alt

অর্থ-বাণিজ্য

জ্বালানি সংকটে কারখানা বন্ধের শঙ্কায় বিটিএমএ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩

টানা কয়েক মাস ধরে গ্যাস-বিদ্যুতের সংকটে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা হারিয়ে দেশের টেক্সটাইল মিলগুলো বন্ধ হতে চলেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশন-বিটিএমএ।

মঙ্গলবার ঢাকার পান্থপথে বিটিএমএ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এমন শঙ্কার কথা জানিয়ে বলেন, দেশের মিলগুলো গ্যাস-বিদ্যুৎ সংকটের কারণে সক্ষমতার অর্ধেকও কাজে লাগাতে পারছেনা; ফলে উৎপাদন খরচ বেড়ে যাচ্ছে। এদিকে দেশীয় তৈরি পোশাক শিল্প মালিকরাও এখন দেশীয় সুতা না কিনে সুলভ মূল্যের জন্য বিদেশ থেকে সুতা আমদানি করে পণ্য রপ্তানি করছে। এদিকে টেক্সটাইল মিলগুলোর সুতার স্তুপ জমছে।

সংকট আওতার বাইরে চলে যাচ্ছে জানিয়ে বিটিএমএর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন বলেন, “পরিস্থিতি সামাল দিয়ে আমরা মিলগুলো কতদিন চালু রাখতে পারব বা এর কারণে যে ক্ষতি হচ্ছে তা কতদিন সামাল দিতে পারব জানিনা।”

বিটিএমএ সভাপতি খোকন বলেন, সর্বশেষ শিল্প ও ক্যাপটিভ গ্রাহকদের জন্য গ্যাসের দাম এক লাফে ৮৬ শতাংশ বাড়িয়ে প্রতি ইউনিট ৩০ টাকা করা হয়েছে। তখন বলা হয়েছিল নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস দেওয়ার জন্য এলএনজি আমদানির বাড়তি খরচ মেটাতে এই মূল্য বৃদ্ধি। কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে, ট্যারিফ বৃদ্ধির আগে এবং পরে গ্যাস সরবরাহ অবস্থা শোচনীয়ই রয়ে গেছে। বর্তমানে অসহনীয় পর্যায়ে উপনীত হয়েছে।

“গ্যাস ট্যারিফ বৃদ্ধির কারণে স্পিনিং মিলগুলোর সুতার উৎপাদন খরচ প্রতি কেজিতে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। একই সঙ্গে গ্যাসের স্বল্প চাপের কারণে মিলগুলো তাদের উৎপাদন ক্ষমতা ৪০ থেকে ৫০ শতাংশের বেশি ব্যবহার করতে পারছে না। উৎপাদন ক্ষমতার সম্পূর্ণ ক্যাপাসিটি ব্যবহার করতে না পারায় সুতার উৎপাদন খরচ আরেক দফা বৃদ্ধি পেয়েছে।”

২০০৯ থেকে ২০২৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত গ্যাস ট্যারিফ ৬১৭ শতাংশ বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ২০০৯ সালের অগাস্টে ক্যাপটিভ বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য প্রতি ইউনিট ৪ টাকা ১৮ পয়সায় এবং শিল্প সংযোগের জন্য প্রতি ইউনিট ৫ টাকা ৮৬ পয়সায় গ্যাস দেওয়া হতো। এখন তা বেড়ে ৩০ টাকা হয়েছে।

দেশে সুতার উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য কমে যাওয়ায় মিলগুলোর সুতা বিক্রি বন্ধের উপক্রম হয়েছে বলে জানান তিনি।

“২০২২ সালের জানুয়ারিতে যে সুতার (৩০ কাউন্ট) মূল্য প্রতিকেজি ৪ দশমিক ৯ ডলার ছিল গত এপ্রিলে তা কমে প্রতি কেজি ৩ দশমিক ১০ ডলার হয়েছে। মিলগুলো শুধু তাদের উৎপাদন অব্যাহত, শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়মিত বেতন-ভাতাদি পরিশোধসহ ইউটিলিটি বিল নিয়মিত দেওয়ার জন্য উৎপাদন খরচের চেয়েও ১৮ থেকে ২০ শতাংশ কম মূল্যে সুতা বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে।”

সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ না থাকায় সৃষ্ট প্রোডাকশন লস, গ্যাস ব্যবহার না করে অতিরিক্ত গ্যাস বিল ও অতিরিক্ত নিরাপত্তা জামানত প্রদানের কারণে স্পিনিং মিলগুলোর আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ গত ১৫ মাসে (জানুয়ারি ২০২২ থেকে মার্চ ২০২৩ ) প্রায় ৪ বিলিয়ন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪৫ হাজার কোটি টাকার বেশি।

