alt

অর্থ-বাণিজ্য

ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে শপিংমলগুলোতে

রমজান আলী : শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে রাজধানীর মার্কেট ও শপিংমলগুলোতে ক্রেতাদের ব্যাপক ভিড় দেখা গেছে। আট রোজার মধ্যেই অনেকই কেনাকাটা শুরু করে দিয়েছে ঈদের মার্কেট। পছন্দ অনুয়ায়ী কেনাকাটা করতে দেখা যায় শপিংমলগুলোতে।

রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে রাজধানীর নিউমার্কেট, গাউছিয়া, ইস্টার্ন প্লাজা, বসুন্ধরা সিটি, আজিজ সুপার মার্কেটে পাঞ্জাবি, শার্ট, শাড়ি, লুঙ্গি, জুতা, প্রসাধনী, গহনা, টুপি মনোরমভাবে সাজিয়ে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা জানান, বেচাকেনা এখন পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে। ভালো চলছে বিক্রি। তবে ১০-১২ রোজার পর শুরু হবে পুরোদমে বিক্রি। তাদের ধারণা এবার ভালো বিক্রি হবে।

ঢাকার বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সে পাঞ্জাবি বিতানের মালিক আরিফ উদ্দিন বলেন, মোটামুটি ভালো বিক্রি চলছে। ক্রেতাদের কথা চিন্তা করে সব ধরনের আকর্ষণীয় ও বাহারি পাঞ্জাবি রাখা হয়েছে। আশা করি ক্রেতাদের পছন্দ হবে। এছাড়া দামও মোটামুটি রাখা হয়েছে। ফলে এবার ভালো বিক্রির আশা করেন তিনি।

রাজধানীর নিউমার্কেট গিয়ে দেখা গেলো একই চিত্র, বিপণিবিতানগুলো ব্যাপক ক্রেতাদের ভিড়। সবাই পছন্দ অনুয়ায়ী পোশাক কিনছেন।

রাজধানীর নিউমার্কেটের এক ব্যবসায়ী জানান, ২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত থ্রি-পিস রয়েছে তার দোকানে। এছড়া লুঙ্গি রয়েছে বিভিন্ন দামের।

নিউ মার্কেটে কলাবাগান থেকে আসা উম্মে হাবিবা জানান, ‘যদি কিছু পছন্দ হয়’ আশা নিয়ে এখানে আসছি। যেহেতু আজকে বন্ধ তাই ঈদের কেনাকাটা করতে এসেছি। অনেক কিছুই কিনেছি। আর কিছু কিনবো।

তার মতো আরেক ক্রেতা ফারজানা মিলি বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে পছন্দের পোশাক দেখছিলেন। কাছে গিয়ে কথা বলতেই তিনি জানান, আজ বন্ধের দিন। তাই ঈদের কেনাকাটা আগে ভাগেই শেষ করতে চাই। আজ যা পারি কিনবো। বাকিগুলো অন্যকোন দিন এসে কিনবো।

এছাড়া বসুন্ধরা মার্কেটে অনেক ভিড় দেখা গেছে কেনাকাটার। সায়েন্সল্যাবের পাঞ্জাবির দোকানগুলো এবং নিউ মার্কেট এলাকার মার্কেটগুলোতে ছিল লক্ষণীয় মাত্রার ভিড়।

ঈদ আসতে এখনও ঢের বাকি। তবে রাজধানীর বিপণিবিতানগুলোতে এখন থেকেই ঘুরে-ফিরে বেড়াতে দেখা গেছে উৎসুক ক্রেতা-দর্শনার্থীদের।

দোকান থেকে দোকানে ঘুরছেন তারা, পছন্দ হচ্ছে হলে দামও জেনে কিনছেন ক্রেতারা। আবার কেউ কেউ পরের ভিড়ের ঝুট-ঝামেলা এড়াতে আগেভাগেই কিনে ফেলছেন। তবে এ ক্রেতা-দর্শনার্থীদের অধিকাংশই এখন তাদের ‘স্যালারি ডে’ এর দিন গুনছেন।

