alt

অর্থ-বাণিজ্য

চড়া দামে গোখাদ্য কিনে ঈদে পর্যাপ্ত দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় চাঁদপুরের খামারিরা

অমরেশ দত্ত জয়, চাঁদপুর : বুধবার, ২২ জুন ২০২২

চাঁদপুরে চড়া দামে গোখাদ্য কিনে গবাদিপশু লালন পালন করলেও আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহায় সে দাম পুষিয়ে নিতে পারবে কিনা শঙ্কায় রয়েছেন খামারিরা। তাই অনেকে গোখাদ্য হিসেবে গম ভূষি কমিয়ে দিয়ে খাদ্য খরচ কমাতে শুকনো খড় ও উন্নতজাতের ঘাস খাইয়ে গরু মোটাতাজা করছেন। চাঁদপুরের ডেইরি খামার ৯২৫ টি এবং গরু মোটাতাজাকরণ খামার ২ হাজার ২শ’ ১১টি।

চাঁদপুরের ডেইরি খামারি হাসিবুল হাসান মুন্না বলেন, খুব ক্ষতির মধ্যে আছি। আগে যেখানে গমের ভূষির বস্তা ১১০০ টাকা ছিলো তা এখন ২২০০ থেকে ২৩০০ টাকা। ঘাসের উপর নির্ভর করে ত চলা যায় না। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই দ্বীগুন দামে গোখাদ্য কিনে খামার পরিচালনা করতে হচ্ছে।

২২ জুন বুধবার জেলা প্রাণীসম্পদ কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে চাঁদপুরে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর চাহিদা ৭০ হাজার। আর জেলার ৮ উপজেলায় গবাদিপশু মজুদ আছে মাত্র ২৭ হাজার ৯৬১ টি।

প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, চাঁদপুরের ৮ উপজেলায় খামারি রয়েছে ২ হাজার ৬৩৪ জন। ২৭ হাজার ৯৬১ টি গবাদিপশুর মধ্যে ষাঁড় রয়েছে ১২ হাজার ৫৩ টি, বলদ ৫ হাজার ৭৭৩ টি, গাভি ৩ হাজার ৩৩৩ টি, মহিষ ২২ টি, ছাগল ৬ হাজার ১২৯ টি, ভেড়া ৫৩৫ টি, অন্যান্য ১১৬ টি।

এরমধ্যে চাঁদপুর সদরে ৪১৩ জন খামারির ২ হাজার ৪৮১টি ষাড়, ২২৭ টি বলদ, ৩৫৩টি গাভি, ৫৬১টি ছাগল রয়েছে।

মতলব দক্ষিণে ১২৬ জন খামারির ৫৬৬টি ষাড়, ২১২ টি বলদ, ১৬৬টি গাভি, ৩৮৬ টি ছাগল, ৬৪ টি বলদ ও অন্যান্য ১১৬ টি প্রাণী রয়েছে।

মতলব উত্তরে ২৫৯ জন খামারির ৯৩৬টি ষাড়, ৪৬৮ টি বলদ, ৩৬১টি গাভি, ৩৬১ টি ছাগল, ১৪৯ টি ভেড়া রয়েছে।

কচুয়ায় ৪১৬ জন খামারির ২ হাজার ৫২টি ষাড়, ৬১২ টি বলদ, ৫০৪টি গাভি, ১ হাজার ৩৭৫ টি ছাগল ও ৯৬ টি ভেড়া রয়েছে।

শাহরাস্তিতে ৩৭৯ জন খামারির ১ হাজার ১৪৪টি ষাড়, ৮৪৭টি বলদ, ৬৯১টি গাভি, ২২টি মহিষ, ৩৫৫ টি ছাগল, ১৯৬ টি ভেড়া রয়েছে।

হাজীগঞ্জে ৪০৪ জন খামারির ২ হাজার ৮৩টি ষাড়, ৩ হাজার ৫ টি বলদ, ৭৩২টি গাভি, ২ হাজার ৩৯৪ টি ছাগল, ৩০ টি ভেড়া রয়েছে।

