alt

সারাদেশ

আদালত ভবনে ধর্ষণ মামলার আসামির ধৃষ্টতা

হাতকড়া পরা অবস্থায় বাদীর পেটে লাথি, মামলা তুলে নিতে হুমকি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, মাদারীপুর : বুধবার, ২৫ মে ২০২২

মাদারীপুরে আদালতের এজলাসের বাইরে হাতে হাতকড়া নিয়েই বাদীকে পেটে লাথি মেরে মেঝেতে ফেলে মেরেছেন ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তারকৃত সেই দাঁতের ডাক্তারের বন্ধু ও মামলার ২নং আসামি। এতে বাদী ও তার স্বামী আহত হন। বুধবার (২৫ মে) দুপুরে মাদারীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের তৃতীয় তলায় এ ঘটনা ঘটে।

কালকিনি থানার মামলা সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে মাদারীপুরের কালকিনিতে দাঁতের ডাক্তার সাইদুর রহমান কিরণের কাছে চিকিৎসা নিতে যান এক গৃহবধূ। তাকে চিকিৎসার নামে অচেতন করে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে রাখেন ডাক্তার। সেই ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে ডা. কিরণ ও তার দুই বন্ধু লাগাতার ধর্ষণ করতে থাকেন। ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাধ্য হয়ে তার স্বামীকে বিষয়টি জানান। পরে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কালকিনি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। মামলায় ডা. সাইদুর রহমান কিরণ ও তার বন্ধু মেহেদী হাসান শিকদার, সোহাগ মোল্লাকে আসামি করা হয়। মাদারীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রত্যক্ষদর্শী ও বাদী জানান, ধর্ষণ মামলার ২নং আসামি মেহেদী হাসান শিকদার বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আদালতে হাজিরা দিতে আসেন। পরবর্তীতে এজলাস থেকে বের হওয়ার সময় হাতকড়া পরা অবস্থায় অন্য হাত দিয়ে, দরজার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা মামলার বাদীর হাত টেনে নিচে ফেলে পেটে লাথি মারেন। পরবর্তীতে বাদীর স্বামী এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করেন আসামির স্বজন মামুন প্যাদা ও সোহাগ শিকদার। পরে বাদী ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যান তারা।

এ বিষয়ে ধর্ষণের শিকার মামলার বাদী বলেন, আসামি মেহেদী হাসান হাতে হাতকড়া পরা অবস্থায় পুলিশের সামনেই আমার ওপর হামলা চালায় ও পেটে লাথি মারে। আমার স্বামীকে আসামির ভাইয়েরা মারধর করে। আসামির ভাই মামুন প্যাদা আমাকে হুমকি দিয়ে বলে, ‘যদি আমার ভাই জামিন না পায়, তোদের দেখে নেব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাদারীপুর আদালতের পুলিশ পরিদর্শক রমেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘ধর্ষণ মামলার এক আসামি বাদীকে লাথি মারার চেষ্টা করেছিল। তবে পুলিশ তাৎক্ষণিক আসামিকে টেনে সরিয়ে নিয়ে গেছে।’

ছবি

নারায়ণগঞ্জে ৩৬ কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২

ছবি

দেশব্যাপী শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে শাবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

ছবি

স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের বিকল্প নেই

ছবি

৬ জুলাই দেশব্যাপী প্রতিবাদ ও সম্প্রীতি সমাবেশ

ছবি

বগুড়ায় মায়ের কাছ থেকে শিশু সন্তানকে কেড়ে নেয়ার চেষ্টা

নড়াইলে পিকআপের ধাক্কায় ইজিবাইক যাত্রী নিহত

বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় গরু ব্যবসায়ীর মৃত্যু

ছবি

মান্দায় যুবলীগ নেতার ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

ছবি

সাঁওতাল বিদ্রোহ দিবস পালিত

ছবি

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু শুক্রবার

চিকিৎসায় নিঃস্ব পরিবার : গৃহবধূর আত্মহত্যা

ছবি

বন্যাদুর্গত অসহায়দের পাশে ‘স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশন’

ছবি

পুলিশের এন্টি টেররিজম ইউনিটের সঙ্গে পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির মতবিনিময়

মেঘনার ক্রমাগত ভাঙনে আতংকে আশুগঞ্জের চর-সোনারামপুরবাসী

ফেয়ার গ্রুপ লিমিটেড ও এমআইএসটি’র মধ্যে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষরিত

ছবি

পিটিসি নোয়াখালীতে সমাপনী কুচকাওয়াজ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

প্রধান শিক্ষকের আত্মহত্যা

ছবি

নতুন প্রজন্মকে ধর্মান্ধতা থেকে বের করতে হবে

কর্মসম্পাদনে দেশ সেরা সিলেট সিটি কর্পোরেশন

মির্জাগঞ্জে মিনিট্রাক উল্টে চালক নিহত

ছবি

থেমে থেমে বৃষ্টি সিলেটে, বেড়েছে সুরমার পানি

ঘোড়াঘাটে এক আদিবাসী যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছবি

আম খেয়ে গরুর বাজার মাতাতে প্রস্তুত ৪২ মণের ‘চাঁপাই সম্রাট’

