alt

অর্থ-বাণিজ্য

রংপুরে চেম্বার নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়

ভোক্তা অধিকার দপ্তরের অভিযান বন্ধের দাবি

লিয়াকত আলী বাদল, রংপুর : বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০২২

ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেছেন সয়াবিন তেলের লিটার যখন ১৯৮ টাকা তখন তাদের কমিশন শূন্য, তারপরও চোর না হয়ে অহেতুক ব্যবসায়ীদের চোর বানানো থেকে বিরত থাকার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তারা। সেই সাথে ব্যবসায়ীদের হয়রানি বন্ধ এবং ভোক্তা অধিকার দপ্তরের অভিযান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

বৃহসপতিবার দুপুরে রংপুর চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ ভবনে রংপুরের ভোজ্যতেলের পরিবেশকদের সাথে চেম্বার নেতৃবৃদ্দের মতবিনিময় সভায় এ আহবান জানানো হয়।

রংপুর চেম্বারের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুর সভাপতিত্বে সভায় ভোজ্যতেলের সরবরাহ ও বিভিন্ন দিক নিয়ে বক্তব্য রাখেন রংপুর চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আজিজুল ইসলাম মিন্টু, চেম্বারের পরিচালক, আভ্যন্তরীণ বাণিজ্য ও দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ বিষয়ক উপ-পরিষদের আহ্বায়ক ও নবাবগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকবর আলী, রংপুরের ভোজ্যতেলের হোলসেলার মোঃ আজিজুল ইসলাম মুকুল, গোবিন্দ সাহা, বিশ^জিৎ পাল, মোঃ লেলিন, মোঃ মোস্তাফিজার রহমান, আব্দুল হালিম, সাদেকুল ইসলাম, হিরণ কুমার মহতো, বদরুদ্দীন আহমেদ, মোঃ আব্দুল হাকিম, আশেকুর রহমান তুষার, চেম্বারের পরিচালকবৃন্দের মধ্যে মোঃ জুলফিকার আজিজ খান ভুট্টু, মোঃ সাবিহুল হক ও জাভেদ হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, সরকার নির্ধারিত দামে মোকামে ও মিলারদের নিকট থেকে ভোজ্যতেল কিনতে না পারা এবং অহেতুক প্রশাসনিক চাপ ভোজ্যতেলের বাজারকে আরো অস্থির করে তুলবে বলে মন্তব্য করেন তারা। ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীরা আরো উল্লেখ্য করেন, যখন সয়াবিন তেলের লিটার ছিল ৮০ টাকা তখন কমিশন ছিল ৪ টাকা আর এখন সয়াবিন তেলের লিটার যখন ১৯৮ টাকা তখন আমাদের কমিশন শূন্য, তারপরও চোর না হয়ে অহেতুক ব্যবসায়ীদের চোর বানানো হচ্ছে। এসব কথা বলা থেকে বিরত থাকার আহবান জানান তারা। ব্যবসায়ীরা বলেন, ইতিমধ্যে প্রশাসনিক চাপ ও ব্যবসায়ীক সুনাম নষ্টের কারনে রংপুরের ভোজ্যতেলের হোলসেলাররা বাজারে ভোজ্যতেল সরবরাহে অনীহা প্রকাশ করছেন। তারা বলেন, হোলসেলারদেরকে অবশ্যই পণ্য মজুদ করে সাপ্লাই চেইন ঠিক রাখতে হয়, গোডাউনে যদি পণ্য মজুদ না থাকে তবে সরবরাহ প্রক্রিয়া বিঘিœত হলে এর দায়-দায়িত্ব কে নেবে? । তাই তারা মজুদের নীতিমালা বাস্তবায়নপূর্বক ভোক্তা অধিদপ্তরকে অভিযান পরিচালনার অনুরোধ জানান। বক্তারা ব্যবসায়ীদের মিথ্যা অপবাদ থেকে রক্ষার্থে সরকারের প্রতি জ¦ালানি তেলের ন্যায় ভোজ্যতেলের সরবরাহ প্রক্রিয়া চালু করার অনুরোধ জানান। পরিশেষে তারা প্রশাসনিক চাপে ব্যবসায়ীদের অহেতুক আতংকিত না করে কিভাবে সরবরাহ বৃদ্ধি করে বাজার স্থিতিশীল রাখা যায় সে ব্যাপারে সরকারের আশু সহযোগিতা কামনা করেন। সরবরাহ প্রক্রিয়া নিরবিচ্ছিন্ন হলে দেশে ভোজ্য তেলের সংকট থাকবে না মর্মে মতামত ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে রংপুর চেম্বারেরর সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দিন দিন মূল্যবৃদ্ধির কারণে আমদানি কমে আসায় চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম থাকায় ভোজ্যতেলের বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। তাই ভোগ্যপণ্য নিয়ে সিন্ডিকেট বাণিজ্যের প্রতি নজর রাখার পাশাপাশি দেশে তেল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান বাড়াতে হবে। তেল আমদানিকারক বৃদ্ধি পেলে একদিকে যেমন প্রতিযোগিতা বাড়বে, অন্যদিকে ইচ্ছামতো দাম বাড়ানোর সুযোগ থাকবে না বলে মতামত ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, মুক্তবাজার অর্থনীতিতে উৎপাদন এবং বিপণনের অনেক বিকল্প থাকে। ফলে একজন উৎপাদক বা সরবরাহকারী চাইলেই পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি করে ভোক্তার ওপর প্রভাব বিস্তার করতে পারেন না। পরিশেষে তিনি ব্যবসায়ীদেরকে অহেতুক হয়রানি না করে কিভাবে ভোজ্যতেলের সরবরাহ প্রক্রিয়া ঠিক রেখে বাজার স্থিতিশীল রাখা যায় সে ব্যাপারে সরকারকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান। মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন রংপুর চেম্বারেরর পরিচালকবৃন্দ, রংপুর চেম্বারের আভ্যন্তরীণ বাণিজ্য ও দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ বিষয়ক উপ-পরিষদের সদস্যবৃন্দ এবং রংপুরের ভোজ্যতেলের পরিবেশকবৃন্দ

