alt

সারাদেশ

যেনতেনভাবে কাজ করার অভিযোগ

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী মহাসড়কের কাজ বন্ধ করে দিলেন মেয়র

জেলা বার্তা পরিবেশক, কুষ্টিয়া : শুক্রবার, ০৯ জুন ২০২৩

কুষ্টিয়া : কুমারখালী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্বর এলাকার বেহাল অংশ -সংবাদ

স্থায়ী সমাধানের দাবিতে কুমারখালী পৌরসভার মেয়র মো. সামছুজ্জামান অরুন বার বার দেবে যাওয়া কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের কুমারখালী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে মেয়র সামছুজ্জামান অরুন বলেন, বারবার একই জায়গায় সড়ক দেবে যাচ্ছে, আর সড়ক বিভাগ সংস্কার করছে। এতে সরকারি টাকার অপচয় হচ্ছে। আবার বার বার জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে। এবারো যেনতেন ভাবে সংস্কার কাজ চলছিল। সেজন্য স্থায়ী সমাধানের জন্য তিনি এ কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন।

তাঁর দাবি, প্রকৌশলী এসে জনগণকে স্থায়ী সমাধানের জন্য আশ্বস্ত করলেই তিনি কাজ করতে দিবেন।

বৃস্পতিবার সকালে দেবে যাওয়া স্থানসমূহের সংস্কার কাজ শুরুর উদ্যোগ গ্রহণ করে স্থানীয় সওজ বিভাগ। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে গোলচত্বর এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের উত্তর-পশ্চিম পাশের দেবে যাওয়া অংশগুলো কেটে সমান করা হয়েছে।

প্রায় ১০-১৫ জন শ্রমিক সড়ক বিভাজনের ওপরে বসে আছেন। এসময় শ্রমিকদের সরদার মহিদুল ইসলাম বলেন, সওজ বিভাগের নির্দেশে তিনি ১৪ জন শ্রমিক নিয়ে সকাল থেকে সড়ক খুঁড়াখুঁড়ি করে উচুনিচু অংশ গুলো সমান করার কাজ শুরু করেছেন। কিন্তু মেয়র এসে কাজ বন্ধ করে দিয়ে গেছেন। সেজন্য তারা সওজের কর্মকর্তাদের অপেক্ষায় বসে আছেন।

প্রায় ১৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই আঞ্চলিক মহাসড়কটি নির্মাণ করেন মেহেরপুর জেলার ঠিকাদার জহুরুল ইসলাম কনস্ট্রাকশন। ২০১৮ সালে সড়কটির পুননির্মাণ করা হয়েছিল। সড়কটি দেবে গেলে ২০২০ সালের জুন মাসে প্রথম সংস্কার কাজ শেষ করে ঠিকাদার। পরবর্তীতে ২০২১ সালে জুন মাসে দেবে যাওয়া অংশ সংস্কার করা হয়। ২০২২ সালে কয়েকবার একইস্থানে আবার সরু খাল ও গর্ত সৃষ্টি হলে তা সংস্কার করা হয়। গত ৪ মে সর্বশেষ সংস্কার কাজ করা হয়। বর্তমানেও একই স্থান গুলো দেবে স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সেলিম আজাদ খাঁন বলেন, ঝুঁঁকি এড়াতে ও চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য তিনি বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শ্রমিক দিয়ে দেবে যাওয়া অংশের সংস্কার কাজ শুরু করেছেন। কিন্তু মেয়র কেন কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন তা তিনি বুঝতে পারছেন না। তিনি মেয়রের সাথে সমন্বয়ের জন্য কর্মকর্তা পাঠিয়েছেন।

স্থায়ী সমাধানের বিষয়ে প্রকৌশলী আরো বলেন, তিনি ইতিমধ্যে সড়কের স্থায়ী সমাধানের জন্য এস্টিমেট প্রস্তুত করেছেন। এখন শুধু দরপত্র আহবানের পালা।

