alt

অর্থ-বাণিজ্য

ফের অস্থির পেঁয়াজের বাজার, দাম এক লাফে দ্বিগুণ

আমিরুল মোমিনিন সাগর : শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/09Dec23/news/pic-1.jpg

এক লাফে দ্বিগুণ হয়েছে পেঁয়াজের দাম। তবে হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিপাকে ক্রেতারা। বাজারে আসা ক্রেতাদের অভিযোগ, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই দেশের বাজারে সিন্ডিকেট সক্রিয় হয়ে উঠেছে। দেশের তদারকি সংস্থার উদাসীনতার কারণে সুযোগ সন্ধানী ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে ইচ্ছে মতো দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা বলছেন, বর্তমানে বাজারে যে পেঁয়াজ আছে তা আগের মজুত।

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/09Dec23/news/pic-2.jpg

রাজধানীর শ্যামবাজার আড়তে ভরা পেঁয়াজ। তবু দাম বাড়ানোর কারসাজি, মূল্য তালিকা টাঙানো আছে। শুধু ভোক্তা অধিকার অভিযানকালে দৃশ্যমান, পরে বেড়ে যায় দ্বিগুণ -সংবাদ

দাম বাড়ার খবরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর অভিযানে নামলে বিক্রেতাদের কেউ কেউ দোকান ফেলে চলে যান। ভারত সরকার নিজের দেশে পেঁয়াজের সরবরাহ ও দাম স্বাভাবিক রাখতে পেঁয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা মার্চ পর্যন্ত বাড়িয়েছে। গত শুক্রবার এমন খবর আসার পরদিনই শনিবার (৯ ডিসেম্বর) থেকে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক পরিমাণ বাড়াতে শুরু করেন পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারসহ বেশকিছু মুদি দোকান ঘুরে এবং ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব জানা গেছে। গত সেপ্টেম্বর মাসে বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রথমবারের মতো তিনটি কৃষিপণ্যের দাম বেঁধে দেয় সরকার। তার মধ্যে একটি পণ্য হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ। বেঁধে দেয়া দাম অনুযায়ী, খুচরা পর্যায়ে দেশি পেঁয়াজের দাম ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাজধানীর খোলা বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি ২২০ টাকা থেকে ২৪০ টাকা। আর আমদানি করা পেঁয়াজ ২০০ টাকা। পাশাপাশি রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পাইকারিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে কেজি ২০০ টাকা আর আমদানি করা পেঁয়াজ ১৫০ টাকায়।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে কথা হয় জাহিদ হোসেনের সঙ্গে। বাজারে দামের পরিস্থিতি নিয়ে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘এক কেজি ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ কিনলাম দুইশো টাকায়। দুইদিন আগেও ইন্ডিয়ান পেয়াজ ছিল কেজি ১শ’ টাকা ছিল।

তিনি বলেন, ‘বলে লাভ কি দাম বাড়ছে, খাওয়ন লাগবো, কিছু করার নাই তো। কারো তো এ ব্যাপারে মাথাব্যাথা নাই, মাথাব্যাথা আছে আগে কিনতাম দুই কেজি, এখন কিনলাম এক কেজি।’

‘কালকে দেখি এক দাম, আজকে দেখি আরেক দাম। বাজারে কেনো হঠাৎ করে দাম বেশি হইলো, জানতে হইবো না। যারা মনিটরিং করে তাদের তো জানতে হইবো, এটা তো সরকার জানবো।’

রাজধানীর কুনিপাড়া থেকে কারওয়ান বাজারে পাইকারিতে পেঁয়াজ কিনে বেরিয়ে যাচ্ছিলেন খুচরা দোকানি শাজাহান মিয়া। দামের বিষয়ে কথা হলে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘পাইকারি দরে দুই পাল্লা (দশ কেজি) দেশি পেঁয়াজ কিনলাম ১ হাজার টাকা দিয়ে।’ কুনি পাড়ায় গিয়ে কতো করে বিক্রি করবেন জবাবে তিনি বলেন, ‘২শ’ ২০, ২শ’ ৩০ এই রকম বেঁচা লাগবো।’

