alt

সারাদেশ

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মর্যাদা ফিরেছে, মিলেছে আশ্রয়

জেলা বার্তা পরিবেশক, রাজশাহী : রোববার, ১৯ মার্চ ২০২৩

রাজশাহী : নিজস্ব ঠিকানায় রাজশাহীর তৃতীয় লীঙ্গের মানুষ এখন মর্যাদার আসনে -সংবাদ

তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) মানুষ হিসেবে কোনো মর্যাদা ছিল না। রাস্তাঘাটে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের পাশাপাশি নানা কটুবাক্য ছুড়ে দিত লোকজন। মানুষের কাছে চেয়ে-চিন্তে খাওয়া সমাজের অবহেলিত এক জনগোষ্ঠীর মানুষের এভাবেই দিন কেটেছে।

সম্প্রতি তৃতীয় লিঙ্গের এসব মানুষের মর্যাদা ফিরেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানে মিলেছে আশ্রয়ও । প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে পেয়েছে, শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলেন্টিয়ার এ্যাওয়ার্ড ও ‘জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা।

এছাড়াও তাদের জন্য জমি ও বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা যেন অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে ওঠে এজন্য হাঁস, মুরগি, সবজি ও মাছ চাষের মতো ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রাজশাহী জেলার পবা উপজেলায় পাইলট হিসেবে ৫ জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ প্রত্যেকে নিজস্ব একটি করে বাড়ি পাচ্ছেন। বাড়ি পাবার কথা শুনেই উচ্ছ্বসিত এসব তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরা।

পবা উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, পবা উপজেলায় মোট ঘর ৫৩৫। এর মধ্যে ১ম পর্যায়ে ৪৭, ২য় পর্যায়ে ৫০, ৩য় পর্যায়ে ১৫০, ৪র্থ পর্যায়ে ২৮৮জন। ক- শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীন পুনর্বাসনের মাধ্যমে ভূমিহীনমুক্ত ঘোষণা করা হবে পবা উপজেলাকে, একইসাথে রাজশাহী জেলার সবকটি উপজেলায় ক- শ্রেণির নিরুপিত তালিকা অনুযায়ী সকলকে পুনর্বাসন করায় ভূমিহীনমুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হবে রাজশাহী জেলাকে।

জানা গেছে, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য নির্মাণ করা প্রায় ৫০০ বর্গফুটের প্রতিটি ঘরে থাকবে দুটি কক্ষ, একটি বারান্দা, একটি টয়লেট ও একটি রান্নাঘর। দুর্যোগসহনীয় এসব ঘর হবে টেকসই এবং প্রতিটি ঘরেই থাকবে সোলার সিস্টেম আর বজ্রপাত নিরোধক ব্যবস্থা। এই তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ ঘর পাবার আনন্দে আত্মহারা হয়ে গেছেন।

চলতি ধাপে ৫ জন তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে। এশিয়ার সর্বকনিষ্ঠ মাকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে। পুনর্বাসিত করা হচ্ছে প্রায় ৫০ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে। ঘর পাচ্ছে সহায় সম্বলহীন ১৮টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবার। উদ্ধারকৃত খাস জমির মধ্যে অধিকাংশই প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দখলে ছিল। প্রায় ৫০ বিঘা খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হিজড়া সংগঠন-বাঁচার আশা সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি ও শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলেন্টিয়ার অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত মোস্তফা সরকার ওরফে বিজলী জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বমাতা। দেশের ও বাইরের প্রত্যেকটা মানুষকে তিনি এগিয়ে নিতে অবদান রেখে চলেছেন। হিজড়াদের বাড়ি দেবেন-যা সরকারের একটা মহতি উদ্যোগ। কারণ হতভাগ্য তৃতীয় লিঙ্গের মানুষগুলো বাড়ি থেকেই বিতাড়িত হন। পরিবারগুলো তাদের তাড়িয়ে দিতে পারলেই যেন বেঁচে যায়। এছাড়া পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে তারা বঞ্চিত হন। সরকারিভাবে বাড়ি বা ঘর পেলে তারা অনেক উপকৃত হবেন।

জানতে চাইলে রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, আমার এই পর্যায়ে তৃতীয় লিঙ্গের ৫ সদস্যকে ঘর দিয়েছি। পর্যায়ক্রমে তাদের যে সদস্যরা ঘর পায়নি তাদেরকে ঘর দেওয়া হবে।