প্রসঙ্গত সংস্কারের মাত্র এক মাসের মাথায় আবারো দেবে গেছে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের কুমারখালী বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্ত্বর এলাকাসহ আশে পাশের বেশ কয়েকটি স্থান।

দেবে গিয়ে সড়কের বেশ কয়েকটি স্থানে আধা হাত গভীর ও দুই থেকে তিন শ মিটার দৈর্ঘের সরু নালা সৃষ্টি হয়েছে। অথচও মাত্র মাস খানেক আগেই সড়কটিতে সংস্কার কাজ করা হয়।

এনিয়ে সড়কটি নির্মাণের পর অন্তত ৮ থেকে ১০ বার দেবে যাওয়ার ঘটনা ঘটলো। বার বার দেবে যাওয়ার কারণে স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। উল্টে যাওয়ার উপক্রম হচ্ছে যানবাহনগুলো। হোঁচট খেয়ে ছিটকে পড়ছেন পথচারীরা।

বিকল্প কোন পথ না থাকায় এক প্রকার বাধ্য হয়েই ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন এবং জনসাধারণকে এই মহাসড়কে চলাচল করতে হচ্ছে।

ছবি

টাঙ্গাইলে কোটা সংস্কার আন্দোলনে পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আহত অর্ধশতাধিক

ছবি

কোটা সংস্কার আন্দোলনে কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে সংঘর্ষ, আহত ২০

ছবি

আবারও বেপরোয়া সার্ভেয়ার বাকের ও হাসান সিন্ডিকেট ঘুষ ছাড়া ফাইল নড়ে না কক্সবাজার এলএ শাখায়

ছবি

রামু থেকে অস্ত্র ও গুলি নিয়ে সন্ত্রাসী আটক

ছবি

কক্সবাজারে ক্ষমতাসীনদের হামলায় ৫ সংবাদকর্মী আহত

ছবি

নিখোঁজের দুই দিন পর পর্যটকের মরদেহ উদ্ধার

ছবি

টেকনাফ সমুদ্র উপকূলে পালিয়ে এলো ৫ রোহিঙ্গা

ছবি

টেকনাফগামী ট্রলারে মায়ানমারের গুলি

ছবি

কোটা আন্দোলন: রংপুরে সংঘর্ষ ও মৃত্যুর তদন্তে ৪ সদস্যের কমিটি গঠন

ছবি

শেখ হাসিনা ও মুক্তিযোদ্ধাদের বিরুদ্বে কুরুচিপূর্ন বক্তব্য দেওয়ায় গজারিয়ায় মুক্তিযোদ্ধাদের প্রতিবাদ সভা

ছবি

নারীর প্রতি সকল প্রকার সহিংসতার প্রতিবাদে ও বিচারের দাবিতে বাংলাদেশ মহিলা পরিষদের না’গঞ্জে মানববন্ধন

ছবি

কোটা সংস্কার আন্দোলনে নিহত ওয়াসিমের দাফন সম্পন্ন

ছবি

রামুতে মাদকসেবী ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

সারাদেশে স্কুল, কলেজ অনিদিষ্টকাল বন্ধ ঘোষণা

ছবি

কোটা সংস্কার আন্দোলন : কক্সবাজারে সংঘর্ষ, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া

ছবি

চীন বা ভারত নয়, নিজস্ব অর্থায়নে তিস্তা মহাপরিকল্পনা বাস্তবায়নের দাবী

ছবি

মায়ানমারে চলছে বোমা হামলা সীমান্তে এতো কড়াকড়িতেও রোহিঙ্গার অনুপ্রবেশ

ছবি

"গাইবান্ধায় বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে ২ বাইক আরোহী নিহত"

