alt

নগর-মহানগর

ঢাকা ঘোষণার মধ্যে দিয়ে শেষ হল জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক দক্ষিণ এশীয় সম্মেলন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

দক্ষিণ এশীয় দেশগুলি পরিবেশগত ‘সমস্যা মোকাবেলায়’ সম্মেলনে গবেষকেরা দেশগুলোর মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব জনিত সমস্যাগুলো তুলে ধরেন। সমস্যা সমাধানে একজোট হয়ে কাজ করার অঙ্গিকার করে তা গুরুত্বের সাথে তুলে ধরেন। সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের ফলে যে বিষয়গুলো বেশি আলোচনায় এসেছে সেগুলোমধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা, জলবায়ু নীতিমালা, টেকসই উন্নত শহর, নবায়নযোগ্য শক্তি, মানুষের জলবায়ুজনিত স্থানান্তর এবং স্থানচ্যুতি।

তবে, দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর আন্তঃসম্পর্ক উন্নয়নে খাদ্য নিরাপত্তা, জলবায়ু সম্পর্কিত শিক্ষাও জরুরী বলে মত দেন বক্তরা। সম্মেলনে বক্তরা দক্ষিণ এশিয়ায় ৭টি ‘রিসার্চ হাব থিমেটিক এরিয়া’ ঘোষণা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর মুজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে ‘প্রথম সাউথ এশিয়ান কনফারেন্স, ২০২৩’ টি গতকাল শেষ হয়। দুই দিনব্যাপী ‘জলবায়ু পরিবর্তনে উদীয়মান সমস্যা উদঘাটন ও উত্তরন পরিপ্রেক্ষিত’ শিরনামে সম্মেলনটির আয়োজক সেন্টার ফর পিপল অ্যান্ড এনভায়রন (সিপিই)। তাতে সহ-আয়োজক হিসেবে ছিল অরণ্যক ফাউন্ডেশন, অক্সফাম ইন বাংলাদেশ, গ্লোবাল ফোরাম ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট, গ্লোবাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট, সেন্টার ফর অ্যাটমোসফেরিক পলিউশন স্টাডিজ, বারসিক, লেডার্স, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি।

সম্মেলনে বাংলাদেশ ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে গবেষকরা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তাদের মধ্যে ছিল ভারতের কাথেরশালা শ্রীনিভাস, শ্রীলঙ্কা থেকে ড. পূর্ণিকা কুমারি সীলাগামা, নেপাল থেকে অভিশেক শ্রেষ্ঠা, দক্ষিণ কোরিয়ার কে পার্ক ।

দ্বিতীয় দিনে সিপিই এর পরিচালক মুহাম্মদ আবদুর রহমান উদ্বোধনী বক্তব্য দেন। প্রথম অধিবেশননে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ‚গোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম শহীদুল ইসলাম। জলবায়ু সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইউনিভার্সিটি অফ টরন্ট, কানাডা স্কারবোরোর সহযোগী অধ্যাপক ড. মনিরুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এবং এর প্রতিবেশী দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর মধ্যে ভৌগোলিক এবং জলবায়ুগত সাদৃশ্য থাকায় দেশগুলোর মধ্যে “ক্রস বর্ডার” উদ্যোগ গ্রহন ও বাস্তবায়ন করা যেতে পারে।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘জলবায়ু স¤প্রর্কিত তথ্য আদান প্রদানে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোকে আরো পরস্পর যোগাযোগ বাড়াতে হবে।’

সম্মেলনের সমাপনী সেশনে দুটি বিষয় ‘ঢাকা ডিকলারেশন’ও ‘সাউথ এশিয়ান রিসার্চ হাব’ ঘোষণা করেন মুহাম্মদ আবদুর রহমান। এরফলে, বৈজ্ঞানিক গবেষণা, তথ্যপ্রমাণাদি সংগ্রহ ও প্রচারের মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতা সপ্রসারণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনে দক্ষিণ এশীয় গবেষকদের মধ্যে সক্ষমতা তৈরিতে ভ‚মিকা রাখবে।

