alt

নগর-মহানগর

সড়কে নিহতদের স্মরণে ঢাকায় পদযাত্রা, মৃত্যুর মিছিল বন্ধের দাবি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক : শুক্রবার, ২৯ জুলাই ২০২২

সড়কে নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে রাজধানীতে পদযাত্রা করেছে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন (নিসআ)। তারা এই পদযাত্রা থেকে সড়ক নিরাপদ করার দাবি জানিয়েছে। সড়কে মৃত্যুর মিছিল বন্ধে কর্তৃপক্ষের কার্যকর পদক্ষেপ চেয়েছে।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলনের চতুর্থ বার্ষিকীতে আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর খিলক্ষেত বাসস্ট্যান্ডের পদচারী সেতুর নিচ থেকে এই পদযাত্রা শুরু হয়।

পদযাত্রা থামে এমইএস বাসস্ট্যান্ড-সংলগ্ন কুর্মিটোলা এলাকায়। ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই এখানকার ফুটপাতে বাসচাপায় নিহত হয়েছিল শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব ও দিয়া। তাদের নিহত হওয়ার স্থানে সড়কে নিহত সবার স্মরণে আজ একটি স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করা হয়।

সহপাঠীর মৃত্যুর পর শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়কে নেমেছিল। নিরাপদ সড়কের দাবিতে ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই শুরু হওয়া আন্দোলন ধীরে ধীরে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীরা রাস্তায় থেকে বড়দের ভুল-বিশৃঙ্খলা ধরিয়ে দেয়।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে মন্ত্রিসভার সদস্য, রাজনীতিক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের বক্তব্য ছিল, ‘শিশুরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে, বিবেককে জাগ্রত করেছে।’ তখন দায়িত্বশীল সবাই সড়ক নিরাপদ ও বিশৃঙ্খলমুক্ত করতে নানা আশ্বাস দেন। এই আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরে যায়। তবে সড়কে আগের মতোই দুর্ঘটনা ঘটছে। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল।

আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পদযাত্রাটি শুরু হয়। কিছু শিক্ষার্থী সাদা কাপড় পরে ‘সড়কে লাশের মিছিল’ লেখা ব্যানার নিয়ে পদযাত্রার সামনে অংশ নেন। পদযাত্রায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের হাতে ‘বি অ্যালার্ট, রোড ইন বিডি ইজ নট সেফ’, ‘গণপরিবহন বৃদ্ধি কর’, ‘জেব্রা ক্রসিংয়ের সংখ্যা বাড়াও’, ‘যানজট মুক্ত সড়ক চাই’, ‘আইন প্রয়োগে সরকার ব্যর্থ কেন?’ ইত্যাদি লেখা প্ল্যাকার্ড ছিল।

শিক্ষার্থীরা নিজেদের দাবি-দাওয়ার কথা জানিয়ে স্লোগানও দেয়। তাদের স্লোগানগুলোর মধ্যে ছিল—‘নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘সড়কে ছাত্র মরে—প্রশাসন কী করে?’, ‘পুলিশের গাড়িতে ছাত্র মরে—প্রশাসন কী করে?’, ‘প্রশাসন করে কি খায়-দায়-ঘুমায় না কি?’, ‘যে হাত ছাত্র মারে, সে হাত ভেঙে দাও’।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের (নিসআ) কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক শাহীদুল ইসলাম বলেন, ‘২০১৮ সালে আমরা ৯ দফা দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছিলাম। সেই আন্দোলনের চার বছর পেরিয়ে গেছে। এখনো আমাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন করা হয়নি। কোনো দফা এখনো পূরণ হয়নি। তাই বারবার আমাদের রাস্তায় নেমে আসতে হচ্ছে।’

শাহীদুল ইসলাম বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলিস্তানে পুলিশের রেকার গাড়ির চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহত হয়। যে পুলিশের দায়িত্ব নাগরিকদের রক্ষা করা, সেই পুলিশের গাড়ির চাপায় যদি শিক্ষার্থী নিহত হয়, তাহলে তারা কার কাছে বিচার চাইবে? এই দায় সরকারের, প্রশাসনের। সরকার–প্রশাসন পদক্ষেপ নিলে আর কোনো শিক্ষার্থী সড়কে নিহত হতো না।

পদযাত্রায় অংশ নেওয়া রাজধানীর তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী মহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পদযাত্রায় অংশ নেন নীপা ওয়াহিদ নামের এক অভিভাবক। তিনি রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা।

জ্বালানি সংকট মোকাবিলায় নিজস্ব নির্ভরতা বাড়ানোর তাগিদ

ছবি

নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর দেশপ্রেমের আদর্শ নিয়ে গড়ে উঠতে হবে: শিক্ষামন্ত্রী

