alt

সারাদেশ

সভ্যতা রক্ষায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই- সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

ঢাবি প্রতিনিধি : বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২

‘সভ্যতা রক্ষায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই’- বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের খ্যাতনামা শিক্ষাবিদ, প্রাবন্ধিক ইমিরেটাস অধ্যাপক ড. এ এফ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী।

তিনি বলেন, “হাজার হাজার বছর ধরে গড়া সভ্যতা এখন ক্রান্তিলগ্নে উপস্থিত। এর থেকে উত্তরণের জন্য সাংস্কৃতিক আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। সামাজিক মালিকানাও ফিরিয়ে আনতে হবে। আমাদের সংস্কৃতিতে বিদ্রোহ আছে, বিষন্নতা আছে। হতাশা-বিষন্নতা করোনার চেয়েও বেশি সংক্রমণ করে। এসব থেকে মুক্তির জন্য সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিপ্লব ছাড়া কোনো পথ নেই।”

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর ৮৭ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আত্মজৈবনিক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। আজ ২৩ জুন বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটায় বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে এ বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কর্মজীবনের স্মৃতিচারণ করে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, “আমার বাবা চেয়েছিলেন আমি আমলা হই। কিন্তু আমলাতন্ত্রের প্রতি ছিল আমার প্রবল অনীহা। সেজন্য শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নিই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে তিনবার ভিসি পদের জন্য নির্বাচিত হই। কিন্তু ভিসি পদ অনেক জটিল প্রশাসনিক পদ। এখানে অনেকের অনেক রকম আবদারও মেঠাতে হয়, যেটা আমার দ্বারা অসম্ভব। সেজন্য সুযোগ থাকা স্বত্বেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতা এড়াতেই তিনবার সুযোগ পেয়েও ভিসি হইনি।”

তিনি বলেন, “বৃটিশ উপনিবেশ, পাকিস্তানী শাসন এবং বাংলাদেশ তিন যুগ পার করছি আমরা। অথচ রাষ্ট্রের মৌলিক কাঠামোতে কোনো পরিবর্তন আসেনি। আমলাতান্ত্রিকতার ধাঁধা থেকে আমরা এখনো বের হতে পারিনি। রাষ্ট্রের বদল হয়েছে, উপনিবেশিকতার বদল হয়নি। জাতি সমস্যার সমাধান হয়েছে। কিন্তু শ্রেণি সমস্যার সমাধান হয়নি। এখনো শ্রেণিসংগ্রাম চলছে।”

নিজের কর্মজীবন সম্পর্কে এই শিক্ষাবিদ বলেন, “আমার কাজকে আমি সাংস্কৃতিক আন্দোলন হিসেবে দেখি। বিভিন্ন আন্দোলনে যুক্ত হয়েছি কোনো রাজনৈতিক স্বার্থে নয়, অধিকার আদায়ের স্বার্থে।”

নিজের জীবনের শেষ ইচ্ছে সম্পর্কে বলেন, “একটা সমাজতান্ত্রিক বুদ্ধিজীবী সংগঠন করতে চাই। পাঠাগার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সারাদেশব্যাপী আমাদের কর্মকান্ড ছড়িয়ে দিতে চাই। যেখানে কিশোররা সম্পৃক্ত হবে। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও শিক্ষামূলক প্রতিযোগিতা হবে। তরুণরা জনহিতকর কাজ করবে। একটা সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিপ্লব সংঘটিত হবে।”

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে সিরাজুল ইসলামের জীবনী পাঠ করা হয়। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ হতে তার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