এরসাথে সাউথ এশিয়ার ৭টি রিসার্চ হাব থিমেটিক এরিয়া ঘোষণা করেন। থিমেটিক এরিয়াগুলো হল; সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি, উপক‚লীয় বাস্তুতন্ত্র, নেচার ব্যাসড সলিউশন, স্থানীয় অভিযোজন, জলবায়ুজনিত স্থানান্তর ও স্থানচ্যুতি এবং হিউম্যান সিকিউরিটি, জলবায়ু ও স্বাস্থ্য, জীববৈচিত্র ও খাদ্য নিরাপত্তা, এবং টেকসই নগরায়ন।

সম্মেলনের সমাপনী সেশনের চেয়ার হিসেবে আলোচনা করেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিকসের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলিকুজ্জামান আহমদ। তিনি মনে করেন, সাউথ এশিয়ায় তরুণদের গবেষণার সুযোগ কম, ‘সাউথ এশিয়ান রিসার্চ হাব’ গঠন করার মাধ্যমে তরুণ গবেষদের গবেষণার সুযোগ তৈরি হবার বিষয়ে আমি আশাবাদী।

কনফারেন্স স্পিকার ড. মনিরুল কাদের মির্জা তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন, দঢাকা ডিকলারেশন খুবই সময়োপযযোগী উদ্যোগ বলে আমি মনে করি। এর মাধ্যমে সাউথ এশিয়ায় তরুণ গবেষকদের মধ্যে গবেষণার পথ উন্মোচন হবে।’

সম্মেলনে ভারতের ত্রিপুরা ইউনিভার্সিটির ডিপার্টমেন্ট অব রুরাল স্টাডিসের এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ড. জয়ন্ত চৌধুরী, ভুটানের কলেজ অব ন্যাচারাল রিসোর্চ এর ডিপার্টমেন্ট অব ইনভাইরনমেন্ট এন্ড ক্লাইমেট স্টাডিসের প্রফেসর ড. ওম কাতেল, শ্রীলঙ্কার ইউনিভার্সিটি অব পেরাদেনিয়া, ডিপার্ট্মেন্ট অব সোশিওলজির সিনিয়র লেকচারার ড. পূর্ণিকা কুমারি সীলাগামা, ভারতের ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি, ডিপার্ট্মেন্ট অব রুরাল ডেভেলপমেন্ট, এসোসিয়েট প্রফেসর এন্ড হেড ড. পাপিয়া দত্ত, ভারতের ডিপার্টমেট অব হায়ার এডুকুশনের এসোসিয়েট প্রফেসর, (সোশিওলজি),ড মহিনদার কুমার ¯øারিয়া। ‘ঢাকা ডিকলারেশন’ এবং ‘সাউথ এশিয়া রিসার্চ হাব’ এর লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্যের সাথে একমত পোষণ করেন।

সম্মেলনের ছয়টি সেশনে তরুণ গবেষকদের ৩৬টি গবেষণা প্রবন্ধ ও পোস্টার প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে প্রধান আলোচ্য বিষয়গুলোর সমস্যা ও সমাধানের বিষয়ে আলোচনা করা হয়। প্রতি সেশনে দুইজন আলোচক ও একজন চেয়ার ওই সেশন পরিচালনা করেন।