সুবিধাভোগী যাচাই-বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে সহায় সম্বলহীন নিঃস্ব মানুষদের পাশাপাশি বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, ৩য় লিঙ্গ সদস্যদের। খাসজমি উদ্ধার, সঠিকভাবে ঘরের নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা, সঠিক ভূমিহীনদের নামে বরাদ্দ প্রদানসহ প্রতিটি স্তরে মোকাবেলা করতে হয়েছে ভিন্ন ভিন্ন চ্যালেঞ্জ। রঙিন টিনের ঘরে রঙিন স্বপ্নের বীজ বুনবে পুনর্বাসিত পরিবারগুলো। দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিতকরণে রাখবে বলিষ্ঠ ভূমিকা। মূল স্ত্রোতধারায় সংযুক্তির মাধ্যমে অর্জিত হবে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় একটি মানুষও ভূমিহীন- গৃহহীন থাকবে না, সত্য হবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন।

এবিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অভিজিত সরকার জানান, পবা উপজেলায় ৫৩৫ টি ঘরের জন্য প্রায় ৫০ বিঘা খাস জমির প্রয়োজন দেখা দেয়। ফলে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের দিক-নির্দেশনায় ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় প্রভাবশালী জবর দখলকারীদের হাত থেকে কোটি কোটি টাকা মূল্যের সরকারি খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লসমী চাকমা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাংলাদেশে কোনো মানুষ ভূমিহীন-গৃহহীন থাকবেন না। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পবা উপজেলায় ৫৩৫টি ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

ছবি

স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে ত্রিপুরা সম্প্রদায়কে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহ্বান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরার

ছবি

নারায়ণগঞ্জে বকেয়ার দাবিতে বিক্ষোভ, শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ

হিট স্ট্রোকে হবিগঞ্জের রিকশা চালকের মৃত্যু

ছবি

শ্রীপুরে তালাবদ্ধ ঘরে নারীর গলাকাটা লাশ

বগুড়ায় মৌসুমের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা, জনজীবন দুর্বিষহ

ছবি

সীমান্তে আর কোন অনুপ্রবেশ করতে দেয়া হবে না

ছবি

প্রাথমিকে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ, তৃতীয় ধাপের ফল প্রকাশ

ছবি

বৃষ্টির খানিক সম্ভাবনা, তবে ‘পাওয়া যাবে না’ স্বস্তি

ছবি

কিশোরগঞ্জের পাগলা মসজিদের দানবাক্সে মিলেছে রেকর্ড পরিমাণ টাকা ও স্বর্ণালংকার

ছবি

নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিলেন পলকের শ্যালক

ছবি

রংপুরে সাবেক বিএনপি নেতার গণসংযোগে আ.লীগ এমপি, নেতাকর্মীদের ক্ষোভ

ছবি

ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে অসুস্থ হয়ে কয়েদির মৃত্যু

ছবি

আজ সন্ধ্যায় দুবাই পৌঁছাবে ২৩ নাবিকসহ এমভি আবদুল্লাহ জাহাজ

অনলাইন ক্যাসিনোর ‘হোতা’ সেলিমের অভিযোগ সাবেক সেনা প্রধানের ভাইদের বিরুদ্ধে

ছবি

তীব্র গরমে চু্য়াডাঙ্গা ও পাবনায় ২ জনের মৃত্যু

ছবি

স্বামীর পুরুষ অঙ্গ কেটে আত্মহত্যা করলেন স্ত্রী

ছবি

বিজিবি-বিএসএফ বৈঠক ও দুই দেশের শিশুদের খেলাধুলা অনুষ্ঠিত

ছবি

সাবমেরিন কেবল বিচ্ছিন্ন, ধীরগতি হতে পারে ইন্টারনেট

ছবি

বনের আগুন নেভালেন জেলা প্রশাসক, জানে না বনের কর্তারা

ছবি

বিশেষজ্ঞ প্যানেল ও বারি’র জ্যেষ্ঠ বিজ্ঞানীদের মধ্যে মতবিনিময় কর্মশালা

ছবি

৪২ ডিগ্রি ছাড়াল চুয়াডাঙ্গার তাপমাত্রা, গলে যাচ্ছে রাস্তার পিচ

ছবি

টাঙ্গাইলে সংঘ‌র্ষ থামাতে গিয়ে হামলার শিকার এসআই, ১৬ জন আটক

ছবি

কক্সবাজারে জলকেলি উৎসবের সমাপনীতে আলোকিত জীবনের প্রত্যাশা

ছবি

মায়ানমারের বিজিপির আরও ২৪ সদস্য বাংলাদেশে

ছবি

রাজশাহীতে মোটরসাইকেলে ট্রাকের ধাক্কায় নিহত ৩

ছবি

ইউএসএআইডি এবং সিমিট প্রতিনিধি দলের বারি পরিদর্শন

ছবি

পঞ্চগড় এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনে নারীর ঝুলন্ত মরদেহ