সখীপুরে মেয়রের বিরুদ্ধে টেন্ডার ছাড়াই সড়কের গাছ কাটার অভিযোগ

ঘুমন্ত ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা, ২ জনের পা বিচ্ছিন্ন

ছবি

সুনামগঞ্জের সুরমার পানি ফের বাড়ছে

ছবি

বন্ধুর আশ্রয়ে ছিল শিক্ষক হত্যার অভিযুক্ত ছাত্র

কিশোরগঞ্জে নতুন ১৬ জনের করোনা শনাক্ত

ছবি

তিস্তার পানি ফের বিপদসীমার ওপরে, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ছবি

গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

ছবি

শিক্ষিকাকে ধর্ষণচেষ্টায় আটক ১

ছবি

বাবার কোলে শিশুকে গুলি করে হত্যা: আরেক আসামি গ্রেপ্তার

বেতন বৈষম্য নিরসন দাবি প্রাথমিকের দপ্তরিদের

ঘোড়াঘাটে করতোয়া নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

ছবি

রোহিঙ্গা শিবিরে ঘরে ঘরে বাড়ছে চর্মরোগ

ছবি

শিশু শিক্ষার্থী শিহাব হত্যা: আসামীদের গ্রেফতার-শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

tab

সারাদেশ

আদালত ভবনে ধর্ষণ মামলার আসামির ধৃষ্টতা

হাতকড়া পরা অবস্থায় বাদীর পেটে লাথি, মামলা তুলে নিতে হুমকি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, মাদারীপুর

বুধবার, ২৫ মে ২০২২

মাদারীপুরে আদালতের এজলাসের বাইরে হাতে হাতকড়া নিয়েই বাদীকে পেটে লাথি মেরে মেঝেতে ফেলে মেরেছেন ধর্ষণ মামলায় গ্রেপ্তারকৃত সেই দাঁতের ডাক্তারের বন্ধু ও মামলার ২নং আসামি। এতে বাদী ও তার স্বামী আহত হন। বুধবার (২৫ মে) দুপুরে মাদারীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের তৃতীয় তলায় এ ঘটনা ঘটে।

কালকিনি থানার মামলা সূত্রে জানা গেছে, কয়েক মাস আগে মাদারীপুরের কালকিনিতে দাঁতের ডাক্তার সাইদুর রহমান কিরণের কাছে চিকিৎসা নিতে যান এক গৃহবধূ। তাকে চিকিৎসার নামে অচেতন করে ধর্ষণ ও ভিডিও ধারণ করে রাখেন ডাক্তার। সেই ভিডিও প্রকাশের ভয় দেখিয়ে ডা. কিরণ ও তার দুই বন্ধু লাগাতার ধর্ষণ করতে থাকেন। ভুক্তভোগী গৃহবধূ বাধ্য হয়ে তার স্বামীকে বিষয়টি জানান। পরে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কালকিনি থানায় একটি ধর্ষণ মামলা করেন। মামলায় ডা. সাইদুর রহমান কিরণ ও তার বন্ধু মেহেদী হাসান শিকদার, সোহাগ মোল্লাকে আসামি করা হয়। মাদারীপুর জেলা ও দায়রা জজ আদালতের প্রত্যক্ষদর্শী ও বাদী জানান, ধর্ষণ মামলার ২নং আসামি মেহেদী হাসান শিকদার বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে আদালতে হাজিরা দিতে আসেন। পরবর্তীতে এজলাস থেকে বের হওয়ার সময় হাতকড়া পরা অবস্থায় অন্য হাত দিয়ে, দরজার পাশে দাঁড়িয়ে থাকা মামলার বাদীর হাত টেনে নিচে ফেলে পেটে লাথি মারেন। পরবর্তীতে বাদীর স্বামী এগিয়ে এলে তাকেও মারধর করেন আসামির স্বজন মামুন প্যাদা ও সোহাগ শিকদার। পরে বাদী ও তার পরিবারকে হত্যার হুমকি দিয়ে চলে যান তারা।

এ বিষয়ে ধর্ষণের শিকার মামলার বাদী বলেন, আসামি মেহেদী হাসান হাতে হাতকড়া পরা অবস্থায় পুলিশের সামনেই আমার ওপর হামলা চালায় ও পেটে লাথি মারে। আমার স্বামীকে আসামির ভাইয়েরা মারধর করে। আসামির ভাই মামুন প্যাদা আমাকে হুমকি দিয়ে বলে, ‘যদি আমার ভাই জামিন না পায়, তোদের দেখে নেব।’

এ বিষয়ে জানতে চাইলে মাদারীপুর আদালতের পুলিশ পরিদর্শক রমেশ চন্দ্র দাস বলেন, ‘ধর্ষণ মামলার এক আসামি বাদীকে লাথি মারার চেষ্টা করেছিল। তবে পুলিশ তাৎক্ষণিক আসামিকে টেনে সরিয়ে নিয়ে গেছে।’

back to top