অন্যদিকে বছরের সবচেয়ে বড় এ কেনাকাটার উৎসবকে সামনে রেখে দোকানিরা ঈদের পোশাক সংগ্রহের কাজ মোটামুটি গুছিয়ে নিয়েছেন। তারা জানালেন, মোটামুটি সংগ্রহের বড় অংশ এসে গেছে দোকানে। কেনাবেচা জমে উঠতে থাকলে সপ্তাহে সপ্তাহে নতুন আরও কিছু আসতে থাকবে।

দুপুরের আগেভাগে সায়েন্স ল্যাবের ‘চাঁদ সনস্’ নামের দোকানে পা রাখতেই দেখা যায় অনেক মানুষ একসঙ্গে পাঞ্জাবি দেখছেন। তাদের একজন নীলিমা আহমেদ জানান, ‘ঈদের পরেই আমার দেবরের বিয়ে, তাই ভিড় বাড়ার আগেই যতটা পারি কিনে রাখছি। তাছাড়া ২০ রোজার পর আমরা ঢাকায় থাকবও না।’

চাঁদনী চক মার্কেটের ভিড়ও চোখে পড়ার মতো। মাকে সঙ্গে নিয়ে এখানে সালোয়ার-কামিজ দেখতে এসেছেন সামিহা।

তিনি বলেন, ‘আজকে রমজানের প্রথম উইকেন্ড। এরপর তো দেখতে দেখতে সময় চলে যাবে। ভিড়ের জন্য কিছু দেখে-শুনে কিনতেও পারবো না। সেজন্য আজই চলে আসছি।’

সামিহার উদ্দেশ্য কেনাকাটা হলেও এ সময় দোকানে ভিড় করা বেশিরভাগ ক্রেতাই ‘জিনিসপত্র দেখা আর দাম-টাম সমন্ধে’ ধারণা নিতে এসেছেন বলে মনে করেন চাঁদনী চকের ফয়সাল টেক্সটাইলের বিক্রেতা আশিক।

তিনি বলেন, ‘যা ভিড় দেখতেছেন, এইডা হুদাই। এমনি ঘুরতে আসছে। আমাগো কেনাকাটা অহনো শুরু হয় না। আর দুই তিনদিন পর কেনাবেচা পুরাদমে শুরু হইবো।’ তবে ঈদের জন্য পোশাকের বিশেষ সংগ্রহ তারা দোকানে তুলে ফেলেছেন জানিয়ে বলেন, ‘বাকিগুলাও আইবো সপ্তায় সপ্তায়।’

শফিক টেক্সটাইলের ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, ‘ঈদের কালেকশন উইঠা গেছে সেই কবে। এইটা তো শবে বরাতের রাত থেকেই আসা শুরু করে। কিন্তু বিক্রি শুরু হয় নাই এখনও। আরও সাত দিন গেলে পরে শুরু হবে। আর টাকা-পয়সাও তো থাকা লাগবে মানুষের হাতে।’

সায়েন্স ল্যাবের ‘চাঁদ সনস্’-এর জুয়েল মাহমুদও একই কথা বললেন। তার মতে, ‘রমজান শুরুই তো হইলো তিন দিন। আজকে যাদের দেখতেছেন, এরা এমনি আসছে। অনেকের আবার ইমার্জেন্সি পাঞ্জাবি কেনা দরকার। কিন্তু ঈদের বেচাকেনা বলতে যা বুঝায়, ওইটা আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হবে।’

প্রস্তুতিতে বেশিরভাগ দোকানি এগিয়ে থাকলেও অনেকে ঈদের পোশাক তুলতে আরও সময় নেয়ার কথা জানালেন।