ফরিদগঞ্জে ৩৫৭ জন খামারির ১ হাজার ৮৮১টি ষাড়, ১৫৫ টি বলদ, ২৪১টি গাভি, ৩৫৩ টি ছাগল রয়েছে।

হাইমচরে ২৮০ জন খামারির ৯১০টি ষাড়, ২৮৭ টি বলদ, ২৮৫টি গাভি, ৩৪৪ টি ছাগল রয়েছে।

লক্ষিপুরের ডেইরি ফার্ম মালিক আলাউদ্দিন বেপারী বলেন, গরুগুলোকে চড়া দামের গোখাদ্য খাওয়াতে হচ্ছে। করোনাকালিন অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি। বন্যা না হলে এবং পরিবেশ পরিস্থিতি ভালো থাকলেও চড়া দামে খাইয়ে পরে তা পুষিয়ে নিতে পারবো কিনা শঙ্কায় আছি। তাই সরকারকে গোখাদ্যের মূল্য নির্ধারণে আমরা আরো একটু সহনশীল হওয়ার দাবী জানাচ্ছি।

এসব বিষয়ে চাঁদপুর জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা ডা. জুলহাস আহমেদ বলেন, আমরা খামারিদের গোখাদ্যে গম ভূষির বিকল্প হিসেবে উন্নত জাতের ঘাষ চাষে পরামর্শ দিচ্ছি।

তিনি বলেন, আমাদের তালিকার প্রায় সবারই ৫ টির অধিক গবাদিপশু রয়েছে। এছাড়াও যারা ১/২টি গবাদিপশু পালন করেন তাদেরকেও একই পরামর্শ দিচ্ছি। যদি খামারিরা বাজারের গোখাদ্য কমিয়ে শুকনো খর ও উন্নতাজাতের ঘাস খাইয়ে গবাদি পশু লালন পালন করেন, তাহলে আশা করছি কোরবানি ঈদে তারা গরু বিক্রিতে করোনার ধকল সামলে উঠতে পারবেন।

ছবি

সরকারের ইঙ্গিতের মধ্যেই তড়িঘড়ি করে ভোজ্যতেলের দাম কমালো ব্যবসায়ীরা

ছবি

এলডিসি গ্রাজুয়েশনের পরও কয়েক বছর বাজার সুবিধা প্রাপ্তির আশা করছি

ডন গ্লোবালের হাত ধরে চালু হতে যাচ্ছে প্রথম ইটিএফ

বড় পতন শেয়ারবাজারে, লেনদেন নেমেছে এক মাস আগের অবস্থানে

সিলেট ও সুনামগঞ্জে বন্যার্তদের জন্য এফবিসিসিআই’র ত্রাণ

ছবি

লিটারে ৬ টাকা কমল সয়াবিন তেলের দাম

ছবি

সয়াবিন তেলের দাম দুদিনের মধ্যে কমতে পারে : বাণিজ্য সচিব

ছবি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন : বাংলাদেশকে অভিনন্দন জানালো বিশ্বব্যাংক

ভোজ্যতেলের দাম কমানোর দাবি ক্যাবের

বেসিক বেতন ২০ হাজার টাকা চায় গার্মেন্ট শ্রমিকরা

সাপ্তাহিক লেনদেনের ২৮ শতাংশ ১০ কোম্পানির শেয়ারে

ছবি

ডুয়্যাল কারেন্সি মাস্টার কার্ড নিয়ে এলো ইসলামী ব্যাংক

শেষ হলো চতুর্থ ঢাকা কমার্শিয়াল অটোমোটিভ শো

ঢাকায় তিন দিনব্যাপী বাইক শো শুরু

‘শেয়ারবাজার থেকে মূলধন তুললে ব্যবসা পরিচালনা সহজ হবে’

ছবি

দক্ষিণ এশিয়ার বৃহত্তম সোয়েটার প্রস্তুতকারক প্রতিষ্ঠান ডিএসএসএল

ছবি

বিশ্ববাজারে কমেছে তেলের দাম, দেশে সমন্বয়ের দাবি

ছবি

ঊর্ধ্বমুখী আলু, ঝাঁজ বেড়েছে পেঁয়াজের

বন্ড ছাড়বে মালেক স্পিনিং

ছবি

পাকিস্তানের অর্থনীতি আমাদের চেয়ে ৪০ গুণ নিচে : বাণিজ্যমন্ত্রী

ব্যাংকে মুক্তিযোদ্ধা-বয়স্কদের দ্রুত সেবা দিতে বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা

