alt

নগর-মহানগর

আলোচনা সভায় বক্তাদের অভিমত

বায়ু দূষণ প্রতিরোধে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩

ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং সমকাল আয়োজিত ‘বায়ু দূষণের প্রভাব : আমরা কী করতে পারি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, বায়ু দূষণ প্রতিরোধে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে এবং পাশাপাশি বায়ু দুষনের বিরুদ্ধে তরুণদের সক্রিয় আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (২৮শে মার্চ) রাজধানীর তেজগাঁয়ে সমকাল কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সমকালের সহযোগী সম্পাদক শেখ রোকনের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার। প্যানেল আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন ইমেরটাস অধ্যাপক এবং পানি সম্পদ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত, জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আব্দুল্লাহ শাহরিয়ার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ও রেসপিরেটরি মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান এবং স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার। এছাড়াও বক্তব্য দেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর অপারেশনস অ্যান্ড প্রোগ্রাম কোয়ালিটি সিনিয়র ডিরেক্টর চন্দন যেড গোমেজ, শিক্ষক ও কলামিস্ট মুফতি এনায়েতুল্লাহ, আরবান ইয়ুথ ফোরামের সভাপতি সজীব মিয়া, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ওয়াহিদা আহমেদ, আহসান উল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রিয়াদ, শিশু ফোরামের কনক রায় প্রমূখ।

সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদন উদ্বৃত করে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, রাজধানী ঢাকার বাতাস এখন জনস্বাস্থ্যের জন্য বড় হুমকি। এতে শিশু থেকে শুরু করে সকল বয়সী মানুষ শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণসহ বিভিন্ন ধরণের জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বায়ু দূষণের কারণে মানুষের তাৎক্ষণিক মৃত্যু না হলেও তা ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে নেয়। বায়ু দূষণের অন্যতম কারণ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ। এছাড়া অপরিকল্পিত ইটভাটা, ফিটনেসবিহীন গাড়ি ও অতিরিক্ত যানবাহন বায়ু দূষণের জন্যও দায়ী। অবকাঠামোগত উন্নয়নে বিভিন্ন দপ্তরের আন্তঃসমন্বয়হীনতাও কম দায়ী নয় বলে তারা বলেন।

ছবি

সদরঘাটে যাত্রীবাহী লঞ্চের আগুন নিয়ন্ত্রণে

ছবি

সদরঘাটে যাত্রীবাহী লঞ্চে আগুন

ছবি

এবার এডিসের লার্ভা পেলেই জেল-জরিমানা: মেয়র আতিক

ছবি

রিহ্যাবের মতামত ছাড়া ইমারত নির্মাণ বিধিমালা চূড়ান্ত না করার দাবি

ছবি

কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের স্ত্রী গ্রেপ্তার

নিত্যপণ্যের তুলনায় তামাকপণ্য সস্তা, দাম বাড়ানোর দাবি

ছবি

ট্রেনে পায়ের আঙুল কাটা পড়েছে আনু মুহাম্মদের

ছবি

রেকি করে ফাঁকা ঢাকায় চুরি করতেন তারা

ছবি

প্রচণ্ড তাপপ্রবাহে আইনজীবীদের গাউন পড়নে শিথিলতা

ছবি

হাতিরঝিলে ভাসছিল যুবকের মরদেহ

ছবি

শিশু হাসপাতালে পর্যাপ্ত অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা ছিল না: ফায়ার সার্ভিস

ছবি

শিশু হাসপাতালে আগুন, ৫ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন

ছবি

নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাইদা বাস থার্ড টার্মিনালে, প্রকৌশলী নিহত

ছবি

ঢাকা শিশু হাসপাতালের কার্ডিয়াক বিভাগে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৭ ইউনিট

ছবি

ভাষানটেকে বাবা-মা-দাদির পরে চলে গেল লামিয়াও

ছবি

যমুনা এক্সপ্রেসের লাইনচ্যুত বগি উদ্ধার, ঢাকামুখী পথ সচল

ছবি

রাজধানীতে স্বস্তির বৃষ্টি

ছবি

ভাসানটেকে গ্যাসের আগুন: শাশুড়ি ও স্ত্রীর পর স্বামীও মারা গেছে

ছবি

পহেলা বৈশাখে জাহানারা জাদুঘরের বিশেষ প্রদর্শনী

ছবি

চট্টগ্রামে বস্তিতে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৯ ইউনিট

ছবি

ঢাকায় পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তার ৮

ঢাবি চারুকলার বকুলতলায় গান-নাচ-আবৃত্তিতে চৈত্রসংক্রান্তি উদ্‌যাপন

ছবি

ঢাকায় এসেছে ইসরায়েলের ফ্লাইট, বেবিচকের ব্যাখা

ছবি

বর্ষবরণের অপেক্ষায় রমনা

ছবি

যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ওপর গাড়িতে আগুন লাগে জানান পুলিশ

