alt

অর্থ-বাণিজ্য

৮ বছরের মধ্যে মে’তে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : রোববার, ১৯ জুন ২০২২

ছবি: সংগৃহীত

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসেবে বাড়ছে মূল্যস্ফীতি। পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে গত মে মাসে দেশে সার্বিক মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। যা এপ্রিলে ছিল ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ, যা ১৮ মাসে সর্বোচ্চ। এবার সে রেকর্ড ভেঙে ৮ বছরের সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি মে মাসে।

রোববার (১৯ জুন) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেওয়া মে মাসের ভোক্তা মূল্য সূচকের (সিপিআই) হালনাগাদ তথ্যে এমনটা বলা হয়েছে।

বিবিএস জানায়, মে মাসে খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৬ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ। গত কয়েক মাসের মতো মে মাসে শহরের চেয়ে গ্রামে বেশি মূল্যস্ফীতি হয়েছে। এই মাসে গ্রামে মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৭ দশমিক ৯৪ শতাংশ। আর শহরে হয়েছে ৬ দশমিক ৪৯ শতাংশ। অর্থাৎ শহরের চেয়ে গ্রাম এলাকায় পণ্যমূল্য ও অন্যান্য সেবার দাম বেড়েছে বেশি।

বিবিএস আরও জানায়, নিত্যপণ্যের প্রভাবে মে মাসে খাদ্যপণ্যে মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে হয়েছে ৮ দশমিক ৩০ শতাংশ, যা গত মাসে ছিল মাত্র ৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। তবে একই মাসে খাদ্য বহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতির হার কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ০৮ শতাংশ, যা গত মাসে ছিল ৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ। মে মাসে সাধারণ মূল্যস্ফীতির হার হয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। গত মাসে যা ছিল ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ।

এদিকে বাজারে লাগাম ছাড়া নিত্যপণ্যের দাম। তবুও ক্রেতাদের কিছুটা স্বস্তি দিতে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশের মধ্যে বেঁধে রাখার প্রত্যাশা করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। অথচ বাজেট ঘোষণার পরেই রেকর্ড হারে বেড়েছে খাদ্যপণ্যের দাম।

বিবিএস এর প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, ৪৭টি অত্যাবশ্যক পণ্যের মধ্যে অধিকাংশের দাম বেড়েছে এক মাসের ব্যবধানে। মে মাসে প্রতি কেজি মিনিকেট চালের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২ টাকা ১৫ পয়সা, গত মাসে যা ছিল ৬৯ টাকা ১১ পয়সা। একইভাবে পাইজাম বেড়ে হয়েছে ৬২ টাকা ৭২ পয়সা, গত মাসে যা ছিল ৫৮ টাকা ০৫ পয়সা। দাম বেড়েছে বোরো, আটা, মুগডাল, গুড়, রুই মাছ, ইলিশ, শিং মাছ, মাংস, ডিম, দুধের দাম। সয়াবিন, শুকনা মরিচ, পেঁয়াজ, আদা, রসুন, আলু, কাঁচা মরিচ, পেঁপে, দুধ, কাপড়, মেলামাইনের বাসনের দামও চড়া। সিমেন্ট, কেরোসিন, নারকেল তেল, সিগারেট ও সাদা কাগজের দামও চড়া। তবে বিবিএস এর হিসেবে দেখা গেছে, ম্যাচ ও ব্লেডের দাম বাড়েনি।

এর আগে ২০১৪ সালের মে মাসে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সাধারণ মূল্যস্ফীতি হয়েছিল ৭ দশমিক ৪৮ শতাংশ। এরপর আর কখনও এতটা চড়েনি অর্থনীতির এই গুরুত্বপূর্ণ সূচক।

মূল্যস্ফীতি নিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে অভ্যন্তরীণ বাজারে কঠোর তদারকি করে দেশে উৎপাদিত পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকানো সম্ভব। প্রয়োজন চালের দাম সহনীয় রাখতে বাজার কৌশল নির্ধারণ করা; পাশাপাশি মূল্যস্ফীতির চাপে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত গরিব মানুষের বাজেটের মাধ্যমে নগদ ও খাদ্যসহায়তা দিয়ে সুরক্ষা দিতে হবে। কেননা, মূল্যস্ফীতি একধরনের করের মতো। জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মজুরি বা আয় না বাড়লে সীমিত আয়ের মানুষের ওপর চাপ বাড়ে। তাদের প্রকৃত ক্রয়ক্ষমতা কমে যায়।

আশপাশের দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতি তুলনামূলক কম। গত এপ্রিলে বাংলাদেশে মূল্যস্ফীতি ৬ দশমিক ২৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে গত এপ্রিলে ভারতে ৭ দশমিক ৭৮ শতাংশ, পাকিস্তানে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ, শ্রীলঙ্কায় ২৯ দশমিক ৮ শতাংশ ও নেপালে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতি হয়েছে। আর গত এপ্রিলে যুক্তরাজ্যে ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ সাড়ে ৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যস্ফীতি উঠেছে সাড়ে ৮ শতাংশে।

