alt

নগর-মহানগর

মানবাধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র ব্যর্থ

সংবিধানে বলা আছে রাষ্ট্র সবাইকে সমান চোখে দেখবে : সুলতানা কামাল

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : বৃহস্পতিবার, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘সংবিধান বলে দিয়েছে রাষ্ট্র সবাইকে সমান চোখে দেখবে। প্রত্যেকের অধিকার সংরক্ষণ করবে। আজকে দুঃখের সঙ্গে বলতেই হয়, মানুষের মানবাধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে। রাষ্ট্রের মূল দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের মানবাধিকার রক্ষা করা; তা জনগোষ্ঠী যেকোন শ্রেণীর হোক, সংখ্যার হোক, জাতির হোক, বর্ণের হোক।’ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ‘সাতক্ষীরার শ্যামনগরে নরেন্দ্রনাথ মুন্ডা হত্যা ও আদিবাসী ভূমি দখলের প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সুলতানা কামাল এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে ৯টি সংগঠন নরেন্দ্র মুন্ডা হত্যায় জড়িতদের শাস্তি ও ভূমি দখলের প্রতিবাদ জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে সুলতানা কামাল আরও বলেন, ‘একজনের মানুষের অধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র যদি ব্যর্থ হয়ে থাকে সে ব্যর্থতার দায়ভার তাকে গ্রহণ করতে হবে। তা না হলে আদিবাসীদের জীবনে একটির পর একটি নিগ্রহ, অত্যাচার, ধর্ষণ, হত্যা চলতেই থাকবে। তাদের সম্পত্তি বেদখল হতেই থাকবে। তারা সে সংগ্রাম, আন্দোলন করেই জীবন পার করবে। একজন সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে তাদের অধিকার, বঞ্চনার কথা যদি আমরা না শুনি তাহলে আমার মনে হয় আসলে আমরা মাথা উঁচু করে বাঁচার অধিকারটুকু রাখি কি না। আমরা মুক্তিযুদ্ধের কথা বলি, মুক্তিযুদ্ধের উত্তরাধিকারের কথা বলি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং মুক্তিযুদ্ধের নীতি ধারণ করছি। মুক্তিযুদ্ধের কোন চেতনাকে ধারণ-বহন করছে সেটা নিয়ে আজ প্রশ্ন তুলতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, তারা কিন্তু ক্ষমতায় গেছেন জনগণের মানবাধিকার, নাগরিক অধিকার, সামাজিক অধিকার, ব্যক্তিগত জীবনের অধিকার সুরক্ষিত রাখার অঙ্গীকার করে। তারা সে অধিকার রক্ষা করছেন না বরং কখনো কখনো দেখা যায় তারা সে অঙ্গীকার ভঙ্গ করছেন।’ সুলতানা কামাল আরও বলেন, ‘আদিবাসীদের প্রত্যেকের ক্ষেত্রে একই গল্প শুনতে পাই, তাদের সহায় সম্পত্তি, জমি দখল করা হয়েছে এবং সেটার জন্য হত্যাকান্ড ঘটছে, ধর্ষণের মতো নিকৃষ্ট ঘটনা ঘটছে। তাদের ওপর শারীরিক অত্যাচার, নারী নির্যাতন হচ্ছে। এগুলোর কোন বিচার হচ্ছে না। এ ধরনের ঘটনাগুলোর বিচার চাই। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। যাতে এরকম ঘটনা না ঘটে। মানুষের যে ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ দেয়ার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। রাষ্ট্রকে সে ক্ষতিপূরণ দেয়ার চেষ্টা করতে হবে। প্রতিনিয়ত আদিবাসীদের মর্যাদা-সম্মান হুমকির মুখে এবং বিচারহীনতার যে কষ্ট তাতে নিপতিত হতে বাধ্য হচ্ছেন। এটা স্বাধীন দেশে চলতে পারে না।’