ছবি

খারাপ হয়েছে ঢাকার বায়ু

ছবি

নির্বাচনের ফলাফল চ্যালেঞ্জ করে সুপ্রিম কোর্টে ইমরানের পিটিআই

ছবি

কিশোর গ্যাংয়ের ৩৮ সদস্য গ্রেপ্তার

ছবি

শাযরেহ হকের দায়ের করা ৩ মামলায় জামিন পেলেন ট্রান্সকম গ্রুপের ৫ কর্মকর্তা

ছবি

শাজরেহ হকের তিন মামলায় অভিযুক্ত মা-বোন-ভাগনে, গ্রেপ্তার ট্রান্সকমের ৫ কর্মকর্তা

ছবি

বইমেলায় জমজমাট শিশুপ্রহর

ছবি

খাল পরিষ্কারের আগে শপথ নিলেন ১৫ শতাধিক স্বেচ্ছাসেবী

ছবি

বিশ^বিদ্যালয়ে যৌন নিপীড়ন প্রতিরোধ কমিটি মনিটর করার দাবি মহিলা পরিষদের

ছবি

পোস্তগোলা সেতুর সংস্কার শুরু, গাড়ি চলছে বিকল্প পথে

‘ঢাকা চাকা’ ও ‘গুলশান চাকা’ ভাড়া ৫ টাকা কমছে

ছবি

ভাষা শহীদদের প্রতি পুনাকের শ্রদ্ধা

ছবি

ঢাকায় পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ২৫

ছবি

ভাষা শহীদদের প্রতি পুনাকের শ্রদ্ধা

ছবি

কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে আইজিপির শ্রদ্ধা

ছবি

রাজধানীতে দুটি বাসের মাঝে পড়ে পথচারী নিহত

ছবি

ভাষা শহীদদের শ্রদ্ধা জানালেন শেখ তাপস

ছবি

৫ বছরেও শেষ হয়নি চুড়িহাট্রায় অগ্নিকাণ্ডের ঘটনার বিচার

ছবি

রাজধানীতে পুলিশ কর্মকর্তার বাসার ছাদ থেকে পড়ে গৃহকর্মীর মৃত্যু

ছবি

একুশে ফেব্রুয়ারিতে নিরাপত্তা ঝুঁকি নেই: ডিএমপি পুলিশ কমিশনার

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৪৬

ছবি

মোটরসাইকেলে যাচ্ছিলেন স্বামী-স্ত্রী, ট্রাকচাপায় স্ত্রী নিহত

ছবি

২১ ফেব্রুয়ারি উপলক্ষে ঢাকার যেসব সড়ক বন্ধ থাকবে

ছবি

১০০ শহরের মধ্যে ঢাকার বাতাস সবচেয়ে বেশি অস্বাস্থ্যকর

ছবি

পুলিশ সদস্যদের উচ্চশিক্ষা ও প্রশিক্ষণ নিতে হবে: আইজিপি

ছবি

যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে ঘণ্টা খানেক মেট্রোরেল চলাচল বন্ধ

ছবি

এক্সপ্রেসওয়ে প্রকল্পের ক্রেইন পড়ল রেললাইনে, ট্রেন বন্ধ ঘণ্টাখানেক

ছবি

রাজধানীতে ট্রেনের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু

ছবি

শনিবার থেকে ৮ মিনিট পরপর চলবে মেট্রোরেল

ছবি

লালবাগে জুতার কারখানায় ও মিরপুর বাগানবাড়ি বস্তিতে আগুন

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে গ্রেপ্তার ৩৪

ছবি

সিগন্যাল সিস্টেমে ত্রুটি: মেট্রোরেল চলাচলে বিঘ্ন

ছবি

গৃহকর্মী প্রীতির মৃত্যু: বিচার না পেলে ‘বৃহত্তর’ আন্দোলনের হুঁশিয়ারি

ছবি

মৃত মানুষের দান করা কিডনিতে সুস্থ পপি

ছবি

মুক্তিপণ পাওয়ার পরও হত্যা, অভিযুক্ত গ্রেপ্তার

ছবি

রিটের বিষয়ে শুনানি ও আদেশ আজ

ছবি

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু

tab

নগর-মহানগর

ঢাকা ঘোষণার মধ্যে দিয়ে শেষ হল জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক দক্ষিণ এশীয় সম্মেলন

