alt

সারাদেশ

হাসপাতাল থেকে বাসায় গিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে ফের হাসপাতালে

লিয়াকত আলী বাদল রংপুর : শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩

রংপুরের মিঠাপুকুরে নিজের ভাই ও স্বজনদের সঙ্গে জমি নিয়ে চলা বিরোধকে কেন্দ্র করে তাদের শায়েস্তা করতে নিজের স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে নানান নাটক করতে গিয়ে অবশেষে ধরা পড়লেন ঘাতক স্বামী সাবেক ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন। ঘটনাটি ঘটেছে মিঠাপুকুর উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের ধাপ উদয়পুর গ্রামে গত বুধবার রাতে।

পুলিশ জানিয়েছে নিজে আহত হওয়ার নাটক করে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে গোপনে রাতে বাসায় স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে আবারও হাসপাতালে ফিরে এসে স্বজনদের ফাঁসাতে গিয়ে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরায় সন্দেহজনক অবস্থান, চলাফেরাসহ বিভিন্ন বিষয়ের সূত্র ধরেই ধরা পড়ল ঘাতক স্বামী গোলজার ।

মিঠাপুকুর থানা সূত্রে জানা গেছে সাবেক ইউপি সদস্য গোলজার হোসেনের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল ভাই মুজিবর রহমানসহ ভাতিজা বাতেন সরকার, মিশুক সরকারসহ অন্যদের সঙ্গে। গত ৩১ মে বুধবার সকালে ভাই মুজিবরের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এ ঘটনার পর ঘাতক গোলজার হোসেন ব্লেড দিয়ে হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে আহত হওয়া দেখিয়ে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমসহ মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এবং সে হাসপাতালের ভেতরে অবস্থান করতে থাকে।

ওই দিন দুপুর বেলা গোপনে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সরাসরি তার বাড়িতে যায়। এরপর বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে দেয়াল টপকে পালিয়ে এসে আবারও হাসপাতালে অবস্থান করতে থাকে। আশেপাশের লোকজন বাসায় কোন সাড়া না পেয়ে বাসায় গিয়ে ফাতেমা বেগমকে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে আশেপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা কেউই বিষয়টি জানে না এমনকি কোন গোলমাল হয়নি বলেও জানায়। এ ঘটনায় পুলিশের সন্দেহ হলে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায় তার ভাইসহ স্বজনরা তার স্ত্রীকে হত্যা করেছে। কিন্তু তার আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসে। এরপর ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর অবশেষে ঘাতক গোলজার হোসেন তার স্ত্রী ফাতেমাকে শ্বাস রোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করে। এ ব্যাপারে পুলিশের বি সার্কেলের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু হাসান জানান ঘাতক গোলজার হোসেন নিখুঁত অভিনয়ের মাধ্যমে একটি সাজানো নাটক তৈরি করে। তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম নিহত হয়েছে এই গল্পটি সে হাসপাতালে বসেই বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করে এবং জানায় তার ভাই মুজিবর রহমান ও তার সহযোগীরা তাকে এবং তার স্ত্রীকে বেদম মারধর করে আহত করেছে। তারা দুজনই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল কিন্তু তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছে। বাসায় অবস্থান করা কালীন তার স্ত্রীকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করে সে। কিন্তু খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শুধু তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। তার বাড়ির আশেপাশের লোকজন এলাকাবাসী এবং স্বজনরা জানায় ঘাতক গোলজার হোসেন ও তার স্ত্রীর সঙ্গে কারো কোন ঝগড়া বিবাদ হয়েছে বলে শোনেনি ওই রকম কোন ঘটনাই ঘটেনি।

পরে হাসপাতালের সিসি টিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে দেখা যায় সে হাসপাতালের বেড থেকে বের হয়ে কিছুক্ষণ পর পর বাইরে আসে মোবাইল ফোনে কথা বলে আবার কয়েক দফা হাসপাতাল থেকে বের হয়ে চলে যায় আবারও অনেক পরে ফিরে আসে। এসব দেখে তাদের সন্দেহ হয়। পুলিশ আবারও ঘটনাস্থলে গিয়ে আশেপাশের লোকজন ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে ঘাতক গোলজার হোসেনের আহত হওয়া ও তার স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আবারও স্ত্রীকে বাসায় পাঠিয়ে দেয়ার ঘটনার কোন সত্যতা পায়নি বরং সব ছিল পূর্বপরিকল্পিত। তার ভাইসহ স্বজনদের ফাঁসাতে নিজের স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে হত্যা করে এসব নাটক করেছে।