বড় ব্যবসায়ীদের কারসাজির কারণে চামড়ার দাম কম

ছবি

ধারাবাহিক পতনে সাড়ে ১২ হাজার কোটি টাকা মূলধন কমল ডিএসইতে

ছবি

ইউরো চ্যাম্পিয়নশিপের অফিসিয়াল পার্টনার ভিভো

ছবি

উত্তরাঞ্চলে এগ্রিটেক স্টার্টআপ ‘ফসল’ ও ‘সেফ’ এর ফারমার্স সেন্টার চালু

ছবি

বাংলাদেশে হুয়াওয়ের ওয়াই-ফাই ৭ ব্যবহার উপযোগী অ্যাকসেস পয়েন্ট পণ্য উন্মোচন

ছবি

এক সপ্তাহে রিজার্ভ বেড়েছে ৫৪ কোটি ডলার

বাজেটের অর্থায়ন নিয়ে সংশয় অর্থনীতিবিদদের

বুড়িমারী স্থলবন্দরে ৮ দিন আমদানি-রফতানি বন্ধ

ছবি

ইনফিনিক্স স্মার্টফোন কিনে বাইক জিতলেন গাজীপুরের রাসেল

ছবি

ইউসিবি এখন এসএমই খাতে বেশি জোর দিচ্ছে : এমডি আরিফ কাদরী

ছবি

চট্টগ্রাম ও সিলেটের সেরা পাঠাও হিরোরা পুরস্কৃত

ব্যাংকারদের বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা ‘শিথিল’

ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের এডিপি বাস্তবায়ন হার প্রায় শতভাগ

ছবি

নারীদের অর্থনৈতিক কর্মকান্ডে সম্পৃক্ত করা না গেলে কাঙ্ক্ষিত লক্ষ্যে পৌঁছানো যাবে না: প্রতিমন্ত্রী পলক

ছবি

নাটোরের সিংড়ার পশুরহাটে ক্যাশলেস লেনদেনে নগদ

হজযাত্রীদের বিনামূল্যে ২৪ ঘণ্টা জরুরি ডাক্তারের পরামর্শ সেবা প্রদান করবে মেটলাইফ

ছবি

বাজেটে রপ্তানি খাতে প্রস্তাবনার প্রতিফলন ঘটেনি : ইএবি

ছবি

শেয়ারবাজারে ধারাবাহিক পতন, ৪২ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন সূচক

ছবি

বিক্রয় বিরাট হাট ২০২৪ ক্যাম্পেইন শুরু

ছবি

টেকসই উন্নয়নের জন্য টেকসই আর্থিক নীতির তাগিদ দিয়েছে ফিকি

ছবি

দেশ ‘অনৈতিক’ অর্থনৈতিক ব্যবস্থার দিকে ‘যাচ্ছে’

ছবি

প্রস্তাবিত বাজেট বে-নজির বাজেট : দেবপ্রিয় ভট্টাচার্য

ছবি

খাদ্য উৎপাদন বাড়াতে ভূমিকা রাখছে ‘কুমিল্লা-চাঁদপুর-ব্রাহ্মণবাড়িয়া সেচ উন্নয়ন প্রকল্প’

ছবি

বাজেটের পর প্রথমদিনেই শেয়ারবাজারে বড় পতন

ছবি

‘লোকসানে বন্ধ হয়ে যাচ্ছে’ সিএনজি ফিলিং স্টেশন

ছবি

‘কালো টাকা সাদা’ : ১৫% কর বেশি লাগছে এমপি সোহরাবের

ছবি

বাজেটের পর শেয়ারবাজারে বড় পতন

ছবি

ফ্ল্যাটের রেজিস্ট্রেশন ফি কমানোর আহ্বান রিহ্যাবের

ছবি

ঋণখেলাপিদের ৪ বার পুনঃতফসিলের সুযোগ দেয়া ঠিক নয় : বিআইডিএস

ছবি

রাজধানীতে নতুন ফ্যাশন ডিজাইনারদের পণ্য প্রদর্শনী

ছবি

প্রস্তাবিত বাজেট নিয়ে বাংলাদেশ কম্পিউটার সমিতির প্রতিক্রিয়া

ছবি

বছরের শেষের দিকে মূল্যস্ফীতি কমে আসবে, বললেন অর্থমন্ত্রী

ছবি

টোকিওতে বাংলাদেশের ‘বাণিজ্য, বিনিয়োগ এবং মানবসম্পদ’ বিষয়ক সেমিনার অনুষ্ঠিত

তিন মাসে খেলাপি ঋণ বেড়েছে ৩৬ হাজার ৩৬৭ কোটি টাকা

বাজেট ইতিবাচক, চাপ বাড়বে ব্যবসায়ীদের ওপর : রংপুর চেম্বার

ছবি

বিটিসিএল এর সম্পদের লাভজনক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে: জুনাইদ আহমেদ পলক

tab

অর্থ-বাণিজ্য

জ্বালানি সংকটে কারখানা বন্ধের শঙ্কায় বিটিএমএ

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ৩০ মে ২০২৩

টানা কয়েক মাস ধরে গ্যাস-বিদ্যুতের সংকটে প্রতিযোগিতা সক্ষমতা হারিয়ে দেশের টেক্সটাইল মিলগুলো বন্ধ হতে চলেছে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ টেক্সটাইল মিলস অ্যাসোসিয়েশন-বিটিএমএ।