নরেন্দ্রনাথ মুন্ডা হত্যাকান্ডের সূত্র ধরে সুলতানা কামাল বলেন, ‘যে সরকার নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি বলে দাবি করে তাদের আমলে এ ধরনের ঘটনা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। যদি সেটা হয়ে থাকে তবে বলতে বাধ্য হবো, তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে সরে গেছেন। ক্ষমতায় থাকার জন্য ব্যস্ত আছেন। ক্ষমতাকে জনগণের অধিকার রক্ষায় ব্যবহার করছেন না। তারা কোন অবস্থাতেই আমাদের এ বার্তা দিতে পারছেন না, জনগণের অধিকার ও মর্যাদা রক্ষার জন্য রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন।’

‘দেশের বিভিন্ন স্থানে আদিবাসীদের ওপর সুপরিকল্পিত নির্যাতন হচ্ছে এবং পুলিশের ভূমিকার কথা আর বলা যাচ্ছে না। পুলিশের ভূমিকার নিন্দা জানাতে জানাতে আমরা ক্লান্ত। এখন সময় এসেছে পুলিশ একবার তাদের নিজেদের দিকে ঘুরে তাকাক। পুলিশের সব সদস্য যে খারাপ সেটা বলতে চাই না। কারণ অনেক কাজে আমরা পুলিশের সহযোগিতা পেয়েছি। কিন্তু সার্বিকভাবে, সাধারণভাবে পুলিশের এমন ভূমিকা কোথাও দেখিনি সঙ্গে সঙ্গে এসে যারা আক্রান্ত হয়েছে সে জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়িয়েছে এবং সুষ্ঠু সুরাহা করে দিতে পেরেছে। কেন আমাদের একটি ঘটনা ঘটলে, অধিকার বঞ্চনার ঘটনা ঘটলে, একটি অত্যাচারের ঘটনা ঘটলে, দুষ্কৃতকারীদের ঘটনায় কেন আমাদের সংবাদ সম্মেলন করে বিচার চাইতে হয়? একটা সভ্য সমাজে, একটা গণতান্ত্রিক সমাজে যারা দুষ্কৃতকারী, যারা অন্যায় করেছে, অপরাধ করেছে তাদের শাস্তি চাইতে হবে কেন? যদি সংবাদ সম্মেলনে তেজের সঙ্গে করা যায়, যদি প্রভাব খাটানো যায় তখনই দুষ্কৃতকারীদের শাস্তি হয়। এটা একটি দেশের নিয়ম হতে পারে না। এটা গণতান্ত্রিক সমাজ, সভ্য সমাজের নিয়ম হতে পারে না।’

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলেন, ‘মুন্ডাপল্লীতে একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড হয়েছে। যার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘু জনগণ চরম নিরাপত্তাহীনতার শিকার হয়েছেন। বাসিন্দাদের আতঙ্কের মূল কারণ আসামিরা গ্রেপ্তার হয়নি। এ ঘটনায় পুলিশ প্রশাসন তৎপর নয়। থানা পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক। রাষ্ট্র ও সরকারকে আন্তরিকতার সঙ্গে এ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর দাবি জানাচ্ছি।’

মুন্ডাদের অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলন সংগ্রাম কমিটির সদস্য-সচিব গোপালচন্দ্র মুন্ডা বলেন, ‘মুন্ডা সম্প্রদায় আমাদের জমি দখলের ব্যাপারে প্রশাসনের কাছে গিয়েও বিচার পায়নি। ভূমিদস্যু মহল আমাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে অনেক জমি দখল করে নিয়েছে। সরকারের কাছে দাবি থাকবে এসব জমি উদ্ধার করা।’

মুন্ডাদের অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলন সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আশিক-ই-এলাহী বলেন, ‘সাতক্ষীরায় ভূমি আন্দোলনে ২২-২৫ জন মারা গেছেন। মুন্ডাদের আক্রমণ করা হয়েছে। প্রশাসনের গ্রুপ আছে, সরকারের লোকজন এসব জমি দখলের চেষ্টা করছে।’

করোনা আক্রান্ত ডিএনসিসির মেয়র আতিক

কামরাঙ্গীরচরে ভেজাল প্রসাধনীসহ গ্রেপ্তার ৭

রাজধানীতে পলিথিন ব্যবসায়ীকে অজ্ঞান করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছে

বাংলাদেশে সম্প্রীতির উজ্জ্বল নজির রয়েছে : আইজিপি

ছবি

তৃতীয়বার করোনায় আক্রান্ত মেয়র আতিক

ছবি

গুলিস্তানে দুই বাসের চাপায় নারীর মৃত্যু

ছবি

ভিকারুননিসার অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনের কার্যক্রম বন্ধ রাখতে নোটিশ

