিকে তাকালে ওদের খাবারের জন্য কষ্ট দিতে পারি না। কিন্তু আমাদের কতটুকু সামর্থ আছে।

তিন সন্তানের পিতা কিরণ মুন্সি জানান, আমি দিনমজুরের কাজ করে প্রতিদিন ৪শ’ থেকে ৫শ’ টাকা আয় করি। যার কারণে প্রতিদিনই কারো না করো কাছ থেকে ধারদেনা করে ওদের খাবার যোগাতে হয়। এভাবে আর কয়দিন চলবে।

এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আজিজুল হক খান মামুন জানান, হতদরিদ্র পরিবারে জন্ম নেয়া তিন শিশু যাতে সমাজের অন্যান্য শিশুদের মতো সমান সুযোগ পেয়ে বড় হতে পারে, সেজন্য গোয়ালন্দ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। তিনি সমাজের সামর্থ্যবান মানুষেকেও এই পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

ছবি

ফরিদপুর ও বরিশালের ৩৭শ টেলিফোন নম্বর পরিবর্তন হচ্ছে

ছবি

নারায়ণগঞ্জে আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে পূর্ণ প্যানেলে এগিয়ে আ’লীগ

ছবি

আসামি নিয়ে গাড়ি পুকুরে, দুই পুলিশের মৃত্যু

ছবি

সেন্টমার্টিন থেকে সাব মেশিনগানসহ ১২ লাখ ইয়াবা উদ্ধার

ছবি

ফের আগুনে পুড়লো ক্যাম্প, দিশেহারা কয়েক হাজার রোহিঙ্গা

ছবি

বিষমুক্ত সবজি চাষে ঝুঁকছেন বাহুবলের কৃষকরা

ফরিদপুরের সালথায় দুই পক্ষের সংঘর্ষ: আহত-১৫

ছবি

করোনায় আক্রান্ত সকল শিক্ষক, স্কুল বন্ধ ঘোষণা

ছবি

ফতুল্লায় স্কুলের সীমানা প্রচীর ধসে কিশোরসহ আহত ৩

ছবি

যশোরে ইজিবাইক চালকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

আগামীকাল ১৯ জানুয়ারি নির্মূল কমিটির ৩০তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

ছবি

ফেনীতে গাছ পড়ে মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

সোনারগাঁয়ে ৪২ হাজার ইয়াবাসহ আটক ১

ছবি

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আবারও আগুন

ছবি

আইনজীবী ইসমাইল বিয়ে করলেন ৮৭ বছরে

ছবি

শুধু নির্দেশনা দিয়েই শেষ, বিধি মানার কোন লক্ষণ নেই বাস-ট্রেনে

ধরন নিয়ে বিভ্রান্তি, বেড়েই চলেছে সংক্রমণ

নারায়ণগঞ্জ আইনজীবী সমিতির নির্বাচন কাল

ছবি

দশমিনায় বেড়েছে সরিষা আবাদ

জাটকা বাঁচলে ইলিশ হবে দুই লাখ টন

ছবি

কিশোরগঞ্জে বোরো রোপণের ধুম

কিশোরগঞ্জে নতুন করোনা শনাক্ত ১৬

চুয়াডাঙ্গায় করোনা আক্রান্ত ডিসি সিভিল সার্জন

প্রতিবেশগত সঙ্কটাপন্ন ঘোষণার ২২ বছরেও পদক্ষেপ নেই

নবজাতকের কপাল কাটা : মামলা

চট্টগ্রামে হু হু করে বাড়ছে করোনা : স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই

ছবি

ডক্টরস প্লাটফরম ইন ফিনল্যান্ডের কার্যনির্বাহী কমিটি গঠন

নারায়ণগঞ্জের মতোই সংসদ নির্বাচন চমৎকার হবে : তথ্যমন্ত্রী

‘ক্লিন সেন্ট মার্টিন’ প্রকল্প উদ্বোধন

কুমিল্লায় সহিংসতা মামলায় চেয়ারম্যানসহ জেলে ৪

ছবি

নদী ভাঙনে একশ’ গজে দুই স্কুল : টানাটানি শিক্ষার্থীদের

ছবি

আরসা প্রধানের ভাই গ্রেফতারের পর যা তথ্য দিয়েছেন তা যাচাই-বাছাই চলছে

ছবি

আইভীর হ্যাটট্রিক, তবে কমেছে ভোটের ব্যবধান

ছবি

মালিক সমিতির সিদ্ধান্তই মানছে না পরিবহন মালিকরা

করোনা, সংক্রমণ ছড়াচ্ছে ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টই

ছবি

ভিটামিন ডি এর অভাবে করোনা আক্রান্তসহ নানা রোগের ঝুকি বেশী

tab

সারাদেশ

তিন যমজ শিশু নিয়ে দিশেহারা হতদরিদ্র বাবা

প্রতিনিধি,গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী)

শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১

গোয়ালন্দে তিন জমজ শিশু নিয়ে চরম বিপাকে হতদরিদ্র পরিবার। নিজদের খাবার জোগাড় করা যেখানে কষ্টকর সেখানে তিন তিনটি শিশুর খাবার ও ওষুধের ব্যবস্থা করা নিয়ে মহাচিন্তায় পড়েছেন পরিবারটি।

জানা যায়, উপজেলার দৌলতদিয়া ইউনিয়নের শাহদত মেম্বারপাড়া গ্রামের দিনমজুর কিরণ মুন্সি’র স্ত্রী ববিতা বেগম (২৮) গত ৪ নভেম্বর ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্বাভাবিকভাবে একে একে তিনটি সুস্থ পুত্র সন্তানের জন্ম দেন। পরিবারে নতুন সদস্যের আগামনে খুশিতে আত্মহারা কিরণ মুন্সি সন্তানদের নাম রাখেন তামিম, তাসিন, তানজিল। দিন গড়ানোর সঙ্গে সঙ্গে তার সে আনন্দ ফিকে হয়ে ওঠে। তিনটি শিশু সন্তানকে লালন-পালন করতে যে খরচ হয় তা তিনি রোজগারও করতে পারেন না। ইতোমধ্যেই তাদের ২৪ দিন বয়সী ওই তিন শিশুর লালন-পালন ও চিকিৎসা নিয়ে বিপাকে পড়েছেন তারা।

সরেজমিনে জানা যায়, নদী ভাঙনে সহায়-সম্বল হারিয়ে ববিতা-কিরণ দম্পতি আশ্রয় নেন দৌলতদিয়া শাহাদাৎ মেম্বার পাড়া এলাকায়। সেখানেই তিন শতাংশ জমি লিজ নিয়ে কোনমতে মাথা গোজার ঠাঁই করে নেন কিরণ। জীবিকার তাগিদে কখনও হকারি, কখনো বা দিনমজুরের কাজ করে কোন মতে ভরণপোষণ করেন পরিবারের। তাদের ৭ বছর বয়সী আরও একটি পুত্র সন্তান রয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, পরিবারটি খুবই অসহায় হয়ে পড়েছে। এমনিতেই ৩ জনের সংসারে অভাবের শেষ নেই। তার ওপর আরও তিনটি শিশু সন্তান নিয়ে তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছেন। আশেপাশের লোকজন যে যতটুকু পাড়ছে সহযোগিতা করছে, কিন্তু এভাবে কয় দিন। সরকার যদি ওদেরকে একটু সহযোগিতা করত তাহলে পরিবারটি বেঁচে যেত।

গৃহবধূ ববিতা বেগম বলেন, আল্লাহ আমার ঘরে ফুটফুটে তিনটি পুত্র সন্তান দিয়েছেন। এই তিনটি সন্তান লালন-পালন করতে গিয়ে ধারদেনা করে আমরা খুব বিপদের মধ্যে আছি। সন্তানদের মুখের দিকে তাকালে ওদের খাবারের জন্য কষ্ট দিতে পারি না। কিন্তু আমাদের কতটুকু সামর্থ আছে।

তিন সন্তানের পিতা কিরণ মুন্সি জানান, আমি দিনমজুরের কাজ করে প্রতিদিন ৪শ’ থেকে ৫শ’ টাকা আয় করি। যার কারণে প্রতিদিনই কারো না করো কাছ থেকে ধারদেনা করে ওদের খাবার যোগাতে হয়। এভাবে আর কয়দিন চলবে।

এ বিষয়ে গোয়ালন্দ উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আজিজুল হক খান মামুন জানান, হতদরিদ্র পরিবারে জন্ম নেয়া তিন শিশু যাতে সমাজের অন্যান্য শিশুদের মতো সমান সুযোগ পেয়ে বড় হতে পারে, সেজন্য গোয়ালন্দ উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। তিনি সমাজের সামর্থ্যবান মানুষেকেও এই পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান জানান।

back to top