alt

নগর-মহানগর

বন্যা, খরা ও লবণাক্ততা সহিষ্ণু জাতের উদ্ভাবনের দিকে জোর কৃষিমন্ত্রীর

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বুধবার, ২২ জুন ২০২২

বৈশ্বিক উষ্ণায়নের প্রভাবে বাংলাদেশের জলবায়ু পরিবর্তন হচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, খরা, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়সহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন সমগ্র বিশ্বের সমস্যা হলেও বাংলাদেশের মতো দেশগুলোতে এর ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হয়। এ থেকে বাঁচতে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার মতো নতুন জাতের খাদ্য-শস্যের জাতের উদ্ভাবন করার ওপর জোর দিতে হবে।

বুধবার (২২ জুন) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আঞ্চলিক আন্তঃসরকার সংস্থা সাউথ এশিয়া কো অপারেটিভ এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রাম আয়োজিত অনুষ্ঠানে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর নাইট্রোজেন দূষণ নীতি ও ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় আলোচকরা এসব বিষয়ের ওপর গুরুত্বাররোপ করেন। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর বিজ্ঞানীরা এ অঞ্চলে নাইট্রোজেন দূষণের ওপর বিদ্যমান নীতির ওপর একটি আঞ্চলিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

দুর্যোগকালীন সময়ে করণীয় হিসেবে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার পরামর্শ দেন কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘পরিবেশের সঙ্গে অ্যাডাপ্ট (মানিয়ে নেয়া) করতে হবে। সেটি আমাদের জন্য খুবই ইম্পর্ট্যান্ট (গুরুত্বপূর্ণ)।’

পরিবেশ বির্পজয় হলে ধান পানির নিচে চলে যাবে, লবণাক্ততা বাড়বে, খরা বাড়বে। এগুলোর জন্য স্ট্রেস রেসিস্ট্যান্ট ধানের জাত, বিভিন্ন ফসলের জাত আমাদের বিজ্ঞানীদের আবিষ্কার করতে হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

জমিতে নাইট্রোজেনের ঘাটতির বিপদ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘নাইট্রোজেন ৬০-৭০% লস হয়ে যাচ্ছে। এটা কিন্তু তাড়াতাড়ি উড়ে যায় বাতাসে। এটাকে কমিয়ে আনতে হবে। এফিসিয়েন্সি লেভেল বাংলাদেশে খুব-ই কম। মাত্র ৩০-৩৫%। আমরা চাচ্ছি যে এটাকে কীভাবে বাড়ানো যায় এবং এর জন্য রিজিওনাল কোঅপারেশন খুবই ইম্পর্ট্যান্ট এবং আমি মনে করি সাসেপের সদস্য মেম্বার কান্ট্রিরা সবাই মিলে একটা ভালো পলিসি নেবে। যাতে করে নাইট্রোজেন ইফিশিয়েন্সি আমরা বাড়াতে পারি।’

কৃষি দক্ষিণ এশিয়ার মানুষের প্রধান জীবিকা উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘ফসল উৎপাদন এবং পরিবেশ দূষণ রোধে নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনা খুবই ‘চ্যালেঞ্জিং’।’

উপমহাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা এবং পরিবেশগত স্থায়িত্ব নিশ্চিতে টেকসই নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনার বিকাশে পারস্পরিক সহযোগিতা ও সুসংহতভাবে কাজ করার ‘এখনই সময়’ বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, ভারত এবং অন্যান্য দেশ পরিবেশের প্রতি ‘কমিটেড’ মন্তব্য করে আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ তো এক্সট্রিমলি ভালনারেবল টু ক্লাইমেট চেইঞ্জ। কাজেই আমাদেরকে সঠিক পথ গ্রহণ করতে হবে।’

ওই অনুষ্ঠানে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি দেখে সরকারের পুনর্বাসন কর্মসূচি নেয়ার কথাজানান মন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, ‘এখন কোন মেজর ফসল নাই। তবে বাংলাদেশে এই সময়ে তো বন্যা দীর্ঘস্থায়ী হয়। তাহলে আমনের একটাই (সম্ভাবনা) রয়েছে ক্ষতি হওয়ার। তারপর আউশও ক্ষতি হচ্ছে। এগুলা দেখে আমরা পুনর্বাসন কর্মসূচি।’