এ ব্যাপারে মিঠাপুকুর থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান জানান বৃহস্পতিবার ঘাতক গোলজার হোসেনকে থানায় নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করলে একপর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে হত্যা করার ঘটনা স্বীকার করে জানায় তার ভাইসহ স্বজনদের ফাঁসাতে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। পরে নিহত ফাতেমা বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আনা হয় সেখানে ময়নাতদন্তের পর লাশ স্বজনদের কাছে শুক্রবার সকালে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ছবি

নাফনদী থেকে একদিনে দুই মরদেহ উদ্ধার জসিম সিদ্দিকী কক্সবাজার

ছবি

নরসিংদীতে ট্রেন দুর্ঘটনায় মা-মেয়ে নিহত, ছেলে হাসপাতালে ভর্তি

স্মার্ট বাংলাদেশের ভিশন প্রধান লক্ষ্য: দক্ষতা বৃদ্ধিমূলক শিক্ষা, শিক্ষক প্রশিক্ষণ ও গবেষণায় অগ্রাধিকার

ছবি

নাফনদী থেকে ভাসমান ব্যক্তির মৃতদেহ উদ্ধার

ছবি

প্রধানমন্ত্রীর উপহা‌রের আশ্রয়ণ প্রকল্পের রাস্তা না থাকায় ভোগা‌ন্তি

ছবি

২৬ তম সিনেট অধিবেশন -২০২৪

শরীয়তপুর হাসপাতালের শৌচাগারে মিললো রোগীর মরদেহ

নাজিরপুরে পারিবারিক কলহে ছেলের হাতে মা খুন

ছবি

শাহপরীর দ্বীপ হয়ে সেন্টমার্টিনে স্বল্প পরিসরে যাচ্ছে নৌযান

ছবি

বেনজীরের স্ত্রীর মাছের খামার থেকে মাছ চুরি, গ্রেপ্তার ৩

ছবি

রংপুরে চালসহ সকল নিত্যপ্রয়োজনীয় পন্যের দাম অস্বাভাবিক বৃদ্ধি, আদা কেজি সাড়ে ৪শ’ টাকা, সাধারন মানুষ দিশেহারা

অসামাজিক কার্যকলাপের অভিযোগে যুবলীগ নেতাসহ আটক ৪

ছবি

বোনকে বাঁচাতে চায় রাবি শিক্ষার্থী, দরকার ৬ লাখ টাকা

ছবি

পর পর তিন দফা বন্যার কবলে সুনামগঞ্জ, জন দুর্ভোগ চরমে

ছবি

ফরিদপুর মেডিকেলে পাঁচটি লিফটের মধ্যে তিনটি বন্ধ, ভোগান্তির শেষ নেই

সিলেটে সবজির দাম আকাশছোঁয়া

ছবি

জিআই পণ্যের স্বীকৃতি পেয়েছে গোপালগঞ্জের ব্রোঞ্জের গহনা

ছবি

কক্সবাজারে পাহাড় ধসে ৪ জনের মৃত্যু গেলো ১ মাসে রোহিঙ্গা ক্যম্পসহ ঝরল ১৮ প্রাণ

ছবি

ক্যাম্প থেকে ৫ আরসা সন্ত্রাসী অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ গ্রেফতার

ছবি

বাড়িতে ধসে পড়লো পাহাড় : পরিবারের ৭ সদস্য উদ্ধার, শিশু নিহত

ছবি

লোহাগড়ায় বকুল আলী ও তার পরিবারের নামে ষড়যন্ত্রমূলক মামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন

ছবি

সিলেটে মর্টার সেল উদ্ধার

ঘোড়াঘাটে হাটে গরু বিক্রি করতে এসে ট্রাক-নসিমন সংঘর্ষে ব্যবসায়ী নিহত, আহত ৬

ছবি

শ্রেষ্ঠ উপজেলা চেয়ারম্যানের সম্মাননা পেলেন শরণখোলার শান্ত

ছবি

কুমিল্লায় ব্যবসায়ী হত্যা: ১১ বছর পর ৪ জনের মৃত্যুদণ্ড

ছবি

কিশোরীর মৃত্যু: চাঁদপুরে ওষুধ ভেবে কীটনাশক পান

ছবি

রামুতে নতুন সেতুতে ভাঙন, চলাচলে ঝু্ঁকি

ছবি

টানা বর্ষণে পানিবন্দি কক্সবাজার, নিহত ৩

ছবি

কোটা: কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ে সংঘর্ষ, আহত ২০

ছবি

সিলেটবাসীর প্রতি বিদায়ী এসপির খোলা চিঠি

ছবি

নরসিংদীতে চালককে হত্যার পর ইজিবাইক ছিনতাই, আটক ৪

ছবি

কক্সবাজারে পাহাড় ধসে শিশুসহ ২ জনের মৃত্যু

ছবি

সিলেটের বিদায়ী এসপির খোলা চিঠি, দিলেন কাজের ফিরিস্তি

ধর্ষক কারাগারে,ফরিদপুরে ধর্ষণের ঘটনায় প্রবাসী নারী ৪ মাসের অন্তঃস্বত্তা

ছবি

আবারও বেপরোয়া সার্ভেয়ার বাকের ও হাসান সিন্ডিকেট ঘুষ ছাড়া ফাইল নড়ে না কক্সবাজার এলএ শাখায়

ছবি

সিলেটে বন্যা কবলিত মানুষের মধ্যে ভারতীয় সহকারী হাইকমিশনের ত্রাণ বিতরণ

tab

সারাদেশ

হাসপাতাল থেকে বাসায় গিয়ে স্ত্রীকে হত্যা করে ফের হাসপাতালে

লিয়াকত আলী বাদল রংপুর

শুক্রবার, ০২ জুন ২০২৩

রংপুরের মিঠাপুকুরে নিজের ভাই ও স্বজনদের সঙ্গে জমি নিয়ে চলা বিরোধকে কেন্দ্র করে তাদের শায়েস্তা করতে নিজের স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে নানান নাটক করতে গিয়ে অবশেষে ধরা পড়লেন ঘাতক স্বামী সাবেক ইউপি সদস্য গোলজার হোসেন। ঘটনাটি ঘটেছে মিঠাপুকুর উপজেলার গোপালপুর ইউনিয়নের ধাপ উদয়পুর গ্রামে গত বুধবার রাতে।

পুলিশ জানিয়েছে নিজে আহত হওয়ার নাটক করে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে গোপনে রাতে বাসায় স্ত্রীকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে আবারও হাসপাতালে ফিরে এসে স্বজনদের ফাঁসাতে গিয়ে হাসপাতালের সিসি ক্যামেরায় সন্দেহজনক অবস্থান, চলাফেরাসহ বিভিন্ন বিষয়ের সূত্র ধরেই ধরা পড়ল ঘাতক স্বামী গোলজার ।

মিঠাপুকুর থানা সূত্রে জানা গেছে সাবেক ইউপি সদস্য গোলজার হোসেনের সঙ্গে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল ভাই মুজিবর রহমানসহ ভাতিজা বাতেন সরকার, মিশুক সরকারসহ অন্যদের সঙ্গে। গত ৩১ মে বুধবার সকালে ভাই মুজিবরের সঙ্গে কথাকাটাকাটি হয়। এ ঘটনার পর ঘাতক গোলজার হোসেন ব্লেড দিয়ে হাতসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাত করে আহত হওয়া দেখিয়ে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমসহ মিঠাপুকুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। সেখানে কিছুক্ষণ অবস্থান করে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়। এবং সে হাসপাতালের ভেতরে অবস্থান করতে থাকে।

