alt

অর্থ-বাণিজ্য

ইভ্যালির সামনে শত শত পাওনাদারের ভিড়

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক : বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

শত কোটি টাকার দেনার দায়ে বন্ধ হয়ে যাওয়া ই-কমার্স সাইট ইভ্যালির মূল মালিক মোহাম্মদ রাসেলের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার খবরে ঢাকার ধানমন্ডিতে এ কোম্পানির কার্যালয়ের সামনে ভিড় করেছেন শত শত পাওনাদার।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেলের স্ত্রী ও কোম্পানির সাবেক চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন আদালত গঠিত পরিচালনা পর্ষদের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেবেন বলে জানিয়েছেন ওই পর্ষদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীর মিলন।

ধানমন্ডিতে ইভ্যালির অফিসের সামনে গিয়ে দেখা গেছে, কার্যালয় খোলার খবর পেয়ে সকালেই সেখানে শত শত পাওনাদার জমায়েত হয়েছেন। নিজেদের পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ার পাশাপাশি ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেলের মুক্তির দাবিও জানাচ্ছেন তারা।

‘ইভ্যালি মার্চেন্ট অ্যান্ড কনজিউমার কো-অর্ডিনেশন’ কমিটির ব্যানার নিয়ে হাজির হয়েছেন এই পাওনাদাররা। ইভ্যালি চালু করার জন্য আদালতকে ধন্যবাদ জানিয়ে তারা ব্যানারও ছাপিয়েছেন।

সকাল ১০টার দিকে ধানমন্ডিতে ইভ্যালি কার্যালয়ে অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীরকে দেখা গেলেও তখনও উপস্থিত হননি শামিমা নাসরিন। সাবেক এই চেয়ারম্যান দুপুরের পর আসতে পারেন বলে জানা গেছে।

মাহবুব কবীর সে সময় সাংবাদিকদের বলেন, ‘গ্রাহকের টাকা উদ্ধার করার দায়িত্ব আমাদের দেয়া হয়নি। ইভ্যালিতে কেন সমস্যা হয়েছে, কতটা সমস্যা হয়েছে, উত্তরণের উপায় কী এসব বিষয়ে যাচাই-বাছাই করতেই আমাদেরকে বলা হয়েছিল। আমরা চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি, প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ পেলে এই প্রতিষ্ঠান আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারবে।’

ইভ্যালি মার্চেন্ট অ্যান্ড কনজিউমার কো-অর্ডিনেশন কমিটির অন্যতম সমন্বয়ক সাকিব হাসান তাদের পাওনা টাকা উদ্ধারের প্রত্যাশাও করছেন।

তিনি বলেন, ‘রাসেল পরিবারের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করায় আমরা আশাবাদী। ইভ্যালি ব্যবসা চালাতে পারলে আমাদের টাকাগুলো ধীরে ধীরে উদ্ধার হয়ে আসবে।’

তবে আদালত গঠিত পর্ষদের চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক এ বিষয়ে একমত নন।

তিনি বলেন, ‘গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণা করার জন্যই রাসেল সাহেব ইভ্যালি নামক প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছিলেন। ব্যবসার প্রতিটি স্তরেই তিনি প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছিলেন। এই পরিবারের নেতৃত্বে এ প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের টাকা ফেরত দিতে পারবে বলে আমার মনে হয় না।’ গতবছর বন্ধ হয়ে যাওয়ার আগে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ইভ্যালির পাঠানো সর্বশেষ প্রতিবেদনে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটির মোট চলতি দায় ছিল তখন ৫৪৩ কোটি টাকা, যার মধ্যে মার্চেন্ট বা পণ্য সরবরাহকারীরা পাবেন ২০৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। আর গ্রাহকদের পাওনা ৩১১ কোটি টাকা।

গ্রাহক ঠকানোর মামলায় ইভ্যালির উদ্যোক্তা রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে যেতে হয়েছিল। শামীমা গত এপ্রিল মাসে জামিনে বের হতে পারলেও এখনও বন্দীই আছেন রাসেল।

গত বছরের অক্টোবরে আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারক এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে চেয়ারম্যান করে ইভ্যালির জন্য একটি পর্ষদ গঠন করে দিয়েছিল আদালত। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব মিলনকে করা হয়েছিল ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

পর্ষদে সদস্য হিসেবে ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব মো. রেজাউল আহসান, চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

মূলত প্রতিষ্ঠানটির প্রকৃত দায়-দেনা, কাজের ধরন ও শত কোটি টাকার বকেয়া থেকে উদ্ধারের পথ বের করার উপায় আছে কি না, তা দেখাই ছিল এই পর্ষদের উদ্দেশ্য।