বাংলাদেশের প্রতিবেদন তুলে ধরে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার পরিবেশ দূষণ, খাদ্য নিরাপত্তা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে নাইট্রোজ দূষণের বাস্তবসম্মত সমাধান খুঁজে পেতে বিজ্ঞানী এবং নীতি নির্ধারকদের সম্মিলিত কাজে ওপর গুরুত্ব দেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি এবং সাউথ এশিয়া কো অপারেটিভ এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রামের মহাপরিচালক ড. মাসুমুর রহমান বলেন ‘নাট্রোজেন দূষণ মোকাবেলায় প্রমাণ-ভিত্তিক নীতিমালা তৈরির জন্য দক্ষিণ এশীয় সহযোগিতার একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত এটি।’ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, যুক্তরাজ্যের এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রজার জেফারি হানান, ইউকে সেন্টার ফর ইকোলজি অ্যান্ড হাইড্রোলজির অধ্যাপক মার্ক সুটন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান ।

বিশ্বখ্যাত স্বাস্থ্য সাময়িকী ‘ল্যানসেট’ তাদের গবেষণা প্রতিবেদনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে যেসব রোগের প্রকোপ দেখা দিতে পারে এরমধ্যে সংক্রমণ ও কীটপতঙ্গবাহিত রোগের ধরণে পরিবর্তন আসবে, তাপপ্রবাহে মৃতের সংখ্যা বাড়বে, জলোচ্ছ্বাস-ঘূর্ণিঝড়

কালবৈশাখী ইত্যাদিতে আক্রান্ত হয়ে সরাসরি জখমের সংখ্যাও বাড়বে।

ছবি

ড্রোন দিয়ে ডেঙ্গু মশা খুঁজবে ডিএনসিসি

ছবি

ডিএনসিসির ৬ গরুর হাটে হবে ডিজিটাল লেনদেন

রাজধানীতে ৪৩ চোরাই মোবাইল উদ্ধার, মালিক খুঁজছে পুলিশ

এবার ঢাকা দক্ষিণে ৬টি ‘কৃষকের বাজার’ হচ্ছে

রাজধানীতে মলম পার্টি ও ছনতাইকারী চক্রের ২৬ গ্রেপ্তার

ছবি

শাহবাগে ট্রাকের ধাক্কায় কলেজশিক্ষার্থী নিহত

ছবি

দক্ষিণ সিটির উপ-কর কর্মকর্তাসহ চাকরি হারালেন ৩২ জন

রাজধানীতে মলম পার্টি ও ছিনতাইকারী চক্রের ২৬ সদস্য গ্রেপ্তার

ছবি

মতিঝিলে ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার মাদক কারবারি

ছবি

মাদকবিরোধী অভিযান: রাজধানীতে আটক ৪২

রাজধানীতে ট্রাকচাপায় মোটরসাইকেল চালক নিহত

রাষ্ট্রপতির ছেলের গাড়িচালককে মারধর, মামলা ছাত্রলীগকর্মীর নামে

গাড়ীর ধাক্কায় মোটর সাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

বংশালে বিস্ফোরণে একই পরিবারের দগ্ধ ৪

ছবি

পদ্মা সেতু উদ্বোধন: বর্ণিল সাজে সেজেছে ঢাকা উত্তর সিটি

ছবি

রামপুরায় গৃহকর্মীর মৃত্যুর রহস্য খুঁজছে পুলিশ

ছবি

রাজধানীতে মদ-হেরোইনসহ গ্রেপ্তার ৬৮

ছবি

তিন দিনব্যাপী ‘ঢাকা মোটর শো-২০২২’ শুরু কাল

১ সেপ্টেম্বর তিন রুটে ২০০ বাস দিয়ে চালু হবে ঢাকা নগর পরিবহন

ছবি

ইউনিলিভার ও সার্কুলার এর যৌথ অংশীদারিত্বে প্লাস্টিক সংগ্রহের উদ্যোগ

ছবি

আর্টিকেল নাইনটিনের আয়োজনে বিদ্বেষমূলক বক্তব্য প্রতিরোধ বিষয়ক ওয়েবিনার

ছবি

‘১ সেপ্টেম্বর থেকে আরও তিন রুটে ঢাকা নগর পরিবহনের ২০০ বাস নামবে’