সাম্প্রতিক সময়

ছবি

সরকারের ইঙ্গিতের মধ্যেই তড়িঘড়ি করে ভোজ্যতেলের দাম কমালো ব্যবসায়ীরা

ছবি

এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরও কয়েক বছর বাজার সুবিধা প্রাপ্তির আশা করছি

ডন গ্লোবালের হাত ধরে চালু হতে যাচ্ছে প্রথম ইটিএফ

বড় পতন শেয়ারবাজারে, লেনদেন নেমেছে এক মাস আগের অবস্থানে

সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের জন্য এফবিসিসিআই’র ত্রাণ

ছবি

লিটারে ৬ টাকা কমল সয়াবিন তেলের দাম

ছবি

সয়াবিন তেলের দাম দুদিনের মধ্যে কমতে পারে : বাণিজ্য সচিব

ছবি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন : বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানালো বিশ্বব্যাংক

ভোজ্যতেলের দাম কমানোর দাবি ক্যাবের

বেসিক বেতন ২০ হাজার টাকা চায় গার্মেন্ট শ্রমিকরা

সাপ্তাহিক লেনদেনের ২৮ শতাংশ ১০ কোম্পানির শেয়ারে

ছবি

ডুয়্যাল কারেন্সি মাস্টার কার্ড নিয়ে এলো ইসলামী ব্যাংক

শেষ হলো চতুর্থ ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো

ঢাকায় তিন দিনব্যাপী বাইক শো শুরু

‘শেয়ারবাজার থেকে মূলধন তুললে ব্যবসা পরিচালনা সহজ হবে’

ছবি

দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম সোয়েটার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ডিএসএসএল

ছবি

বিশ্ববাজারে কমেছে তেলের দাম, দেশে সমন্বয়ের দাবি

ছবি

ঊর্ধ্বমুখী আলু, ঝাঁজ বেড়েছে পেঁয়াজের

বন্ড ছাড়বে মালেক স্পিনিং

ছবি

পাকিস্তানের অর্থনীতি আমাদের চেয়ে ৪০ গুণ নিচে : বাণিজ্যমন্ত্রী

ব্যাংকে মুক্তিযোদ্ধা-বয়স্কদের দ্রুত সেবা দিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা

দর পতনের শীর্ষে অ্যাপেক্স ট্যানারি

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে সূচক সামান্য বাড়লো

আগ্রহের শীর্ষে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স

মেরিকোর লেনদেন চালু রোববার

ছবি

শিল্প খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ৩৩.৭৫%

রাশিয়া : চীন-ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য পুনর্বিন্যাস করছে

ছবি

আইডিয়া এবং বিইউপি: সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

ছবি

দেশে কোটিপতিদের সংখ্যা বাড়ছে

পতনের বৃত্ত থেকে উত্থানে পুঁজিবাজার

ভবন নির্মাণে অস্বাভাবিক ব্যয়, আছিয়া সি ফুডসকে শোকজ

নাভানা ফার্মাসিটিক্যালসের বিডিং শুরু ৪ জুলাই

ছবি

মুদ্রানীতি আসছে ৩০ জুন

ওয়ান ব্যাংকের ৪০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

ছবি

চড়া দামে গোখাদ্য কিনে ঈদে পর্যাপ্ত দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় চাঁদপুরের খামারিরা

ছবি

ই-ক্যাব নির্বাচন: আবারও সভাপতি শমী কায়সার, তমাল সাধারণ সম্পাদক

tab

অর্থ-বাণিজ্য

৮ বছরের মধ্যে মে’তে সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

ছবি: সংগৃহীত

রোববার, ১৯ জুন ২০২২

বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) হিসেবে বাড়ছে মূল্যস্ফীতি। পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে গত মে মাসে দেশে সার্বিক মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। যা এপ্রিলে ছিল ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ, যা ১৮ মাসে সর্বোচ্চ। এবার সে রেকর্ড ভেঙে ৮ বছরের সর্বোচ্চ মূল্যস্ফীতি মে মাসে।

রোববার (১৯ জুন) বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর দেওয়া মে মাসের ভোক্তা মূল্য সূচকের (সিপিআই) হালনাগাদ তথ্যে এমনটা বলা হয়েছে।

বিবিএস জানায়, মে মাসে খাদ্যবহির্ভূত মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৬ দশমিক শূন্য ৮ শতাংশ। গত কয়েক মাসের মতো মে মাসে শহরের চেয়ে গ্রামে বেশি মূল্যস্ফীতি হয়েছে। এই মাসে গ্রামে মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৭ দশমিক ৯৪ শতাংশ। আর শহরে হয়েছে ৬ দশমিক ৪৯ শতাংশ। অর্থাৎ শহরের চেয়ে গ্রাম এলাকায় পণ্যমূল্য ও অন্যান্য সেবার দাম বেড়েছে বেশি।