ওই দিন দুপুর বেলা গোপনে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে সরাসরি তার বাড়িতে যায়। এরপর বাড়িতে গিয়ে তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে দেয়াল টপকে পালিয়ে এসে আবারও হাসপাতালে অবস্থান করতে থাকে। আশেপাশের লোকজন বাসায় কোন সাড়া না পেয়ে বাসায় গিয়ে ফাতেমা বেগমকে মৃত অবস্থায় দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ এসে আশেপাশের লোকজনকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে তারা কেউই বিষয়টি জানে না এমনকি কোন গোলমাল হয়নি বলেও জানায়। এ ঘটনায় পুলিশের সন্দেহ হলে পুলিশ হাসপাতালে গিয়ে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে জানায় তার ভাইসহ স্বজনরা তার স্ত্রীকে হত্যা করেছে। কিন্তু তার আচরণ সন্দেহজনক মনে হওয়ায় পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে আসে। এরপর ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদের পর অবশেষে ঘাতক গোলজার হোসেন তার স্ত্রী ফাতেমাকে শ্বাস রোধ করে হত্যার কথা স্বীকার করে। এ ব্যাপারে পুলিশের বি সার্কেলের প্রধান অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আবু হাসান জানান ঘাতক গোলজার হোসেন নিখুঁত অভিনয়ের মাধ্যমে একটি সাজানো নাটক তৈরি করে। তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম নিহত হয়েছে এই গল্পটি সে হাসপাতালে বসেই বিভিন্ন মাধ্যমে প্রচার করে এবং জানায় তার ভাই মুজিবর রহমান ও তার সহযোগীরা তাকে এবং তার স্ত্রীকে বেদম মারধর করে আহত করেছে। তারা দুজনই হাসপাতালে ভর্তি হয়েছিল কিন্তু তার স্ত্রী ফাতেমা বেগম চিকিৎসা নিয়ে বাসায় চলে গেছে। বাসায় অবস্থান করা কালীন তার স্ত্রীকে হত্যা করা হয়েছে বলে দাবি করে সে। কিন্তু খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে শুধু তার স্ত্রী ফাতেমা বেগমের মরদেহ পড়ে থাকতে দেখে। তার বাড়ির আশেপাশের লোকজন এলাকাবাসী এবং স্বজনরা জানায় ঘাতক গোলজার হোসেন ও তার স্ত্রীর সঙ্গে কারো কোন ঝগড়া বিবাদ হয়েছে বলে শোনেনি ওই রকম কোন ঘটনাই ঘটেনি।

পরে হাসপাতালের সিসি টিভি ফুটেজ পরীক্ষা করে দেখা যায় সে হাসপাতালের বেড থেকে বের হয়ে কিছুক্ষণ পর পর বাইরে আসে মোবাইল ফোনে কথা বলে আবার কয়েক দফা হাসপাতাল থেকে বের হয়ে চলে যায় আবারও অনেক পরে ফিরে আসে। এসব দেখে তাদের সন্দেহ হয়। পুলিশ আবারও ঘটনাস্থলে গিয়ে আশেপাশের লোকজন ও স্বজনদের সঙ্গে কথা বলে ঘাতক গোলজার হোসেনের আহত হওয়া ও তার স্ত্রীকে নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া আবারও স্ত্রীকে বাসায় পাঠিয়ে দেয়ার ঘটনার কোন সত্যতা পায়নি বরং সব ছিল পূর্বপরিকল্পিত। তার ভাইসহ স্বজনদের ফাঁসাতে নিজের স্ত্রী ফাতেমা বেগমকে হত্যা করে এসব নাটক করেছে।

এ ব্যাপারে মিঠাপুকুর থানার ওসি মোস্তাফিজার রহমান জানান বৃহস্পতিবার ঘাতক গোলজার হোসেনকে থানায় নিয়ে ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা শুরু করলে একপর্যায়ে সে তার স্ত্রীকে হত্যা করার ঘটনা স্বীকার করে জানায় তার ভাইসহ স্বজনদের ফাঁসাতে এ ঘটনা ঘটিয়েছে। পরে নিহত ফাতেমা বেগমের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে আনা হয় সেখানে ময়নাতদন্তের পর লাশ স্বজনদের কাছে শুক্রবার সকালে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

back to top