alt

সারাদেশ

জলবায়ুর অভিঘাতের ঝুঁকিতে চরাঞ্চলের দেড় কোটি মানুষ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, গাইবান্ধা থেকে ফিরে: : শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

জলবায়ু অভিঘাত বা ক্ষয়ক্ষতিতে দেশের চরাঞ্চলের দেড় কোটিরও বেশি মানুষ মারাত্মক ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছেন জলবায়ু, পরিবেশ ও পানি বিজ্ঞানী ড. আইনুন নিশাত । তিনি বলেন, চরাঞ্চলের মানুষের সুরক্ষা নীতি বা মহাপরিকল্পনা এখনই চূড়ান্ত করা জরুরি । না হলে এর দায় উন্নত বিশ্বের দেশগুলোকেও নিতে হবে।

চরাণচলের জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্তদের নিয়ে সাউথ এশিয়ান ক্লাইমেট চেঞ্চ জার্নালিস্ট ফোরাম আয়েজিত এক গণশুনানি শেষে গত বুধবার গাইবান্ধায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এই শুনানির যৌথ আয়োজক গাইবান্ধার এনজিও গণ উন্নয়ন কেন্দ্র।

গণউন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান এম আবদুস সালাম, সাউথ এশীয়ান ক্লাইমেট চেঞ্চ জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি আশীষ গুপ্ত ও মহাসচিব আসাদুজ্জামান সম্রাট অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন সাংবাদিক কেরামত উল্লাহ বিপ্লব।

সংবাদ সম্মেলনে কার্বন নিঃসরণ হ্রাস এবং বাংলাদেশসহ জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর বিভিন্ন উদ্যোগে অর্থায়নের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের জন্য উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়ে পরিবেশবিদরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নদীভাঙনসহ চলমান বিপর্যয়ের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকেই দায়ী করেন। পরিবেশবিদরা বলছেন, শিল্পায়নের নামে উন্নত দেশগুলো যেহারে কার্বন নিঃসরণ করছে তার বিরূপ প্রভাব পরিবেশের ওপর পড়ছে এবং ভুক্তভোগী হচ্ছে বাংলাদেশসহ অন্য উন্নয়নশীল দেশগুলো। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবজনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য যে আর্থিক অনুদানের প্রতিশ্রুতি উন্নত দেশগুলো দিয়েছে তা পূরণে তারা কার্যকরী ভূমিকা রাখছে না। দায়ী দেশগুলোকে তাদের প্রতিশ্রুত ক্ষতিপূরণ দেয়ার আহ্বান জানান তারা।

পানি ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত কার্বন নিঃসরণ হ্রাস এবং জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর বিভিন্ন উদ্যোগে অর্থায়নের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের জন্য সকল দেশের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, `আমরা আমাদের সময়ের সবথেকে গুরুতর বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে রয়েছি। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ক্রমাবর্ধমানভাবে আমাদের সভ্যতার ক্ষতিসাধন করছে। এটি বাংলাদেশের মতো জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য অস্তিত্বের হুমকি।

এরআগে গত মঙ্গলবার গাইবান্ধা সদর উপজেলার ব্রহ্মপুত্রের চরগ্রাম কুন্দেরপাড়ায় জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের নিয়ে `জলবায়ু গণশুনানি` অনুষ্ঠিত হয়। এ গণশুনানিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. অলিউর রহমান, পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন। সেখানে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ১২জন নারী-পুরুষকে ‘জলবায়ু যোদ্ধা’ পদক প্রদান করা হয়।

ওইদন বক্তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে বাংলাদেশের সমুদ্র উপকূলীয় অঞ্চলগুলোসহ নদ-নদী অববাহিকায় চর-দ্বীপচরের মানুষ ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। গত তিন দশকে সামুদ্রিক ঘুর্নিঝড়, জলোচ্ছাস ও নদী ভাঙনে বিপর্যস্ত এসব জনপদের মানুষ।

সেখানে বলা হয়, গ্রীন হাউস প্রতিক্রিয়ায় বিশ্বব্যাপী তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে একদিকে যেমন- সমুদ্র পৃষ্টের তলদেশ উঁচু হয়ে যাচ্ছে অন্যদিকে নদ-নদীর নাব্যতা হারিয়ে গতিপথে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। ফলে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারনে সমুদ্রের পানি উপকূলীয় এলাকায় উপচে পড়ছে। বছর বছর বন্যা, নদী ভাঙ্গনসহ ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগে লাখ লাখ মানুষ সহায় সম্বল হারিয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে।

এ গণশুনানিতে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলাসহ গাইবান্ধার ১৬৫ চর-দ্বীপচরে সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষয়ক্ষতির বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ।

ছবি

পদ্মার চরাঞ্চলে রাসেলস ভাইপারের আতঙ্ক

ছবি

উত্তর-পূর্বাঞ্চলের পাঁচ জেলা প্লাবিত

ছবি

বন্যায় ভাসছে সিলেট

ছবি

সুনামগঞ্জে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত , ত্রানের জন্য হাহাকার