ছবি

রাজস্ব আদায়ে ১০ মাসে ৩১ শতাংশ পিছিয়ে এনবিআর

পতনের বৃত্তেই ঘুরপাক খাচ্ছে শেয়ারবাজার

ছবি

আনারসের পাতা থেকে তৈরি হচ্ছে সুতা; রপ্তানি হচ্ছে নেদারল্যান্ডসে

বাংলাদেশের শেয়ারবাজারে ব্রোকারেজ ব্যবসায় আসছে শ্রীলঙ্কান কোম্পানি

অফিসিয়াল ফেইসবুক পেজ খুলবে বিএসইসি

বহুজাতিক কোম্পানির ‘চক্রান্ত’ প্রতিহত করতে বিড়ি শ্রমিকদের সমাবেশ

ছবি

বাংলাদেশের মান-সম্মান বিশ্বে বেড়েছে: অর্থমন্ত্রী

বিক্রয়চাপে ২৫৩ প্রতিষ্ঠানের দর পতন

অনিয়ম ও জালিয়াতির মাধ্যমে নেয়া ঋণে সুদ মওকুফ নয়

ছবি

বৈদেশিক মুদ্রায় চাপ কমাতে শতাধিক বিলাস পণ্যে শুল্কারোপ

একদিন পরই ফের পতন শেয়ারবাজারে

ছবি

১০ কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছে ফার্স্ট লিড সিকিউরিটিজ

