alt

অপরাধ ও দুর্নীতি

হাইকোর্ট বলছে, অর্থ পাচারের মাস্টারমাইন্ড খন্দকার মোহতেশাম

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট : মঙ্গলবার, ১৪ জুন ২০২২

খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরের জামিন প্রশ্নে রুল শুনানিতে হাইকোর্ট বলেছে, দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে করা মামলায় সংঘটিত অপরাধের মাস্টারমাইন্ড তিনি।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এমন মন্তব্য করেন। খন্দকার মোহতেশাম সাবেক স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ভাই।

আদালত বলেছে, ‘তিনি (মোহতেশাম) একটি সিন্ডেকেট চালাতেন বলে আসামিদের জবানবন্দিতে এসেছে। তাঁর এসব কর্মকাণ্ডের জন্য সরকার ও দেশের মানুষের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। তিনি অন্য আসামিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন, পরামর্শদাতাও ছিলেন। তিনি রিং লিডার। এ ধরনের আসামিদের কেন জামিন দেব?’

শুনানি নিয়ে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করার অভিপ্রায় জানালে মোহতেশামের আইনজীবী আবেদনটি না চালানোর কথা বলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে না চালানোর দিক বিবেচনায় আবেদনটি খারিজ (রুল ডিসচার্জ) করে দেন হাইকোর্ট।

ওই মামলায় বিচারিক আদালতে বিফল হয়ে হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন মোহতেশাম। এর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ১৭ মে হাইকোর্ট মোহতেশামের জামিন প্রশ্নে রুল দেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ শুনানি হয়। আদালতে মোহতেশামের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সৈয়দ মিজানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন শুনানি করেন।

শুনানিতে সৈয়দ মিজানুর রহমান বলেন, মোহতেশামের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ নেই। মানি লন্ডারিং সংজ্ঞার উপাদান এই মামলায় নেই। তাঁর চাঁদাবাজি করার কোনো প্রয়োজন নেই। তাঁর শ্বশুর মন্ত্রী ছিলেন। তাঁর পরিবারও অভিজাত।

এই আইনজীবীর উদ্দেশে একপর্যায়ে আদালত বলেন, ‘এজাহার, অভিযোগপত্র ও আসামিদের দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি পর্যালাচেনায় দেখা যাচ্ছে, আপনি (মোহতেশাম) একজন মন্ত্রীর ভাই। আপনি একটি সিন্ডিকেট চালাতেন। আপনার একটা নেতৃত্ব রয়েছে। এলজিইডি থেকে শুরু করে এমন কোনো দপ্তর নেই, যেখানে টেন্ডারবাজি করেননি।’

এ সময় সৈয়দ মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি (মোহতেশাম) মন্ত্রীর ভাই এটি ঠিক। তবে অপপ্রচারের শিকার। মিডিয়ার মাধ্যমে বিচার করলে হবে না।’ আদালত বলেন, ‘আপনি (মোহতেশাম) অপরাধী কি না, তা বিচারে প্রমাণিত হবে। তবে নথিতে অপরাধের প্রাথমিক উপাদান রয়েছে।’

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন শুনানিতে বলেন, অর্থ পাচার সংঘবদ্ধ একটি অপরাধ। এই মামলায় অপরাধের প্রধান হোতা মোহতেশাম। তাঁর নেতৃত্বেই সিন্ডিকেট চলেছে।

খন্দকার মোহতেশাম ফরিদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। বরকত ও রুবেলের বিরুদ্ধে সিআইডির কর্মকর্তা বাদী হয়ে ২০২০ সালের ২৬ জুন কাফরুল থানায় অর্থ পাচারের অভিযোগে মামলা করেন। ওই মামলায় গত বছরের ৩ মার্চ বরকত, রুবেলসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়। অর্থ পাচারের মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি মোহতেশামকে গত ৮ মার্চ রাজধানী থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

ছবি

পদ্মা সেতুর নাট-বল্টু খোলা নিয়ে যা বলল সিআইডি

ছবি

পদ্মা সেতুর বিরোধিতাকারীরা জাতির শত্রু, তাদের চিহ্নিত করা দরকার: হাইকোর্ট

সোনাইমুড়ীতে আ’লীগের দু’গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত-৯

