alt

অর্থ-বাণিজ্য

তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত: দাম বাড়বে

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২

তেল উৎপাদন দৈনিক ২০ লাখ ব্যারেল কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তেল উৎপাদক ও রপ্তানিকারকদের জোট ওপেক প্লাস। বুধবার অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় জোটের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তেলের বাজারে নিজেদের আধিপত্য ও দাম ধরে রাখতে ওপেক প্লাস এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা।

নিউইয়র্ক টাইমস ও রয়টার্স জানিয়েছে, ওপেক প্লাসের সদস্যরা অপরিশোধিত তেল উৎপাদন কমানোর বিষয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বলে আসছিল । তবে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা মিত্ররা বারবার উৎপাদন না কমাতে অনুরোধ জানিয়েছে। তাতে মত পাল্টায়নি ওপেক। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো ছাড়াও এই সংস্থার অন্যতম সদস্য এখন রাশিয়া। বুধবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক।

ইতিমধ্যে তেলের দাম বেড়ে গেছে। গত মঙ্গলবার প্রতি ব্যারেলে ৩ শতাংশের বেশি বেড়েছে। প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম ৩ ডলারের মতো বেড়ে প্রায় ৯২ ডলার হয়েছে। বিশ্ববাজারে ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট (ডব্লিউটিআই) তেলের দামও ৩ ডলারের মতো বেড়ে সাড়ে ৮৬ ডলার হয়েছে। তেল উত্তোলন কমানো নিয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকের আগেই বিশ্ববাজারে বেড়ে যায় তেলের দাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তেল উৎপাদন কমানোর পদক্ষেপ তেলের বাজারে সরবরাহ কমিয়ে দেবে, যার প্রভাব পড়বে দামে।

ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে গত মার্চ থেকে রাশিয়ার তেল নেওয়া কমিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ (ইইউ) পশ্চিমা জোট। আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল আমদানির ওপর ইইউর বিশেষ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। ফলে প্রয়োজন মেটাতে এখন মধ্যপ্রাচ্যের অপরিশোধিত তেল কেনার পথে হাঁটছে ইউরোপ। এতে ইউরোপের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় পড়েছে ভারতসহ এশীয় দেশগুলো। এ জন্যই মেয়াদি চুক্তিতে বিভিন্ন উৎস থেকে তেল কেনার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে ভারত।

ভারতের একটি রাষ্ট্রীয় শোধনাগারের এক কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, ‘রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাতের কারণে একধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এ জন্য আমরা সরবরাহব্যবস্থার নিয়শ্চয়তার জন্য বিকল্প প্রস্তুতি নিচ্ছি। কারণ, আমাদের সামনে সব বিকল্প খোলা থাকতে হবে।’

একই ধরনের মন্তব্য করেছেন ভারতের আরেক তেল পরিশোধক কোম্পানির এক কর্মকর্তা। তিনি রয়টার্সকে বলেন, যুদ্ধের কারণে তেলের বাজারে দীর্ঘমেয়াদি অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এ সময় সম্ভাব্য সব পথ খোলা রাখতে হবে।

নির্দিষ্ট মেয়াদে তেল চুক্তি করতে ও আমদানির উৎসে বৈচিত্র্য আনতে ইতিমধ্যে কাজও শুরু করে দিয়েছে ভারত। ইন্ডিয়ান অয়েল করপোরেশন গত মাসে ব্রাজিলের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পেট্রোব্রাসের সঙ্গে ১ কোটি ২০ লাখ ব্যারেল ও কলম্বিয়ার বৃহৎ তেল উৎপাদক ইকোপেট্রোলের সঙ্গে ৬০ লাখ ব্যারেল তেল আমদানির চুক্তি করে। প্রথম ধাপে এই চুক্তির মেয়াদ হবে ছয় মাস।

ভারতের আরেক তেল কোম্পানি বিপিএলসিও চলতি মাস থেকে তেল আমদানির জন্য পেট্রোব্রাসের সঙ্গে নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১ কোটি ৮০ লাখ ব্যারেল তেল সরবরাহের একটি বার্ষিক চুক্তি আছে আইওসির। এসব উদ্যোগের পাশাপাশি অন্যান্য দেশ থেকেও মেয়াদি চুক্তিতে তেল কিনতে চেষ্টা করছে ভারত।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতের তেল পরিশোধকেরা তাঁদের ক্রয় কৌশলে পরিবর্তন আনছেন। বিগত বছরগুলোতে যেখানে খোলাবাজার থেকে তাৎক্ষণিক দামে (স্পট) তেল কেনাকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হতো, এখন সেখানে নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তিতে বেশি লাভ দেখছে দেশটি।