ব্যবসা-বাণিজ্য নতুন সম্ভাবনা খুঁজতে পশ্চিমবঙ্গ সফরে ডিসিসিআই প্রতিনিধিদল

দেশে প্রথম ‘কিচেন অ্যান্ড বাথ এক্সপো’ শুরু ২ জুন

সূচক বাড়লেও লেনদেনে ধীরগতি

ছবি

নতুন নির্দেশানা :‘বিশেষ প্রয়োজনে’ বিদেশ যেতে পারবেন ব্যাংকাররাও

ছবি

রেমিট্যান্সে প্রণোদনায় এখন নেই কাগজপত্রের ঝামেলা

ছবি

টাকার মান কমল আরও ৪০ পয়সা

পুঁজিবাজারে প্রথম ঘণ্টায় সূচক বাড়লো ১১৮ পয়েন্ট

দুই জাহাজে ভারত থেকে এলো লাখ টন গম

২০ লাখ ৫০ হাজার কোটি টাকার বাজেট প্রস্তাব অর্থনীতি সমিতির

শেয়ারবাজারে ব্যাপক পতনে দিশেহারা বিনিয়োগকারীরা

মার্জিন ঋণের সুবিধা বাড়িয়ে নির্দেশনা জারি

ছবি

ব্যাংকারদের বিদেশ যাওয়া বন্ধ করল কেন্দ্রীয় ব্যাংক

ছবি

অনুমতি ছাড়াই স্বর্ণ ব্যবসায় সাকিব, ব্যাখ্যা চায় বিএসইসি

দর পতনে সপ্তাহের শুরু

ছবি

জ্বালানির কর কমালো ভারত

ছবি

এখনই গ্যাস ও বিদ্যুতের মূল্য না বাড়ানোর আহ্বান এফবিসিসিআইয়ের

প্রয়োজনের অতিরিক্ত ও বিলাস পণ্য না কেনার আহ্বান ভোক্তা অধিদপ্তরের

ছবি

আগামী বাজেটে সারে ভর্তুকি বাড়ছে

ছবি

স্বর্ণের দামে রেকর্ড, ভ‌রি ছাড়াল ৮২ হাজার

ছবি

বিনায়ন সেনের অভিমত : জিডিপি ও মজুরির হার বাড়ার মধ্যে ‘বিশাল ব্যবধান’

ছবি

পোশাক শ্রমিকদের বেতন ও ওভারটাইম বেড়েছে, তবে তা খেয়ে ফেলছে নিত্যপণ্যের বাড়তি দামে

২১ হাজার কোটি টাকা বাজার মূলধন কমেছে শেয়ারবাজারে

সংবাদপত্র শিল্পে কর ছাড় চান সম্পাদকরা

শেয়ারবাজারে প্রি-ওপেনিং সেশন স্থগিত

tab

অর্থ-বাণিজ্য

রংপুরে চেম্বার নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়

ভোক্তা অধিকার দপ্তরের অভিযান বন্ধের দাবি

লিয়াকত আলী বাদল, রংপুর

বৃহস্পতিবার, ১২ মে ২০২২

ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীরা অভিযোগ করেছেন সয়াবিন তেলের লিটার যখন ১৯৮ টাকা তখন তাদের কমিশন শূন্য, তারপরও চোর না হয়ে অহেতুক ব্যবসায়ীদের চোর বানানো থেকে বিরত থাকার জন্য সরকারের প্রতি আহবান জানিয়েছেন তারা। সেই সাথে ব্যবসায়ীদের হয়রানি বন্ধ এবং ভোক্তা অধিকার দপ্তরের অভিযান বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

বৃহসপতিবার দুপুরে রংপুর চেম্বার অফ কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রিজ ভবনে রংপুরের ভোজ্যতেলের পরিবেশকদের সাথে চেম্বার নেতৃবৃদ্দের মতবিনিময় সভায় এ আহবান জানানো হয়।