১৫ বছর ধরে বিমানবন্দরে সক্রিয় এক ‘অজ্ঞান পার্টি’

ছবি

বাসায় পড়েছিল অর্ধগলিত লাশ, পুলিশ বলছে হত্যাকাণ্ড

ছবি

অনলাইনে কর পরিশোধে ১০ শতাংশ ছাড় দেবে ডিএনসিসি

ছবি

পরিবাগে ছুরিকাঘাতে তৃতীয় লিঙ্গের একজন নিহত

ছবি

বর্জ্য রিসাইকেল করার লক্ষ্যে কর্ডএইডকে তহবিল সহায়তা দিচ্ছে কোকা-কোলা ফাউন্ডেশন

ছবি

উত্তরায় হোটেল থেকে ব্রিটিশ নাগরিকের লাশ উদ্ধার

ছবি

রাজধানীতে অচেতন অবস্থায় তরুণী উদ্ধার, ধর্ষণের অভিযোগ

ছবি

শেখ হাসিনা নারী জাগরণে অগ্রণী ভূমিকা রেখেছেন: আইভী

ছবি

রাজধানীতে ব্যাংক কর্মকর্তার স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার

‘স্বাধীনতার পরাজিত শত্রুরা সাম্প্রাদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত’

ছবি

সমাবেশের আগেই হাজারীবাগে আ.লীগ-বিএনপি সংঘর্ষ

ছবি

মোহাম্মদপুরে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার

ছবি

দেশে বর্তমানে ১৩ কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ছবি

বংশালে সাততলা থেকে পড়ে উদয়নের শিক্ষার্থীর মৃত্যু

ছবি

বুয়েট এলাকায় ট্রাকের ধাক্কায় নিহত ১

ছবি

ডিএমপির ঊর্ধ্বতন ৯ কর্মকর্তাকে বদলি

ছবি

‘হিডেন হেরিটেজ: হোমস ইন ঢাকা’ প্রকল্পের উন্মোচন

ছবি

রাজধানীতে ঘুমের ওষুধ খেয়ে গৃহবধূর মৃত্যু!

ছবি

পুরান ঢাকায় আগুনে পুড়ল দুই দোকান

ছবি

চার্জশিটে একাধিক সন্ত্রাসী ও আ’লীগ নেতার নাম থাকতে পারে

ছবি

সড়ক ও ফুটপাতে রাখা নির্মাণসামগ্রী নিলামে তুলে বিক্রি

ছবি

রাজধানীতে মাদকবিরোধী অভিযানে আটক ৩৯

বিএনপির ২ শতাধিক নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে পুলিশের মামলা

মুগদা ও আশপাশের এলাকায় গ্যাস সংকট চরমে

ছবি

সিআইডি পরিচয়ে তুলে নেয়া চিকিৎসক শাকির সিটিটিসি হেফাজতে

শাহজাহানপুরে কলেজ শিক্ষার্থীর মৃত্যু, আত্মহত্য বলে পুলিশের ধারণা

ছবি

শিক্ষার্থী নিহত, নিরাপদ সড়কের দাবিতে বিক্ষোভ

ছবি

দক্ষ মানবসম্পদ তৈরি করতে না পারলে আগামী দিনে পিছিয়ে পড়তে হবে: আইসিটি প্রতিমন্ত্রী পলক

