alt

সারাদেশ

কক্সবাজার সৈকতে প্রতিমা বিসর্জনে লাখো মানুষের ঢল

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার : বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২

কক্সবাজার : প্রতিমা বিসর্জনকালে সমুদ্র সৈকতে মানুষের উপচেপড়া ঢল -সংবাদ

লাখো মানুষের অংশগ্রহণে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার শেষ দিন বিজয়া দশমীতে সৈকতের লাবনি পয়েন্টে দেবী দুর্গাকে বিসর্জন দেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। গেল বছর করোনা মহামারীর থাবায় এই উৎসব উল্লেখযোগ্যভাবে পালন করতে পারেনি এই সম্প্রদায়ের মানুষ। যে কারণে এ বছর ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালন করেছে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

তবে হিন্দু সম্প্রদায়ের পাশাপাশি দেবী দুর্গা বিসর্জনে দেখা গেছে দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ সব সম্প্রদায়ের মানুষকে। এ সময় পূজারি, ভক্ত, দর্শনার্থী, পর্যটকসহ সব সম্প্রদায়ের মানুষের মিলনমেলায় পরিণত হয় সৈকত। সৈকতে পূজারিরা মেতে উঠে নেচে গেয়ে এবং আনন্দ উল্লাসে। সমুদ্র সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বিসর্জন মন্ত্র পাঠের মাধ্যমে প্রতিমা সাগরে নিরঞ্জন করেন ভক্ত-পূজারিরা।

প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানকে ঘিরে সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বুধবার (৫ অক্টোবর) দুপুর ২টার পর থেকে জেলার উখিয়া, টেকনাফ, সদর, ঈদগাহ, চৌফলদন্ডী ছাড়াও নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে শোভাযাত্রা সহকারে প্রতিমা আসতে শুরু করে। প্রতিমায় ভরে যায় সৈকতের অনুষ্ঠানস্থল। লাবনি পয়েন্টে বিকেল ৩টা থেকে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কক্সবাজার জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ। বিকোল প্রায় ৫টা পর্যন্ত সৈকতের বালুচরে রাখা দুর্গা প্রতিমা ঘিরে চলে ভক্তদের শেষ আরাধনা।

শুধু তাই নয়, নাচে-গানে এক অন্যরকম আনন্দমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয় বিশ্বের দীর্ঘতম এ সৈকতে। অনুষ্ঠানকে ঘিরে সমাগম ঘটে পর্যটকসহ জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা লাখো মানুষের।

আয়োজকরা জানান, শুধু সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা শতাধিক প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। একই সময়ে কক্সবাজারের রামুর বাঁকখাল নদী, চকরিয়ার মাতামুহুরী, টেকনাফের সাগর ও নাফনদী, উখিয়ার ইনানী সৈকত এবং রেজু নদীতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। রামু ও চকরিয়ায় পৃথক প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতা সাংবাদিক বলরাম দাশ অনুপম বলেন, মা দুর্গার কাছে আমাদের বিশেষ প্রার্থনা ছিল প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে মানুষ যেন রক্ষা পায়। মা আমাদের প্রার্থনা শুনেছেন। যে কারণে আবহাওয়া অনুকূলেই রয়েছে।

বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সৈকতের লাবনি পয়েন্টের উন্মুক্ত মঞ্চে শুরু হয় বিসর্জনের আনুষ্ঠানিকতা। কক্সবাজার জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি উজ্জ্বল করের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক বেল্টু দাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, ট্যুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান ও পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম।

এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সব ধর্মের মানুষের অংশগ্রহণে ঈদ, পূজা, প্রবারণা ও বড়দিন পালিত হয়। বিজয়া দশমীর এ মহামিলন মেলার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

জেলা পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি উজ্জ্বল কর জানান, এ বছর জেলায় ৩০৫টি মন্ডপে পূজা উদ্যাপন হয়েছে। এর মধ্যে ৮৫ শতাংশ প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে কক্সবাজার সৈকতে।

জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বেল্টু দাশ জানান, দেশের সবচেয়ে বড় প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠান এ কক্সবাজার সমুদ্র পাড়ে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছরও এখানে দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ লাখো মানুষের সমাগম হয়েছে। গত বছর করোনা মহামারীর কারণে এই উৎসবটি ব্যাপকভাবে পালন করা সম্ভব হয়নি।

ট্যুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান ও পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম বলেন, তিন স্তরে নিরাপত্তা জোরদারের মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হয়েছে। শুধু সৈকত এলাকায় প্রায় কয়েকশ’ ফোর্স মোতায়েন করা হয়। যানজট নিরসনে সৈকতের কলাতলী থেকে আশপাশের সড়কগুলোতে ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়।