নরসিংদীতে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, পুলিশসহ আহত ২০

ছবি

সুনামগঞ্জের বন্যা কবলিত মানুষের বিশুদ্ধ খাবার পানির সংকট

বাগেরহাটে বজ্রপাতে ২ জন ও বিদ্যুৎ স্পৃষ্টে ১ জন নিহত

সরিষাবাড়ীতে সাবেক স্বামীর ছুরিকাঘাতে নারী নিহত

মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগরে হেডফোনে কথা বলার সময় ট্রেনের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু

ছবি

সমুদ্র সৈকত থেকে ৬০ রোহিঙ্গা আটক, বাস চালকদের জরিমানা

ছবি

জনপ্রতিনিধিদের দুষলেন ওবায়দুল কাদের

ছবি

মোটরসাইকেলে ঘুরতে বেরিয়ে প্রাণ গেলো দুজনের

ছবি

উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্পে পাহাড় ধসে ১০জনের মৃত্যু

ছবি

সিলেটে পানিবন্দি ৪ লাখের ৪ হাজার গেছেন আশ্রয়কেন্দ্রে

ঢাকা-মহাসড়কে প্রাণ গেল মোটরসাইকেল আরোহী তরুণ ও কিশোরীর

ডুবছে সুনামগঞ্জ, মানুষের দূর্ভোগ বাড়ছে

ছবি

বন্যার কারণে সিলেটের সব পর্যটনকেন্দ্র বন্ধ ঘোষণা

ছবি

সেন্টমার্টিনে আবারও খাদ্য সঙ্কট

ছবি

সুনামগঞ্জে ঈদের আনন্দ মলিন হয়ে গেছে আকস্মিক বন্যায়

ঈশ্বরগঞ্জে ঈদ আনন্দ উপভোগ করা হলনা চাচা ভাতিজার

সখীপুরে গৃহবধূ নিখোঁজের পর পুকুর থেকে লাশ উদ্ধার

দুই ভাইয়ের চিরদিনের ছুটি

সিলেটে তিন নদীর পানি বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে

ছবি

ঘড়ি ছাড়াই হাতের দিকে তাকিয়েই সময় বলে দেন ইয়াছিন!

নড়াইলে এবারও ঈদ করতে পারছেন না ২০০ পরিবার,আজাদ হত্যা মামলা নিয়ে উত্তেজনা

ছবি

রংপুরে ঈদ উপলক্ষে বরাদ্দ চাল কালোবাজারে বিক্রি,৪ হাজার কেজি ভিজিএফের চাল উদ্ধার

ছবি

রংপুরে ১৫ কিলোমিটার যানজট, যাত্রীদের চরম দূর্ভোগ

ছবি

বরিশাল জেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন ঘোষণা

ছবি

তিস্তার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত, ডুবেছে ফসলি জমি

ছবি

ঈদের দিন ৩ বিভাগে ভারী বৃষ্টির আভাস

রাঙ্গামাটিতে বজ্রপাতে চারজনের মৃত্যু

চাঁদাবাজির অভিয়োগে ৫ পুলিশ সদস্য বরখাস্ত

ছবি

বাড়তি ভাড়ায় ফিটনেসবিহীন লঞ্চে দ্বিগুণ যাত্রী পারাপার

ছবি

জেলা প্রশাসনের তত্ত্বাবধানে খুলে দেওয়া হলো বেনজীরের সাভানা পার্ক

ছবি

সেন্ট মার্টিনে ২৩০০ পরিবারকে চাল সহায়তা

ফরিদপুরে পুলিশের কাছে চাঁদা বন্ধের আবেদন বরলো ইউপি চেয়ারম্যান

tab

সারাদেশ

জলবায়ুর অভিঘাতের ঝুঁকিতে চরাঞ্চলের দেড় কোটি মানুষ

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, গাইবান্ধা থেকে ফিরে:

শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩

জলবায়ু অভিঘাত বা ক্ষয়ক্ষতিতে দেশের চরাঞ্চলের দেড় কোটিরও বেশি মানুষ মারাত্মক ঝুঁকিতে আছে বলে জানিয়েছেন জলবায়ু, পরিবেশ ও পানি বিজ্ঞানী ড. আইনুন নিশাত । তিনি বলেন, চরাঞ্চলের মানুষের সুরক্ষা নীতি বা মহাপরিকল্পনা এখনই চূড়ান্ত করা জরুরি । না হলে এর দায় উন্নত বিশ্বের দেশগুলোকেও নিতে হবে।

চরাণচলের জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্তদের নিয়ে সাউথ এশিয়ান ক্লাইমেট চেঞ্চ জার্নালিস্ট ফোরাম আয়েজিত এক গণশুনানি শেষে গত বুধবার গাইবান্ধায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন। এই শুনানির যৌথ আয়োজক গাইবান্ধার এনজিও গণ উন্নয়ন কেন্দ্র।