ছবি

বরিশালে মহাসড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ

ছবি

গুলি আর মর্টারশেলের শব্দে ফের কেঁপে উঠল টেকনাফ সীমান্ত

ছবি

কক্সবাজার পৌরসভার উন্নয়ন প্রকল্প পরিদর্শন করলেন জাইকার প্রতিনিধি দল

ছবি

রাখাইনে সংঘর্ষের তীব্রতা বেড়েছে বাংলাদেশে প্রবেশের অপেক্ষায় ২ ট্রলার

ছবি

রাত হলেই বাঁশখালীর ৫ স্পট থেকে পাচার হয় কোটি টাকার মাছ

সিলেট সীমান্তে খাসিয়াদের গুলিতে দুই বাংলাদেশি নিহত

ছবি

লাফার্জ হোলসিমের বর্জ্য ব্যবস্থাপনা পরিদর্শণ করেছে নারায়নগঞ্জ সিটি করপোরেশন কর্মকর্তারা

ছবি

হামলার শিকার কোন কোন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ও প্রেসিডেন্ট প্রার্থী

ছবি

জামালপুরে ডোবায় ডুবে চার নারীর মৃত্যু

ছবি

সাটুরিয়া ৫০ শয্যা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভবন আছে, চিকিৎসক নেই সরঞ্জাম আছে টেকনিশিয়ান নেই

ছবি

মাদকের আগ্রাসন রোধে সামাজিক সচেতনতা সৃষ্টি করতে হবে

ছবি

চট্টগ্রামে ৭ টন মাছ জব্দ, গ্রেপ্তার ১৫

ছবি

টেকনাফে ৮০ হাজার ইয়াবাসহ দুই মাদক কারবারি আটক

ছবি

মুন্সীগঞ্জে দুই গ্রুপের সংঘর্ষে ২৫ ঘরবাড়ি ভাঙচুর

ছবি

লালমনিরহাটে বিসিএস প্রশ্নফাঁসে জড়িত আ’লীগ নেতা বহিষ্কার

ছবি

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে গোলাগুলি, পুলিশ সদস্য গুলিবিদ্ধ

ছবি

মায়ানমার থেকে যুদ্ধফেরত আরসা সদস্য গ্রেপ্তার, দুটি রাইফেল ও ৫০ রাউন্ড গুলি উদ্ধার

ছবি

বরিশালে কাঁচা মরিচ ৪০০ টাকা কেজি

tab

সারাদেশ

যেনতেনভাবে কাজ করার অভিযোগ

কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী মহাসড়কের কাজ বন্ধ করে দিলেন মেয়র

জেলা বার্তা পরিবেশক, কুষ্টিয়া

কুষ্টিয়া : কুমারখালী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্বর এলাকার বেহাল অংশ -সংবাদ

শুক্রবার, ০৯ জুন ২০২৩

স্থায়ী সমাধানের দাবিতে কুমারখালী পৌরসভার মেয়র মো. সামছুজ্জামান অরুন বার বার দেবে যাওয়া কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের সংস্কার কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন। বৃহস্পতিবার সকাল ১০ টার দিকে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের কুমারখালী বাসস্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্বর এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ব্যাপারে মেয়র সামছুজ্জামান অরুন বলেন, বারবার একই জায়গায় সড়ক দেবে যাচ্ছে, আর সড়ক বিভাগ সংস্কার করছে। এতে সরকারি টাকার অপচয় হচ্ছে। আবার বার বার জনদুর্ভোগ সৃষ্টি হচ্ছে। এবারো যেনতেন ভাবে সংস্কার কাজ চলছিল। সেজন্য স্থায়ী সমাধানের জন্য তিনি এ কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন।

তাঁর দাবি, প্রকৌশলী এসে জনগণকে স্থায়ী সমাধানের জন্য আশ্বস্ত করলেই তিনি কাজ করতে দিবেন।

বৃস্পতিবার সকালে দেবে যাওয়া স্থানসমূহের সংস্কার কাজ শুরুর উদ্যোগ গ্রহণ করে স্থানীয় সওজ বিভাগ। বৃহস্পতিবার সকালের দিকে গোলচত্বর এলাকায় সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, সড়কের উত্তর-পশ্চিম পাশের দেবে যাওয়া অংশগুলো কেটে সমান করা হয়েছে।

