alt

অর্থ-বাণিজ্য

ফ্রান্স-যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে বাংলাদেশের ৬ চুক্তি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১

বিদেশি ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশকে তাদের মার্কেট মনে করতে শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রীর সাথে সফরে আমরা ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে বাংলাদেশের ৬ টি সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) করেছি। যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স মার্কেটে ভবিষ্যতে আমাদের বাণিজ্য আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন এফবিসিসিআই’য়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। এছাড়া আমরা বিদেশে অবস্থানরত দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের বাংলাদেশিদের আমাদের ব্যবসার সাথে যুক্ত করার চেষ্টা করছি। তারাই বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিংয়ে নেতৃত্ব দেবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হিসেবে এফবিবিসিআই’র নেতৃত্বে বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স সফরেরর উপর আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ জিএসপি সুবিধা ছাড়াই ভালো করছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নেও আগামীতে জিএসপি পরবর্তির জন্য প্রস্তুত হতে হবে। আমাদের আরএমজি সেক্টরের সবচেয়ে বড় বাজার ইইউতে জিএসপি সুবিধা ছাড়াই ভালো করতে হবে।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণের ফলে আমাদের ইউরোপীয় বাজারের জিএসপি সুবিধা ব্যহাত হতে পারে। তবে আমরা এই সুবিধা ২০৩১ সাল পর্যন্ত বহাল রাখার জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নকে আবেদন করছি। আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার পর যদি ২০২৯ সাল পর্যন্তও জিএসপি সুবিধা পাই তবে বাণিজ্যিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে সক্ষম হবো।

তিনি বলেন, আগে আমরা শুধু তৈরি পোশাক শিল্পের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে পরিচিত ছিলাম। এখন আমরা লেদার, জাহাজ, সিরামিকসসহ অন্যান্য পণ্যও রপ্তানি করছি। এই বাজার আরও বাড়াতে হবে। না হলে আগামীর বাণিজ্যিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা কঠিন হবে মন্তব্য করেন এফবিসিসিআইর সভাপতি জসিম উদ্দিন।

তিনি আরও বলেন, তেলের দাম কম থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীরা যেসব কাজ হাতে নিয়েছে তার খরচ এখন বেড়ে যাবে। এতে সমস্যায় পড়তে হবে তাদের। এ কারণে তেলের দাম ডলারের দামের সাথে সমন্বয় করা উচিৎ। আমাদের এখানে কোন জিনিসের দাম একবার বাড়লে আর কমনোর ঠিক থাকে না। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে গেছে, সামনে আরও কমবে। তাই বাংলাদেশের বাজারে তেলের দাম কমানো দরকার বলেও মনে করেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, বর্তমানে আমাদের রপ্তানি বাণিজ্যের পরিমাণ ৫০ বিলিয়ন ডলার। বাণিজ্য ঝুঁকি মোকাবেলা করতে আমাদের এটাকে ৩০০ বিলিয়ন ডলারে নিয়ে যেতে হবে। এছাড়া বাংলাদেশ ২০২৯ সাল পর্যন্ত জিএপি সুবিধা পাবে বলেও মনে করেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্যাংকিং খাতের খেলাপি ঋণ নিয়ে জসিম উদ্দিন বলেন, করোনার প্রভাবের কারণে খেলাপি ঋণ কিছুটা বেড়েছে। আমাদের ব্যবসায় ঝুঁকির মধ্যে আছে। তবে আগামী বছরের মধ্যেই আমরা তা ছড়িয়ে আসতে পারবো। ৯৯ শতাংশ ব্যবসায়ীই লোন নিয়ে তা পরিশোধ করে দেওয়ার মনোভাব রাখে। এক শতাংশ ব্যবসায়ী আছে যারা বিভিন্ন প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করে। তবে এই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে আমরা সরকারের সাথে কাজ করছি। কারণ ব্যাংকিং খাত আমাদের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার রাখছে। বিশেষ করে পাওয়ার সেক্টরে যেসব উন্নয়নগুলো হয়েছে সেগুলো কিন্তু বেশিরভাগই দেশিয় ব্যাংকের লোনের মাধ্যমে হয়েছে।

এফবিসিসিআইর আইকন ভবনে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি, সহ-সভাপতিবৃন্দ এবং পরিচালনা পর্ষদের সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