আজিজ সুপার মার্কেটের ‘দেশীয়’তে দুই বছর ধরে কাজ করছেন লাবনী আক্তার। এ সময়কার বেচাবিক্রি খুব সুবিধার না হলেও দোকানে ‘ঈদের নতুন কালেকশন’ তোলা হয়েছে বলে জানান। পরের সপ্তাহ থেকে ক্রেতার দেখা পাওয়ার আশা তাদের। তবে একই বিপণিবিতানের লাম্মিক্রাফট-এর বিক্রেতা পূর্ণিমা এখনই বিক্রি বাড়ার তথ্য দিলেন। তিনি বলেন, ‘আজকে একটু কম মানুষ। কারণ ছুটির দিন, তারপর প্রথম সপ্তাহ।

বসুন্ধরা সিটির কে ক্রাফটের বিক্রয়কর্মী সাজ্জাদুল ইসলামও এবার কেনাকাটা আগেভাগে শুরু হওয়ার কথা জানালেন। তার মতে, ‘এবার স্কুল-কলেজ আগে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ঈদের কেনাকাটাটা সম্ভবত একটু আগে থেকে শুরু হয়েছে। সেজন্য গত এক সপ্তাহ ধরেই আমাদের বিক্রি মোটামুটি ভালো চলছে। আশা করছি ১০-১২ রমজান থেকে আমাদের বিক্রি পুরোদমে শুরু হবে।

ছবি

‘উচ্চ মূল্যস্ফীতি কমানোর পথ খোঁজার তাগিদ’

ছবি

২৪ দিনে দেশে রেমিট্যান্স এলো ১৮ হাজার কোটি টাকা

ছবি

মেঘনা পিইটি ইন্ডাস্ট্রিজের পরিচালক হলেন ড. মাশরিক

ছবি

আমদানি নির্ভরতা, সিন্ডিকেটের কারণে জিনিসপত্রের দাম বাড়লেও করের বোঝাটাই সবার কাছে মাথা ব্যথার কারণ

ছবি

রমজানে দ্রব্যমূল্য বাড়ালে কঠোর ব্যবস্থা: সালমান এফ রহমান

ছবি

চড়া দামে আটকা বেশিরভাগ নিত্যপণ্য

ছবি

ভারত: চাল রপ্তানিতে শুল্ক আরোপের মেয়াদ বাড়াল ৩১ মার্চ

ছবি

উৎপাদন খরচ বাড়লেও বাড়েনি বইয়ের দাম

ছবি

সয়াবিন তেলের দাম লিটারে কমবে ১০ টাকা

ছবি

অর্থপাচারের ৮০ শতাংশই ব্যাংকিং চ্যানেলে : বিএফআইইউ

ছবি

সূচক বেড়ে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

ছবি

জিআই পণ্যের তালিকা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

ছবি

দেশ-বিদেশে পর্যটক আনতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে : পর্যটনমন্ত্রী