দর পতনের শীর্ষে অ্যাপেক্স ট্যানারি

সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে সূচক সামান্য বাড়লো

আগ্রহের শীর্ষে মেঘনা ইন্স্যুরেন্স

মেরিকোর লেনদেন চালু রোববার

ছবি

শিল্প খাতে ঋণের প্রবৃদ্ধি ৩৩.৭৫%

রাশিয়া : চীন-ভারতের সঙ্গে বাণিজ্য পুনর্বিন্যাস করছে

ছবি

আইডিয়া এবং বিইউপি: সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর

ছবি

দেশে কোটিপতিদের সংখ্যা বাড়ছে

পতনের বৃত্ত থেকে উত্থানে পুঁজিবাজার

ভবন নির্মাণে অস্বাভাবিক ব্যয়, আছিয়া সি ফুডসকে শোকজ

নাভানা ফার্মাসিটিক্যালসের বিডিং শুরু ৪ জুলাই

ছবি

মুদ্রানীতি আসছে ৩০ জুন

ওয়ান ব্যাংকের ৪০০ কোটি টাকার বন্ড অনুমোদন

ছবি

ই-ক্যাব নির্বাচন: আবারও সভাপতি শমী কায়সার, তমাল সাধারণ সম্পাদক

ছবি

রেমিট্যান্স ২০ দশমিক ১৬ বিলিয়ন ডলার ছাড়ালো

tab

অর্থ-বাণিজ্য

চড়া দামে গোখাদ্য কিনে ঈদে পর্যাপ্ত দাম পাওয়া নিয়ে শঙ্কায় চাঁদপুরের খামারিরা

অমরেশ দত্ত জয়, চাঁদপুর

বুধবার, ২২ জুন ২০২২

চাঁদপুরে চড়া দামে গোখাদ্য কিনে গবাদিপশু লালন পালন করলেও আসন্ন পবিত্র ঈদুল আযহায় সে দাম পুষিয়ে নিতে পারবে কিনা শঙ্কায় রয়েছেন খামারিরা। তাই অনেকে গোখাদ্য হিসেবে গম ভূষি কমিয়ে দিয়ে খাদ্য খরচ কমাতে শুকনো খড় ও উন্নতজাতের ঘাস খাইয়ে গরু মোটাতাজা করছেন। চাঁদপুরের ডেইরি খামার ৯২৫ টি এবং গরু মোটাতাজাকরণ খামার ২ হাজার ২শ’ ১১টি।

চাঁদপুরের ডেইরি খামারি হাসিবুল হাসান মুন্না বলেন, খুব ক্ষতির মধ্যে আছি। আগে যেখানে গমের ভূষির বস্তা ১১০০ টাকা ছিলো তা এখন ২২০০ থেকে ২৩০০ টাকা। ঘাসের উপর নির্ভর করে ত চলা যায় না। তাই অনেকটা বাধ্য হয়েই দ্বীগুন দামে গোখাদ্য কিনে খামার পরিচালনা করতে হচ্ছে।

২২ জুন বুধবার জেলা প্রাণীসম্পদ কার্যালয় থেকে প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে চাঁদপুরে কোরবানিযোগ্য গবাদিপশুর চাহিদা ৭০ হাজার। আর জেলার ৮ উপজেলায় গবাদিপশু মজুদ আছে মাত্র ২৭ হাজার ৯৬১ টি।

প্রাপ্ত তথ্যে দেখা যায়, চাঁদপুরের ৮ উপজেলায় খামারি রয়েছে ২ হাজার ৬৩৪ জন। ২৭ হাজার ৯৬১ টি গবাদিপশুর মধ্যে ষাঁড় রয়েছে ১২ হাজার ৫৩ টি, বলদ ৫ হাজার ৭৭৩ টি, গাভি ৩ হাজার ৩৩৩ টি, মহিষ ২২ টি, ছাগল ৬ হাজার ১২৯ টি, ভেড়া ৫৩৫ টি, অন্যান্য ১১৬ টি।