লঞ্চের দড়ি ছিঁড়ে ৫ জনের মৃত্যু : আসামিদের তিন দিনের রিমান্ড

ছবি

এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ের ওপর প্রাইভেট কারে আগুন

রাজধানীর শাহজাদপুরে বুথের নিরাপত্তা প্রহরীকে হত্যা

ছবি

যাত্রীদের পিটুনিতে হয়নি চালক-সহকারীর মৃত্যু, হেলপার গল্প সাজিয়েছে বলছে পুলিশ

ছবি

ঈদের দিন বন্ধ থাকবে মেট্রোরেল

ছবি

মেট্রোরেলের পিলারে বাসের ধাক্কা

ছবি

কেএনএফের তৎপরতা নিয়ে ঢাকায় কোনো শঙ্কা নেই: ডিএমপি কমিশনার

ছবি

আবাসিক হোটেল থেকে নির্মাতা সোহানুর রহমানের মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

কেটলির শর্টসার্কিট থেকে লিকেজের গ্যাসে বিস্তার

ছবি

জনগণের ঈদযাত্রা স্বস্তিদায়ক করতে পুলিশের সব ইউনিট একযোগে কাজ করছে : আইজিপি

ছবি

কমলাপুর স্টেশনে বেড়েছে যাত্রীর চাপ, টিকেট ছাড়া প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা

tab

নগর-মহানগর

আলোচনা সভায় বক্তাদের অভিমত

বায়ু দূষণ প্রতিরোধে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ২৮ মার্চ ২০২৩

ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এবং সমকাল আয়োজিত ‘বায়ু দূষণের প্রভাব : আমরা কী করতে পারি’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় বক্তারা বলেছেন, বায়ু দূষণ প্রতিরোধে বিদ্যমান আইন কঠোরভাবে প্রয়োগ করতে হবে এবং পাশাপাশি বায়ু দুষনের বিরুদ্ধে তরুণদের সক্রিয় আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে।

আজ মঙ্গলবার (২৮শে মার্চ) রাজধানীর তেজগাঁয়ে সমকাল কার্যালয়ে এ আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সমকালের সহযোগী সম্পাদক শেখ রোকনের সঞ্চালনায় সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার। প্যানেল আলোচক হিসেবে বক্তব্য দেন ইমেরটাস অধ্যাপক এবং পানি সম্পদ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিশেষজ্ঞ ড. আইনুন নিশাত, জাতীয় হৃদরোগ ইন্সটিটিউটের শিশু হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক ডা. আব্দুল্লাহ শাহরিয়ার, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ও রেসপিরেটরি মেডিসিন বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা. মোহাম্মদ আতিকুর রহমান এবং স্ট্যামফোর্ড ইউনিভার্সিটির পরিবেশ বিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান ও বিজ্ঞান অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. আহমদ কামরুজ্জামান মজুমদার। এছাড়াও বক্তব্য দেন ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশ এর অপারেশনস অ্যান্ড প্রোগ্রাম কোয়ালিটি সিনিয়র ডিরেক্টর চন্দন যেড গোমেজ, শিক্ষক ও কলামিস্ট মুফতি এনায়েতুল্লাহ, আরবান ইয়ুথ ফোরামের সভাপতি সজীব মিয়া, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ওয়াহিদা আহমেদ, আহসান উল্লাহ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী রিয়াদ, শিশু ফোরামের কনক রায় প্রমূখ।

সাম্প্রতিক এক প্রতিবেদন উদ্বৃত করে আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, রাজধানী ঢাকার বাতাস এখন জনস্বাস্থ্যের জন্য বড় হুমকি। এতে শিশু থেকে শুরু করে সকল বয়সী মানুষ শ্বাসতন্ত্রের সংক্রমণসহ বিভিন্ন ধরণের জটিল রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। বায়ু দূষণের কারণে মানুষের তাৎক্ষণিক মৃত্যু না হলেও তা ধীরে ধীরে মৃত্যুর দিকে এগিয়ে নেয়। বায়ু দূষণের অন্যতম কারণ বিভিন্ন উন্নয়ন কাজ। এছাড়া অপরিকল্পিত ইটভাটা, ফিটনেসবিহীন গাড়ি ও অতিরিক্ত যানবাহন বায়ু দূষণের জন্যও দায়ী। অবকাঠামোগত উন্নয়নে বিভিন্ন দপ্তরের আন্তঃসমন্বয়হীনতাও কম দায়ী নয় বলে তারা বলেন।

back to top