এ বাজারেই পাইকারিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করেন মছির উদ্দিন। তিনি সংবাদকে বলেন, ‘আজ পাইকারি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছি কেজি ২শ’ টাকা।’

দর ও দরবৃদ্ধির বিষয়ে জানতে চাইলে কারওয়ান বাজারের আমদানি পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা আজিজুল সংবাদকে বলেন, ‘আজ ১ পাল্লা বিক্রি করছি ৭শ’ ৫০ টাকা। আমদানি বন্ধ হইছে তাই দাম বাড়ছে। আরও বাড়বো!!’

এ বাজারের পাইকারি আড়ত থেকে একশ’ হাত দূরেই আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ টাকা বেশি দামে বিক্রি করছিলেন খুচরো বিক্রেতা রনি। তার কাছে দাম জানতে চাইলে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বিক্রি করছি কেজি ২শ’ টাকা।’

রনির দোকান থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ কিনে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ক্রেতা তারিকুল বলেন, ‘কেজি নিল ২শ’ টাকা। কিছু করার নেই, খাইতে তো হবে, কম আর বেশি। আগে নিতাম ৫ কেজি, আজ নিলাম ২ কেজি।’

‘সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের দামটা বাড়ছে। ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দাম বাড়াবে কিন্তু সরকারকেই মনিটরিং করতে হবে এবং কন্ট্রোল করতে হবে,’ যোগ করেন তারিকুল।

আমাদের দিনাজপুর প্রতিনিধি চিত্ত ঘোষ জানিয়েছেন, পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের ঘোষণায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকদের গুদামে পেঁয়াজের মজুত নেই। খুচরা বিক্রেতাদের অভিযোগ- পেঁয়াজ গুদামে মজুত করে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে ভারত সরকারের এমন হটকারি সিদ্ধান্তে দেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি। এদিন সকালে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারতীয় দুইটি ট্রাকে টেন্ডারকৃত ৬০ টন পেঁয়াজ বাংলাদেশে আসার খবর পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে দিনাজপুর শহরের সবচেয়ে বড় বাজার বাহাদুর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, একদিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি ৭০ থেকে ৮০ টাকা ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। শনিবার বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ ১৯০ থেকে ২০০ টাকা দরে বিক্রি হয়। একই সঙ্গে দেশি জাতের পেঁয়াজ ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। কিন্তু পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ ঘোষণার আগে গত শুক্রবার সকালে এই বাজারে ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ ১১০ থেকে ১২৫ টাকা কেজি এবং দেশি জাতের পেঁয়াজ ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

শনিবার রাজধানীসহ জেলা পর্যায়ে অভিযান চালিয়েছে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অধিদপ্তরের ৫৭টি টিম সারাদেশের বাজারে অভিযানের মাধ্যমে ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৬ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

ভোক্তা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার ঢাকা মহানগরীতে অধিদপ্তরের চারটি টিম বাজার অভিযান পরিচালনা করে।

এছাড়াও অন্য বিভাগীয় শহরসহ দেশের সর্বমোট ৫৪টি জেলায় একযোগে এ অভিযান পরিচালিত হয়। সবমিলিয়ে সারাদেশে ৫৭টি টিম কর্তৃক বাজার অভিযানের মাধ্যমে ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৬ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভোক্তা অধিকার রক্ষায় এ কার্যক্রম আজও অব্যাহত থাকবে বলে জানায় অধিদপ্তর।