এরমধ্যে চাঁদপুর সদরে ৪১৩ জন খামারির ২ হাজার ৪৮১টি ষাড়, ২২৭ টি বলদ, ৩৫৩টি গাভি, ৫৬১টি ছাগল রয়েছে।

মতলব দক্ষিণে ১২৬ জন খামারির ৫৬৬টি ষাড়, ২১২ টি বলদ, ১৬৬টি গাভি, ৩৮৬ টি ছাগল, ৬৪ টি বলদ ও অন্যান্য ১১৬ টি প্রাণী রয়েছে।

মতলব উত্তরে ২৫৯ জন খামারির ৯৩৬টি ষাড়, ৪৬৮ টি বলদ, ৩৬১টি গাভি, ৩৬১ টি ছাগল, ১৪৯ টি ভেড়া রয়েছে।

কচুয়ায় ৪১৬ জন খামারির ২ হাজার ৫২টি ষাড়, ৬১২ টি বলদ, ৫০৪টি গাভি, ১ হাজার ৩৭৫ টি ছাগল ও ৯৬ টি ভেড়া রয়েছে।

শাহরাস্তিতে ৩৭৯ জন খামারির ১ হাজার ১৪৪টি ষাড়, ৮৪৭টি বলদ, ৬৯১টি গাভি, ২২টি মহিষ, ৩৫৫ টি ছাগল, ১৯৬ টি ভেড়া রয়েছে।

হাজীগঞ্জে ৪০৪ জন খামারির ২ হাজার ৮৩টি ষাড়, ৩ হাজার ৫ টি বলদ, ৭৩২টি গাভি, ২ হাজার ৩৯৪ টি ছাগল, ৩০ টি ভেড়া রয়েছে।

ফরিদগঞ্জে ৩৫৭ জন খামারির ১ হাজার ৮৮১টি ষাড়, ১৫৫ টি বলদ, ২৪১টি গাভি, ৩৫৩ টি ছাগল রয়েছে।

হাইমচরে ২৮০ জন খামারির ৯১০টি ষাড়, ২৮৭ টি বলদ, ২৮৫টি গাভি, ৩৪৪ টি ছাগল রয়েছে।

লক্ষিপুরের ডেইরি ফার্ম মালিক আলাউদ্দিন বেপারী বলেন, গরুগুলোকে চড়া দামের গোখাদ্য খাওয়াতে হচ্ছে। করোনাকালিন অনেক ক্ষতির সম্মুখীন হয়েছি। বন্যা না হলে এবং পরিবেশ পরিস্থিতি ভালো থাকলেও চড়া দামে খাইয়ে পরে তা পুষিয়ে নিতে পারবো কিনা শঙ্কায় আছি। তাই সরকারকে গোখাদ্যের মূল্য নির্ধারণে আমরা আরো একটু সহনশীল হওয়ার দাবী জানাচ্ছি।

এসব বিষয়ে চাঁদপুর জেলা প্রাণিসম্পদ দপ্তরের প্রশিক্ষণ কর্মকর্তা ডা. জুলহাস আহমেদ বলেন, আমরা খামারিদের গোখাদ্যে গম ভূষির বিকল্প হিসেবে উন্নত জাতের ঘাষ চাষে পরামর্শ দিচ্ছি।

তিনি বলেন, আমাদের তালিকার প্রায় সবারই ৫ টির অধিক গবাদিপশু রয়েছে। এছাড়াও যারা ১/২টি গবাদিপশু পালন করেন তাদেরকেও একই পরামর্শ দিচ্ছি। যদি খামারিরা বাজারের গোখাদ্য কমিয়ে শুকনো খর ও উন্নতাজাতের ঘাস খাইয়ে গবাদি পশু লালন পালন করেন, তাহলে আশা করছি কোরবানি ঈদে তারা গরু বিক্রিতে করোনার ধকল সামলে উঠতে পারবেন।

back to top