ছবি

‘আনন্দে’ শুরুর পর সড়কের ঈদযাত্রা কেন ‘বিষাদে’

ছবি

ঘটনা চাপা দিতে ১৫০ বস্তা সিমেন্ট সরিয়ে ফেলার অভিযোগ

মীরসরাইয়ে শিলাবৃষ্টিতে ফসলের ব্যাপক ক্ষতি, ঘরের চাল ছিদ্র হয়ে গেছে

ছবি

মাধবপুরে বিরল প্রজাতির লজ্জাবতী বানর উদ্ধার

ছবি

টঙ্গীতে আগুনে পুড়ল ১২টি খাদ্য গুদাম

ছবি

জলকেলি উৎসবে মুখরিত কক্সবাজরের রাখাইন পল্লী

শেরপুরে বিনামূল্যে সার বীজ বিতরণ উদ্বোধন

কেশবপুরে সকাল-সন্ধ্যা বাজারের দখল নিয়ে দু’পক্ষ মুখোমুখি উচ্ছেদ আতঙ্কে অর্ধশতাধিক ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী

ছবি

ভালুকায় বোরো ধানে চিটা কৃষকের মাথায় হাত

tab

সারাদেশ

তৃতীয় লিঙ্গের মানুষের মর্যাদা ফিরেছে, মিলেছে আশ্রয়

জেলা বার্তা পরিবেশক, রাজশাহী

রাজশাহী : নিজস্ব ঠিকানায় রাজশাহীর তৃতীয় লীঙ্গের মানুষ এখন মর্যাদার আসনে -সংবাদ

রোববার, ১৯ মার্চ ২০২৩

তৃতীয় লিঙ্গের (হিজড়া) মানুষ হিসেবে কোনো মর্যাদা ছিল না। রাস্তাঘাটে তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের পাশাপাশি নানা কটুবাক্য ছুড়ে দিত লোকজন। মানুষের কাছে চেয়ে-চিন্তে খাওয়া সমাজের অবহেলিত এক জনগোষ্ঠীর মানুষের এভাবেই দিন কেটেছে।

সম্প্রতি তৃতীয় লিঙ্গের এসব মানুষের মর্যাদা ফিরেছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার অবদানে মিলেছে আশ্রয়ও । প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে পেয়েছে, শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলেন্টিয়ার এ্যাওয়ার্ড ও ‘জেলা শিল্পকলা একাডেমি সম্মাননা।

এছাড়াও তাদের জন্য জমি ও বাসস্থানের ব্যবস্থা করা হয়েছে। শুধু তাই নয়, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষরা যেন অর্থনৈতিকভাবে স্বাবলম্বী হয়ে ওঠে এজন্য হাঁস, মুরগি, সবজি ও মাছ চাষের মতো ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এরই ধারাবাহিকতায় রাজশাহী জেলার পবা উপজেলায় পাইলট হিসেবে ৫ জন তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ প্রত্যেকে নিজস্ব একটি করে বাড়ি পাচ্ছেন। বাড়ি পাবার কথা শুনেই উচ্ছ্বসিত এসব তৃতীয় লিঙ্গের মানুষেরা।

পবা উপজেলা ভূমি অফিস সূত্রে জানা গেছে, পবা উপজেলায় মোট ঘর ৫৩৫। এর মধ্যে ১ম পর্যায়ে ৪৭, ২য় পর্যায়ে ৫০, ৩য় পর্যায়ে ১৫০, ৪র্থ পর্যায়ে ২৮৮জন। ক- শ্রেণির ভূমিহীন ও গৃহহীন পুনর্বাসনের মাধ্যমে ভূমিহীনমুক্ত ঘোষণা করা হবে পবা উপজেলাকে, একইসাথে রাজশাহী জেলার সবকটি উপজেলায় ক- শ্রেণির নিরুপিত তালিকা অনুযায়ী সকলকে পুনর্বাসন করায় ভূমিহীনমুক্ত জেলা হিসেবে ঘোষণা করা হবে রাজশাহী জেলাকে।