গণউন্নয়ন কেন্দ্রের নির্বাহী প্রধান এম আবদুস সালাম, সাউথ এশীয়ান ক্লাইমেট চেঞ্চ জার্নালিস্ট ফোরামের সভাপতি আশীষ গুপ্ত ও মহাসচিব আসাদুজ্জামান সম্রাট অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান সঞ্চলনা করেন সাংবাদিক কেরামত উল্লাহ বিপ্লব।

সংবাদ সম্মেলনে কার্বন নিঃসরণ হ্রাস এবং বাংলাদেশসহ জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর বিভিন্ন উদ্যোগে অর্থায়নের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের জন্য উন্নত দেশগুলোর প্রতি আহবান জানিয়ে পরিবেশবিদরা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে নদীভাঙনসহ চলমান বিপর্যয়ের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনকেই দায়ী করেন। পরিবেশবিদরা বলছেন, শিল্পায়নের নামে উন্নত দেশগুলো যেহারে কার্বন নিঃসরণ করছে তার বিরূপ প্রভাব পরিবেশের ওপর পড়ছে এবং ভুক্তভোগী হচ্ছে বাংলাদেশসহ অন্য উন্নয়নশীল দেশগুলো। অথচ জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবজনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত দেশগুলোর জন্য যে আর্থিক অনুদানের প্রতিশ্রুতি উন্নত দেশগুলো দিয়েছে তা পূরণে তারা কার্যকরী ভূমিকা রাখছে না। দায়ী দেশগুলোকে তাদের প্রতিশ্রুত ক্ষতিপূরণ দেয়ার আহ্বান জানান তারা।

পানি ও জলবায়ু বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত কার্বন নিঃসরণ হ্রাস এবং জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর বিভিন্ন উদ্যোগে অর্থায়নের অঙ্গীকার বাস্তবায়নের জন্য সকল দেশের প্রতি আহবান জানিয়ে বলেন, `আমরা আমাদের সময়ের সবথেকে গুরুতর বৈশ্বিক চ্যালেঞ্জের মুখোমুখি হয়ে রয়েছি। জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব ক্রমাবর্ধমানভাবে আমাদের সভ্যতার ক্ষতিসাধন করছে। এটি বাংলাদেশের মতো জলবায়ু ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর জন্য অস্তিত্বের হুমকি।

এরআগে গত মঙ্গলবার গাইবান্ধা সদর উপজেলার ব্রহ্মপুত্রের চরগ্রাম কুন্দেরপাড়ায় জলবায়ু পরিবর্তনজনিত ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের নিয়ে `জলবায়ু গণশুনানি` অনুষ্ঠিত হয়। এ গণশুনানিতে প্রধান অতিথি ছিলেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী ডা. এনামুর রহমান এমপি। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ মাহাবুব আরা বেগম গিনি এমপি, গাইবান্ধা জেলা প্রশাসক মো. অলিউর রহমান, পুলিশ সুপার মো. কামাল হোসেন। সেখানে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে ক্ষতিগ্রস্ত ১২জন নারী-পুরুষকে ‘জলবায়ু যোদ্ধা’ পদক প্রদান করা হয়।

ওইদন বক্তারা বলেন, জলবায়ু পরিবর্তনে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে বাংলাদেশের সমুদ্র উপকূলীয় অঞ্চলগুলোসহ নদ-নদী অববাহিকায় চর-দ্বীপচরের মানুষ ব্যাপক ক্ষতির মুখে পড়েছে। গত তিন দশকে সামুদ্রিক ঘুর্নিঝড়, জলোচ্ছাস ও নদী ভাঙনে বিপর্যস্ত এসব জনপদের মানুষ।

সেখানে বলা হয়, গ্রীন হাউস প্রতিক্রিয়ায় বিশ্বব্যাপী তাপমাত্রা বৃদ্ধিতে একদিকে যেমন- সমুদ্র পৃষ্টের তলদেশ উঁচু হয়ে যাচ্ছে অন্যদিকে নদ-নদীর নাব্যতা হারিয়ে গতিপথে উল্লেখযোগ্য পরিবর্তন এসেছে। ফলে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারনে সমুদ্রের পানি উপকূলীয় এলাকায় উপচে পড়ছে। বছর বছর বন্যা, নদী ভাঙ্গনসহ ঘন ঘন প্রাকৃতিক দুর্যোগে লাখ লাখ মানুষ সহায় সম্বল হারিয়ে সর্বশান্ত হচ্ছে।

এ গণশুনানিতে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত কারণে কুড়িগ্রাম ও লালমনিরহাট জেলাসহ গাইবান্ধার ১৬৫ চর-দ্বীপচরে সামাজিক ও অর্থনৈতিক ক্ষয়ক্ষতির বিভিন্ন বিষয় তুলে ধরেন জলবায়ু ক্ষতিগ্রস্ত মানুষ।

back to top