ছবি

কৃষি ব্যাংকের খেলাপি ঋণ কমানো, লাভে নেয়াই লক্ষ্য : শওকত আলী খান

ছবি

অস্তিত্বের জন্য বৈশ্বিক তাপমাত্রা বৃদ্ধি সীমাবদ্ধ রাখতে হবে: সাবের হোসেন চৌধুরী

ছবি

ড. ইউনূসের ‘জবরদখলে’র অভিযোগ নিয়ে যা বলল গ্রামীণ ব্যাংক

ছবি

খেজুরের গুড়, মিষ্টি পান ও নকশিকাঁথা পেল জিআই স্বীকৃতি

ছবি

কর নেট বাড়ানোর জন্য ধীরে ধীরে কাজ করছি : এনবিআর চেয়ারম্যান

ছবি

জুলাই-সেপ্টেম্বর প্রান্তিকে জিডিপি প্রবৃদ্ধি ৬ দশমিক ০৭ শতাংশ

ছবি

পার্বত্য চট্রগ্রাম মেলায় বেচাকেনা কম, হতাশ উদ্যোক্তারা

টাকা-ডলার অদলবদলের সুবিধা চালু

ছবি

মাথাপিছু আয় বেড়ে ২ লাখ ৭৩ হাজার ৩৬০ টাকা

ছবি

রমজানে রাজধানীতে ২৫টি স্থানে কম দামে মাংস ও ডিম বিক্রির উদ্যোগ

ছবি

কেন্দ্রীয় ব্যাংকে টাকা–ডলার অদলবদলের সুবিধা চালু

ছবি

তালিকাভূক্ত ব্যাংকের মধ্যে সর্বোচ্চ ক্যাশ ফ্লো রূপালী ব্যাংকের

ছবি

পুঁজিবাজারে ২২টি ব্যাংকের ক্যাশ ফ্লো বেড়েছে

ছবি

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানির বিশেষ নীরিক্ষায় চমকপ্রদ তথ্য বের হচ্ছে: বিএসইসি চেয়ারম্যান

ছবি

সূচকের উত্থানে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

টাঙ্গাইল শাড়ি নিয়ে ফেসবুক পোস্ট সরিয়েছে ভারত: নানক

ছবি

সূচক বেড়ে পুঁজিবাজারে লেনদেন চলছে

ছবি

বেসরকারি ঋণের প্রবৃদ্ধি ধরে রাখা বড় চ্যালেঞ্জ: ঢাকা চেম্বার সভাপতি

ছবি

ছয় মাসে ৪৫৯ কোটি ডলারের বাণিজ্য ঘাটতি

ছবি

খেজুরের আমদানি শুল্ক আরো কমানোর দাবি ব্যবসায়ীদের

ছবি

পাট খাতের বৈশ্বিক রপ্তানি আয়ের ৭২ শতাংশ এখন বাংলাদেশের দখলে: কৃষিমন্ত্রী

ছবি

তিন মাসে খেলাপি ঋণ কমেছে, তবে ২০২২ সালের হিসেবে এখনও বেশি

ছবি

ভাষা শহীদদের স্মরণে বিশেষ প্যাকেজ ঘোষণার নির্দেশ পলকের

tab

অর্থ-বাণিজ্য

ক্রেতাদের ভিড় বেড়েছে শপিংমলগুলোতে

রমজান আলী

শনিবার, ০১ এপ্রিল ২০২৩

ঈদুল ফিতরকে সামনে রেখে রাজধানীর মার্কেট ও শপিংমলগুলোতে ক্রেতাদের ব্যাপক ভিড় দেখা গেছে। আট রোজার মধ্যেই অনেকই কেনাকাটা শুরু করে দিয়েছে ঈদের মার্কেট। পছন্দ অনুয়ায়ী কেনাকাটা করতে দেখা যায় শপিংমলগুলোতে।

রাজধানীর বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে রাজধানীর নিউমার্কেট, গাউছিয়া, ইস্টার্ন প্লাজা, বসুন্ধরা সিটি, আজিজ সুপার মার্কেটে পাঞ্জাবি, শার্ট, শাড়ি, লুঙ্গি, জুতা, প্রসাধনী, গহনা, টুপি মনোরমভাবে সাজিয়ে রেখেছেন ব্যবসায়ীরা।

ব্যবসায়ীরা জানান, বেচাকেনা এখন পুরোদমে শুরু হয়ে গেছে। ভালো চলছে বিক্রি। তবে ১০-১২ রোজার পর শুরু হবে পুরোদমে বিক্রি। তাদের ধারণা এবার ভালো বিক্রি হবে।

ঢাকার বসুন্ধরা সিটি শপিং কমপ্লেক্সে পাঞ্জাবি বিতানের মালিক আরিফ উদ্দিন বলেন, মোটামুটি ভালো বিক্রি চলছে। ক্রেতাদের কথা চিন্তা করে সব ধরনের আকর্ষণীয় ও বাহারি পাঞ্জাবি রাখা হয়েছে। আশা করি ক্রেতাদের পছন্দ হবে। এছাড়া দামও মোটামুটি রাখা হয়েছে। ফলে এবার ভালো বিক্রির আশা করেন তিনি।