অবশ্য স্পট ক্রয়ের মাধ্যমে চলতি বছরে লাভবান হয়েছে ভারত। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে চলতি বছরের শুরুর দিকে রাশিয়ার তেলের বাজার সংকুচিত হয়ে যায়। এ সময় নতুন বাজার ধরতে বিশেষ মূল্য ছাড় দিয়ে তেল বিক্রি শুরু করে রাশিয়া। এই সুযোগে কম দামে বিপুল পরিমাণে অপরিশোধিত তেল কেনে ভারত। কয়েক মাসের ব্যবধানে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেলের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রাহকে পরিণত হয় দেশটি। তবে এই পরিস্থিতি দীর্ঘদিন থাকবে না। আবার যেকোনো সময় নতুন করে কোনো বৈশ্বিক সংকট তৈরি হতে পারে। এ জন্য নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তিতে তেল কেনা সুবিধাজনক বলে মনে করছে ভারত।

ছবি

‘বস্ত্রখাতে কর্মরত ৫০ লাখের মধ্যে ৮০ ভাগই নারী’

ছবি

যুক্তরাষ্ট্রে পোশাক রফতানি বেড়েছে ৫১ শতাংশ

ছবি

তিন ব্যাংকের ঋণরে অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দেওয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের

ছবি

আতঙ্কে ব্যাংক থেকে ৫০ হাজার কোটি টাকা তুলেছেন গ্রাহকরা : মুখ্য সচিব

ছবি

দশ মাসে রেমিট্যান্স কমেছে ৮৫ কোটি ৬৭ লাখ ডলার

খাতভিত্তিক লেনদেনের শীর্ষে আইটি খাত

বাংলাদেশকে ব্র্যান্ডিং করতে সিএনএন সঙ্গে এফবিসিসিআইর চুক্তি সই

এপ্রিলের মধ্যেই অর্থনীতি স্বাভাবিক হবে : পরিকল্পনামন্ত্রী

ব্যবসায়িদের জন্য ট্যাক্স গাইড প্রকাশ করলো ডিসিসিআই

ছবি

বিশ্ববাজারে জ্বালানি তেলের দাম কমছে, ১১ মাসে নেমেছে সর্বনিম্নে

ডিএসইর পরিচালক হচ্ছেন শাকিল রিজভী ও শাহজাহান

ছবি

সবজিতে কিছুটা স্বস্তি, অন্য পণ্যে বাড়ছে অস্বস্তি

ছবি

প্রতিবন্ধী-হতদরিদ্র নারীদের পণ্য নিয়ে যাত্রা শুরু ‘মালঞ্চ’র

ছবি

রপ্তানিতে দ্বিতীয় বিশ্বে, ইউরোপে প্রবৃদ্ধিতে শীর্ষে

১২১ কোটি টাকা মূলধন ফিরলো শেয়ারবাজারে

ভূ-রাজনৈতিক বিষয়টি মাথায় রেখেই বাংলাদেশে বিনিয়োগ করে জাপান

কর অব্যাহতিতে কী পরিমাণ রাজস্ব হারাচ্ছে, জরিপ করবে এনবিআর

ছবি

আইসিএমএবি বেস্ট করপোরেট অ্যাওয়ার্ড পেলো ৬৫ প্রতিষ্ঠান

ছবি

দূষণ কমাতে বাংলাদেশকে ২৫ কোটি ডলার ঋণ দিচ্ছে বিশ্ব ব্যাংক

ছবি

পরিবেশ ব্যবস্থাপনার উন্নয়নে বাংলাদেশকে ২৫০ মিলিয়ন ডলার ঋণ দেবে বিশ্বব্যাংক

ছবি

সবজিতে স্বস্তি, বাড়ছে চাল-আটার দাম

‘অর্থনীতি বড় হলেও সমাজে বৈষম্য ও নানা অস্থিরতা তৈরি হয়েছে’