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযান, ৫৪ মামলায় গ্রেফতার ৭৪

ছবি

বাংলাদেশ ব্যাংকের আগুন নিয়ন্ত্রণে

ছবি

রন্ধন শিল্পী তৈরির কারিগরদের সম্মাননা দিলো বেকিং এন্ড কুকিং এন্টারপ্রেনারস বিডি

ছবি

আজ রন্ধন শিল্পীদের সম্মাননা

ছবি

‘গৃহ সুখন’ এর রিমা জুলফিকার, দিন বদলের পালাকার

ছবি

মুনিরা সুলতানার ‘আপন ঘর’, চলছে আপন গতিতে

ছবি

রাজধানীতে হেরোইন-ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ৫২

ছবি

আন্তর্জাতিক জলবায়ু তহবিল সংগ্রহে স্থানীয় সরকার কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

হাইকোর্ট মোড়ে ট্রাকের ধাক্কায় মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

ছবি

আলোয় ঝলমল পুরো পদ্মা সেতু

রাজধানীতে ৬ জুলাই থেকে বসবে অস্থায়ী কোরবানির পশুর হাট

ছবি

জুরাইনের ঘটনায় যেই অপরাধ করুক তার বিচার হবে : আপিল বিভাগ

বিরোধীদল ছাড়া স্বচ্ছ নির্বাচনও গ্রহণযোগ্যতা হারাতে পারে : সিইসি

ছবি

শেষ মুহূর্তে প্রকল্প এলাকায় চলছে ৮ ধরনের কাজ

tab

নগর-মহানগর

বন্যা, খরা ও লবণাক্ততা সহিষ্ণু জাতের উদ্ভাবনের দিকে জোর কৃষিমন্ত্রীর

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বুধবার, ২২ জুন ২০২২

বৈশ্বিক উষ্ণায়নের প্রভাবে বাংলাদেশের জলবায়ু পরিবর্তন হচ্ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ফলে অতিবৃষ্টি, অনাবৃষ্টি, খরা, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়সহ নানা প্রাকৃতিক দুর্যোগ দেখা দিয়েছে। জলবায়ু পরিবর্তন সমগ্র বিশ্বের সমস্যা হলেও বাংলাদেশের মতো দেশগুলোতে এর ভয়াবহ পরিণতি ভোগ করতে হয়। এ থেকে বাঁচতে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার মতো নতুন জাতের খাদ্য-শস্যের জাতের উদ্ভাবন করার ওপর জোর দিতে হবে।

বুধবার (২২ জুন) রাজধানীর হোটেল সোনারগাঁওয়ে আঞ্চলিক আন্তঃসরকার সংস্থা সাউথ এশিয়া কো অপারেটিভ এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রাম আয়োজিত অনুষ্ঠানে দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর নাইট্রোজেন দূষণ নীতি ও ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এক প্রতিবেদন প্রকাশের সময় আলোচকরা এসব বিষয়ের ওপর গুরুত্বাররোপ করেন। দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর বিজ্ঞানীরা এ অঞ্চলে নাইট্রোজেন দূষণের ওপর বিদ্যমান নীতির ওপর একটি আঞ্চলিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

দুর্যোগকালীন সময়ে করণীয় হিসেবে পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার পরামর্শ দেন কৃষিমন্ত্রী মো. আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘পরিবেশের সঙ্গে অ্যাডাপ্ট (মানিয়ে নেয়া) করতে হবে। সেটি আমাদের জন্য খুবই ইম্পর্ট্যান্ট (গুরুত্বপূর্ণ)।’

পরিবেশ বির্পজয় হলে ধান পানির নিচে চলে যাবে, লবণাক্ততা বাড়বে, খরা বাড়বে। এগুলোর জন্য স্ট্রেস রেসিস্ট্যান্ট ধানের জাত, বিভিন্ন ফসলের জাত আমাদের বিজ্ঞানীদের আবিষ্কার করতে হবে বলেও জানান মন্ত্রী।