ছবি

নারায়ণগঞ্জে ৩৬ কেজি গাঁজাসহ গ্রেপ্তার ২

ছবি

দেশব্যাপী শিক্ষক নির্যাতনের প্রতিবাদে শাবিপ্রবি শিক্ষক সমিতির মানববন্ধন

ছবি

স্বাস্থ্যসম্মত উপায়ে শুঁটকি মাছ উৎপাদনের বিকল্প নেই

ছবি

৬ জুলাই দেশব্যাপী প্রতিবাদ ও সম্প্রীতি সমাবেশ

ছবি

বগুড়ায় মায়ের কাছ থেকে শিশু সন্তানকে কেড়ে নেয়ার চেষ্টা

নড়াইলে পিকআপের ধাক্কায় ইজিবাইক যাত্রী নিহত

বগুড়ায় সড়ক দুর্ঘটনায় গরু ব্যবসায়ীর মৃত্যু

ছবি

মান্দায় যুবলীগ নেতার ওপর হামলা, গাড়ি ভাঙচুরের অভিযোগ

ছবি

সাঁওতাল বিদ্রোহ দিবস পালিত

ছবি

ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু শুক্রবার

চিকিৎসায় নিঃস্ব পরিবার : গৃহবধূর আত্মহত্যা

ছবি

বন্যাদুর্গত অসহায়দের পাশে ‘স্বপ্নের খোঁজে ফাউন্ডেশন’

ছবি

পুলিশের এন্টি টেররিজম ইউনিটের সঙ্গে পুস্তক প্রকাশক ও বিক্রেতা সমিতির মতবিনিময়

মেঘনার ক্রমাগত ভাঙনে আতংকে আশুগঞ্জের চর-সোনারামপুরবাসী

ফেয়ার গ্রুপ লিমিটেড ও এমআইএসটি’র মধ্যে সমঝোতা স্বারক স্বাক্ষরিত

ছবি

পিটিসি নোয়াখালীতে সমাপনী কুচকাওয়াজ ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান

প্রধান শিক্ষকের আত্মহত্যা

ছবি

নতুন প্রজন্মকে ধর্মান্ধতা থেকে বের করতে হবে

কর্মসম্পাদনে দেশ সেরা সিলেট সিটি কর্পোরেশন

মির্জাগঞ্জে মিনিট্রাক উল্টে চালক নিহত

ছবি

থেমে থেমে বৃষ্টি সিলেটে, বেড়েছে সুরমার পানি

ঘোড়াঘাটে এক আদিবাসী যুবকের ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

ছবি

আম খেয়ে গরুর বাজার মাতাতে প্রস্তুত ৪২ মণের ‘চাঁপাই সম্রাট’

সখীপুরে মেয়রের বিরুদ্ধে টেন্ডার ছাড়াই সড়কের গাছ কাটার অভিযোগ

ঘুমন্ত ব্যবসায়ীকে কুপিয়ে হত্যা, ২ জনের পা বিচ্ছিন্ন

ছবি

সুনামগঞ্জের সুরমার পানি ফের বাড়ছে

ছবি

বন্ধুর আশ্রয়ে ছিল শিক্ষক হত্যার অভিযুক্ত ছাত্র

কিশোরগঞ্জে নতুন ১৬ জনের করোনা শনাক্ত

ছবি

তিস্তার পানি ফের বিপদসীমার ওপরে, নিম্নাঞ্চল প্লাবিত

ছবি

গ্রামীণফোনের সিম বিক্রিতে নিষেধাজ্ঞা

ছবি

শিক্ষিকাকে ধর্ষণচেষ্টায় আটক ১

ছবি

বাবার কোলে শিশুকে গুলি করে হত্যা: আরেক আসামি গ্রেপ্তার

বেতন বৈষম্য নিরসন দাবি প্রাথমিকের দপ্তরিদের

ঘোড়াঘাটে করতোয়া নদীতে ডুবে শিশুর মৃত্যু

ছবি

রোহিঙ্গা শিবিরে ঘরে ঘরে বাড়ছে চর্মরোগ

ছবি

শিশু শিক্ষার্থী শিহাব হত্যা: আসামীদের গ্রেফতার-শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

tab

সারাদেশ

সভ্যতা রক্ষায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই- সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী

ঢাবি প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার, ২৩ জুন ২০২২

‘সভ্যতা রক্ষায় সাংস্কৃতিক আন্দোলনের বিকল্প নেই’- বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশের খ্যাতনামা শিক্ষাবিদ, প্রাবন্ধিক ইমিরেটাস অধ্যাপক ড. এ এফ সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী।

তিনি বলেন, “হাজার হাজার বছর ধরে গড়া সভ্যতা এখন ক্রান্তিলগ্নে উপস্থিত। এর থেকে উত্তরণের জন্য সাংস্কৃতিক আন্দোলনের কোনো বিকল্প নেই। সামাজিক মালিকানাও ফিরিয়ে আনতে হবে। আমাদের সংস্কৃতিতে বিদ্রোহ আছে, বিষন্নতা আছে। হতাশা-বিষন্নতা করোনার চেয়েও বেশি সংক্রমণ করে। এসব থেকে মুক্তির জন্য সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিপ্লব ছাড়া কোনো পথ নেই।”

সিরাজুল ইসলাম চৌধুরীর ৮৭ তম জন্মদিন উপলক্ষ্যে আয়োজিত আত্মজৈবনিক বক্তৃতা অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। আজ ২৩ জুন বৃহস্পতিবার বিকেল পাঁচটায় বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে এ বক্তৃতা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়।

কর্মজীবনের স্মৃতিচারণ করে সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী বলেন, “আমার বাবা চেয়েছিলেন আমি আমলা হই। কিন্তু আমলাতন্ত্রের প্রতি ছিল আমার প্রবল অনীহা। সেজন্য শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নিই। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সিনেটে তিনবার ভিসি পদের জন্য নির্বাচিত হই। কিন্তু ভিসি পদ অনেক জটিল প্রশাসনিক পদ। এখানে অনেকের অনেক রকম আবদারও মেঠাতে হয়, যেটা আমার দ্বারা অসম্ভব। সেজন্য সুযোগ থাকা স্বত্বেও আমলাতান্ত্রিক জটিলতা এড়াতেই তিনবার সুযোগ পেয়েও ভিসি হইনি।”

তিনি বলেন, “বৃটিশ উপনিবেশ, পাকিস্তানী শাসন এবং বাংলাদেশ তিন যুগ পার করছি আমরা। অথচ রাষ্ট্রের মৌলিক কাঠামোতে কোনো পরিবর্তন আসেনি। আমলাতান্ত্রিকতার ধাঁধা থেকে আমরা এখনো বের হতে পারিনি। রাষ্ট্রের বদল হয়েছে, উপনিবেশিকতার বদল হয়নি। জাতি সমস্যার সমাধান হয়েছে। কিন্তু শ্রেণি সমস্যার সমাধান হয়নি। এখনো শ্রেণিসংগ্রাম চলছে।”

নিজের কর্মজীবন সম্পর্কে এই শিক্ষাবিদ বলেন, “আমার কাজকে আমি সাংস্কৃতিক আন্দোলন হিসেবে দেখি। বিভিন্ন আন্দোলনে যুক্ত হয়েছি কোনো রাজনৈতিক স্বার্থে নয়, অধিকার আদায়ের স্বার্থে।”

নিজের জীবনের শেষ ইচ্ছে সম্পর্কে বলেন, “একটা সমাজতান্ত্রিক বুদ্ধিজীবী সংগঠন করতে চাই। পাঠাগার প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে সারাদেশব্যাপী আমাদের কর্মকান্ড ছড়িয়ে দিতে চাই। যেখানে কিশোররা সম্পৃক্ত হবে। বিভিন্ন সাংস্কৃতিক ও শিক্ষামূলক প্রতিযোগিতা হবে। তরুণরা জনহিতকর কাজ করবে। একটা সামাজিক-সাংস্কৃতিক বিপ্লব সংঘটিত হবে।”

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে সিরাজুল ইসলামের জীবনী পাঠ করা হয়। বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের পক্ষ হতে তার জন্মদিন উপলক্ষ্যে ফুলেল শুভেচ্ছা জানানো হয়।

back to top