ছবি

বিমানের সিটের নিচে দেড় কোটি টাকার স্বর্ণ

tab

নগর-মহানগর

মানবাধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র ব্যর্থ

সংবিধানে বলা আছে রাষ্ট্র সবাইকে সমান চোখে দেখবে : সুলতানা কামাল

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

বৃহস্পতিবার, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২২

সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা ও মানবাধিকারকর্মী সুলতানা কামাল বলেছেন, ‘সংবিধান বলে দিয়েছে রাষ্ট্র সবাইকে সমান চোখে দেখবে। প্রত্যেকের অধিকার সংরক্ষণ করবে। আজকে দুঃখের সঙ্গে বলতেই হয়, মানুষের মানবাধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র ব্যর্থ হয়েছে। রাষ্ট্রের মূল দায়িত্ব হচ্ছে মানুষের মানবাধিকার রক্ষা করা; তা জনগোষ্ঠী যেকোন শ্রেণীর হোক, সংখ্যার হোক, জাতির হোক, বর্ণের হোক।’ বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে ‘সাতক্ষীরার শ্যামনগরে নরেন্দ্রনাথ মুন্ডা হত্যা ও আদিবাসী ভূমি দখলের প্রতিবাদে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে সুলতানা কামাল এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে ৯টি সংগঠন নরেন্দ্র মুন্ডা হত্যায় জড়িতদের শাস্তি ও ভূমি দখলের প্রতিবাদ জানায়।

সংবাদ সম্মেলনে সুলতানা কামাল আরও বলেন, ‘একজনের মানুষের অধিকার রক্ষায় রাষ্ট্র যদি ব্যর্থ হয়ে থাকে সে ব্যর্থতার দায়ভার তাকে গ্রহণ করতে হবে। তা না হলে আদিবাসীদের জীবনে একটির পর একটি নিগ্রহ, অত্যাচার, ধর্ষণ, হত্যা চলতেই থাকবে। তাদের সম্পত্তি বেদখল হতেই থাকবে। তারা সে সংগ্রাম, আন্দোলন করেই জীবন পার করবে। একজন সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগোষ্ঠীর সদস্য হিসেবে তাদের অধিকার, বঞ্চনার কথা যদি আমরা না শুনি তাহলে আমার মনে হয় আসলে আমরা মাথা উঁচু করে বাঁচার অধিকারটুকু রাখি কি না। আমরা মুক্তিযুদ্ধের কথা বলি, মুক্তিযুদ্ধের উত্তরাধিকারের কথা বলি, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা এবং মুক্তিযুদ্ধের নীতি ধারণ করছি। মুক্তিযুদ্ধের কোন চেতনাকে ধারণ-বহন করছে সেটা নিয়ে আজ প্রশ্ন তুলতে হয়।’

তিনি বলেন, ‘স্পষ্ট ভাষায় বলতে চাই, তারা কিন্তু ক্ষমতায় গেছেন জনগণের মানবাধিকার, নাগরিক অধিকার, সামাজিক অধিকার, ব্যক্তিগত জীবনের অধিকার সুরক্ষিত রাখার অঙ্গীকার করে। তারা সে অধিকার রক্ষা করছেন না বরং কখনো কখনো দেখা যায় তারা সে অঙ্গীকার ভঙ্গ করছেন।’ সুলতানা কামাল আরও বলেন, ‘আদিবাসীদের প্রত্যেকের ক্ষেত্রে একই গল্প শুনতে পাই, তাদের সহায় সম্পত্তি, জমি দখল করা হয়েছে এবং সেটার জন্য হত্যাকান্ড ঘটছে, ধর্ষণের মতো নিকৃষ্ট ঘটনা ঘটছে। তাদের ওপর শারীরিক অত্যাচার, নারী নির্যাতন হচ্ছে। এগুলোর কোন বিচার হচ্ছে না। এ ধরনের ঘটনাগুলোর বিচার চাই। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই। যাতে এরকম ঘটনা না ঘটে। মানুষের যে ক্ষতি হয়েছে তার ক্ষতিপূরণ দেয়ার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। রাষ্ট্রকে সে ক্ষতিপূরণ দেয়ার চেষ্টা করতে হবে। প্রতিনিয়ত আদিবাসীদের মর্যাদা-সম্মান হুমকির মুখে এবং বিচারহীনতার যে কষ্ট তাতে নিপতিত হতে বাধ্য হচ্ছেন। এটা স্বাধীন দেশে চলতে পারে না।’

নরেন্দ্রনাথ মুন্ডা হত্যাকান্ডের সূত্র ধরে সুলতানা কামাল বলেন, ‘যে সরকার নিজেদের মুক্তিযুদ্ধের সপক্ষের শক্তি বলে দাবি করে তাদের আমলে এ ধরনের ঘটনা কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য নয়। যদি সেটা হয়ে থাকে তবে বলতে বাধ্য হবো, তারা মুক্তিযুদ্ধের চেতনা থেকে সরে গেছেন। ক্ষমতায় থাকার জন্য ব্যস্ত আছেন। ক্ষমতাকে জনগণের অধিকার রক্ষায় ব্যবহার করছেন না। তারা কোন অবস্থাতেই আমাদের এ বার্তা দিতে পারছেন না, জনগণের অধিকার ও মর্যাদা রক্ষার জন্য রাষ্ট্র পরিচালনা করছেন।’