পর্ষদ তাদের কাজ শেষ করায় এখন আবার মূল মালিকদের কাছেই ফেরত যাচ্ছে ইভ্যালি।

ছবি

ইভ্যালির দেনা প্রায় ৪০০ কোটি টাকা: শামীমা নাসরিন

ছবি

পরীক্ষামূলকভাবে সরকারি সিকিউরিটিজের লেনদেন শুরু ১০ অক্টোবর

ছবি

জিডিপি প্রবৃদ্ধি হতে পারে ৬.১ শতাংশ: বিশ্ব ব্যাংক

মিউচ্যুয়াল ফান্ডে দারুণ বিনিয়োগ

খুব সহজেই ইভ্যালিতে বিনিয়োগ আসা সম্ভব : শামীমা নাসরিন

সূচক বাড়লেও টাকার পরিমাণে লেনদেন কমেছে

ছবি

টাকা এক জায়গায় বিনিয়োগ করবেন না : ড. রুমানা ইসলাম

চট্টগ্রাম বন্দর কর্তৃপক্ষের কাছে এনবিআর-এর পাওনা প্রায় ৪৬৮ কোটি টাকা

ছবি

তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত: দাম বাড়বে

সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতি ৯ দশমিক ১ শতাংশে নেমেছে

ছবি

ডিজেলের দর পুনর্নির্ধারণের জন্য প্রধানমন্ত্রীকে বিজিএমইএর চিঠি

ছবি

সেপ্টেম্বরে ইএফডিতে ভ্যাট এলো ৩০ কোটি টাকা

শীঘ্রই ঘুরে দাঁড়াবে রপ্তানি আয় : পরিকল্পনামন্ত্রী

আইপিওতে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ

ছবি

আইপিওতে আসার প্রস্তুতি নিচ্ছে ডিএসই

কিশোরগঞ্জে মাসব্যাপী বাণিজ্যমেলা উদ্বোধন

ছবি

দুই মাসে বাণিজ্য ঘাটতি ৪৫৫ কোটি ৫০ লাখ ডলার

রেগুলেটর হিসেবে আমাদের কাজই ক্যাপিটাল মার্কেটকে সহায়তা করা : গভর্নর

সূচকের পতন, লেনদেনও কমেছে

স্বীকৃতি পেল আরও দুটি কারখানা, সবুজ কারখানার শীর্ষে বাংলাদেশ

ছবি

সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমল ১৪ টাকা

ছবি

রবির নতুন সিইও রাজীব শেঠি

ভোজ্য তেলে ভ্যাট মওকুফ : আরো ৯ মাস চায় বানিজ্য মন্ত্রনালয়

চিনির দাম বাড়াতে চায় ব্যবসায়ীরা

ক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা জানালেন, বাংলাদেশে উদ্যোক্তাদের ভোগান্তির শেষ নেই

ছবি

বিদ্যুতের দাম বাড়ছে, ঘোষণা আগামী সপ্তাহে

ছবি

কমলো রপ্তানি আয়, যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপে মূল্যস্ফীতির প্রভাব

ছবি

বিএমসিসিআই প্রতিনিধিদলের সাথে মালয়েশিয়ার পেনাং রাজ্যের গভর্নরের বৈঠক

ছবি

৭ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন রেমিট্যান্স

ছবি

রিজার্ভ চুরি: তদন্ত কর্মকর্তাকে আদালতে তলব

ছবি

রপ্তানিতে যুদ্ধের ধাক্কা, সেপ্টেম্বরে কমেছে ৬.২৫ শতাংশ

ছবি

১২ কেজি এলপিজির দাম কমলো ৩৫ টাকা

ছবি

১০ মিউচ্যুয়াল ফান্ডের নগদ লভ্যাংশ প্রেরণ

ছবি

উঠে গেল ভোজ্যতেলের ভ্যাট মওকুফ সুবিধা

ছবি

ইউরোপে পোশাক রপ্তানি বেড়েছে ৪৫ শতাংশ

ছবি

আগস্টে সঞ্চয়পত্র বিক্রি মাত্র আট কোটি টাকার

tab

অর্থ-বাণিজ্য

ইভ্যালির সামনে শত শত পাওনাদারের ভিড়

অর্থনৈতিক বার্তা পরিবেশক

বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

শত কোটি টাকার দেনার দায়ে বন্ধ হয়ে যাওয়া ই-কমার্স সাইট ইভ্যালির মূল মালিক মোহাম্মদ রাসেলের পরিবারের কাছে ফিরিয়ে দেয়ার খবরে ঢাকার ধানমন্ডিতে এ কোম্পানির কার্যালয়ের সামনে ভিড় করেছেন শত শত পাওনাদার।

বৃহস্পতিবার (২২ সেপ্টেম্বর) ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেলের স্ত্রী ও কোম্পানির সাবেক চেয়ারম্যান শামীমা নাসরিন আদালত গঠিত পরিচালনা পর্ষদের কাছ থেকে দায়িত্ব বুঝে নেবেন বলে জানিয়েছেন ওই পর্ষদের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীর মিলন।

ধানমন্ডিতে ইভ্যালির অফিসের সামনে গিয়ে দেখা গেছে, কার্যালয় খোলার খবর পেয়ে সকালেই সেখানে শত শত পাওনাদার জমায়েত হয়েছেন। নিজেদের পাওনা টাকা ফেরত চাওয়ার পাশাপাশি ইভ্যালির প্রতিষ্ঠাতা মোহাম্মদ রাসেলের মুক্তির দাবিও জানাচ্ছেন তারা।