রাজধানীর নিউমার্কেট গিয়ে দেখা গেলো একই চিত্র, বিপণিবিতানগুলো ব্যাপক ক্রেতাদের ভিড়। সবাই পছন্দ অনুয়ায়ী পোশাক কিনছেন।

রাজধানীর নিউমার্কেটের এক ব্যবসায়ী জানান, ২৫০ টাকা থেকে শুরু করে ৫ হাজার টাকা পর্যন্ত থ্রি-পিস রয়েছে তার দোকানে। এছড়া লুঙ্গি রয়েছে বিভিন্ন দামের।

নিউ মার্কেটে কলাবাগান থেকে আসা উম্মে হাবিবা জানান, ‘যদি কিছু পছন্দ হয়’ আশা নিয়ে এখানে আসছি। যেহেতু আজকে বন্ধ তাই ঈদের কেনাকাটা করতে এসেছি। অনেক কিছুই কিনেছি। আর কিছু কিনবো।

তার মতো আরেক ক্রেতা ফারজানা মিলি বন্ধুকে সঙ্গে নিয়ে পছন্দের পোশাক দেখছিলেন। কাছে গিয়ে কথা বলতেই তিনি জানান, আজ বন্ধের দিন। তাই ঈদের কেনাকাটা আগে ভাগেই শেষ করতে চাই। আজ যা পারি কিনবো। বাকিগুলো অন্যকোন দিন এসে কিনবো।

এছাড়া বসুন্ধরা মার্কেটে অনেক ভিড় দেখা গেছে কেনাকাটার। সায়েন্সল্যাবের পাঞ্জাবির দোকানগুলো এবং নিউ মার্কেট এলাকার মার্কেটগুলোতে ছিল লক্ষণীয় মাত্রার ভিড়।

ঈদ আসতে এখনও ঢের বাকি। তবে রাজধানীর বিপণিবিতানগুলোতে এখন থেকেই ঘুরে-ফিরে বেড়াতে দেখা গেছে উৎসুক ক্রেতা-দর্শনার্থীদের।

দোকান থেকে দোকানে ঘুরছেন তারা, পছন্দ হচ্ছে হলে দামও জেনে কিনছেন ক্রেতারা। আবার কেউ কেউ পরের ভিড়ের ঝুট-ঝামেলা এড়াতে আগেভাগেই কিনে ফেলছেন। তবে এ ক্রেতা-দর্শনার্থীদের অধিকাংশই এখন তাদের ‘স্যালারি ডে’ এর দিন গুনছেন।

অন্যদিকে বছরের সবচেয়ে বড় এ কেনাকাটার উৎসবকে সামনে রেখে দোকানিরা ঈদের পোশাক সংগ্রহের কাজ মোটামুটি গুছিয়ে নিয়েছেন। তারা জানালেন, মোটামুটি সংগ্রহের বড় অংশ এসে গেছে দোকানে। কেনাবেচা জমে উঠতে থাকলে সপ্তাহে সপ্তাহে নতুন আরও কিছু আসতে থাকবে।

দুপুরের আগেভাগে সায়েন্স ল্যাবের ‘চাঁদ সনস্’ নামের দোকানে পা রাখতেই দেখা যায় অনেক মানুষ একসঙ্গে পাঞ্জাবি দেখছেন। তাদের একজন নীলিমা আহমেদ জানান, ‘ঈদের পরেই আমার দেবরের বিয়ে, তাই ভিড় বাড়ার আগেই যতটা পারি কিনে রাখছি। তাছাড়া ২০ রোজার পর আমরা ঢাকায় থাকবও না।’

চাঁদনী চক মার্কেটের ভিড়ও চোখে পড়ার মতো। মাকে সঙ্গে নিয়ে এখানে সালোয়ার-কামিজ দেখতে এসেছেন সামিহা।