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

সোমবার, ২৭ নভেম্বর ২০২৩

দক্ষিণ এশীয় দেশগুলি পরিবেশগত ‘সমস্যা মোকাবেলায়’ সম্মেলনে গবেষকেরা দেশগুলোর মধ্যে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব জনিত সমস্যাগুলো তুলে ধরেন। সমস্যা সমাধানে একজোট হয়ে কাজ করার অঙ্গিকার করে তা গুরুত্বের সাথে তুলে ধরেন। সম্মেলনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের ফলে যে বিষয়গুলো বেশি আলোচনায় এসেছে সেগুলোমধ্যে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা, জলবায়ু নীতিমালা, টেকসই উন্নত শহর, নবায়নযোগ্য শক্তি, মানুষের জলবায়ুজনিত স্থানান্তর এবং স্থানচ্যুতি।

তবে, দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর আন্তঃসম্পর্ক উন্নয়নে খাদ্য নিরাপত্তা, জলবায়ু সম্পর্কিত শিক্ষাও জরুরী বলে মত দেন বক্তরা। সম্মেলনে বক্তরা দক্ষিণ এশিয়ায় ৭টি ‘রিসার্চ হাব থিমেটিক এরিয়া’ ঘোষণা করেন।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর মুজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে ‘প্রথম সাউথ এশিয়ান কনফারেন্স, ২০২৩’ টি গতকাল শেষ হয়। দুই দিনব্যাপী ‘জলবায়ু পরিবর্তনে উদীয়মান সমস্যা উদঘাটন ও উত্তরন পরিপ্রেক্ষিত’ শিরনামে সম্মেলনটির আয়োজক সেন্টার ফর পিপল অ্যান্ড এনভায়রন (সিপিই)। তাতে সহ-আয়োজক হিসেবে ছিল অরণ্যক ফাউন্ডেশন, অক্সফাম ইন বাংলাদেশ, গ্লোবাল ফোরাম ফর সাসটেইনেবল ডেভেলপমেন্ট, গ্লোবাল সেন্টার ফর ক্লাইমেট চেঞ্জ অ্যান্ড এনভায়রনমেন্ট, সেন্টার ফর অ্যাটমোসফেরিক পলিউশন স্টাডিজ, বারসিক, লেডার্স, ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি।

সম্মেলনে বাংলাদেশ ছাড়াও দক্ষিণ এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে গবেষকরা প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। তাদের মধ্যে ছিল ভারতের কাথেরশালা শ্রীনিভাস, শ্রীলঙ্কা থেকে ড. পূর্ণিকা কুমারি সীলাগামা, নেপাল থেকে অভিশেক শ্রেষ্ঠা, দক্ষিণ কোরিয়ার কে পার্ক ।

দ্বিতীয় দিনে সিপিই এর পরিচালক মুহাম্মদ আবদুর রহমান উদ্বোধনী বক্তব্য দেন। প্রথম অধিবেশননে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভ‚গোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম শহীদুল ইসলাম। জলবায়ু সম্মেলনে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, ইউনিভার্সিটি অফ টরন্ট, কানাডা স্কারবোরোর সহযোগী অধ্যাপক ড. মনিরুল কাদের মির্জা।

তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ এবং এর প্রতিবেশী দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোর মধ্যে ভৌগোলিক এবং জলবায়ুগত সাদৃশ্য থাকায় দেশগুলোর মধ্যে “ক্রস বর্ডার” উদ্যোগ গ্রহন ও বাস্তবায়ন করা যেতে পারে।’

প্রধান অতিথির বক্তব্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভূগোল ও পরিবেশ বিভাগের চেয়ারম্যান ড. এম শহীদুল ইসলাম বলেন, ‘জলবায়ু স¤প্রর্কিত তথ্য আদান প্রদানে দক্ষিণ এশীয় দেশগুলোকে আরো পরস্পর যোগাযোগ বাড়াতে হবে।’