‘দেশের বিভিন্ন স্থানে আদিবাসীদের ওপর সুপরিকল্পিত নির্যাতন হচ্ছে এবং পুলিশের ভূমিকার কথা আর বলা যাচ্ছে না। পুলিশের ভূমিকার নিন্দা জানাতে জানাতে আমরা ক্লান্ত। এখন সময় এসেছে পুলিশ একবার তাদের নিজেদের দিকে ঘুরে তাকাক। পুলিশের সব সদস্য যে খারাপ সেটা বলতে চাই না। কারণ অনেক কাজে আমরা পুলিশের সহযোগিতা পেয়েছি। কিন্তু সার্বিকভাবে, সাধারণভাবে পুলিশের এমন ভূমিকা কোথাও দেখিনি সঙ্গে সঙ্গে এসে যারা আক্রান্ত হয়েছে সে জনগোষ্ঠীর পাশে দাঁড়িয়েছে এবং সুষ্ঠু সুরাহা করে দিতে পেরেছে। কেন আমাদের একটি ঘটনা ঘটলে, অধিকার বঞ্চনার ঘটনা ঘটলে, একটি অত্যাচারের ঘটনা ঘটলে, দুষ্কৃতকারীদের ঘটনায় কেন আমাদের সংবাদ সম্মেলন করে বিচার চাইতে হয়? একটা সভ্য সমাজে, একটা গণতান্ত্রিক সমাজে যারা দুষ্কৃতকারী, যারা অন্যায় করেছে, অপরাধ করেছে তাদের শাস্তি চাইতে হবে কেন? যদি সংবাদ সম্মেলনে তেজের সঙ্গে করা যায়, যদি প্রভাব খাটানো যায় তখনই দুষ্কৃতকারীদের শাস্তি হয়। এটা একটি দেশের নিয়ম হতে পারে না। এটা গণতান্ত্রিক সমাজ, সভ্য সমাজের নিয়ম হতে পারে না।’

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে বাংলাদেশ আদিবাসী ফোরাম সাধারণ সম্পাদক সঞ্জীব দ্রং বলেন, ‘মুন্ডাপল্লীতে একটি পরিকল্পিত হত্যাকান্ড হয়েছে। যার মধ্য দিয়ে সংখ্যালঘু জনগণ চরম নিরাপত্তাহীনতার শিকার হয়েছেন। বাসিন্দাদের আতঙ্কের মূল কারণ আসামিরা গ্রেপ্তার হয়নি। এ ঘটনায় পুলিশ প্রশাসন তৎপর নয়। থানা পুলিশের ভূমিকা রহস্যজনক। রাষ্ট্র ও সরকারকে আন্তরিকতার সঙ্গে এ মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর দাবি জানাচ্ছি।’

মুন্ডাদের অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলন সংগ্রাম কমিটির সদস্য-সচিব গোপালচন্দ্র মুন্ডা বলেন, ‘মুন্ডা সম্প্রদায় আমাদের জমি দখলের ব্যাপারে প্রশাসনের কাছে গিয়েও বিচার পায়নি। ভূমিদস্যু মহল আমাদের উচ্ছেদের চেষ্টা করছে। ইতোমধ্যে অনেক জমি দখল করে নিয়েছে। সরকারের কাছে দাবি থাকবে এসব জমি উদ্ধার করা।’

মুন্ডাদের অধিকার সংরক্ষণ আন্দোলন সংগ্রাম কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক আশিক-ই-এলাহী বলেন, ‘সাতক্ষীরায় ভূমি আন্দোলনে ২২-২৫ জন মারা গেছেন। মুন্ডাদের আক্রমণ করা হয়েছে। প্রশাসনের গ্রুপ আছে, সরকারের লোকজন এসব জমি দখলের চেষ্টা করছে।’

back to top