তিনি বলেন, ‘আজকে রমজানের প্রথম উইকেন্ড। এরপর তো দেখতে দেখতে সময় চলে যাবে। ভিড়ের জন্য কিছু দেখে-শুনে কিনতেও পারবো না। সেজন্য আজই চলে আসছি।’

সামিহার উদ্দেশ্য কেনাকাটা হলেও এ সময় দোকানে ভিড় করা বেশিরভাগ ক্রেতাই ‘জিনিসপত্র দেখা আর দাম-টাম সমন্ধে’ ধারণা নিতে এসেছেন বলে মনে করেন চাঁদনী চকের ফয়সাল টেক্সটাইলের বিক্রেতা আশিক।

তিনি বলেন, ‘যা ভিড় দেখতেছেন, এইডা হুদাই। এমনি ঘুরতে আসছে। আমাগো কেনাকাটা অহনো শুরু হয় না। আর দুই তিনদিন পর কেনাবেচা পুরাদমে শুরু হইবো।’ তবে ঈদের জন্য পোশাকের বিশেষ সংগ্রহ তারা দোকানে তুলে ফেলেছেন জানিয়ে বলেন, ‘বাকিগুলাও আইবো সপ্তায় সপ্তায়।’

শফিক টেক্সটাইলের ম্যানেজার মোহাম্মদ মাসুদ বলেন, ‘ঈদের কালেকশন উইঠা গেছে সেই কবে। এইটা তো শবে বরাতের রাত থেকেই আসা শুরু করে। কিন্তু বিক্রি শুরু হয় নাই এখনও। আরও সাত দিন গেলে পরে শুরু হবে। আর টাকা-পয়সাও তো থাকা লাগবে মানুষের হাতে।’

সায়েন্স ল্যাবের ‘চাঁদ সনস্’-এর জুয়েল মাহমুদও একই কথা বললেন। তার মতে, ‘রমজান শুরুই তো হইলো তিন দিন। আজকে যাদের দেখতেছেন, এরা এমনি আসছে। অনেকের আবার ইমার্জেন্সি পাঞ্জাবি কেনা দরকার। কিন্তু ঈদের বেচাকেনা বলতে যা বুঝায়, ওইটা আগামী সপ্তাহ থেকে শুরু হবে।’

প্রস্তুতিতে বেশিরভাগ দোকানি এগিয়ে থাকলেও অনেকে ঈদের পোশাক তুলতে আরও সময় নেয়ার কথা জানালেন।

আজিজ সুপার মার্কেটের ‘দেশীয়’তে দুই বছর ধরে কাজ করছেন লাবনী আক্তার। এ সময়কার বেচাবিক্রি খুব সুবিধার না হলেও দোকানে ‘ঈদের নতুন কালেকশন’ তোলা হয়েছে বলে জানান। পরের সপ্তাহ থেকে ক্রেতার দেখা পাওয়ার আশা তাদের। তবে একই বিপণিবিতানের লাম্মিক্রাফট-এর বিক্রেতা পূর্ণিমা এখনই বিক্রি বাড়ার তথ্য দিলেন। তিনি বলেন, ‘আজকে একটু কম মানুষ। কারণ ছুটির দিন, তারপর প্রথম সপ্তাহ।

বসুন্ধরা সিটির কে ক্রাফটের বিক্রয়কর্মী সাজ্জাদুল ইসলামও এবার কেনাকাটা আগেভাগে শুরু হওয়ার কথা জানালেন। তার মতে, ‘এবার স্কুল-কলেজ আগে বন্ধ হয়ে যাওয়ায় ঈদের কেনাকাটাটা সম্ভবত একটু আগে থেকে শুরু হয়েছে। সেজন্য গত এক সপ্তাহ ধরেই আমাদের বিক্রি মোটামুটি ভালো চলছে। আশা করছি ১০-১২ রমজান থেকে আমাদের বিক্রি পুরোদমে শুরু হবে।

back to top