জমিতে নাইট্রোজেনের ঘাটতির বিপদ তুলে ধরে মন্ত্রী বলেন, ‘নাইট্রোজেন ৬০-৭০% লস হয়ে যাচ্ছে। এটা কিন্তু তাড়াতাড়ি উড়ে যায় বাতাসে। এটাকে কমিয়ে আনতে হবে। এফিসিয়েন্সি লেভেল বাংলাদেশে খুব-ই কম। মাত্র ৩০-৩৫%। আমরা চাচ্ছি যে এটাকে কীভাবে বাড়ানো যায় এবং এর জন্য রিজিওনাল কোঅপারেশন খুবই ইম্পর্ট্যান্ট এবং আমি মনে করি সাসেপের সদস্য মেম্বার কান্ট্রিরা সবাই মিলে একটা ভালো পলিসি নেবে। যাতে করে নাইট্রোজেন ইফিশিয়েন্সি আমরা বাড়াতে পারি।’

কৃষি দক্ষিণ এশিয়ার মানুষের প্রধান জীবিকা উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘ফসল উৎপাদন এবং পরিবেশ দূষণ রোধে নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনা খুবই ‘চ্যালেঞ্জিং’।’

উপমহাদেশের খাদ্য নিরাপত্তা এবং পরিবেশগত স্থায়িত্ব নিশ্চিতে টেকসই নাইট্রোজেন ব্যবস্থাপনার বিকাশে পারস্পরিক সহযোগিতা ও সুসংহতভাবে কাজ করার ‘এখনই সময়’ বলে তিনি মন্তব্য করেন।

বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা, ভারত এবং অন্যান্য দেশ পরিবেশের প্রতি ‘কমিটেড’ মন্তব্য করে আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশ তো এক্সট্রিমলি ভালনারেবল টু ক্লাইমেট চেইঞ্জ। কাজেই আমাদেরকে সঠিক পথ গ্রহণ করতে হবে।’

ওই অনুষ্ঠানে বন্যার ক্ষয়ক্ষতি দেখে সরকারের পুনর্বাসন কর্মসূচি নেয়ার কথাজানান মন্ত্রী। মন্ত্রী বলেন, ‘এখন কোন মেজর ফসল নাই। তবে বাংলাদেশে এই সময়ে তো বন্যা দীর্ঘস্থায়ী হয়। তাহলে আমনের একটাই (সম্ভাবনা) রয়েছে ক্ষতি হওয়ার। তারপর আউশও ক্ষতি হচ্ছে। এগুলা দেখে আমরা পুনর্বাসন কর্মসূচি।’

বাংলাদেশের প্রতিবেদন তুলে ধরে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার পরিবেশ দূষণ, খাদ্য নিরাপত্তা এবং জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে নাইট্রোজ দূষণের বাস্তবসম্মত সমাধান খুঁজে পেতে বিজ্ঞানী এবং নীতি নির্ধারকদের সম্মিলিত কাজে ওপর গুরুত্ব দেন।

অনুষ্ঠানের সভাপতি এবং সাউথ এশিয়া কো অপারেটিভ এনভায়রনমেন্ট প্রোগ্রামের মহাপরিচালক ড. মাসুমুর রহমান বলেন ‘নাট্রোজেন দূষণ মোকাবেলায় প্রমাণ-ভিত্তিক নীতিমালা তৈরির জন্য দক্ষিণ এশীয় সহযোগিতার একটি ঐতিহাসিক মুহূর্ত এটি।’ অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, যুক্তরাজ্যের এডিনবরা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রজার জেফারি হানান, ইউকে সেন্টার ফর ইকোলজি অ্যান্ড হাইড্রোলজির অধ্যাপক মার্ক সুটন এবং বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান ।

বিশ্বখ্যাত স্বাস্থ্য সাময়িকী ‘ল্যানসেট’ তাদের গবেষণা প্রতিবেদনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবে যেসব রোগের প্রকোপ দেখা দিতে পারে এরমধ্যে সংক্রমণ ও কীটপতঙ্গবাহিত রোগের ধরণে পরিবর্তন আসবে, তাপপ্রবাহে মৃতের সংখ্যা বাড়বে, জলোচ্ছ্বাস-ঘূর্ণিঝড়

কালবৈশাখী ইত্যাদিতে আক্রান্ত হয়ে সরাসরি জখমের সংখ্যাও বাড়বে।

back to top