ছবি

ঢাকায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ২

ছবি

রিকশার গ্যারেজে বিস্ফোরণ: দগ্ধদের কেউই আর নেই

সরকার মিথ্যাচার করছে : মান্না

শোক দিবস উপলক্ষে এতিম শিশুদের মধ্যে খাবার বিতরণ করলো র‌্যাব

ছবি

সংরক্ষিত কবরে ফের দাফনে খরচ বাড়ল ১০-২০ হাজার টাকা

ছবি

রাজধানীতে ব্যাংকের বুথে ব্যবসায়ীকে হত্যা

ছবি

বনানীতে গাড়ির ধাক্কায় অটোরিকশা চালকের মৃত্যু, আহত মা-ছেলে

ছবি

হোটেল থেকে নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

ছবি

রাজধানীতে হোটেল থেকে নারী চিকিৎসকের গলাকাটা লাশ উদ্ধার

ছবি

বার্জার অ্যাওয়ার্ড ফর এক্সিলেন্স ইন আর্কিটেকচার এর দশম আয়োজন

বাস মালিকদের ওয়েবিলের জালে বন্দী যাত্রীরা, সর্বনিম্ন ১০ টাকার ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৩৫ টাকা

প্রতি মাসে সরকারি গাড়ির ১৮ হাজার লিটার তেল কিনত চক্রটি

ভাঙারি দোকানে বিস্ফোরণ : দগ্ধ ৮ জনের মধ্যে মৃত্যু হলো ৭ জনের

শ্যামপুরে ট্রান্সফরমার বিস্ফোরণে ৪ শ্রমিক দগ্ধ

ছবি

তুরাগে রিকশার গ্যারেজে বিস্ফোরনে মৃতের সংখ‍্যা বেড়ে ৬

ছবি

গণপরিবহনে ভাড়া নৈরাজ্য চলছে

ছবি

প্রবাসীকে চড় মেরে বরখাস্ত হলেন কাস্টম কর্মকর্তা

ছবি

শাহবাগে সমাবেশে লাঠিপেটার পর মামলা পুলিশের

ছবি

মন্ত্রী পদমর্যাদা পাচ্ছেন ঢাকার দুই মেয়র

ছবি

উত্তরায় জার্মান নাগরিকের মরদেহ উদ্ধার

ভাঙারির দোকানে বিস্ফোরণে উত্তরায় ৪ জন নিহত

ছবি

ইচ্ছেমতো ভাড়া আদায়, গণপরিবহনে বিশৃঙ্খলা

ছবি

জ্বালানির মূল্যবৃদ্ধি: শাহবাগে প্রতিবাদ সমাবেশে পুলিশের লাঠিচার্জ

ছবি

জ্বালানির বাড়তি দাম প্রত্যাহার দাবিতে শাহবাগে অবস্থান ধর্মঘাট

রাজধানীতে রিকশার গ্যারেজে বিস্ফোরণ অগ্নিদগ্ধ ৮ জন

ছবি

তুরাগে বিস্ফোরণে দগ্ধ তিনজনের মৃত্যু

ছবি

নয়াপল্টনে চলছে বিএনপির বিক্ষোভ, আজও রাস্তা বন্ধ

বাসে উঠতে যুদ্ধ, দ্বিগুণ ভাড়ায় বিরক্ত যাত্রীরা

ছবি

চট্টগ্রামে গণপরিবহন বন্ধের ঘোষণা, বিপাকে সাধারণ মানুষ

ছবি

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধি: রাজধানীতে পরিবহন সঙ্কট, ভোগান্তি

ছবি

আন্দোলনকারীদের ওপর হামলার ৪ বছরেও বিচার হয়নি

বিশ্বব্যাপী জ্বালানী সংকটের কারণে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যাহত হচ্ছে: চসিক মেয়র

ছবি

নারায়ণগঞ্জে ইউনিলিভার ও ইউএনডিপির প্লাস্টিক বর্জ্য ব্যবস্থাপনা প্রকল্প পরিদর্শন করলেন ব্রিটিশ হাইকমিশনার

ছবি

সেই সোহরাব সার্ভিস স্টেশনকে লাখ টাকা জরিমানা

tab

নগর-মহানগর

সড়কে নিহতদের স্মরণে ঢাকায় পদযাত্রা, মৃত্যুর মিছিল বন্ধের দাবি

নিজস্ব বার্তা পরিবেশক

শুক্রবার, ২৯ জুলাই ২০২২

সড়কে নিহত ব্যক্তিদের স্মরণে রাজধানীতে পদযাত্রা করেছে নিরাপদ সড়ক আন্দোলন (নিসআ)। তারা এই পদযাত্রা থেকে সড়ক নিরাপদ করার দাবি জানিয়েছে। সড়কে মৃত্যুর মিছিল বন্ধে কর্তৃপক্ষের কার্যকর পদক্ষেপ চেয়েছে।