জানা গেছে, তৃতীয় লিঙ্গের মানুষদের জন্য নির্মাণ করা প্রায় ৫০০ বর্গফুটের প্রতিটি ঘরে থাকবে দুটি কক্ষ, একটি বারান্দা, একটি টয়লেট ও একটি রান্নাঘর। দুর্যোগসহনীয় এসব ঘর হবে টেকসই এবং প্রতিটি ঘরেই থাকবে সোলার সিস্টেম আর বজ্রপাত নিরোধক ব্যবস্থা। এই তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ ঘর পাবার আনন্দে আত্মহারা হয়ে গেছেন।

চলতি ধাপে ৫ জন তৃতীয় লিঙ্গের সদস্যকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে। এশিয়ার সর্বকনিষ্ঠ মাকে পুনর্বাসন করা হচ্ছে। পুনর্বাসিত করা হচ্ছে প্রায় ৫০ জন প্রতিবন্ধী ব্যক্তিকে। ঘর পাচ্ছে সহায় সম্বলহীন ১৮টি ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী পরিবার। উদ্ধারকৃত খাস জমির মধ্যে অধিকাংশই প্রভাবশালী ব্যক্তিদের দখলে ছিল। প্রায় ৫০ বিঘা খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

এ ব্যাপারে হিজড়া সংগঠন-বাঁচার আশা সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি ও শেখ হাসিনা ইয়্যুথ ভলেন্টিয়ার অ্যাওয়ার্ডপ্রাপ্ত মোস্তফা সরকার ওরফে বিজলী জানান, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিশ্বমাতা। দেশের ও বাইরের প্রত্যেকটা মানুষকে তিনি এগিয়ে নিতে অবদান রেখে চলেছেন। হিজড়াদের বাড়ি দেবেন-যা সরকারের একটা মহতি উদ্যোগ। কারণ হতভাগ্য তৃতীয় লিঙ্গের মানুষগুলো বাড়ি থেকেই বিতাড়িত হন। পরিবারগুলো তাদের তাড়িয়ে দিতে পারলেই যেন বেঁচে যায়। এছাড়া পৈত্রিক সম্পত্তি থেকে তারা বঞ্চিত হন। সরকারিভাবে বাড়ি বা ঘর পেলে তারা অনেক উপকৃত হবেন।

জানতে চাইলে রাজশাহী জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, আমার এই পর্যায়ে তৃতীয় লিঙ্গের ৫ সদস্যকে ঘর দিয়েছি। পর্যায়ক্রমে তাদের যে সদস্যরা ঘর পায়নি তাদেরকে ঘর দেওয়া হবে।

সুবিধাভোগী যাচাই-বাছাইয়ের ক্ষেত্রে জেলা প্রশাসক আব্দুল জলিল বলেন, পুনর্বাসনের ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার দেওয়া হয়েছে সহায় সম্বলহীন নিঃস্ব মানুষদের পাশাপাশি বিধবা, স্বামী পরিত্যক্তা, ভিক্ষুক, প্রতিবন্ধী, ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠী, ৩য় লিঙ্গ সদস্যদের। খাসজমি উদ্ধার, সঠিকভাবে ঘরের নির্মাণকাজ সম্পন্ন করা, সঠিক ভূমিহীনদের নামে বরাদ্দ প্রদানসহ প্রতিটি স্তরে মোকাবেলা করতে হয়েছে ভিন্ন ভিন্ন চ্যালেঞ্জ। রঙিন টিনের ঘরে রঙিন স্বপ্নের বীজ বুনবে পুনর্বাসিত পরিবারগুলো। দেশের উন্নয়ন ত্বরান্বিতকরণে রাখবে বলিষ্ঠ ভূমিকা। মূল স্ত্রোতধারায় সংযুক্তির মাধ্যমে অর্জিত হবে অন্তর্ভুক্তিমূলক উন্নয়ন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলায় একটি মানুষও ভূমিহীন- গৃহহীন থাকবে না, সত্য হবে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন।

এবিষয়ে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অভিজিত সরকার জানান, পবা উপজেলায় ৫৩৫ টি ঘরের জন্য প্রায় ৫০ বিঘা খাস জমির প্রয়োজন দেখা দেয়। ফলে জেলা প্রশাসক মহোদয়ের দিক-নির্দেশনায় ও স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের সহায়তায় প্রভাবশালী জবর দখলকারীদের হাত থেকে কোটি কোটি টাকা মূল্যের সরকারি খাস জমি উদ্ধার করা হয়েছে।

পবা উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) লসমী চাকমা বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্ন বাংলাদেশে কোনো মানুষ ভূমিহীন-গৃহহীন থাকবেন না। সেই স্বপ্ন বাস্তবায়নের লক্ষ্যে পবা উপজেলায় ৫৩৫টি ঘর বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

back to top