‘ইভ্যালি মার্চেন্ট অ্যান্ড কনজিউমার কো-অর্ডিনেশন’ কমিটির ব্যানার নিয়ে হাজির হয়েছেন এই পাওনাদাররা। ইভ্যালি চালু করার জন্য আদালতকে ধন্যবাদ জানিয়ে তারা ব্যানারও ছাপিয়েছেন।

সকাল ১০টার দিকে ধানমন্ডিতে ইভ্যালি কার্যালয়ে অতিরিক্ত সচিব মাহবুব কবীরকে দেখা গেলেও তখনও উপস্থিত হননি শামিমা নাসরিন। সাবেক এই চেয়ারম্যান দুপুরের পর আসতে পারেন বলে জানা গেছে।

মাহবুব কবীর সে সময় সাংবাদিকদের বলেন, ‘গ্রাহকের টাকা উদ্ধার করার দায়িত্ব আমাদের দেয়া হয়নি। ইভ্যালিতে কেন সমস্যা হয়েছে, কতটা সমস্যা হয়েছে, উত্তরণের উপায় কী এসব বিষয়ে যাচাই-বাছাই করতেই আমাদেরকে বলা হয়েছিল। আমরা চূড়ান্ত প্রতিবেদন আদালতে জমা দিয়েছি। আমি বিশ্বাস করি, প্রয়োজনীয় বিনিয়োগ পেলে এই প্রতিষ্ঠান আবার ঘুরে দাঁড়াতে পারবে।’

ইভ্যালি মার্চেন্ট অ্যান্ড কনজিউমার কো-অর্ডিনেশন কমিটির অন্যতম সমন্বয়ক সাকিব হাসান তাদের পাওনা টাকা উদ্ধারের প্রত্যাশাও করছেন।

তিনি বলেন, ‘রাসেল পরিবারের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করায় আমরা আশাবাদী। ইভ্যালি ব্যবসা চালাতে পারলে আমাদের টাকাগুলো ধীরে ধীরে উদ্ধার হয়ে আসবে।’

তবে আদালত গঠিত পর্ষদের চেয়ারম্যান সাবেক বিচারপতি শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক এ বিষয়ে একমত নন।

তিনি বলেন, ‘গ্রাহকের সঙ্গে প্রতারণা করার জন্যই রাসেল সাহেব ইভ্যালি নামক প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তুলেছিলেন। ব্যবসার প্রতিটি স্তরেই তিনি প্রতারণার আশ্রয় নিয়েছিলেন। এই পরিবারের নেতৃত্বে এ প্রতিষ্ঠান গ্রাহকের টাকা ফেরত দিতে পারবে বলে আমার মনে হয় না।’ গতবছর বন্ধ হয়ে যাওয়ার আগে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ে ইভ্যালির পাঠানো সর্বশেষ প্রতিবেদনে দেখা যায়, প্রতিষ্ঠানটির মোট চলতি দায় ছিল তখন ৫৪৩ কোটি টাকা, যার মধ্যে মার্চেন্ট বা পণ্য সরবরাহকারীরা পাবেন ২০৫ কোটি ৮৬ লাখ টাকা। আর গ্রাহকদের পাওনা ৩১১ কোটি টাকা।

গ্রাহক ঠকানোর মামলায় ইভ্যালির উদ্যোক্তা রাসেল ও তার স্ত্রী শামীমা নাসরিনকে গ্রেপ্তার হয়ে কারাগারে যেতে হয়েছিল। শামীমা গত এপ্রিল মাসে জামিনে বের হতে পারলেও এখনও বন্দীই আছেন রাসেল।

গত বছরের অক্টোবরে আপিল বিভাগের অবসরপ্রাপ্ত বিচারক এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী মানিককে চেয়ারম্যান করে ইভ্যালির জন্য একটি পর্ষদ গঠন করে দিয়েছিল আদালত। রেলপথ মন্ত্রণালয়ের সাবেক অতিরিক্ত সচিব মাহবুব মিলনকে করা হয়েছিল ব্যবস্থাপনা পরিচালক।

পর্ষদে সদস্য হিসেবে ছিলেন স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সাবেক সচিব মো. রেজাউল আহসান, চার্টার্ড অ্যাকাউন্টেন্ট ফখরুদ্দিন আহম্মেদ, সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী খান মোহাম্মদ শামীম আজিজ।

মূলত প্রতিষ্ঠানটির প্রকৃত দায়-দেনা, কাজের ধরন ও শত কোটি টাকার বকেয়া থেকে উদ্ধারের পথ বের করার উপায় আছে কি না, তা দেখাই ছিল এই পর্ষদের উদ্দেশ্য।

পর্ষদ তাদের কাজ শেষ করায় এখন আবার মূল মালিকদের কাছেই ফেরত যাচ্ছে ইভ্যালি।

back to top