ছবি

ওভার ও আন্ডার ইনভয়েসিংয়ে পাচার হচ্ছে টাকা : গভর্নর

ছবি

ওভার ইনভয়েসিং হচ্ছে, ১০০ এলসি বন্ধ করেছি : গভর্নর

ছবি

৩ কোম্পানির শেয়ারপ্রতি মুনাফা কমেছে

ছবি

দেশের শীর্ষ অ্যাপস ডেভেলপারদের স্বীকৃতি দিলো বিডিঅ্যাপস

ছবি

রিটার্ন দাখিল সাড়ে ২১ লাখ, সময় বাড়লো এক মাস

রপ্তানি পণ্যের তালিকা থেকে কাঁচা পাট বাদ

ছবি

এপ্রিলে সব বন্দরে গ্রিন চ্যানেল চালু

সূচকের সঙ্গে বেড়েছে লেনদেনও

বেসরকারি খাতে ঋণ প্রবৃদ্ধি কমেছে

ছবি

ব্র্যাকের ক্ষুদ্রঋণ শাখা ব্যবহার করে ঋণ লেনদেন করবে স্ট্যান্ডার্ড চার্টার্ড

উৎপাদন স্বাভাবিক রাখতে কেনা হচ্ছে ৮০ হাজার টন সার

ছবি

দীর্ঘমেয়াদি পুঁজি উত্তোলনের নিরাপদ উৎস হবে দেশের পুঁজিবাজার : ডিএসই চেয়ারম্যান

ছবি

আয়কর রিটার্ন জমা দেওয়ার সময় বাড়ল ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

ছবি

ইসলামী ব্যাংকে ঋণ অনিয়মের অভিযোগ, রিট করতে বললো হাইকোর্ট

tab

অর্থ-বাণিজ্য

তেল উৎপাদন কমানোর সিদ্ধান্ত: দাম বাড়বে

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ০৬ অক্টোবর ২০২২

তেল উৎপাদন দৈনিক ২০ লাখ ব্যারেল কমানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে তেল উৎপাদক ও রপ্তানিকারকদের জোট ওপেক প্লাস। বুধবার অস্ট্রিয়ার রাজধানী ভিয়েনায় জোটের এক বৈঠকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। তেলের বাজারে নিজেদের আধিপত্য ও দাম ধরে রাখতে ওপেক প্লাস এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করছেন বিশ্লেষকেরা।

নিউইয়র্ক টাইমস ও রয়টার্স জানিয়েছে, ওপেক প্লাসের সদস্যরা অপরিশোধিত তেল উৎপাদন কমানোর বিষয়ে বেশ কিছুদিন ধরেই বলে আসছিল । তবে যুক্তরাষ্ট্রসহ পশ্চিমা মিত্ররা বারবার উৎপাদন না কমাতে অনুরোধ জানিয়েছে। তাতে মত পাল্টায়নি ওপেক। মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলো ছাড়াও এই সংস্থার অন্যতম সদস্য এখন রাশিয়া। বুধবারের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন রাশিয়ার উপপ্রধানমন্ত্রী আলেকজান্ডার নোভাক।

ইতিমধ্যে তেলের দাম বেড়ে গেছে। গত মঙ্গলবার প্রতি ব্যারেলে ৩ শতাংশের বেশি বেড়েছে। প্রতি ব্যারেল অপরিশোধিত তেলের দাম ৩ ডলারের মতো বেড়ে প্রায় ৯২ ডলার হয়েছে। বিশ্ববাজারে ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েট (ডব্লিউটিআই) তেলের দামও ৩ ডলারের মতো বেড়ে সাড়ে ৮৬ ডলার হয়েছে। তেল উত্তোলন কমানো নিয়ে অনুষ্ঠিত বৈঠকের আগেই বিশ্ববাজারে বেড়ে যায় তেলের দাম। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তেল উৎপাদন কমানোর পদক্ষেপ তেলের বাজারে সরবরাহ কমিয়ে দেবে, যার প্রভাব পড়বে দামে।