অর্থ আত্মসাৎ : গাজীপুরের সাবেক মেয়র জাহাঙ্গিরের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু

ছবি

ভারতে আশ্রয় নিয়েছিল শেখ হাসিনা হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি পিন্টু

ছবি

পদ্মা সেতু নিয়ে গুজবের শিকার রেনুর পরিবার কেমন আছে

ছবি

মোবাইলের আইএমইআই নম্বর পরিবর্তন করে বেশি দামে বিক্রি করত তারা

হাতিয়ার মেঘনাপাড় থেকে আগ্নেয়াস্ত্র উদ্ধার

১৮ বছর পর গৃহবধূ গণধর্ষণ মামলার রায় : ২ জনের যাবজ্জীবন

ছবি

মুক্তিযোদ্ধা হোসেন হত্যা: ৬ জেএমবির ফাঁসির রায়

ছবি

অর্থ আত্মসাৎ: ওয়াসার এমডিসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলার আবেদন

র‌্যাবকে ঘুষ দিতে গিয়ে মামলার আসামি

মহাসড়কে ব্যারিকেড দিয়ে সোয়াবিন ভর্তি ট্রাক ছিনতাই

ছবি

১৫ পর কৃষক হত্যার রায়, ৮ জনের যাবজ্জীবন

ময়মনসিংহের ছোট ভাইয়ের দায়ের কোপে বড় ভাই নিহত

ছবি

‘এমন আচরণ রাষ্ট্রের জন্য কলঙ্ক’

সিরাজগঞ্জে হেরোইন বহনের দায়ে দু’জনের যাবজ্জীবন

ছবি

সাতক্ষীরায় আ. লীগ নেতা মোশাররফ হোসেন গুলিবিদ্ঘধ, হাসপাতালে ভর্তি

পাবনা জেনারেল হাসপাতালে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সামগ্রী ক্রয়ে দুর্নীতি!

ছবি

নন্দীগ্রামের জীবন কুমারের আত্মহত্যায় প্ররোচনাকারীদের শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত পলাতক আসামি গ্রেপ্তার

ছবি

হানিফের হেলপার নিহতের ঘটনায় শতাব্দীর বাসচালক গ্রেপ্তার

নোয়াখালীতে অটোরিকশা চোর চক্রের ৯সদস্য গ্রেপ্তার

পুলিশ পরিচয়ে বিদেশ ফেরত যাত্রীর গাড়িতে ডাকাতি সর্বস্ব লুট

ছবি

ড. কামালের কর ফাঁকি নিয়ে রিটের আদেশ ২১ জুন

ছবি

উত্তরা থেকে ‘ধর্ষক’ গ্রেপ্তার

সাইবার অপরাধ বাড়ছে, ৬ মাসে ৪ হাজার অভিযোগ

যুক্তরাস্ট্টে দোকানের সামনেই গুলি করে নোয়াখালীর মাহফুজ হত্যা

ছবি

ঋন নিয়ে আত্মসাত: পিকে সহ ২৩ জনের নামে চার্জশিট দিচ্ছে দুদক

ছবি

চিকিৎসক বুলবুল হত্যা: প্রধান আসামি রিপন গ্রেপ্তার

ছবি

দুই মামলায় স্থায়ী জামিন পেলেন খালেদা জিয়া

মহেশখালীতে হিন্দু পাড়ায় পরাজিত মেম্বার প্রার্থীর হামলায় আহত - ৭

ছবি

জাজিরায় ভোটে পরাজিত প্রার্থীর হামলা; পুলিশের গুলিতে শিশু সহ আহত ৩

ছবি

দুদকের মামলায় ময়মনসিংহের সাবেক ওসি কারাগারে

বগুড়ার নন্দীগ্রামে স্ত্রী ও সম্বন্ধীর প্রতারণার শিকার হয়ে যুবকের আত্মহত্যা

ছবি

ভবন হস্তান্তর : তুরিন আফরোজকে শোকজ

tab

অপরাধ ও দুর্নীতি

হাইকোর্ট বলছে, অর্থ পাচারের মাস্টারমাইন্ড খন্দকার মোহতেশাম

সংবাদ অনলাইন রিপোর্ট

মঙ্গলবার, ১৪ জুন ২০২২

খন্দকার মোহতেশাম হোসেন বাবরের জামিন প্রশ্নে রুল শুনানিতে হাইকোর্ট বলেছে, দুই হাজার কোটি টাকা পাচারের অভিযোগে করা মামলায় সংঘটিত অপরাধের মাস্টারমাইন্ড তিনি।

বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ আজ মঙ্গলবার এমন মন্তব্য করেন। খন্দকার মোহতেশাম সাবেক স্থানীয় সরকারমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেনের ভাই।

আদালত বলেছে, ‘তিনি (মোহতেশাম) একটি সিন্ডেকেট চালাতেন বলে আসামিদের জবানবন্দিতে এসেছে। তাঁর এসব কর্মকাণ্ডের জন্য সরকার ও দেশের মানুষের ভাবমূর্তি নষ্ট হয়েছে। তিনি অন্য আসামিদের আশ্রয়-প্রশ্রয় দিয়েছেন, পরামর্শদাতাও ছিলেন। তিনি রিং লিডার। এ ধরনের আসামিদের কেন জামিন দেব?’

শুনানি নিয়ে আদালত জামিন আবেদন খারিজ করার অভিপ্রায় জানালে মোহতেশামের আইনজীবী আবেদনটি না চালানোর কথা বলেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে না চালানোর দিক বিবেচনায় আবেদনটি খারিজ (রুল ডিসচার্জ) করে দেন হাইকোর্ট।

ওই মামলায় বিচারিক আদালতে বিফল হয়ে হাইকোর্টে জামিন চেয়ে আবেদন করেন মোহতেশাম। এর প্রাথমিক শুনানি নিয়ে গত ১৭ মে হাইকোর্ট মোহতেশামের জামিন প্রশ্নে রুল দেন। এর ধারাবাহিকতায় আজ শুনানি হয়। আদালতে মোহতেশামের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী সৈয়দ মিজানুর রহমান। রাষ্ট্রপক্ষে ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন শুনানি করেন।

শুনানিতে সৈয়দ মিজানুর রহমান বলেন, মোহতেশামের বিরুদ্ধে সুনির্দিষ্ট কোনো অভিযোগ নেই। মানি লন্ডারিং সংজ্ঞার উপাদান এই মামলায় নেই। তাঁর চাঁদাবাজি করার কোনো প্রয়োজন নেই। তাঁর শ্বশুর মন্ত্রী ছিলেন। তাঁর পরিবারও অভিজাত।

এই আইনজীবীর উদ্দেশে একপর্যায়ে আদালত বলেন, ‘এজাহার, অভিযোগপত্র ও আসামিদের দোষ স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি পর্যালাচেনায় দেখা যাচ্ছে, আপনি (মোহতেশাম) একজন মন্ত্রীর ভাই। আপনি একটি সিন্ডিকেট চালাতেন। আপনার একটা নেতৃত্ব রয়েছে। এলজিইডি থেকে শুরু করে এমন কোনো দপ্তর নেই, যেখানে টেন্ডারবাজি করেননি।’

এ সময় সৈয়দ মিজানুর রহমান বলেন, ‘আমি (মোহতেশাম) মন্ত্রীর ভাই এটি ঠিক। তবে অপপ্রচারের শিকার। মিডিয়ার মাধ্যমে বিচার করলে হবে না।’ আদালত বলেন, ‘আপনি (মোহতেশাম) অপরাধী কি না, তা বিচারে প্রমাণিত হবে। তবে নথিতে অপরাধের প্রাথমিক উপাদান রয়েছে।’

ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন শুনানিতে বলেন, অর্থ পাচার সংঘবদ্ধ একটি অপরাধ। এই মামলায় অপরাধের প্রধান হোতা মোহতেশাম। তাঁর নেতৃত্বেই সিন্ডিকেট চলেছে।

খন্দকার মোহতেশাম ফরিদপুর সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ছিলেন। বরকত ও রুবেলের বিরুদ্ধে সিআইডির কর্মকর্তা বাদী হয়ে ২০২০ সালের ২৬ জুন কাফরুল থানায় অর্থ পাচারের অভিযোগে মামলা করেন। ওই মামলায় গত বছরের ৩ মার্চ বরকত, রুবেলসহ ১০ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র জমা দেওয়া হয়। অর্থ পাচারের মামলার অভিযোগপত্রভুক্ত আসামি মোহতেশামকে গত ৮ মার্চ রাজধানী থেকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

back to top