কঠোর আইনের মাধ্যমে অর্থপাচার রোধ করেছে দ.কোরিয়া, বাংলাদেশেও দরকার

কিউকমে আটকে থাকা টাকা ফেরত পেতে শুরু করেছে গ্রাহকরা

ছবি

ব্যাংকারদের বেতন কাঠামো বাস্তবায়নে সময় চায় মালিকপক্ষ

এটিএম বুথ ও মোবাইল ব্যাংকিংয়ে নগদ টাকা বাড়ানোর নির্দেশ

বাস্তবায়ন হচ্ছে না বেসরকারি ব্যাংকের নতুন বেতন

পেপারবিহীন যুগে ডিএসই

পাঁচ ব্যাংকের সমন্বিত নিয়োগ পরীক্ষা স্থগিত

ডিএসইতে সূচক বাড়লেও সিএসইতে পতন

ছবি

এবার বিদ্যুতের দাম বাড়ানোর উদ্যোগ

আদালত মনোনীত ফার্ম দিয়ে ইভ্যালির অডিট করানো যাবে

অদক্ষতার অজুহাতে পদত্যাগে বাধ্য করা যাবে না, বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশ

ফ্রিজ, এসি আমদানিতে স্ট্যান্ডার্ড এনার্জি রেটিং আরোপের দাবি

ইউনিয়ন ব্যাংকের শেয়ার লেনদেন শুরু

বাণিজ্য মেলা বন্ধের সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি

ছবি

অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়া পর্যন্ত ব্যাংককর্মীকে পদত্যাগে বাধ্য করা যাবে না

ছবি

করোনা মোকাবিলায় সহযোগিতা চায় বাংলাদেশ

মূল্য সংশোধন শেষে ঘুরে দাঁড়িয়েছে পুঁজিবাজার

কিউকম গ্রাহকদের আটকে থাকা অর্থ ফেরত দেয়া শুরু

অর্ধেক জনবল নিয়ে চলবে ব্যাংক

ইউনূসের ব্যাংক হিসাব তলব করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক

বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে ১৬ জেলায় ‘ক্লাইমেট স্মার্ট এগ্রিকালচার’

যুক্তরাষ্ট্রের কৃষি বিভাগের সঙ্গে ইসলামী ব্যাংকের ক্রেডিট গ্যারান্টি চালু

ছবি

মালয়েশিয়ায় কর্মী পাঠানোর সুযোগ চায় সব রিক্রুটিং এজেন্সি

ছবি

কিউকমের ২০ গ্রাহক ফেরত পেলেন ৪০ লাখ টাকা

ছবি

অর্ধেক জনবল দিয়ে চলবে ব্যাংক

ছবি

ড. ইউনূসের ব্যাংক হিসাব তলব

ছবি

আজ থেকে বিডি থাই ফুডের লেনদেন শুরু

ছবি

পুঁজিবাজারে নতুন দুই কোম্পানির দাপট

মিশ্র প্রবণতায় ডিএসইতে সূচক বাড়লেও সিএসইতে কমেছে

ছবি

শর্ত পূরণ করতে পারলে সব ব্যবসায়ীই প্রণোদনা পাবেন : অর্থমন্ত্রী

ডেল্টা লাইফে ৬ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত থাকতে পারবে প্রশাসক

ছয় কার্যদিবস পর শেয়ারবাজারে পতন, কমেছে সূচক, লেনদেন ও শেয়ারদর

এলডিসি-পরবর্তী সময়ে বাংলাদেশের পাশে থাকবে কমনওয়েলথ : সিডব্লিউইআইসি

নতুন বেতন কাঠামো বাস্তবায়নের পরামর্শ বিডব্লিউএবি’র

তরুণদের জন্য ই-কমার্স এবং এর পলিসি সহজীকরণের আহ্বান

ছবি

পাঁচ বছরে ৫০টি দেশে বাংলাদেশের ডিজিটাল যন্ত্র রপ্তানি হবে: মোস্তাফা জব্বার

tab

অর্থ-বাণিজ্য

ফ্রান্স-যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে বাংলাদেশের ৬ চুক্তি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

শুক্রবার, ২৬ নভেম্বর ২০২১

বিদেশি ব্যবসায়ীরা বাংলাদেশকে তাদের মার্কেট মনে করতে শুরু করেছে। প্রধানমন্ত্রীর সাথে সফরে আমরা ফ্রান্স ও যুক্তরাজ্যের সঙ্গে বাণিজ্য বাড়াতে বাংলাদেশের ৬ টি সমঝোতা চুক্তি (এমওইউ) করেছি। যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স মার্কেটে ভবিষ্যতে আমাদের বাণিজ্য আরও বাড়বে বলে জানিয়েছেন এফবিসিসিআই’য়ের সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন। এছাড়া আমরা বিদেশে অবস্থানরত দ্বিতীয় ও তৃতীয় প্রজন্মের বাংলাদেশিদের আমাদের ব্যবসার সাথে যুক্ত করার চেষ্টা করছি। তারাই বিদেশের মাটিতে বাংলাদেশের ব্র্যান্ডিংয়ে নেতৃত্ব দেবে বলেও জানান তিনি।