ছবি

লালমনিরহাটে আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষে আহত ১০

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর জনসভার উদ্দেশে সাগর পাড়ি দিয়ে এলেন নেতাকর্মীরা

ছবি

খালেদা জিয়ার বাসার সামনে পুলিশের তল্লাশিচৌকি

প্রতিপক্ষের গুলিতে নরসিংদীতে ইউপি চেয়ারম্যান নিহত

ছবি

জেলেদের জালে আটকা পড়েছে শত শত জেলিফিস

দুর্নীতির খবর সংগ্রহে গিয়ে মেম্বারের হামলার শিকার সাংবাদিকরা

ছবি

বিবাদে অর্ধশতাধিক ফলন্ত গাছ কর্তন

ছবি

নিলামের অভাবে নষ্ট হচ্ছে অর্ধশতাধিক পরিত্যক্ত ভবন, বাড়ছে দুর্ঘটনার ঝুঁকি

অনিয়ম-দুর্নীতির অভিযোগে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ৮ মেম্বারের অনাস্থা

নসিমন উল্টে নিহত ১ আহত ১০ জন

ছবি

যমুনার চরে ক্যাপসিকাম বিপ্লব

সিংড়ায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে গুলিবিদ্ধসহ আহত ২০

বাল্যবিয়ে প্রতিরোধে সমন্বয় সভা

ছবি

বেনারসি পল্লী ১৮ বছর পরও ধুঁকে ধুঁকে চলছে!

ছবি

চুনারুঘাটে জমে উঠেছে গরম কাপড়ের বাজার

ছবি

মুঠোফোনের নেটওয়ার্ক দুর্বল, ইন্টারনেট নেই

ছবি

চবিতে ছাত্রলীগের দুই পক্ষের সংঘর্ষে আহত ১৫

ছবি

মিডিয়া কার্ডে খালেদা-তারেকের ছবি, সাংবাদিকদের আপত্তি

ছবি

কুষ্টিয়ার ট্রাকচাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

বিস্ফোরণে উড়ে গেল তৃণমূল নেতার বাড়ি, নিহত ৩

ছবি

বরিশালে পার্বত্য শান্তি চুক্তি দিবসে সমাবেশ ও র‌্যালি অনুষ্ঠিত

প্রতিবন্ধী ভাতা ৫ হাজার টাকা করার দাবি

২০ দিন পর শিশুর মরদেহ উদ্ধার

মৃত বাবাকে বাড়িতে রেখে এইচএসসি পরীক্ষা দিল লিপি

ছবি

প্রাথমিক বিদ্যালয় উচ্ছেদের পাঁয়তারা

ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে মেম্বারদের অনাস্থা

ঈশ্বরদীতে পরিচ্ছন্নতাকর্মী নিহত

ছবি

পাখি শিকারীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার পরিবেশ কর্মীরা

মাদ্রাসা সভাপতির বিরুদ্ধে জালিয়াতির অভিযোগ

ছবি

মুক্তিযোদ্ধা দিবসে নারায়ণগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধাদের সংবর্ধনা

ছবি

সওজের জমিতে লক্ষ লক্ষ টাকার দোকান বাণিজ্য

সড়কে টায়ারে আগুন জ্বালিয়ে বোমা বিস্ফোরণ ৪ বোমা উদ্ধার

সড়কে ঝরল বাইক আরোহীসহ তিনজন

ছবি

ঢাকা আহছানিয়া মিশনের আয়োজনে বিশ্ব এইডস দিবস পালিত

নওগাঁয় মোটরসাইকেল নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে যুবক নিহত

ছবি

রাজশাহীতে এবার ধর্মঘটে যাত্রীবাহি ছোট যানবাহন

tab

সারাদেশ

কক্সবাজার সৈকতে প্রতিমা বিসর্জনে লাখো মানুষের ঢল

জসিম সিদ্দিকী, কক্সবাজার

কক্সবাজার : প্রতিমা বিসর্জনকালে সমুদ্র সৈকতে মানুষের উপচেপড়া ঢল -সংবাদ

বুধবার, ০৫ অক্টোবর ২০২২

লাখো মানুষের অংশগ্রহণে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজার শেষ দিন বিজয়া দশমীতে সৈকতের লাবনি পয়েন্টে দেবী দুর্গাকে বিসর্জন দেন সনাতন ধর্মাবলম্বীরা। গেল বছর করোনা মহামারীর থাবায় এই উৎসব উল্লেখযোগ্যভাবে পালন করতে পারেনি এই সম্প্রদায়ের মানুষ। যে কারণে এ বছর ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে পালন করেছে সনাতন ধর্মাবলম্বীরা।