রংপুর চেম্বারের সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটুর সভাপতিত্বে সভায় ভোজ্যতেলের সরবরাহ ও বিভিন্ন দিক নিয়ে বক্তব্য রাখেন রংপুর চেম্বারের সিনিয়র সহ-সভাপতি মোঃ আজিজুল ইসলাম মিন্টু, চেম্বারের পরিচালক, আভ্যন্তরীণ বাণিজ্য ও দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ বিষয়ক উপ-পরিষদের আহ্বায়ক ও নবাবগঞ্জ বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকবর আলী, রংপুরের ভোজ্যতেলের হোলসেলার মোঃ আজিজুল ইসলাম মুকুল, গোবিন্দ সাহা, বিশ^জিৎ পাল, মোঃ লেলিন, মোঃ মোস্তাফিজার রহমান, আব্দুল হালিম, সাদেকুল ইসলাম, হিরণ কুমার মহতো, বদরুদ্দীন আহমেদ, মোঃ আব্দুল হাকিম, আশেকুর রহমান তুষার, চেম্বারের পরিচালকবৃন্দের মধ্যে মোঃ জুলফিকার আজিজ খান ভুট্টু, মোঃ সাবিহুল হক ও জাভেদ হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, সরকার নির্ধারিত দামে মোকামে ও মিলারদের নিকট থেকে ভোজ্যতেল কিনতে না পারা এবং অহেতুক প্রশাসনিক চাপ ভোজ্যতেলের বাজারকে আরো অস্থির করে তুলবে বলে মন্তব্য করেন তারা। ভোজ্য তেল ব্যবসায়ীরা আরো উল্লেখ্য করেন, যখন সয়াবিন তেলের লিটার ছিল ৮০ টাকা তখন কমিশন ছিল ৪ টাকা আর এখন সয়াবিন তেলের লিটার যখন ১৯৮ টাকা তখন আমাদের কমিশন শূন্য, তারপরও চোর না হয়ে অহেতুক ব্যবসায়ীদের চোর বানানো হচ্ছে। এসব কথা বলা থেকে বিরত থাকার আহবান জানান তারা। ব্যবসায়ীরা বলেন, ইতিমধ্যে প্রশাসনিক চাপ ও ব্যবসায়ীক সুনাম নষ্টের কারনে রংপুরের ভোজ্যতেলের হোলসেলাররা বাজারে ভোজ্যতেল সরবরাহে অনীহা প্রকাশ করছেন। তারা বলেন, হোলসেলারদেরকে অবশ্যই পণ্য মজুদ করে সাপ্লাই চেইন ঠিক রাখতে হয়, গোডাউনে যদি পণ্য মজুদ না থাকে তবে সরবরাহ প্রক্রিয়া বিঘিœত হলে এর দায়-দায়িত্ব কে নেবে? । তাই তারা মজুদের নীতিমালা বাস্তবায়নপূর্বক ভোক্তা অধিদপ্তরকে অভিযান পরিচালনার অনুরোধ জানান। বক্তারা ব্যবসায়ীদের মিথ্যা অপবাদ থেকে রক্ষার্থে সরকারের প্রতি জ¦ালানি তেলের ন্যায় ভোজ্যতেলের সরবরাহ প্রক্রিয়া চালু করার অনুরোধ জানান। পরিশেষে তারা প্রশাসনিক চাপে ব্যবসায়ীদের অহেতুক আতংকিত না করে কিভাবে সরবরাহ বৃদ্ধি করে বাজার স্থিতিশীল রাখা যায় সে ব্যাপারে সরকারের আশু সহযোগিতা কামনা করেন। সরবরাহ প্রক্রিয়া নিরবিচ্ছিন্ন হলে দেশে ভোজ্য তেলের সংকট থাকবে না মর্মে মতামত ব্যক্ত করেন।

সভাপতির বক্তব্যে রংপুর চেম্বারেরর সভাপতি মোস্তফা সোহরাব চৌধুরী টিটু বলেন, বিশ্ববাজারে ভোজ্য তেলের দিন দিন মূল্যবৃদ্ধির কারণে আমদানি কমে আসায় চাহিদার তুলনায় সরবরাহ কম থাকায় ভোজ্যতেলের বাজারে অস্থিরতা সৃষ্টি হয়েছে। তাই ভোগ্যপণ্য নিয়ে সিন্ডিকেট বাণিজ্যের প্রতি নজর রাখার পাশাপাশি দেশে তেল আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান বাড়াতে হবে। তেল আমদানিকারক বৃদ্ধি পেলে একদিকে যেমন প্রতিযোগিতা বাড়বে, অন্যদিকে ইচ্ছামতো দাম বাড়ানোর সুযোগ থাকবে না বলে মতামত ব্যক্ত করেন। তিনি বলেন, মুক্তবাজার অর্থনীতিতে উৎপাদন এবং বিপণনের অনেক বিকল্প থাকে। ফলে একজন উৎপাদক বা সরবরাহকারী চাইলেই পণ্যের অস্বাভাবিক মূল্যবৃদ্ধি করে ভোক্তার ওপর প্রভাব বিস্তার করতে পারেন না। পরিশেষে তিনি ব্যবসায়ীদেরকে অহেতুক হয়রানি না করে কিভাবে ভোজ্যতেলের সরবরাহ প্রক্রিয়া ঠিক রেখে বাজার স্থিতিশীল রাখা যায় সে ব্যাপারে সরকারকে দ্রুত পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানান। মত বিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন রংপুর চেম্বারেরর পরিচালকবৃন্দ, রংপুর চেম্বারের আভ্যন্তরীণ বাণিজ্য ও দ্রব্যমূল্য নির্ধারণ বিষয়ক উপ-পরিষদের সদস্যবৃন্দ এবং রংপুরের ভোজ্যতেলের পরিবেশকবৃন্দ

back to top