এর মধ্যে চট্টগ্রামে ৫টি প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে সংস্থাটি। নগরীর চৌমুহনী এবং খাতুনগঞ্জে পৃথক অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করা হয়। অভিযানে নগরীর চৌমুহনী কর্ণফুলী মার্কেটে অভিযান চালিয়ে ফারুক স্টোরকে ৩০ হাজার টাকা এবং আলিফ ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অন্যদিকে নগরীর খাতুনগঞ্জে বরকত ভান্ডারকে ২০ হাজার টাকা, এ এইছ ট্রের্ডাসকে ১০ হাজার টাকা এবং এ কে ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পিরোজপুর প্রতিনিধি এ কে আজাদ জানান, শনিবার দুপুরে পিরোজপুর শহরের পৌর কাঁচাবাজারে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করা এবং মূল্য তালিকা না রাখায় দুই ব্যবসায়ীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। এদের মধ্যে বিনয় পাল নামে এক পাইকারি ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা এবং অন্য একজন খুচরা বিক্রেতাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

ছবি

রমজানে দ্রব্যমূল্য বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: সালমান এফ রহমান

ছবি

চড়া দামে আটকা বেশিরভাগ নিত্যপণ্য

ছবি

ভারত: চাল রপ্তানিতে শুল্ক আরোপের মেয়াদ বাড়াল ৩১ মার্চ

ছবি

উৎপাদন খরচ বাড়লেও বাড়েনি বইয়ের দাম

ছবি

সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমবে ১০ টাকা

ছবি

অর্থপাচারের ৮০ শতাংশই ব্যাংকিং চ্যানেলে : বিএফআইইউ

ছবি

সূচক বেড়ে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

ছবি

জিআই পণ্যের তালিকা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

ছবি

দেশ-বিদেশে পর্যটক আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে : পর্যটনমন্ত্রী

ছবি

কৃষি ব্যাংকের খেলাপি ঋণ কমানো, লাভে নেয়াই লক্ষ্য : শওকত আলী খান

ছবি

অস্তিত্বের জন্য বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি সীমাবদ্ধ রাখতে হবে: সাবের হোসেন চৌধুরী

ছবি

ড. ইউনূসের ‘জবরদখলে’র অভিযোগ নিয়ে যা বলল গ্রামীণ ব্যাংক

ছবি

খেজুরের গুড়, মিষ্টি পান ও নকশিকাঁথা পেল জিআই স্বীকৃতি

ছবি

কর নেট বাড়ানোর জন্য ধীরে ধীরে কাজ করছি : এনবিআর চেয়ারম্যান

ছবি

জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ০৭ শতাংশ

ছবি

পার্বত্য চট্রগ্রাম মেলায় বেচাকেনা কম, হতাশ উদ্যোক্তারা

টাকা-ডলার অদলবদলের সুবিধা চালু

ছবি

মাথাপিছু আয় বেড়ে ২ লাখ ৭৩ হাজার ৩৬০ টাকা

ছবি

রমজানে রাজধানীতে ২৫টি স্থানে কম দামে মাংস ও ডিম বিক্রির উদ্যোগ

ছবি

কেন্দ্রীয় ব্যাংকে টাকা–ডলার অদলবদলের সুবিধা চালু

ছবি

তালিকাভূক্ত ব্যাংকের মধ্যে সর্বোচ্চ ক্যাশ ফ্লো রূপালী ব্যাংকের

ছবি

পুঁজিবাজারে ২২টি ব্যাংকের ক্যাশ ফ্লো বেড়েছে

ছবি

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির বিশেষ নীরিক্ষায় চমকপ্রদ তথ্য বের হচ্ছে: বিএসইসি চেয়ারম্যান

ছবি

সূচকের উত্থানে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

টাঙ্গাইল শাড়ি নিয়ে ফেসবুক পোস্ট সরিয়েছে ভারত: নানক

ছবি

সূচক বেড়ে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

ছবি

বেসরকারি ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখা বড় চ্যালেঞ্জ: ঢাকা চেম্বার সভাপতি