বিবিএস আরও জানায়, নিত্যপণ্যের প্রভাবে মে মাসে খাদ্যপণ্যে মূল্যস্ফীতির হার বেড়ে হয়েছে ৮ দশমিক ৩০ শতাংশ, যা গত মাসে ছিল মাত্র ৬ দশমিক ২৩ শতাংশ। তবে একই মাসে খাদ্য বহির্ভূত খাতে মূল্যস্ফীতির হার কমে দাঁড়িয়েছে ৬ দশমিক ০৮ শতাংশ, যা গত মাসে ছিল ৬ দশমিক ৩৯ শতাংশ। মে মাসে সাধারণ মূল্যস্ফীতির হার হয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। গত মাসে যা ছিল ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ।

এদিকে বাজারে লাগাম ছাড়া নিত্যপণ্যের দাম। তবুও ক্রেতাদের কিছুটা স্বস্তি দিতে ২০২২-২৩ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতির হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশের মধ্যে বেঁধে রাখার প্রত্যাশা করেছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। অথচ বাজেট ঘোষণার পরেই রেকর্ড হারে বেড়েছে খাদ্যপণ্যের দাম।

বিবিএস এর প্রকাশিত তথ্যে দেখা গেছে, ৪৭টি অত্যাবশ্যক পণ্যের মধ্যে অধিকাংশের দাম বেড়েছে এক মাসের ব্যবধানে। মে মাসে প্রতি কেজি মিনিকেট চালের দাম বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭২ টাকা ১৫ পয়সা, গত মাসে যা ছিল ৬৯ টাকা ১১ পয়সা। একইভাবে পাইজাম বেড়ে হয়েছে ৬২ টাকা ৭২ পয়সা, গত মাসে যা ছিল ৫৮ টাকা ০৫ পয়সা। দাম বেড়েছে বোরো, আটা, মুগডাল, গুড়, রুই মাছ, ইলিশ, শিং মাছ, মাংস, ডিম, দুধের দাম। সয়াবিন, শুকনা মরিচ, পেঁয়াজ, আদা, রসুন, আলু, কাঁচা মরিচ, পেঁপে, দুধ, কাপড়, মেলামাইনের বাসনের দামও চড়া। সিমেন্ট, কেরোসিন, নারকেল তেল, সিগারেট ও সাদা কাগজের দামও চড়া। তবে বিবিএস এর হিসেবে দেখা গেছে, ম্যাচ ও ব্লেডের দাম বাড়েনি।

এর আগে ২০১৪ সালের মে মাসে পয়েন্ট টু পয়েন্ট ভিত্তিতে সাধারণ মূল্যস্ফীতি হয়েছিল ৭ দশমিক ৪৮ শতাংশ। এরপর আর কখনও এতটা চড়েনি অর্থনীতির এই গুরুত্বপূর্ণ সূচক।

মূল্যস্ফীতি নিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণে অভ্যন্তরীণ বাজারে কঠোর তদারকি করে দেশে উৎপাদিত পণ্যের মূল্যবৃদ্ধি ঠেকানো সম্ভব। প্রয়োজন চালের দাম সহনীয় রাখতে বাজার কৌশল নির্ধারণ করা; পাশাপাশি মূল্যস্ফীতির চাপে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত গরিব মানুষের বাজেটের মাধ্যমে নগদ ও খাদ্যসহায়তা দিয়ে সুরক্ষা দিতে হবে। কেননা, মূল্যস্ফীতি একধরনের করের মতো। জিনিসপত্রের মূল্যবৃদ্ধির সঙ্গে পাল্লা দিয়ে মজুরি বা আয় না বাড়লে সীমিত আয়ের মানুষের ওপর চাপ বাড়ে। তাদের প্রকৃত ক্রয়ক্ষমতা কমে যায়।

আশপাশের দেশগুলোর তুলনায় বাংলাদেশের মূল্যস্ফীতি তুলনামূলক কম। গত এপ্রিলে বাংলাদেশে মূল্যস্ফীতি ৬ দশমিক ২৯ শতাংশে দাঁড়িয়েছে। অন্যদিকে গত এপ্রিলে ভারতে ৭ দশমিক ৭৮ শতাংশ, পাকিস্তানে ১৩ দশমিক ৪ শতাংশ, শ্রীলঙ্কায় ২৯ দশমিক ৮ শতাংশ ও নেপালে ৭ দশমিক ২৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতি হয়েছে। আর গত এপ্রিলে যুক্তরাজ্যে ৪০ বছরের মধ্যে সর্বোচ্চ সাড়ে ৮ শতাংশ মূল্যস্ফীতি হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে মূল্যস্ফীতি উঠেছে সাড়ে ৮ শতাংশে।

সাম্প্রতিক সময়

back to top