প্রায় ১০-১৫ জন শ্রমিক সড়ক বিভাজনের ওপরে বসে আছেন। এসময় শ্রমিকদের সরদার মহিদুল ইসলাম বলেন, সওজ বিভাগের নির্দেশে তিনি ১৪ জন শ্রমিক নিয়ে সকাল থেকে সড়ক খুঁড়াখুঁড়ি করে উচুনিচু অংশ গুলো সমান করার কাজ শুরু করেছেন। কিন্তু মেয়র এসে কাজ বন্ধ করে দিয়ে গেছেন। সেজন্য তারা সওজের কর্মকর্তাদের অপেক্ষায় বসে আছেন।

প্রায় ১৯০ কোটি টাকা ব্যয়ে এই আঞ্চলিক মহাসড়কটি নির্মাণ করেন মেহেরপুর জেলার ঠিকাদার জহুরুল ইসলাম কনস্ট্রাকশন। ২০১৮ সালে সড়কটির পুননির্মাণ করা হয়েছিল। সড়কটি দেবে গেলে ২০২০ সালের জুন মাসে প্রথম সংস্কার কাজ শেষ করে ঠিকাদার। পরবর্তীতে ২০২১ সালে জুন মাসে দেবে যাওয়া অংশ সংস্কার করা হয়। ২০২২ সালে কয়েকবার একইস্থানে আবার সরু খাল ও গর্ত সৃষ্টি হলে তা সংস্কার করা হয়। গত ৪ মে সর্বশেষ সংস্কার কাজ করা হয়। বর্তমানেও একই স্থান গুলো দেবে স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হচ্ছে।

কুষ্টিয়া সড়ক ও জনপদ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোহাম্মদ সেলিম আজাদ খাঁন বলেন, ঝুঁঁকি এড়াতে ও চলাচল স্বাভাবিক রাখার জন্য তিনি বৃহস্পতিবার সকাল থেকে শ্রমিক দিয়ে দেবে যাওয়া অংশের সংস্কার কাজ শুরু করেছেন। কিন্তু মেয়র কেন কাজ বন্ধ করে দিয়েছেন তা তিনি বুঝতে পারছেন না। তিনি মেয়রের সাথে সমন্বয়ের জন্য কর্মকর্তা পাঠিয়েছেন।

স্থায়ী সমাধানের বিষয়ে প্রকৌশলী আরো বলেন, তিনি ইতিমধ্যে সড়কের স্থায়ী সমাধানের জন্য এস্টিমেট প্রস্তুত করেছেন। এখন শুধু দরপত্র আহবানের পালা।

প্রসঙ্গত সংস্কারের মাত্র এক মাসের মাথায় আবারো দেবে গেছে কুষ্টিয়া-রাজবাড়ী আঞ্চলিক মহাসড়কের কুমারখালী বাস স্ট্যান্ড সংলগ্ন গোলচত্ত্বর এলাকাসহ আশে পাশের বেশ কয়েকটি স্থান।

দেবে গিয়ে সড়কের বেশ কয়েকটি স্থানে আধা হাত গভীর ও দুই থেকে তিন শ মিটার দৈর্ঘের সরু নালা সৃষ্টি হয়েছে। অথচও মাত্র মাস খানেক আগেই সড়কটিতে সংস্কার কাজ করা হয়।

এনিয়ে সড়কটি নির্মাণের পর অন্তত ৮ থেকে ১০ বার দেবে যাওয়ার ঘটনা ঘটলো। বার বার দেবে যাওয়ার কারণে স্বাভাবিক চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। উল্টে যাওয়ার উপক্রম হচ্ছে যানবাহনগুলো। হোঁচট খেয়ে ছিটকে পড়ছেন পথচারীরা।

বিকল্প কোন পথ না থাকায় এক প্রকার বাধ্য হয়েই ঝুঁকি নিয়ে যানবাহন এবং জনসাধারণকে এই মহাসড়কে চলাচল করতে হচ্ছে।

back to top