ছবি

ছয় মাসে ৪৫৯ কোটি ডলারের বাণিজ্য ঘাটতি

ছবি

খেজুরের আমদানি শুল্ক আরো কমানোর দাবি ব্যবসায়ীদের

ছবি

পাট খাতের বৈশ্বিক রপ্তানি আয়ের ৭২ শতাংশ এখন বাংলাদেশের দখলে: কৃষিমন্ত্রী

ছবি

তিন মাসে খেলাপি ঋণ কমেছে, তবে ২০২২ সালের হিসেবে এখনও বেশি

ছবি

ভাষা শহীদদের স্মরণে বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণার নির্দেশ পলকের

বাংলাদেশ দেউলিয়া হয়ে যায়নি ,সঠিক পথে ফিরেছে: অর্থমন্ত্রী

প্রায় বন্ধ নাফনদী পাড়ের বাণিজ্য, রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে সরকার

ছবি

প্রতারণামূলক তথ্য দিয়ে টাঙ্গাইল শাড়ির স্বত্ব নিয়েছে ভারত, এবার চায় ঢাকাই মসলিন

ছবি

নারায়ণগঞ্জ বকেয়া বেতন না দিয়ে কারখানা বন্ধ শ্রমিকদের বিক্ষোভ

tab

অর্থ-বাণিজ্য

ফের অস্থির পেঁয়াজের বাজার, দাম এক লাফে দ্বিগুণ

আমিরুল মোমিনিন সাগর

শনিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২৩

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/09Dec23/news/pic-1.jpg

এক লাফে দ্বিগুণ হয়েছে পেঁয়াজের দাম। তবে হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম বাড়ায় বিপাকে ক্রেতারা। বাজারে আসা ক্রেতাদের অভিযোগ, ভারতের পেঁয়াজ রপ্তানি বন্ধের ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গেই দেশের বাজারে সিন্ডিকেট সক্রিয় হয়ে উঠেছে। দেশের তদারকি সংস্থার উদাসীনতার কারণে সুযোগ সন্ধানী ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে ইচ্ছে মতো দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। তারা বলছেন, বর্তমানে বাজারে যে পেঁয়াজ আছে তা আগের মজুত।

https://sangbad.net.bd/images/2023/December/09Dec23/news/pic-2.jpg

রাজধানীর শ্যামবাজার আড়তে ভরা পেঁয়াজ। তবু দাম বাড়ানোর কারসাজি, মূল্য তালিকা টাঙানো আছে। শুধু ভোক্তা অধিকার অভিযানকালে দৃশ্যমান, পরে বেড়ে যায় দ্বিগুণ -সংবাদ

দাম বাড়ার খবরে ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর অভিযানে নামলে বিক্রেতাদের কেউ কেউ দোকান ফেলে চলে যান। ভারত সরকার নিজের দেশে পেঁয়াজের সরবরাহ ও দাম স্বাভাবিক রাখতে পেঁয়াজ রপ্তানির ওপর নিষেধাজ্ঞা মার্চ পর্যন্ত বাড়িয়েছে। গত শুক্রবার এমন খবর আসার পরদিনই শনিবার (৯ ডিসেম্বর) থেকে পেঁয়াজের দাম অস্বাভাবিক পরিমাণ বাড়াতে শুরু করেন পাইকারি ও খুচরা ব্যবসায়ীরা।

শনিবার রাজধানীর কারওয়ান বাজারসহ বেশকিছু মুদি দোকান ঘুরে এবং ক্রেতা-বিক্রেতাদের সঙ্গে কথা বলে এসব জানা গেছে। গত সেপ্টেম্বর মাসে বাজার নিয়ন্ত্রণে প্রথমবারের মতো তিনটি কৃষিপণ্যের দাম বেঁধে দেয় সরকার। তার মধ্যে একটি পণ্য হচ্ছে দেশি পেঁয়াজ। বেঁধে দেয়া দাম অনুযায়ী, খুচরা পর্যায়ে দেশি পেঁয়াজের দাম ৬৪ থেকে ৬৫ টাকা নির্ধারণ করা হয়।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাজধানীর খোলা বাজারে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে কেজি ২২০ টাকা থেকে ২৪০ টাকা। আর আমদানি করা পেঁয়াজ ২০০ টাকা। পাশাপাশি রাজধানীর কারওয়ান বাজারে পাইকারিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি হয়েছে কেজি ২০০ টাকা আর আমদানি করা পেঁয়াজ ১৫০ টাকায়।