তবে হিন্দু সম্প্রদায়ের পাশাপাশি দেবী দুর্গা বিসর্জনে দেখা গেছে দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ সব সম্প্রদায়ের মানুষকে। এ সময় পূজারি, ভক্ত, দর্শনার্থী, পর্যটকসহ সব সম্প্রদায়ের মানুষের মিলনমেলায় পরিণত হয় সৈকত। সৈকতে পূজারিরা মেতে উঠে নেচে গেয়ে এবং আনন্দ উল্লাসে। সমুদ্র সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বিসর্জন মন্ত্র পাঠের মাধ্যমে প্রতিমা সাগরে নিরঞ্জন করেন ভক্ত-পূজারিরা।

প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠানকে ঘিরে সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বুধবার (৫ অক্টোবর) দুপুর ২টার পর থেকে জেলার উখিয়া, টেকনাফ, সদর, ঈদগাহ, চৌফলদন্ডী ছাড়াও নাইক্ষ্যংছড়ি থেকে শোভাযাত্রা সহকারে প্রতিমা আসতে শুরু করে। প্রতিমায় ভরে যায় সৈকতের অনুষ্ঠানস্থল। লাবনি পয়েন্টে বিকেল ৩টা থেকে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কক্সবাজার জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদ। বিকোল প্রায় ৫টা পর্যন্ত সৈকতের বালুচরে রাখা দুর্গা প্রতিমা ঘিরে চলে ভক্তদের শেষ আরাধনা।

শুধু তাই নয়, নাচে-গানে এক অন্যরকম আনন্দমুখর পরিবেশ সৃষ্টি হয় বিশ্বের দীর্ঘতম এ সৈকতে। অনুষ্ঠানকে ঘিরে সমাগম ঘটে পর্যটকসহ জেলার বিভিন্ন স্থান থেকে আসা লাখো মানুষের।

আয়োজকরা জানান, শুধু সৈকতের লাবনি পয়েন্টে বিভিন্ন উপজেলা থেকে আসা শতাধিক প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। একই সময়ে কক্সবাজারের রামুর বাঁকখাল নদী, চকরিয়ার মাতামুহুরী, টেকনাফের সাগর ও নাফনদী, উখিয়ার ইনানী সৈকত এবং রেজু নদীতে প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে। রামু ও চকরিয়ায় পৃথক প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পূজা উদ্যাপন পরিষদের নেতা সাংবাদিক বলরাম দাশ অনুপম বলেন, মা দুর্গার কাছে আমাদের বিশেষ প্রার্থনা ছিল প্রাকৃতিক বিপর্যয় থেকে মানুষ যেন রক্ষা পায়। মা আমাদের প্রার্থনা শুনেছেন। যে কারণে আবহাওয়া অনুকূলেই রয়েছে।

বিকেল সাড়ে ৩টার দিকে সৈকতের লাবনি পয়েন্টের উন্মুক্ত মঞ্চে শুরু হয় বিসর্জনের আনুষ্ঠানিকতা। কক্সবাজার জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি উজ্জ্বল করের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক বেল্টু দাশের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের ধর্মবিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, জেলা প্রশাসক মো. মামুনুর রশিদ, কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী, সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, ট্যুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান ও পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম।

এ সময় শিক্ষা উপমন্ত্রী নওফেল বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। সব ধর্মের মানুষের অংশগ্রহণে ঈদ, পূজা, প্রবারণা ও বড়দিন পালিত হয়। বিজয়া দশমীর এ মহামিলন মেলার উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত।

জেলা পূজা উদ্যাপন কমিটির সভাপতি উজ্জ্বল কর জানান, এ বছর জেলায় ৩০৫টি মন্ডপে পূজা উদ্যাপন হয়েছে। এর মধ্যে ৮৫ শতাংশ প্রতিমা বিসর্জন দেয়া হয়েছে কক্সবাজার সৈকতে।

জেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক বেল্টু দাশ জানান, দেশের সবচেয়ে বড় প্রতিমা বিসর্জন অনুষ্ঠান এ কক্সবাজার সমুদ্র পাড়ে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় এ বছরও এখানে দেশি-বিদেশি পর্যটকসহ লাখো মানুষের সমাগম হয়েছে। গত বছর করোনা মহামারীর কারণে এই উৎসবটি ব্যাপকভাবে পালন করা সম্ভব হয়নি।

ট্যুরিস্ট পুলিশের সিনিয়র পুলিশ সুপার মো. জিল্লুর রহমান ও পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম বলেন, তিন স্তরে নিরাপত্তা জোরদারের মধ্য দিয়ে শারদীয় দুর্গোৎসব শেষ হয়েছে। শুধু সৈকত এলাকায় প্রায় কয়েকশ’ ফোর্স মোতায়েন করা হয়। যানজট নিরসনে সৈকতের কলাতলী থেকে আশপাশের সড়কগুলোতে ট্রাফিক পুলিশের বিশেষ ব্যবস্থা রাখা হয়।

back to top