মঙ্গলবার ঢাকার পান্থপথে বিটিএমএ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সমিতির সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন এমন শঙ্কার কথা জানিয়ে বলেন, দেশের মিলগুলো গ্যাস-বিদ্যুৎ সংকটের কারণে সক্ষমতার অর্ধেকও কাজে লাগাতে পারছেনা; ফলে উৎপাদন খরচ বেড়ে যাচ্ছে। এদিকে দেশীয় তৈরি পোশাক শিল্প মালিকরাও এখন দেশীয় সুতা না কিনে সুলভ মূল্যের জন্য বিদেশ থেকে সুতা আমদানি করে পণ্য রপ্তানি করছে। এদিকে টেক্সটাইল মিলগুলোর সুতার স্তুপ জমছে।

সংকট আওতার বাইরে চলে যাচ্ছে জানিয়ে বিটিএমএর সভাপতি মোহাম্মদ আলী খোকন বলেন, “পরিস্থিতি সামাল দিয়ে আমরা মিলগুলো কতদিন চালু রাখতে পারব বা এর কারণে যে ক্ষতি হচ্ছে তা কতদিন সামাল দিতে পারব জানিনা।”

বিটিএমএ সভাপতি খোকন বলেন, সর্বশেষ শিল্প ও ক্যাপটিভ গ্রাহকদের জন্য গ্যাসের দাম এক লাফে ৮৬ শতাংশ বাড়িয়ে প্রতি ইউনিট ৩০ টাকা করা হয়েছে। তখন বলা হয়েছিল নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস দেওয়ার জন্য এলএনজি আমদানির বাড়তি খরচ মেটাতে এই মূল্য বৃদ্ধি। কিন্তু দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে, ট্যারিফ বৃদ্ধির আগে এবং পরে গ্যাস সরবরাহ অবস্থা শোচনীয়ই রয়ে গেছে। বর্তমানে অসহনীয় পর্যায়ে উপনীত হয়েছে।

“গ্যাস ট্যারিফ বৃদ্ধির কারণে স্পিনিং মিলগুলোর সুতার উৎপাদন খরচ প্রতি কেজিতে ৩৫ থেকে ৪০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে। একই সঙ্গে গ্যাসের স্বল্প চাপের কারণে মিলগুলো তাদের উৎপাদন ক্ষমতা ৪০ থেকে ৫০ শতাংশের বেশি ব্যবহার করতে পারছে না। উৎপাদন ক্ষমতার সম্পূর্ণ ক্যাপাসিটি ব্যবহার করতে না পারায় সুতার উৎপাদন খরচ আরেক দফা বৃদ্ধি পেয়েছে।”

২০০৯ থেকে ২০২৩ সালের জানুয়ারি পর্যন্ত গ্যাস ট্যারিফ ৬১৭ শতাংশ বেড়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, ২০০৯ সালের অগাস্টে ক্যাপটিভ বিদ্যুৎকেন্দ্রের জন্য প্রতি ইউনিট ৪ টাকা ১৮ পয়সায় এবং শিল্প সংযোগের জন্য প্রতি ইউনিট ৫ টাকা ৮৬ পয়সায় গ্যাস দেওয়া হতো। এখন তা বেড়ে ৩০ টাকা হয়েছে।

দেশে সুতার উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওয়ার পাশাপাশি আন্তর্জাতিক বাজারে মূল্য কমে যাওয়ায় মিলগুলোর সুতা বিক্রি বন্ধের উপক্রম হয়েছে বলে জানান তিনি।

“২০২২ সালের জানুয়ারিতে যে সুতার (৩০ কাউন্ট) মূল্য প্রতিকেজি ৪ দশমিক ৯ ডলার ছিল গত এপ্রিলে তা কমে প্রতি কেজি ৩ দশমিক ১০ ডলার হয়েছে। মিলগুলো শুধু তাদের উৎপাদন অব্যাহত, শ্রমিক-কর্মচারীদের নিয়মিত বেতন-ভাতাদি পরিশোধসহ ইউটিলিটি বিল নিয়মিত দেওয়ার জন্য উৎপাদন খরচের চেয়েও ১৮ থেকে ২০ শতাংশ কম মূল্যে সুতা বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছে।”

সংবাদ সম্মেলনে দাবি করা হয়, নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহ না থাকায় সৃষ্ট প্রোডাকশন লস, গ্যাস ব্যবহার না করে অতিরিক্ত গ্যাস বিল ও অতিরিক্ত নিরাপত্তা জামানত প্রদানের কারণে স্পিনিং মিলগুলোর আর্থিক ক্ষতির পরিমাণ গত ১৫ মাসে (জানুয়ারি ২০২২ থেকে মার্চ ২০২৩ ) প্রায় ৪ বিলিয়ন ডলার, যা বাংলাদেশি মুদ্রায় ৪৫ হাজার কোটি টাকার বেশি।

back to top