রাজধানীর কারওয়ান বাজারে কথা হয় জাহিদ হোসেনের সঙ্গে। বাজারে দামের পরিস্থিতি নিয়ে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘এক কেজি ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ কিনলাম দুইশো টাকায়। দুইদিন আগেও ইন্ডিয়ান পেয়াজ ছিল কেজি ১শ’ টাকা ছিল।

তিনি বলেন, ‘বলে লাভ কি দাম বাড়ছে, খাওয়ন লাগবো, কিছু করার নাই তো। কারো তো এ ব্যাপারে মাথাব্যাথা নাই, মাথাব্যাথা আছে আগে কিনতাম দুই কেজি, এখন কিনলাম এক কেজি।’

‘কালকে দেখি এক দাম, আজকে দেখি আরেক দাম। বাজারে কেনো হঠাৎ করে দাম বেশি হইলো, জানতে হইবো না। যারা মনিটরিং করে তাদের তো জানতে হইবো, এটা তো সরকার জানবো।’

রাজধানীর কুনিপাড়া থেকে কারওয়ান বাজারে পাইকারিতে পেঁয়াজ কিনে বেরিয়ে যাচ্ছিলেন খুচরা দোকানি শাজাহান মিয়া। দামের বিষয়ে কথা হলে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘পাইকারি দরে দুই পাল্লা (দশ কেজি) দেশি পেঁয়াজ কিনলাম ১ হাজার টাকা দিয়ে।’ কুনি পাড়ায় গিয়ে কতো করে বিক্রি করবেন জবাবে তিনি বলেন, ‘২শ’ ২০, ২শ’ ৩০ এই রকম বেঁচা লাগবো।’

এ বাজারেই পাইকারিতে দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করেন মছির উদ্দিন। তিনি সংবাদকে বলেন, ‘আজ পাইকারি দেশি পেঁয়াজ বিক্রি করছি কেজি ২শ’ টাকা।’

দর ও দরবৃদ্ধির বিষয়ে জানতে চাইলে কারওয়ান বাজারের আমদানি পেঁয়াজের পাইকারি বিক্রেতা আজিজুল সংবাদকে বলেন, ‘আজ ১ পাল্লা বিক্রি করছি ৭শ’ ৫০ টাকা। আমদানি বন্ধ হইছে তাই দাম বাড়ছে। আরও বাড়বো!!’

এ বাজারের পাইকারি আড়ত থেকে একশ’ হাত দূরেই আমদানি করা ভারতীয় পেঁয়াজ ৫০ টাকা বেশি দামে বিক্রি করছিলেন খুচরো বিক্রেতা রনি। তার কাছে দাম জানতে চাইলে তিনি সংবাদকে বলেন, ‘ইন্ডিয়ান পেঁয়াজ বিক্রি করছি কেজি ২শ’ টাকা।’

রনির দোকান থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ কিনে বেরিয়ে যাওয়ার সময় ক্রেতা তারিকুল বলেন, ‘কেজি নিল ২শ’ টাকা। কিছু করার নেই, খাইতে তো হবে, কম আর বেশি। আগে নিতাম ৫ কেজি, আজ নিলাম ২ কেজি।’

‘সিন্ডিকেটের কারণে পেঁয়াজের দামটা বাড়ছে। ব্যবসায়ীরা সিন্ডিকেট করে দাম বাড়াবে কিন্তু সরকারকেই মনিটরিং করতে হবে এবং কন্ট্রোল করতে হবে,’ যোগ করেন তারিকুল।