বৃহস্পতিবার (২৫ নভেম্বর) প্রধানমন্ত্রীর সফর সঙ্গী হিসেবে এফবিবিসিআই’র নেতৃত্বে বাণিজ্য প্রতিনিধি দলের যুক্তরাজ্য ও ফ্রান্স সফরেরর উপর আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

এফবিসিসিআই সভাপতি মো. জসিম উদ্দিন বলেছেন, যুক্তরাষ্ট্রে বাংলাদেশ জিএসপি সুবিধা ছাড়াই ভালো করছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নেও আগামীতে জিএসপি পরবর্তির জন্য প্রস্তুত হতে হবে। আমাদের আরএমজি সেক্টরের সবচেয়ে বড় বাজার ইইউতে জিএসপি সুবিধা ছাড়াই ভালো করতে হবে।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, এলডিসি থেকে উত্তরণের ফলে আমাদের ইউরোপীয় বাজারের জিএসপি সুবিধা ব্যহাত হতে পারে। তবে আমরা এই সুবিধা ২০৩১ সাল পর্যন্ত বহাল রাখার জন্য ইউরোপীয় ইউনিয়নকে আবেদন করছি। আমরা মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হওয়ার পর যদি ২০২৯ সাল পর্যন্তও জিএসপি সুবিধা পাই তবে বাণিজ্যিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে সক্ষম হবো।

তিনি বলেন, আগে আমরা শুধু তৈরি পোশাক শিল্পের কারণে আন্তর্জাতিক বাজারে পরিচিত ছিলাম। এখন আমরা লেদার, জাহাজ, সিরামিকসসহ অন্যান্য পণ্যও রপ্তানি করছি। এই বাজার আরও বাড়াতে হবে। না হলে আগামীর বাণিজ্যিক চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করা কঠিন হবে মন্তব্য করেন এফবিসিসিআইর সভাপতি জসিম উদ্দিন।

তিনি আরও বলেন, তেলের দাম কম থাকা অবস্থায় ব্যবসায়ীরা যেসব কাজ হাতে নিয়েছে তার খরচ এখন বেড়ে যাবে। এতে সমস্যায় পড়তে হবে তাদের। এ কারণে তেলের দাম ডলারের দামের সাথে সমন্বয় করা উচিৎ। আমাদের এখানে কোন জিনিসের দাম একবার বাড়লে আর কমনোর ঠিক থাকে না। আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে গেছে, সামনে আরও কমবে। তাই বাংলাদেশের বাজারে তেলের দাম কমানো দরকার বলেও মনে করেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

এফবিসিসিআই সভাপতি বলেন, বর্তমানে আমাদের রপ্তানি বাণিজ্যের পরিমাণ ৫০ বিলিয়ন ডলার। বাণিজ্য ঝুঁকি মোকাবেলা করতে আমাদের এটাকে ৩০০ বিলিয়ন ডলারে নিয়ে যেতে হবে। এছাড়া বাংলাদেশ ২০২৯ সাল পর্যন্ত জিএপি সুবিধা পাবে বলেও মনে করেন এই ব্যবসায়ী নেতা।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে ব্যাংকিং খাতের খেলাপি ঋণ নিয়ে জসিম উদ্দিন বলেন, করোনার প্রভাবের কারণে খেলাপি ঋণ কিছুটা বেড়েছে। আমাদের ব্যবসায় ঝুঁকির মধ্যে আছে। তবে আগামী বছরের মধ্যেই আমরা তা ছড়িয়ে আসতে পারবো। ৯৯ শতাংশ ব্যবসায়ীই লোন নিয়ে তা পরিশোধ করে দেওয়ার মনোভাব রাখে। এক শতাংশ ব্যবসায়ী আছে যারা বিভিন্ন প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করে। তবে এই সমস্যা থেকে বেরিয়ে আসতে আমরা সরকারের সাথে কাজ করছি। কারণ ব্যাংকিং খাত আমাদের অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকার রাখছে। বিশেষ করে পাওয়ার সেক্টরে যেসব উন্নয়নগুলো হয়েছে সেগুলো কিন্তু বেশিরভাগই দেশিয় ব্যাংকের লোনের মাধ্যমে হয়েছে।

এফবিসিসিআইর আইকন ভবনে আয়োজিত এই সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যদের মধ্যে এফবিসিসিআই’র সিনিয়র সহ-সভাপতি, সহ-সভাপতিবৃন্দ এবং পরিচালনা পর্ষদের সদস্যগণ উপস্থিত ছিলেন।

back to top