ইউক্রেন যুদ্ধের কারণে গত মার্চ থেকে রাশিয়ার তেল নেওয়া কমিয়েছে ইউরোপীয় ইউনিয়নসহ (ইইউ) পশ্চিমা জোট। আগামী ৫ ডিসেম্বর থেকে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেল আমদানির ওপর ইইউর বিশেষ নিষেধাজ্ঞা কার্যকর হবে। ফলে প্রয়োজন মেটাতে এখন মধ্যপ্রাচ্যের অপরিশোধিত তেল কেনার পথে হাঁটছে ইউরোপ। এতে ইউরোপের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় পড়েছে ভারতসহ এশীয় দেশগুলো। এ জন্যই মেয়াদি চুক্তিতে বিভিন্ন উৎস থেকে তেল কেনার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে ভারত।

ভারতের একটি রাষ্ট্রীয় শোধনাগারের এক কর্মকর্তা রয়টার্সকে বলেন, ‘রাশিয়া-ইউক্রেন সংঘাতের কারণে একধরনের অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এ জন্য আমরা সরবরাহব্যবস্থার নিয়শ্চয়তার জন্য বিকল্প প্রস্তুতি নিচ্ছি। কারণ, আমাদের সামনে সব বিকল্প খোলা থাকতে হবে।’

একই ধরনের মন্তব্য করেছেন ভারতের আরেক তেল পরিশোধক কোম্পানির এক কর্মকর্তা। তিনি রয়টার্সকে বলেন, যুদ্ধের কারণে তেলের বাজারে দীর্ঘমেয়াদি অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। এ সময় সম্ভাব্য সব পথ খোলা রাখতে হবে।

নির্দিষ্ট মেয়াদে তেল চুক্তি করতে ও আমদানির উৎসে বৈচিত্র্য আনতে ইতিমধ্যে কাজও শুরু করে দিয়েছে ভারত। ইন্ডিয়ান অয়েল করপোরেশন গত মাসে ব্রাজিলের রাষ্ট্রীয় তেল কোম্পানি পেট্রোব্রাসের সঙ্গে ১ কোটি ২০ লাখ ব্যারেল ও কলম্বিয়ার বৃহৎ তেল উৎপাদক ইকোপেট্রোলের সঙ্গে ৬০ লাখ ব্যারেল তেল আমদানির চুক্তি করে। প্রথম ধাপে এই চুক্তির মেয়াদ হবে ছয় মাস।

ভারতের আরেক তেল কোম্পানি বিপিএলসিও চলতি মাস থেকে তেল আমদানির জন্য পেট্রোব্রাসের সঙ্গে নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তি করেছে। যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ১ কোটি ৮০ লাখ ব্যারেল তেল সরবরাহের একটি বার্ষিক চুক্তি আছে আইওসির। এসব উদ্যোগের পাশাপাশি অন্যান্য দেশ থেকেও মেয়াদি চুক্তিতে তেল কিনতে চেষ্টা করছে ভারত।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভারতের তেল পরিশোধকেরা তাঁদের ক্রয় কৌশলে পরিবর্তন আনছেন। বিগত বছরগুলোতে যেখানে খোলাবাজার থেকে তাৎক্ষণিক দামে (স্পট) তেল কেনাকে সবচেয়ে গুরুত্ব দেওয়া হতো, এখন সেখানে নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তিতে বেশি লাভ দেখছে দেশটি।

অবশ্য স্পট ক্রয়ের মাধ্যমে চলতি বছরে লাভবান হয়েছে ভারত। পশ্চিমা নিষেধাজ্ঞার কারণে চলতি বছরের শুরুর দিকে রাশিয়ার তেলের বাজার সংকুচিত হয়ে যায়। এ সময় নতুন বাজার ধরতে বিশেষ মূল্য ছাড় দিয়ে তেল বিক্রি শুরু করে রাশিয়া। এই সুযোগে কম দামে বিপুল পরিমাণে অপরিশোধিত তেল কেনে ভারত। কয়েক মাসের ব্যবধানে রাশিয়ার অপরিশোধিত তেলের দ্বিতীয় বৃহত্তম গ্রাহকে পরিণত হয় দেশটি। তবে এই পরিস্থিতি দীর্ঘদিন থাকবে না। আবার যেকোনো সময় নতুন করে কোনো বৈশ্বিক সংকট তৈরি হতে পারে। এ জন্য নির্দিষ্ট মেয়াদের চুক্তিতে তেল কেনা সুবিধাজনক বলে মনে করছে ভারত।

back to top