নিরাপদ সড়কের দাবিতে ছাত্র আন্দোলনের চতুর্থ বার্ষিকীতে আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর খিলক্ষেত বাসস্ট্যান্ডের পদচারী সেতুর নিচ থেকে এই পদযাত্রা শুরু হয়।

পদযাত্রা থামে এমইএস বাসস্ট্যান্ড-সংলগ্ন কুর্মিটোলা এলাকায়। ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই এখানকার ফুটপাতে বাসচাপায় নিহত হয়েছিল শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থী রাজীব ও দিয়া। তাদের নিহত হওয়ার স্থানে সড়কে নিহত সবার স্মরণে আজ একটি স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করা হয়।

সহপাঠীর মৃত্যুর পর শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের শিক্ষার্থীরা সড়কে নেমেছিল। নিরাপদ সড়কের দাবিতে ২০১৮ সালের ২৯ জুলাই শুরু হওয়া আন্দোলন ধীরে ধীরে সারা দেশে ছড়িয়ে পড়ে। শিক্ষার্থীরা রাস্তায় থেকে বড়দের ভুল-বিশৃঙ্খলা ধরিয়ে দেয়।

শিক্ষার্থীদের আন্দোলন চলাকালে মন্ত্রিসভার সদস্য, রাজনীতিক ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কর্মকর্তাদের বক্তব্য ছিল, ‘শিশুরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে, বিবেককে জাগ্রত করেছে।’ তখন দায়িত্বশীল সবাই সড়ক নিরাপদ ও বিশৃঙ্খলমুক্ত করতে নানা আশ্বাস দেন। এই আশ্বাসে শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরে যায়। তবে সড়কে আগের মতোই দুর্ঘটনা ঘটছে। বাড়ছে মৃত্যুর মিছিল।

আজ সকাল সাড়ে ১০টার দিকে পদযাত্রাটি শুরু হয়। কিছু শিক্ষার্থী সাদা কাপড় পরে ‘সড়কে লাশের মিছিল’ লেখা ব্যানার নিয়ে পদযাত্রার সামনে অংশ নেন। পদযাত্রায় অংশ নেওয়া শিক্ষার্থীদের হাতে ‘বি অ্যালার্ট, রোড ইন বিডি ইজ নট সেফ’, ‘গণপরিবহন বৃদ্ধি কর’, ‘জেব্রা ক্রসিংয়ের সংখ্যা বাড়াও’, ‘যানজট মুক্ত সড়ক চাই’, ‘আইন প্রয়োগে সরকার ব্যর্থ কেন?’ ইত্যাদি লেখা প্ল্যাকার্ড ছিল।

শিক্ষার্থীরা নিজেদের দাবি-দাওয়ার কথা জানিয়ে স্লোগানও দেয়। তাদের স্লোগানগুলোর মধ্যে ছিল—‘নিরাপদ সড়ক চাই’, ‘উই ওয়ান্ট জাস্টিস’, ‘সড়কে ছাত্র মরে—প্রশাসন কী করে?’, ‘পুলিশের গাড়িতে ছাত্র মরে—প্রশাসন কী করে?’, ‘প্রশাসন করে কি খায়-দায়-ঘুমায় না কি?’, ‘যে হাত ছাত্র মারে, সে হাত ভেঙে দাও’।

নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের (নিসআ) কেন্দ্রীয় যুগ্ম আহ্বায়ক শাহীদুল ইসলাম বলেন, ‘২০১৮ সালে আমরা ৯ দফা দাবি নিয়ে আন্দোলনে নেমেছিলাম। সেই আন্দোলনের চার বছর পেরিয়ে গেছে। এখনো আমাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন করা হয়নি। কোনো দফা এখনো পূরণ হয়নি। তাই বারবার আমাদের রাস্তায় নেমে আসতে হচ্ছে।’

শাহীদুল ইসলাম বলেন, গতকাল বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলিস্তানে পুলিশের রেকার গাড়ির চাপায় এক শিক্ষার্থী নিহত হয়। যে পুলিশের দায়িত্ব নাগরিকদের রক্ষা করা, সেই পুলিশের গাড়ির চাপায় যদি শিক্ষার্থী নিহত হয়, তাহলে তারা কার কাছে বিচার চাইবে? এই দায় সরকারের, প্রশাসনের। সরকার–প্রশাসন পদক্ষেপ নিলে আর কোনো শিক্ষার্থী সড়কে নিহত হতো না।

পদযাত্রায় অংশ নেওয়া রাজধানীর তিতুমীর কলেজের শিক্ষার্থী মহিদুল ইসলাম বলেন, ‘আমাদের দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন চলবে।’ শিক্ষার্থীদের সঙ্গে পদযাত্রায় অংশ নেন নীপা ওয়াহিদ নামের এক অভিভাবক। তিনি রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার বাসিন্দা।

back to top