সম্মেলনের সমাপনী সেশনে দুটি বিষয় ‘ঢাকা ডিকলারেশন’ও ‘সাউথ এশিয়ান রিসার্চ হাব’ ঘোষণা করেন মুহাম্মদ আবদুর রহমান। এরফলে, বৈজ্ঞানিক গবেষণা, তথ্যপ্রমাণাদি সংগ্রহ ও প্রচারের মাধ্যমে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর জলবায়ু স্থিতিস্থাপকতা সপ্রসারণ এবং জলবায়ু পরিবর্তনে দক্ষিণ এশীয় গবেষকদের মধ্যে সক্ষমতা তৈরিতে ভ‚মিকা রাখবে।

এরসাথে সাউথ এশিয়ার ৭টি রিসার্চ হাব থিমেটিক এরিয়া ঘোষণা করেন। থিমেটিক এরিয়াগুলো হল; সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি, উপক‚লীয় বাস্তুতন্ত্র, নেচার ব্যাসড সলিউশন, স্থানীয় অভিযোজন, জলবায়ুজনিত স্থানান্তর ও স্থানচ্যুতি এবং হিউম্যান সিকিউরিটি, জলবায়ু ও স্বাস্থ্য, জীববৈচিত্র ও খাদ্য নিরাপত্তা, এবং টেকসই নগরায়ন।

সম্মেলনের সমাপনী সেশনের চেয়ার হিসেবে আলোচনা করেন ঢাকা স্কুল অব ইকোনোমিকসের চেয়ারম্যান ড. কাজী খলিকুজ্জামান আহমদ। তিনি মনে করেন, সাউথ এশিয়ায় তরুণদের গবেষণার সুযোগ কম, ‘সাউথ এশিয়ান রিসার্চ হাব’ গঠন করার মাধ্যমে তরুণ গবেষদের গবেষণার সুযোগ তৈরি হবার বিষয়ে আমি আশাবাদী।

কনফারেন্স স্পিকার ড. মনিরুল কাদের মির্জা তার সমাপনী বক্তব্যে বলেন, দঢাকা ডিকলারেশন খুবই সময়োপযযোগী উদ্যোগ বলে আমি মনে করি। এর মাধ্যমে সাউথ এশিয়ায় তরুণ গবেষকদের মধ্যে গবেষণার পথ উন্মোচন হবে।’

সম্মেলনে ভারতের ত্রিপুরা ইউনিভার্সিটির ডিপার্টমেন্ট অব রুরাল স্টাডিসের এসিস্ট্যান্ট প্রফেসর ড. জয়ন্ত চৌধুরী, ভুটানের কলেজ অব ন্যাচারাল রিসোর্চ এর ডিপার্টমেন্ট অব ইনভাইরনমেন্ট এন্ড ক্লাইমেট স্টাডিসের প্রফেসর ড. ওম কাতেল, শ্রীলঙ্কার ইউনিভার্সিটি অব পেরাদেনিয়া, ডিপার্ট্মেন্ট অব সোশিওলজির সিনিয়র লেকচারার ড. পূর্ণিকা কুমারি সীলাগামা, ভারতের ইউনিভার্সিটি অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি, ডিপার্ট্মেন্ট অব রুরাল ডেভেলপমেন্ট, এসোসিয়েট প্রফেসর এন্ড হেড ড. পাপিয়া দত্ত, ভারতের ডিপার্টমেট অব হায়ার এডুকুশনের এসোসিয়েট প্রফেসর, (সোশিওলজি),ড মহিনদার কুমার ¯øারিয়া। ‘ঢাকা ডিকলারেশন’ এবং ‘সাউথ এশিয়া রিসার্চ হাব’ এর লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্যের সাথে একমত পোষণ করেন।

সম্মেলনের ছয়টি সেশনে তরুণ গবেষকদের ৩৬টি গবেষণা প্রবন্ধ ও পোস্টার প্রেজেন্টেশনের মাধ্যমে প্রধান আলোচ্য বিষয়গুলোর সমস্যা ও সমাধানের বিষয়ে আলোচনা করা হয়। প্রতি সেশনে দুইজন আলোচক ও একজন চেয়ার ওই সেশন পরিচালনা করেন।

back to top