আমাদের দিনাজপুর প্রতিনিধি চিত্ত ঘোষ জানিয়েছেন, পেঁয়াজ আমদানি বন্ধের ঘোষণায় দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দরের আমদানিকারকদের গুদামে পেঁয়াজের মজুত নেই। খুচরা বিক্রেতাদের অভিযোগ- পেঁয়াজ গুদামে মজুত করে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা। অন্যদিকে ভারত সরকারের এমন হটকারি সিদ্ধান্তে দেশের পেঁয়াজ ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্থ হবেন বলে জানিয়েছেন হিলি স্থলবন্দর আমদানি-রপ্তানিকারক গ্রুপের সভাপতি। এদিন সকালে হিলি স্থলবন্দর দিয়ে ভারতীয় দুইটি ট্রাকে টেন্ডারকৃত ৬০ টন পেঁয়াজ বাংলাদেশে আসার খবর পাওয়া গেছে।

শনিবার সকালে দিনাজপুর শহরের সবচেয়ে বড় বাজার বাহাদুর বাজারে গিয়ে দেখা যায়, একদিনের ব্যবধানে কেজি প্রতি ৭০ থেকে ৮০ টাকা ভারতীয় পেঁয়াজের দাম বেড়েছে। শনিবার বাজারে ভারতীয় পেঁয়াজ ১৯০ থেকে ২০০ টাকা দরে বিক্রি হয়। একই সঙ্গে দেশি জাতের পেঁয়াজ ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়। কিন্তু পেঁয়াজ আমদানি বন্ধ ঘোষণার আগে গত শুক্রবার সকালে এই বাজারে ভারত থেকে আমদানি করা পেঁয়াজ ১১০ থেকে ১২৫ টাকা কেজি এবং দেশি জাতের পেঁয়াজ ১৫০ থেকে ১৬০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে।

শনিবার রাজধানীসহ জেলা পর্যায়ে অভিযান চালিয়েছে জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। অধিদপ্তরের ৫৭টি টিম সারাদেশের বাজারে অভিযানের মাধ্যমে ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৬ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করেছে।

ভোক্তা অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে জানানো হয়, শনিবার ঢাকা মহানগরীতে অধিদপ্তরের চারটি টিম বাজার অভিযান পরিচালনা করে।

এছাড়াও অন্য বিভাগীয় শহরসহ দেশের সর্বমোট ৫৪টি জেলায় একযোগে এ অভিযান পরিচালিত হয়। সবমিলিয়ে সারাদেশে ৫৭টি টিম কর্তৃক বাজার অভিযানের মাধ্যমে ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানকে মোট ৬ লাখ ৬৬ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। ভোক্তা অধিকার রক্ষায় এ কার্যক্রম আজও অব্যাহত থাকবে বলে জানায় অধিদপ্তর।

এর মধ্যে চট্টগ্রামে ৫টি প্রতিষ্ঠানকে এক লাখ টাকা জরিমানা করে সংস্থাটি। নগরীর চৌমুহনী এবং খাতুনগঞ্জে পৃথক অভিযান চালিয়ে এ জরিমানা করা হয়। অভিযানে নগরীর চৌমুহনী কর্ণফুলী মার্কেটে অভিযান চালিয়ে ফারুক স্টোরকে ৩০ হাজার টাকা এবং আলিফ ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। অন্যদিকে নগরীর খাতুনগঞ্জে বরকত ভান্ডারকে ২০ হাজার টাকা, এ এইছ ট্রের্ডাসকে ১০ হাজার টাকা এবং এ কে ট্রেডার্সকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়।

পিরোজপুর প্রতিনিধি এ কে আজাদ জানান, শনিবার দুপুরে পিরোজপুর শহরের পৌর কাঁচাবাজারে নির্ধারিত মূল্যের চেয়ে বেশি দামে পেঁয়াজ বিক্রি করা এবং মূল্য তালিকা না রাখায় দুই ব্যবসায়ীকে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে জরিমানা করে ভ্রাম্যমান আদালত। এদের মধ্যে বিনয় পাল নামে এক পাইকারি ব্যবসায়ীকে ১০ হাজার টাকা এবং অন্য একজন খুচরা বিক্রেতাকে ৫ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

back to top